ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

দেখে নিন বাংলাদেশের বাজারে ২০১৯ জুলাই মাসের রিলিজ পাওয়া ফোন গুলো – ভালো-মন্দ, দামদর এবং আরো অনেক কিছু

বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস কমিউনিটির সবাই ভালো আছেন নিশ্চই। আজকে আমি ২০১৯  এর জুলাই মাসে বাংলাদেশের বাজারে রিলিজ পাওয়া ফোন গুলো নিয়ে আলোচনা করবো। আর এই আলোচনায় প্রতিটি ফোনের স্পেসিফিকেশন, ভাল দিক, মন্দ দিক, দাম কম অথবা বেশি ইত্যাদি দিক বিবেচনা করা আলোচনা করবো।

ADs by Techtunes ADs

আর কথা না বাড়িয়ে আসল আলোচনায় আসা যাক, আমার এই টিউনের যে ফোন গুলো নিয়ে আলোচনা করা হবে তার লিস্ট নিম্নে দেওয়া হল।

  1. Vivo Z1 Pro
  2. Xiaomi Mi A3
  3. Xiaomi Mi CC9e
  4. Xiaomi Mi CC9
  5. Realme X
  6. Realme 3i
  7. Vivo S1
  8. Vivo Y90
  9. Symphony B65
  10. Symphony D37
  11. HTC Desire 19+
  12. Symphony i97
  13. Tecno Pop 2F
  14. Symphony BL97
  15. Walton Primo NH4
  16. Walton Primo S7
  17. Walton Primo NF4 Turbo
  18. Walton Primo F9
  19. Lava Iris 52

Vivo Z1 Pro

মূল্য
২২০০০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
6 GB
SDM712 Snapdragon
6.53 inches
1080 x 2340 pixels
Android 9.0 (Pie),
Funtouch 9
128GB
MicroSD
ব্র্যান্ডVivoমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, JulyTripleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July16 MPLED Flash2160p201 g8.9 mmDouble
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেল1951Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
32 MP1080p5000 mAhLi-Po

জুলাই মাসে Vivo Z1 Pro বাজারে আসে, এই ফোনটি মিড রেঞ্জ এর মধ্যে খুবই ভাল কনফিগারেশন অফার করছে। Vivo Z1 Pro অসাধারন ডিজাইন এবং এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিস্প্লে, ট্রিপল ক্যামেরা, আর হিউজ ব্যাটারি ক্যাপাসিটি এবং ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। Vivo Z1 Pro ফোনটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Sonic Blue, Sonic Black, Mirror Black এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ৬৪/১২৮ জিবি এবং র‍্যাম ৪/৬ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন: লিংক

Vivo Z1 Pro ফোনের ভালো দিক

Vivo Z1 Pro এর ভালো দিকের মধ্যে সর্বপ্রথম এর দাম অন্যান্য ব্রান্ডের তুলনায় কম এবং কনফিগারেশন তুলনামূলক কিছুটা বেশি, যেমন এই রেঞ্জের মধ্যে Realme X এর দাম ২১০০০ হলেও Vivo Z1 Pro ফোন এর অনেক বেশি ফিচার বিদ্যমান। আর যারা হ্যাভি ইউজার আছেন তাদের জন্য Vivo Z1 Pro ফোনটি সারাদিন ব্যাকআপ দিবে বলে আশা করা যায় কেননা এর রয়েছে 5000 mAh হিউজ ব্যাটারি ক্যাপাসিটি এবং ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। আর যারা ফটো তুলতে পছন্দ করেন তারাও এই ফোনটি থেকে খুবই ভাল মানের ফটো তুলতে পারবেন কারন এর রয়েছে তিনটি ক্যামেরা যার মাধ্যমে আপনি খুব সুন্দর পোর্ট্রেইট ফটো তুলতে পারবেন।

Vivo Z1 Pro ফোনের মন্দ দিক

Vivo Z1 Pro ফোনের ডিসপ্লে এর সাইজ ৬.৫৩ ইঞ্চি যা আপনার ব্যাটারি ব্যাকআপ এর উপর প্রভাব ফেলবে, যদি আপনি হ্যাভি ইউজার হন, সারাদিন গেম খেলেন, ভিডিও দেখেন তাহলে দিনে আপনাকে দুই বার চার্জ দেয়া লাগতে পারে। আর এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট আর হ্যাভি ইউজার দের জন্য ফোনটি এভারেজ বলা যায়।

Xiaomi Mi A3

মূল্য
১৯৯৯৯ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
4 GB
SDM665 Snapdragon
6.01 inches
720 x 1560 pixels
Android 9.0 (Pie);
Android One
64/128 GB
MicroSD
ব্র্যান্ড

Xiaomi

ADs by Techtunes ADs
মেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, JulyTripleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July48 MPLED Flash2160p173.8 g8.5mmDouble
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেল

Mi A3

Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
32 MPHDR1080p4030 mAhLi-Po

জুলাই মাসে Xiaomi Mi A3 বাজারে আসে, এই ফোনটি লো মিড রেঞ্জ এর মধ্যে খুবই ভাল কনফিগারেশন অফার করছে। Xiaomi Mi A3 অসাধারন ডিজাইন এবং এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে Super AMOLED বিগ ডিস্প্লে, ট্রিপল ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 32 MP এবং 4030 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি সহ রয়েছে ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। Xiaomi Mi A3 ফোনটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Kind of Gray, Not just Blue, More than White এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ৬৪/১২৮ জিবি এবং র‍্যাম ৪ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন: লিংক

Xiaomi Mi A3 ফোনের ভালো দিক

Xiaomi ব্রান্ডের একটা ভাল দিক হচ্ছে তারা অনান্য ব্রান্ডের তুলনায় কম দামে হাই কনফিগারেশন স্মার্টফোন বাজারে অফার করে, তারই ধারাবাহিকতায় Xiaomi Mi A3 ফোনটি বাজারে আনে। আর এই ফোনটির ভাল দিকের মধ্যে রয়েছে Super AMOLED বিগ ডিস্প্লে, ডিস্প্লেতেই রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, অসাধারন ব্যাটারি লাইফ কেননা এর রয়েছে 4030 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি এবং ফাস্ট চার্জিং সুবিধা, ট্রিপল ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 32 MP যার ফলে আপনি খুব সুন্দর পোর্ট্রেইট ফটো এবং সেলফি তুলতে পারবেন।

Xiaomi Mi A3 ফোনের মন্দ দিক

আমার কাছে এই ফোনের ব্যাটারি ক্যাপাসিটি কিছুটা কম মনে হয়েছে এর ডিস্প্লে সাইজের তুলনায়, ফলে যারা হ্যাভি ইউজার আছেন তাদের দিনে দুই থেকে তিন বারের মত চার্জ দিতে হতে পারে, তবে যারা মিড ইউজার বা সাধারণ ব্যবহারকারী আছেন তারা নিশ্চিন্তে একদিন ব্যবহার করতে পারবেন।

Xiaomi Mi CC9e

মূল্য
১৮৯৯৯ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
4/6 GB
SDM665 Snapdragon
6.01 inches
720 x 1560 pixels
Android 9.0 (Pie);
MIUI 10
64/128 GB
MicroSD
ব্র্যান্ড

Xiaomi

মেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, JulyTripleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July48 MPLED Flash2160p173.8 g8.5mmDouble
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলMi CC9eSingleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
32 MPHDR1080p4030 mAhLi-Po

জুলাই মাসে Xiaomi Mi CC9e বাজারে আসে, এই ফোনটি লো-মিড রেঞ্জ এর মধ্যে খুবই ভাল কনফিগারেশন অফার করছে। মূলত Xiaomi Mi A3 এবং Xiaomi Mi CC9e এর কনফিগারেশন সম্পুর্ন একই তবে এদের মধ্যে মূল পার্থক্য হল- A3 android one এবং CC9e হল কাস্টমাইজ অ্যান্ড্রয়েড MIUI 10 সাপোর্টেড। Xiaomi Mi CC9e এর অসাধারন ডিজাইন এবং এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে Super AMOLED বিগ ডিস্প্লে ট্রিপল ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 32 MP এবং 4030 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি সহ রয়েছে ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। Xiaomi Mi CC9e ফোনটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Black, Blue, White এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ৬৪/১২৮ জিবি এবং র‍্যাম ৪/৬ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন: লিংক

Xiaomi Mi CC9e ফোনের ভালো দিক

Xiaomi Mi CC9 তে 6.39 inches এর একটি বড় ডিসপ্লে ব্যাহার করা হয়েছে এবং এতে Super AMOLED এর ডিসপ্লে ব্যবহার করায় সবকিছুই কালারফুল দেখতে পাবেন। আর এই ডিসপ্লেটির প্রটেকশনের জন্য ব্যবহার করা হয়েছে Corning Gorilla Glass 5। এছাড়াও এই ফোনের উপরের দিকে পেয়ে যাবেন ছোট একটি U নচ।  Xiaomi Mi CC9 তে Snapdragon এর হাই কোয়ালিটি  প্রসেসর ব্যবহার করায় এর পারফর্মেন্স অনেক ভালো  পাবেন এবং এতে যেকোনো গেম অনায়াসে খেলা যাবে। এছাড়াও এতে 4030 mAh এর হিউজ ব্যাটারি ক্যাপাসিটি থাকায়, এটি একবার চার্জ করলে অনেকক্ষণ ইন্টারনেট ব্রাউজিং, গেম খেলা এবং মাল্টি টাস্কিং এর মত কাজগুলো অনায়েসে করতে পারবেন।

ADs by Techtunes ADs

Xiaomi Mi CC9e ফোনের মন্দ দিক

আমার কাছে এই ফোনের ব্যাটারি ক্যাপাসিটি কিছুটা কম মনে হয়েছে এর ডিস্প্লে সাইজের তুলনায়, ফলে যারা হ্যাভি ইউজার আছেন তাদের দিনে দুই থেকে তিন বারের মত চার্জ দিতে হতে পারে, তবে যারা মিড ইউজার বা সাধারণ ব্যবহারকারী আছেন তারা নিশ্চিন্তে একদিন ব্যবহার করতে পারবেন।

Realme X

মূল্য
২২৯৯৯ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
4/6/8 GB
SDM710 Snapdragon
6.53 inches
1080 x 2340 pixels
Android 9.0 (Pie);
ColorOS 6
64/128 GB
MicroSD
ব্র্যান্ড

Oppo

মেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, JulyDualফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July48 MPLED Flash2160p191 g8.6mmDouble
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলRealme XSingleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
pop-up 16 MPHDR1080p3765 mAhLi-Po

জুলাই মাসে Realme X বাজারে আসে, এই ফোনটি মিড রেঞ্জ এর মধ্যে মোটামুটি ভাল কনফিগারেশন অফার করছে।  Oppo Realme X এর অসাধারন ডিজাইন এবং এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে Super AMOLED বিগ ডিস্প্লে, ডুয়াল ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে pop-up 16 MP এবং 3765 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি সহ রয়েছে ফাস্ট চার্জিং সুবিধা যার মাধ্যমে আপনি ৫০% চার্জ দিতে মাত্র ৩০ মিনিট লাগবে। Oppo Realme X ফোনটি দুইটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Steam white, Punk Blue এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ৬৪/১২৮ জিবি এবং র‍্যাম ৪/৬/৮ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন: লিংক

Realme X ফোনের ভালো দিক

আপনারা জানেন যে, Oppo ব্রান্ড এর সাব ব্রান্ড হিসেবে Realme এর আগমন, আর এই ব্রান্ডের মূল লক্ষ্যই হল কম মূল্যে ভাল ফোন বাজারে আনা। আর এরই ধারাবাহিকতায় বাজারে Oppo Realme X এর বাজারজাত করেছে। আর এই ফোনটির ভাল দিকের মধ্যে রয়েছে AMOLED বিগ ডিস্প্লে যার মাধ্যমে আপনি আরও ঝকঝকে কালার এবং ভালো ব্যাটারি ব্যাকআপ পাবেন কেননা AMOLED ডিস্প্লে কম চার্জ কঞ্জিউম করে, এছাড়াও এর ডিস্প্লেতেই রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর,  3765 mAh  কিছুটা কম ব্যাটারি ক্যাপাসিটি হলেও ফাস্ট চার্জিং সুবিধা মাধ্যমে পুসিয়ে দিবে, পিছনে আছে ডুয়েল ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে pop-up 16 MP যার ফলে আপনি খুব সুন্দর পোর্ট্রেইট ফটো এবং সেলফি তুলতে পারবেন।

Realme X ফোনের মন্দ দিক

যদিও Realme এর মূল লক্ষ্যই কম মূল্যে ভাল কনফিগারেশন এর ফোন বাজারে আনা কিন্তু আমার কাছে মনে হল তারা তাতে ব্যর্থ হয়েছে। কেননা এই দামে Realme দিচ্ছে ডুয়েল ক্যামেরা, কম ব্যাটারি ক্যাপাসিটি কিন্তু এর থেকেও কিছুটা কম দামে আপনি আরো ভালো কনফিগারের ফোন কিনতে পারবেন। এই ফোনটি সাধারণ ব্যবহারকারীরা মোটামুটি ভালো ভাবেই ব্যবহার করতে পারবেন কিন্তু হ্যাভি ইউজার এর জন্য এটা আদর্শ ফোন নয়।

Realme 3i

মূল্য
১২৫০০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
3/4 GB
MT6771 Helio P60
6.2 inches
720 x 1520 pixels
Android 9.0 (Pie);
ColorOS 6
32/64 GB
MicroSD
ব্র্যান্ড

Oppo

মেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, JulyDualফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July13 MPLED Flash1080p175 g 8.3mmDouble
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলRealme 3iSingleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
13 MPHDR1080p4230 mAhLi-Po

জুলাই মাসে Realme 3i বাজারে আসে, এই ফোনটি লো রেঞ্জ এর মধ্যে মোটামুটি ভাল কনফিগারেশন অফার করছে।  Oppo Realme 3i এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে IPS LCD capacitive বিগ ডিস্প্লে, ডুয়াল ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 13 MP এবং 4230 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি। Oppo Realme X ফোনটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Diamond Blue, Diamond Red, Diamond Blacke এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ 32/64 জিবি এবং র‍্যাম ৩/৪ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

ADs by Techtunes ADs

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন: লিংক

Realme 3i ফোনের ভালো দিক

আমরা সবাই এখন বিগ ডিসপ্লে পছন্দ করি আর সেই দিকে নজর রেখে Oppo Realme X বাজারজাত করেছে। আর এই ফোনটির ভাল দিকের মধ্যে রয়েছে IPS LCD capacitive বিগ ডিস্প্লে, 4230 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি, পিছনে আছে ডুয়েল ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 13 MP যার ফলে আপনি খুব সুন্দর ফটো এবং সেলফি তুলতে পারবেন।

Realme 3i ফোনের মন্দ দিক

কম দামের মধ্যে ফোনটির কনফিগারেশন আশানুরুপ হলেও এর কিছু মন্দ দিক বিদ্যমান। ব্যাটারি ক্যাপাসিটি 4230 mAh হলেও এই ফোনে নেই কোন ফাস্ট চার্জিং সুবিধা ফলে ফোনটি ফুল চার্জ করা খুবই সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। নিম্ন মানের চিপসেট এর কারনে মাল্টি টাস্কিং এ ল্যাগ হতে পারে এবং এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট আর হ্যাভি ইউজার দের জন্য ফোনটি এটা আদর্শ ফোন নয়।

Vivo S1

মূল্য
২৮৯৯০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
4/6 GB
Mediatek MT6768
6.38 inches
1080 x 2340 pixels
Android 9.0 (Pie),
Funtouch 9
128GB
MicroSD
ব্র্যান্ডVivoমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, JulyTripleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July16 MPLED Flash1080p179g8.1mmDouble
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলS1Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
32 MP1080p4500 mAhLi-Po

জুলাই মাসে Vivo S1 বাজারে আসে, এই ফোনটি মিড রেঞ্জ এর মধ্যে খুবই ভাল কনফিগারেশন অফার করছে। Vivo Z1 Pro অসাধারন ডিজাইন এবং এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে Super AMOLED বিগ ডিস্প্লে, ট্রিপল ক্যামেরা, আর হিউজ ব্যাটারি ক্যাপাসিটি এবং ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। Vivo S1 ফোনটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Diamond Black, Skyline Blue, Cosmic Green এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ১২৮ জিবি এবং র‍্যাম ৪/৬ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন: লিংক

Vivo S1 ফোনের ভালো দিক

Vivo S1 এর ভালো দিকের মধ্যে সর্বপ্রথম এর দাম অন্যান্য ব্রান্ডের তুলনায় কম এবং কনফিগারেশন তুলনামূলক কিছুটা বেশি। আর যারা হ্যাভি ইউজার আছেন তাদের জন্য Vivo S1 ফোনটি সারাদিন ব্যাকআপ দিবে বলে আশা করা যায় কেননা এর রয়েছে 4500 mAh হিউজ ব্যাটারি ক্যাপাসিটি এবং ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। আর যারা ফটো তুলতে পছন্দ করেন তারাও এই ফোনটি থেকে খুবই ভাল মানের ফটো তুলতে পারবেন কারন এর রয়েছে তিনটি ক্যামেরা যার মাধ্যমে আপনি খুব সুন্দর পোর্ট্রেইট ফটো সাথে ভালো মানের সেলফি ও তুলতে পারবেন।

Vivo S1 ফোনের মন্দ দিক

Vivo S1 ফোনের ডিসপ্লে এর সাইজ ৬.৩৮ ইঞ্চি যা আপনার ব্যাটারি ব্যাকআপ এর উপর প্রভাব ফেলবে, যদি আপনি হ্যাভি ইউজার হন, সারাদিন গেম খেলেন, ভিডিও দেখেন তাহলে দিনে আপনাকে দুই বার চার্জ দেয়া লাগতে পারে। আর এর চিপসেট হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে নিম্ন মানের Mediatek MT6768 ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট আর হ্যাভি ইউজার দের জন্য ফোনটি এভারেজ বলা যায়।

Vivo Y90

মূল্য
১০৯৯০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
2 GB
Mediatek MT6761
6.22 inches
720 x 1520 pixels
Android 8.1 (Oreo);
Funtouch 4.5
16/32 GB
MicroSD
ব্র্যান্ডVivoমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Singleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July8 MPLED Flash1080p163.5 g 8.3mmDouble
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলY90Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
5 MP1080p4030 mAhLi-Po

জুলাই মাসে Vivo Y90 বাজারে আসে, এই ফোনটি লো রেঞ্জ এর মধ্যে ভাল কনফিগারেশন অফার করছে। Vivo Y90 এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিসপ্লে, ওয়াটার ড্রপ নচ, সিঙ্গেল ক্যামেরা, আর ভালো ব্যাটারি ক্যাপাসিটি ইত্যাদি। Vivo Y90 ফোনটি দুইটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Black, Gold এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ১৬/৩২ জিবি এবং র‍্যাম ২ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

ADs by Techtunes ADs

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন: লিংক

Vivo Y90 ফোনের ভালো দিক

Vivo Y90 ফোনটির ভালো দিকগুলোর মধ্যে আছে বিগ ডিসপ্লে, ওয়াটার ড্রপ নচ, ফিঙ্গার প্রিন্ট সিকিউরিটি, বেশি ব্যাটারি ক্যাপাসিটি, দাম কম আর প্রিমিয়াম লুক। যারা খুবই সাধারণ ইউজার তারা এই ফোনটি নিশ্চিন্তে কিনতে পারেন।

Vivo Y90 ফোনের মন্দ দিক

Vivo Y90 এর খারাপ দিক গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে এবং এর ফাস্ট চার্জিং সুবিধা নেই যার ফলে এই ফোন ফুল চার্জ করা খুবই সময়সাধ্য ব্যাপার। এর চিপসেট হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে নিম্ন মানের Mediatek MT6768 ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট।

Symphony B65

মূল্য
৮৫০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
32 MB1.77” QQVGA display-24 MB
MicroSD
ব্র্যান্ডSymphonyমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Singleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July0.08MP----Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলB65-ফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
---1000mAh-Li-ion

জুলাই মাসে Symphony B65 বাজারে আসে, আর এই ফোনটি হতে পারে আপনার রাফ এন্ড টাফ ব্যবহৃত ফোন। আবার বাবা, মা, দাদা এবং দাদির জন্য হতে পারে একটি পারফেক্ট ফোন কেননা তারা টাচস্কিন ফোন চালাতে পারেনা।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Symphony B65 ফোনের ভালো দিক

Symphony B65 ফোনটি ফিচার ফোন আর এর দাম খুবই কম। এই দামে যে ফিচার গুলো দিয়েছে তা সবই ভালো। Symphony B65 এর ভালো দিক গুলো যথাক্রমেঃ ব্লাক লিস্ট, কল রেকর্ডার, ম্যাজিক ভয়েস, ওয়্যারলেস এফ এম ইত্যাদি।

Symphony B65 ফোনের মন্দ দিক

Symphony B65 এর মন্দ দিকের মধ্যে এর ব্যাটারি ক্যাপাসিটি খুবই কম, যা মাত্র 1000mAh ফলে আপনাকে এর চার্জিং ব্যাকআপ নিয়ে একটু চিন্তা করতে হবে।

Symphony D37

মূল্য
৯৫০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
32 MB2.4” QVGA display-24 MB
MicroSD
ব্র্যান্ডSymphonyমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Singleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July0.08MP----Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলD37-ফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
---1000mAh-Li-ion

জুলাই মাসে Symphony D37 বাজারে আসে, আর এই ফোনটি হতে পারে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের পাশাপাশি ব্যবহৃত ফোন। আবার বাসার বৃদ্ধদের জন্য হতে পারে একটি পারফেক্ট ফোন।

ADs by Techtunes ADs

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Symphony D37 ফোনের ভালো দিক

Symphony D37 ফোনটি ফিচার ফোন আর ফিচার ফোনে কি ধরনের ফিচার থাকবে তা আমাদের সবারই জানা। Symphony D37 এর ভালো দিক গুলো যথাক্রমেঃ ব্লাক লিস্ট, কল রেকর্ডার, ম্যাজিক ভয়েস, ওয়্যারলেস এফ এম ইত্যাদি।

Symphony D37 ফোনের মন্দ দিক

Symphony D37 এর মন্দ দিকের মধ্যে এর ব্যাটারি ক্যাপাসিটি কম যা মাত্র 1000mAh, ফলে আপনাকে এর চার্জিং ব্যাকআপ নিয়ে একটু চিন্তা করতে হবে।

HTC Desire 19+

মূল্য
২৬৯৯০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
4/6 GB
Mediatek MT6765
6.2 inches
720 x 1440 pixels
Android 9.0 (Pie)64/128 GB
MicroSD
ব্র্যান্ড

HTC

মেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, JulyTripleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July13 MPLED Flash1080p170 g8.5mmDouble
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলDesire 19+Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
16 MPHDR1080p3850 mAhLi-Po

জুলাই মাসে HTC Desire 19+ বাজারে আসে, এই ফোনটি মিড রেঞ্জ এর মধ্যে মোটামুটি ভাল কনফিগারেশন অফার করছে।  HTC Desire 19+ এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে IPS LCD capacitive বিগ ডিস্প্লে, ট্রিপল ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 16 MP এবং 3850 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি। HTC Desire 19+ ফোনটি দুইটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Star Can Blue, Jasmine White এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ 64/128 জিবি এবং র‍্যাম 4/6 জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

HTC Desire 19+ ফোনের ভালো দিক

আমরা সবাই এখন বিগ ডিসপ্লে ফোন কিনতে চাই আর HTC Desire 19+ এই ফোনটির ভাল দিকের মধ্যে রয়েছে IPS LCD capacitive বিগ ডিস্প্লে, নচ, 3850 mAh ভালো ব্যাটারি ক্যাপাসিটি, পিছনে আছে ট্রিপল ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 16 MP যার ফলে আপনি অনায়েসেই খুব সুন্দর ফটো এবং সেলফি তুলতে পারবেন।

HTC Desire 19+ ফোনের মন্দ দিক

কম দামের মধ্যে ফোনটির কনফিগারেশন আশানুরুপ হলেও এর কিছু মন্দ দিক বিদ্যমান। মন্দ দিকের মধ্যে উল্লেখযোগ্য এর ব্যাটারি ক্যাপাসিটি 3850 mAh হলেও এই ফোনে নেই কোন ফাস্ট চার্জিং সুবিধা ফলে ফোনটি ফুল চার্জ করা খুবই সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। আর এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে।  এর চিপসেট হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে নিম্ন মানের Mediatek MT6765 ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট আর হ্যাভি ইউজার দের জন্য ফোনটি এটা আদর্শ ফোন নয়।

Symphony i97

ADs by Techtunes ADs
মূল্য
৭৪৯০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
2 GB
-
5.7 inches
720 x 1440 pixels
Android 9.0 (Pie)16 GB
MicroSD
ব্র্যান্ডSymphonyমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Singleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July13 MPLED Flash1080p160g -Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলi97Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
8 MPLED Flash1080p3200 mAhLi-Po

জুলাই মাসে Symphony i97 বাজারে আসে, এই ফোনটি লো রেঞ্জ এর মধ্যে ভাল কনফিগারেশন অফার করছে। Symphony i97 এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিস্প্লে, উভয় সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে, আর মোটামুটি ভালো ব্যাটারি ক্যাপাসিটি। Symphony i97 ফোনটি দুইটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Caribbean blue, Cranberry Red এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ১৬ জিবি এবং র‍্যাম ২ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Symphony i97 ফোনের ভালো দিক

Symphony i97 এই ফোনটির ভালো দিকগুলোর মধ্যে আছে বিগ ডিসপ্লে, ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর, উভয় সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে, আর মোটামুটি ভালো ব্যাটারি ক্যাপাসিটি। , দাম কম আর প্রিমিয়াম লুক। যারা খুবই সাধারণ ইউজার তারা এই ফোনটি নিশ্চিন্তে কিনতে পারেন।

Symphony i97 ফোনের মন্দ দিক

Symphony i97 এর খারাপ দিক গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে এবং এর ফাস্ট চার্জিং সুবিধা নেই যার ফলে এই ফোন ফুল চার্জ করা খুবই সময়সাধ্য ব্যাপার। আর এর নিম্ন মানের চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে  ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট।

Tecno Pop 2F

মূল্য
৫৯৯০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
1 GB
MediaTek MT6580
5.5 inches
480 x 960 pixels
Android 8.0 (Oreo)16 GB
MicroSD
ব্র্যান্ড

Tecno

মেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, JulySingleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July5 MPLED Flash720p--Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলPop 2FSingleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
8 MPLED flash720p2400 mAhLi-Ion

জুলাই মাসে Tecno Pop 2F বাজারে আসে, এই ফোনটি লো রেঞ্জ এর মধ্যে মোটামুটি কনফিগারেশন অফার করছে। Tecno Pop 2F এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিস্প্লে, সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 8 MP এবং 2400 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি। Tecno Pop 2F ফোনটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Champagne Gold, Midnight Black, City Blue এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ 16 GB জিবি এবং র‍্যাম 1 জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Tecno Pop 2F ফোনের ভালো দিক

Tecno Pop 2F এই ফোনটির ভাল দিকের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিস্প্লে, ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর, 2400 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি,  সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে, 8 MP সেলফি ক্যামেরা যার মাধ্যমে আপনি ভালো মানের সেলফি তুলতে পারবেন।

Tecno Pop 2F ফোনের মন্দ দিক

কম দামের মধ্যে ফোনটির কনফিগারেশন আশানুরুপ হলেও এর কিছু মন্দ দিক বিদ্যমান। মন্দ দিকের মধ্যে উল্লেখযোগ্য এর ব্যাটারি ক্যাপাসিটি 2400 mAh হলেও যা ডিসপ্লে সাইজের তুলনায় খুবই কম। আর এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে। ১ জিবি র‍্যাম আর  নিম্ন মানের চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট আর হ্যাভি ইউজার দের জন্য ফোনটি এটা আদর্শ ফোন নয়।

ADs by Techtunes ADs

Symphony BL97

মূল্য
৯৫০ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
32 MB1.77 inches
QVGA display
-32 MB
MicroSD
ব্র্যান্ডSymphonyমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Singleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July0.08MP----Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলBL97-ফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
---1700 mAh-Li-ion

জুলাই মাসে Symphony BL97 বাজারে আসে, আর এই ফোনটি হতে পারে আপনার রাফ এন্ড টাফ ব্যবহৃত ফোন। আবার বাবা, মা, দাদা এবং দাদির জন্য হতে পারে একটি পারফেক্ট ফোন কেননা তারা টাচস্কিন ফোন চালাতে পারেনা। এটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে, যথাক্রমে Black, Black + Red & Black + Gold।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Symphony BL97 ফোনের ভালো দিক

Symphony D37 ফোনটি ফিচার ফোন আর এর দাম খুবই কম। এই দামে যে ফিচার গুলো দিয়েছে তা সবই ভালো। Symphony BL97 এর ভালো দিক গুলো যথাক্রমেঃ ব্লাক লিস্ট, কল রেকর্ডার, ম্যাজিক ভয়েস, ওয়্যারলেস এফ এম ইত্যাদি।

Symphony BL97 ফোনের মন্দ দিক

Symphony BL97 এর মন্দ দিকের মধ্যে এর ব্যাটারি ক্যাপাসিটি খুবই কম স্কিন সাইজ অনুযায়ী, যা মাত্র 1700 mAh ফলে আপনাকে এর চার্জিং ব্যাকআপ নিয়ে একটু চিন্তা করতে হবে।

Walton Primo NH4

মূল্য
৪৯৯৯ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
1 GB
-
5.7 inches
480 x 960 pixels
Android 8.1 (Oreo)8 GB
MicroSD
ব্র্যান্ডWaltonমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Singleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July5 MPLED Flash720p158 g -Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলPrimo NH4Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
5 MPLED Flash720p2400 mAhLi-Ion

জুলাই মাসে Walton Primo NH4 বাজারে আসে, এই ফোনটি লো রেঞ্জ এর মধ্যে মোটামুটি কনফিগারেশন অফার করছে। Tecno Pop 2F এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিস্প্লে, সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 5 MP এবং 2400 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি। Walton Primo NH4 ফোনটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Dark Blue, Black, Red এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ 8 GB জিবি এবং র‍্যাম 1 জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Walton Primo NH4 ফোনের ভালো দিক

Walton Primo NH4 এই ফোনটির ভাল দিকের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিস্প্লে,  সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে, 2400 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি, 5 MP সেলফি ক্যামেরা যার মাধ্যমে আপনি ভালো মোটামুটি ভালো মানের সেলফি তুলতে পারবেন।

Walton Primo NH4 ফোনের মন্দ দিক

Walton Primo NH4 এর খারাপ দিক গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে। ১ জিবি আর এর নিম্ন মানের চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট।

ADs by Techtunes ADs

Walton Primo S7

মূল্য
১৪৯৯৯ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
3 GB
MediaTek Helio A22
6.26 inches
720 x 1520 pixels
Android 9. (Pie)32 GB
MicroSD
ব্র্যান্ডWaltonমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Tripleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July12 MPLED Flash1080p175 g -Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলPrimo S7Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিরিপ্লেসটাইপ
16 MPLED Flash1080p3900 mAhLi-Ion

জুলাই মাসে Walton Primo S7 বাজারে আসে, এই ফোনটি মিড রেঞ্জ এর মধ্যে মোটামুটি কনফিগারেশন অফার করছে। ওয়ালটন এর প্রথম নচ ডিসপ্লে এবং ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সংবলিত স্মার্টফোন ‘প্রিমো এস৭’। কোম্পানিটির প্রথম এই নচ ডিসপ্লে যুক্ত স্মার্টফোনে সামনে ফ্রন্ট প্যানেলে একটি ‘ওয়াটার ড্রপ’ নচ দেখতে পাবেন।  তবে ‘প্রিমো এস৭’ স্মার্টফোনটির মূল আকর্ষণ এর রিয়ার প্যানেলে থাকা ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ।  সেলফির জন্য সামনে থাকছে ১৬ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Walton Primo S7 ফোনের ভালো দিক

বর্তমানে Walton এর এই Primo S7 ফোনটি ভালো সারা ফেলেছে, কেননা এটির অসাধারণ ডিজাইন আর লেটেস্ট সব ফিচারই এই ফোনের মধ্যে বিদ্যমান। আর Walton Primo S7  এই ফোনটির ভালো দিকগুলোর মধ্যে আছে বিগ ডিসপ্লে, ৩ জিবি র‍্যাম,  3900 mAh হিউজ ব্যাটারি ক্যাপাসিটি, কম দাম এবং প্রিমিয়াম লুক। নরমাল এবং হ্যাভি ইউজারদের জন্য ফোনটি এভারেজ বলা যায়।

Walton Primo S7 ফোনের মন্দ দিক

Walton Primo S7 এর খারাপ দিক গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে এবং এর ফাস্ট চার্জিং সুবিধা নেই যার ফলে এই ফোন ফুল চার্জ করা খুবই সময়সাধ্য ব্যাপার। আর এর নিম্ন মানের চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে  ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, মিড লেভেলের ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট।

Walton Primo NF4 Turbo

মূল্য
৬৬৯৯ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
2 GB
-
5.99 inches
480 x 960 pixels
Android 9. (Pie)16 GB
MicroSD
ব্র্যান্ডWaltonমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Singleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July8 MPLED Flash720p172 g -Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলPrimo NF4 TurboSingleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিটাইপ
8 MP720p3200 mAhLi-Po

জুলাই মাসে Walton Primo NF4 Turbo বাজারে আসে, এই ফোনটি লো রেঞ্জ এর মধ্যে মোটামুটি কনফিগারেশন অফার করছে। Walton Primo NF4 Turbo এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিস্প্লে,  সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে ৮ MP এবং 3200 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি। Walton Primo NF4 Turbo ফোনটি দুইটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Black, Blue এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ১৬ জিবি এবং র‍্যাম ২ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Walton Primo NF4 Turbo ফোনের ভালো দিক

Walton Primo NF4 Turbo ফোনটি  এই ফোনটির ভালো দিকগুলোর মধ্যে আছে ফিঙ্গার প্রিন্ট, ফেস আনলক, বিগ ডিসপ্লে, ২ জিবি র‍্যাম, সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে, 3200 mAh ভালো ব্যাটারি ক্যাপাসিটি, দাম কম আর প্রিমিয়াম লুক। নরমাল ইউজার তারা এই ফোনটি নিশ্চিন্তে কিনতে পারেন।

Walton Primo NF4 Turbo ফোনের মন্দ দিক

Walton Primo NF4 Turboএর খারাপ দিক গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে এবং এর ফাস্ট চার্জিং সুবিধা নেই যার ফলে এই ফোন ফুল চার্জ করতে কিছুটা বেশি সময় লাগবে। আর এর নিম্ন মানের চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে  ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট।

ADs by Techtunes ADs

Walton Primo F9

মূল্য
৫১৯৯ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
1 GB
-
5.45 inches
480 x 960 pixels
Android 8.1 (Oreo)16 GB
MicroSD
ব্র্যান্ডWaltonমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Singleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July5 MPLED Flash1080p180 g -Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলPrimo F9Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিটাইপ
5 MPLED Flash720p2500 mAhLi-Ion

জুলাই মাসে Walton Primo F9 বাজারে আসে, এই ফোনটি লো রেঞ্জ এর মধ্যে মোটামুটি কনফিগারেশন অফার করছে। Walton Primo F9 এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিস্প্লে, সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 5 MP এবং 2500 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি। Walton Primo F9 ফোনটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Oxford Blue, Red, Cyan এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ১৬ জিবি এবং র‍্যাম ১ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Walton Primo F9 ফোনের ভালো দিক

Walton Primo F9 ফোনটির ভালো দিকগুলোর মধ্যে আছে 4G সাপোর্টেড, বিগ ডিসপ্লে, 2500 mAh ভালো ব্যাটারি ক্যাপাসিটি,  সামনে এবং পিছনের ক্যামেরাতে LED ফ্লাস রয়েছে আর BSI সেন্সর যুক্ত 5 MP ফন্ট এবং রিয়্যার ক্যামের এবং প্রিমিয়াম লুক তো আছেই। যারা খুবই সাধারণ ইউজার তারা এই ফোনটি নিশ্চিন্তে কিনতে পারেন।

Walton Primo F9 ফোনের মন্দ দিক

Walton Primo F9 এর খারাপ দিক গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে। ১ জিবি র‍্যাম আর এতে নিম্ন মানের চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট।

Lava Iris 52

মূল্য
৫১৯৯ টাকা
র‌্যাম ও চিপসেটডিসপ্লেOSস্টোরেজ
1 GB
-
5.45 inches
480 x 960 pixels
Android 8.1 (Oreo)8 GB
MicroSD
ব্র্যান্ডLavaমেইন ক্যামেরাবডি
ঘোষণা2019, July Singleফিচারভিডিওওজনপুরুত্বসিমস্লট
রিলিজ2019, July5 MPLED Flash720p178 g -Double
বাজারেAvailableসেলফি ক্যামেরাব্যাটারি
মডেলIris 52Singleফিচারভিডিওক্যাপাসিটিটাইপ
5 MPLED Flash720p2800 mAhLi-Ion

জুলাই মাসে Lava Iris 52 বাজারে আসে, এই ফোনটি লো রেঞ্জ এর মধ্যে মোটামুটি কনফিগারেশন অফার করছে। Lava Iris 52 এর উল্লেখযোগ্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে বিগ ডিস্প্লে, ক্যামেরা, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে আছে 5 MP এবং 2500 mAh ব্যাটারি ক্যাপাসিটি এবং ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর তো আছেই। Lava Iris 52 ফোনটি তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে যথাক্রমে- Blue, Gold এবং ইন্টার্নাল স্টোরেজ ৮ জিবি এবং র‍্যাম ১ জিবি ভ্যারিয়েন্টে পাওয়া যাচ্ছে।

➡ ফুল স্পেসিফিকেশন : লিংক

Lava Iris 52 ফোনের ভালো দিক

Lava Iris 52 এর এই ফোনটির ভালো দিকগুলোর মধ্যে আছে বিগ ডিসপ্লে, ১ জিবি র‍্যাম,  ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর, 2800 mAh ভালো ব্যাটারি ক্যাপাসিটি, দাম কম আর সুন্দর ডিজাইন। যারা খুবই সাধারণ ইউজার তারা এই ফোনটি নিশ্চিন্তে কিনতে পারেন।

Lava Iris 52 ফোনের মন্দ দিক

Lava Iris 52 এর খারাপ দিক গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল এর ডিসপ্লে IPS LCD capacitive প্রযুক্তি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে আর এই ধরনের ডিসপ্লে তুলনামূলক বেশি চার্জ কঞ্জিউম করে। ১ জিবি র‍্যাম আর এতে নিম্ন মানের চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে ফলে মাল্টি টাস্কিং এ কিছুটা ল্যাগ এর মুখোমুখি হতে পারেন। এছাড়া এই ফোনের তেমন মন্দ দিক নাই, নরমাল ইউজারদের জন্য ফোনটি পারফেক্ট।

ADs by Techtunes ADs

আজকের এই পর্যন্তই, টিউনটি কেমন হলো তা টিউনমেন্ট করে জানিয়ে দিন, তাছাড়াও যেকোন প্রশ্ন থাকলে জিজ্ঞাসা করতে পারেন। টিউনটি জোসস করুন, টিউমেন্ট করুন এবং শেয়ার করুন আর টেকটিউনস এর সাথেই থাকুন।

ADs by Techtunes ADs
Level 5

আমি রায়হান ফেরদৌস। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 6 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 55 টি টিউন ও 92 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 17 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস