ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

জানালা ভেঙ্গে বের হতে পারছেন না? জানালা দিয়ে অন্তত চেয়ে দেখুন, আকাশটা কতই না বিশাল!! [“ফ্রি-ওয়্যার সমাচার” সচিত্র ও মোটামুটি বিস্তারিত মেগাটিউন]

অনেকদিন পর এলাম। সবাই ভাল আছেন নিশ্চয়ই? আজ আমি আপনাদের সাথে কিছু পরিচিত অপরিচিত সফটওয়্যার এর সাথে পরিচয় করিয়ে দেব যেগুলো ফ্রি-ওয়্যার হলেও উইন্ডোজ এর ডিফল্ট অ্যাপ্লিকেশনের চেয়ে অনেকগুণ শক্তিশালী। যেখানে আমরা বিভিন্ন হালকা পাতলা সফটওয়্যার (তাও আবার ফ্রি) ব্যবহার করেই দৈনন্দিন জীবনের যাবতীয় কাজগুলো করে ফেলতে পারি সেক্ষেত্রে আবার ক্র্যাক, কিজেন ইউজ করা লাগে এবং ঐধরণের ব্যয়বহুল (যদিও আমরা টাকা  পয়সা দেই না 😛 ) এবং পিসি স্লো করে দেয় এমন সফটওয়্যার ব্যবহার করব কেন? চলুন তাহলে দেখা যাক আজকের টিউনে আপনারা কী কী পাচ্ছেন।

ADs by Techtunes ADs

1. PDF ফাইল পড়াঃ

যেই সফটওয়্যারকে এড়িয়ে যেতে চাইঃ Adobe Reader

কি কারণে ব্যবহার করা হত?:

ডকুমেন্ট শেয়ার করার জনপ্রিয় ফাইল ফরম্যাট Pdf ওপেন করতে এবং টুকটাক এডিট করতে।

কি কারণে এড়াতে চাই?:

একটু বেশিই গুরুগম্ভীর (স্লো), পিডিএফ ফাইল ভাল সিকিউর করতে পারে না (পাসওয়ার্ড সহজেই রিমুভ করা যায়, এবং পাস রিমুভ করে প্রিন্টও করা যায়), অ্যাপ্লিকেশন স্টার্ট করলেই বিরক্তিকর সাহায্য (Help) নিয়ে আসে।

এটার বদলে কী ব্যবহার করা উচিৎ?

এটার বদলে বিভিন্ন জনপ্রিয়, সাইজে ছোট এবং স্পিডি পিডিএফ ফাইল রিডিং সফটওয়্যার ব্যবহার করা যায়। সেগুলো হলঃ

i) Sumatra pdf:

খুবই হালকা পিডিএফ রিডার। সাইজ মাত্রঃ 2.3 MB

এখান থেকে ডাউনলোড করে নিন পোর্টেবল ভার্সনটি

ii) Foxit Reader:

অত্যন্ত জনপ্রিয় এই পিডিএফ রিডারটির কথা অনেকেই জানেন। সাইজে ছোট এবং পিডিএফ ফাইল পড়ার জন্য এটি সবার কাছেই সমাদৃত। এর অনন্য বৈশিষ্ট্য হল, যেকোন ফাইল যতটুকু পড়ে অ্যাপটি ক্লোজ করে দেবেন পরবর্তীতে ঐ পিডিএফ ফাইল ওপেন করলে আবার একই জায়গা থেকে পড়া শুরু করতে পারবেন।

ADs by Techtunes ADs

স্ক্রিনশটঃ

সাইজেও ছোট, মাত্র ১০ মেগাবাইট। পোর্টেবল ফক্সিট রিডারের ডাউনলোড লিঙ্ক দিলাম।

ডাউনলোড লিঙ্ক

iii) PDF X-change Viewer:

এটাও পিডিএফ ফাইল পড়ার জন্য কিন্তু এর একটি বৈশিষ্ট্য হল, write mode এ গিয়ে পিডিএফ এর মধ্যেই আপনি ডিরেক্টলি লিখতে পারবেন।[ বাংলা লিখতে পারবেন কিনা জানিনা]

স্ক্রিনশটঃ

পোর্টেবল,

ডাউনলোড লিঙ্ক

আরও অনেক সফটওয়্যার ফ্রিতে পাওয়া যায় তবে সাধারণত পিডিএফ পড়ার কাজে এগুলো ব্যবহার করাই সবচেয়ে উত্তম।

[দ্রষ্টব্যঃ যেহেতু Adobe, pdf ফরম্যাটের স্রষ্টা তাই এরাই পিডিএফ এর সবকিছু সবার চেয়ে ভাল বোঝেন! এবং কিছু কিছু 3D জাতীয় পিডিএফ ফাইল আছে যেগুলো Adobe Reader ছাড়া ভালভাবে পড়া যায় না এবং কোন কোন ক্ষেত্রে ওপেনই হয় না। তাই আমার মতে অন্যান্য পিডিএফ রিডার এর সাথে Adobe Reader ও পিসিতে থাকা উচিৎ।]

পিডিএফ নিয়ে ঝামেলা মোটামুটি শেষ, এবার মিডিয়া প্লেয়ারের দিকে দৃষ্টিপাত করি।

2. গান শোনা এবং ভিডু দেখাঃ

যেই সফটওয়্যার এড়াতে চাইঃ Windows media player

কি কারণে ব্যবহার করা হত?:

ভিডু দেখার জন্য কিংবা মিউজিক শোনার জন্য ব্যবহার করা হত।

কেন এড়াতে চাইঃ

সেই একই ডিজাইন, একই স্টাইল, সব ভিডু ফরম্যাট সাপোর্ট করে না আরও কত কী...

ADs by Techtunes ADs

এটার বদলে কী ব্যবহার করা উচিৎ?

A)Audio শোনার জন্যঃ

মিউজিক শোনার জন্য KMplayer ব্যবহার করা যেতে পারে। স্টাইলিশ এবং বহু স্কিন সাপোর্ট করে, ইন্টারনেটে ঘাটাঘাটি করলেই স্কিন পাওয়া যায়। এটি আবার ফ্ল্যাশ ফাইলও(.swf) সাপোর্ট করে।

একনজরে দেখুন এটি কী কী ফরম্যাট সাপোর্ট করেঃ

➡  ভিডিওঃ  AVI, ASF, WMV, AVS, FLV, MKV, MOV, 3GP, MP4, MPG, MPEG, DAT, OGM, VOB, RM, RMVB, TS, TP, IFO, NSV

➡ অডিওঃ  MP3, AAC, WAV, WMA, CDA, FLAC, M4A, MID, MKA, MP2, MPA, MPC, APE, OFR, OGG, RA, WV, TTA, AC3, DTS

➡ ছবিঃ  BMP, GIF, JPEG/JPG, PNG

➡ প্লেলিস্ট: ZIP/RAR (Audio archive only), LNK, ASX, WAX, M3U, M3U8, PLS, KPL, LNK, CUE, WVX, WMX

➡ সাবটাইটেল: RT, SMI, SMIL, SUB, IDX, ASS, SSA, PSB, SRT, S2K, USF, SSF, TXT, LRC

➡ অন্যান্য: DVR-MS, DIVX, M4V, M2V, PART, VP6, RAM, RMM, SWF, TRP, FLC, FLI

স্ক্রিনশটঃ

ডাউনলোড করে নিন জলদি; মাত্র ১৫ মেগাবাইট

ADs by Techtunes ADs

ডাউনলোড লিঙ্ক 

B) Video দেখার জন্যঃ

VLC player ভিডিও দেখার জন্য খুবই জনপ্রিয় একটি সফটওয়্যার।

একনজরে দেখুন কী কী ফরম্যাট সাপোর্ট করেঃ

➡  ভিডিওঃ Cinepak, Dirac, DV, H.263, H.264/MPEG-4 AVC (8-bit; nightly builds also have 10-bit H.264 support), HuffYUV, Indeo 3, MJPEG, MPEG-1, MPEG-2, MPEG-4 Part 2, RealVideo 3&4, Sorenson (thus enabling direct playback of the modified Sorenson H.263 encoded videos downloaded from YouTube), Theora, VC-1, VP5, VP6, VP8, and some WMV

➡ অডিওঃ  AAC, AC3, ALAC, AMR, DTS, DV Audio, XM, FLAC, MACE, Mod, MP3, PLS, QDM2/QDMC, RealAudio, Speex, Screamtracker 3/S3M, TTA, Vorbis, WavPack WMA (WMA 1/2, WMA 3 partially)

➡  সাবটাইটেলঃ DVD, SVCD, DVB, OGM, SubStation Alpha, SubRip, Advanced SubStation Alpha, MPEG-4 Timed Text, Text file, Vobsub, MPL2, Teletext

ডাউনলোড করুন, ২১ MB [একটু বড়  😳  ]

পোর্টেবল ভার্সন ডাউনলোড লিঙ্ক

না, অন্য কিছু না Windows Media Player ই ব্যবহার করবঃ

যারা Windows Media Player রাখতে চান এবং প্রায় সবধরণের [অডিও, ভিডিও ফাইল ফরম্যাট] ফাইল চালাতে চান তারা শুধু নিজেদের উইন্ডোজ অনুযায়ী কোডেক ইন্সটল করুন। ইন্সটল করা খুবই সহজ! টেকটিউন্সবাসীদের নিশ্চয়ই এর জন্য স্ক্রিনশট লাগবে না! 😉

Windows XP এর জন্যঃ

উইন্ডোজ এক্সপি ব্যবহারকারীরা WMP এর জন্য কোডেক ডাউনলোড করুন এখান থেকেঃ http://www.xpcodecpack.com/download  , মাত্র আট মেগাবাইট। এফএলভি সহ প্রয়োজনীয় ফাইল ফরম্যাট সাপোর্ট করবে।

 Windows 7 এর জন্যঃ

উইন্ডোজ 7 ব্যবহারকারীরা WMP এর জন্য কোডেক ডাউনলোড করুন এখান থেকেঃ http://www.windows7codecs.com/ , এখানে গেলেই ডাউনলোড করার জন্য বামপাশে লিঙ্ক পাবেন।

যদি কেউ ভিস্তা ব্যবহার করেন তাহলে গুগল মামাকে এট্টু খুচা দেন, তিনি নিশ্চয়ই হাজির করবে আপনার প্রয়োজনীয় কোডেকটি।

ADs by Techtunes ADs

3.কনভার্সন বা অডিও এবং ভিডিও ফাইল কনভার্টঃ

ভিডিও তো দেখলেন! কিন্তু এই ভিডিও আপনার প্রিয় মোবাইল কিংবা পোর্টেবল ডিভাইসটিতে নিবেন কীভাবে? অবশ্যই তাকে কনভার্ট করতে হবে? দেখুন তাহলে কোন সফটওয়্যার দিয়ে কনভার্ট করবেন।

i) iWisoft Video Converter:

খুবই শক্তিশালী কিন্তু এ ফ্রি কনভার্টারটি দিয়ে ভিডিও ফরম্যাটকে যেকোন ফরম্যাটে কনভার্ট করা যায়। এমনকি জিফ অ্যানিমেশন তৈরী করার জন্য প্রতিটি ফ্রেম আলাদা করা যায় এই কনভার্টারটির মাধ্যমে।

টিউটোরিয়ালঃ

    ➡    এই সফটওয়্যার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন ঘুমন্ত জাহাঙ্গীর ভাইয়ের ঘুমন্ত মেগাটিউনে

স্ক্রিনশটঃ

এটা ডাউনলোড করতে কষ্ট হবে না, কেননা মাত্র 8.7MB

ডাউনলোড করুন এখান থেকে

ii) Format Factory:

কনভার্ট করার জন্য এটাও দারুন একটি সফটওয়্যার, এটাতে অডিও এবং ভিডিও উভয়ই কনভার্ট করা যায়। সহজে ব্যবহারযোগ্য এবং সরল ইন্টারফেসের।

স্ক্রিনশটঃ

ADs by Techtunes ADs

ডাউনলোড করে নিন, সাইজে একটু বড় 40MB

ডাউনলোড লিঙ্ক

পড়ার ব্যবস্থাও হল, এন্টারটেইনমেন্টের ব্যবস্থাও হল, এবার আঁকাআঁকির মাধ্যমে আপনার সুপ্ত প্রতিভাকে জাগ্রত করুন।

4.আঁকাআঁকিঃ

যেই সফটওয়্যার এড়াতে চাইঃ Paint

কি কারণে ব্যবহার করা হত?:

ছোট খাট ছবি কাস্টোমাইজ এবং স্ক্রিনশট তুলে সেভ করার কাজে।

কি কারণে এড়াতে চাই?:

আমরা কি এখনো ১৯৯৫ সালে আছি?!?!?   😕

এটার বদলে ব্যবহার করবটা কী?:

সেই উইন্ডোজ ৯৮ থেকে দেখে আসছি, মিলিনিয়ামেও দেখেছি, এক্সপি তে দেখছিলাম, কয়েকদিন আগে উইন্ডোজ 7 এ দেখলাম!

অনেক কিছুর পরিবর্তন হল কিন্তু পেইন্টের কোন ব্যবস্থা বিল গেটস করতে পারেননি। সেই একই অপশন, একই ইন্টারফেস আর একই ধরণের কাজ করতে পারে। নতুন কিছু করা এর দ্বারা হবে কিনা সন্দেহ আছে।

সব সন্দেহ ফেলে নতুন কিন্তু অনেক কাজই করতে পারে এমন সফটওয়্যার ব্যবহার করুন। তিনটির নাম দিলাম, দেখে নিন কোনটা পছন্দ হয়।

i)Paint.NET:

ছোট সাইজের এবং উইন্ডোজ এর ডিফল্ট পেইন্টের তুলনায় অনেক বেশি শক্তিশালী, সহজে ওপেন হয় এবং অনে-এ-ক অপশন রয়েছে। ইউজ করা কোন ব্যপারই না, কারণ আমি অতি সহজেই ব্যবহার করতে পারছি। যাদের নেট কানেকশন লিমিটেড, এটাই হবে তাঁদের প্রথম পছন্দ। এটা দিয়ে ছবিও রিসাইজ করা যায় চমৎকার।

স্ক্রিনশটঃ

ADs by Techtunes ADs

ডাউনলোড করে নিন। সাইজে ছোট, মাত্র 3.5MB

ডাউনলোড লিঙ্ক

ii) Gimp:

এটাও একটি দারুণ সফটওয়্যার এবং অনেকটা ফটুকশপের মত। এটি দিয়ে সাধারণ জিফ এনিমেশন তৈরীর পাশাপাশি বিভিন্ন ছবিতে বিভিন্ন রকম ইফেক্টও দিতে পারবেন। GIMP এর ফুল ফর্ম ছিল General Image Manipulation Program কিন্তু যখন এটি GNU এর আওতাভুক্ত হয় তখন এর ফুল ফর্ম হয় GNU Image Manipulation Program।

স্ক্রিনশটঃ

ইচ্ছা হলে ডাউনলোড করতে পারেন। প্রায় ২১ মেগাবাইট।

ডাউনলোড লিঙ্ক

গিম্প টিউটোরিয়ালঃ

গিম্পের টিউটোরিয়াল পাবেন ➡  এখানে  (বাংলা)

ইংরেজিতে টিউটোরিয়াল পাবেন ➡ এখানে

iii) Inkscape:

ইমেজ এডিটিং কিংবা ইমেজ তৈরী করার জন্য খুবই কাজের সফটওয়্যার। ভেক্টর গ্রাফিক্স কিংবা ভেক্টর আর্ট এবং অ্যাডোবি ইলাস্ট্রেটর এর বিকল্পে ব্যবহার করা যায়। এর সাধারণ টিউটোরিয়াল হেল্প এর মধ্যেই পাবেন যা আমি স্ক্রিনশটে দেখিয়ে দিয়েছি। উইকিপিডিয়ার বহু ভেক্টর ইমেজ এর দ্বারা তৈরী করা হয়েছে।

স্ক্রিনশটঃ

এটি গিম্পের তুলনায় অনেক তাড়াতাড়ি ওপেন হয় কিন্তু এটা গিম্পের তুলনায় ওজনে একটু ভারী। পছন্দ হলে ডাউনলোড করতে পারেন।

ADs by Techtunes ADs

৩৬ মেগাবাইট। এবং পোর্টেবল।

ডাউনলোড লিঙ্ক 

5. ইমেজ দেখাঃ

ইমেজ তো তৈরী করলেন। কিন্তু দেখবেন কী দিয়ে? উইন্ডোজ ডিফল্ট ফটুক ভিউয়ার দিয়ে?! যেটাতে আবার সব ফরম্যাট সাপোর্ট করে না!!

যেই সফটওয়্যার এড়াতে চাইঃ Windows Photo Viewer, ACDsee

কি কাজে ব্যবহার করা হত?:

ফটো দেখার জন্য।

কি কারণে এড়াতে চাই?:

➡ এড়াবো না তো করবটা কী?, অনেক ইমেজ ফরম্যাট ওপেন হয় না আবার উইন্ডোজ সেভেনে জিফ ওপেন হয় ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারে  😡

➡ এসিডিসি হেল্প নিয়া আসে বেশি বেশি। সিডি বা ডিভিডি রমে ডিস্ক ঢুকালেই নানান রকমের অপশন নিয়ে আসে। খুউব ঝামেলা পূর্ণ।

এটার পরিবর্তে কী ব্যবহার করা ভাল?:

i)Irfan view:

খুব সাধারণ ব্যবহার এর জন্য উইন্ডোজ ফটো ভিউয়ার চলে কিন্তু এটাতে তেমন কিছুই করা যায় না। সেক্ষেত্রে Irfan view বেস্ট অপশন। সফটওয়্যারটি খুবই হালকা এবং অনেক তাড়াতাড়ি ওপেন হয় আর সব ইমেজ ফরম্যাটই সাপোর্ট করে। অভ্র দিয়ে বাংলা লেখা যায় না কিন্তু অভ্র থেকে ANSI encoding সিলেক্ট করে ও যেকোন একটি বিজয় ফন্ট সিলেক্ট করলেই চমৎকার বাংলা লেখা যায়। কিছু কিছু ফটো এডিটিং ও করা যায়।

ইন্সটলেশন প্রসেসঃ

স্ক্রিনশটঃ

ডাউনলোড লিঙ্ক

ii)XnView:

ইমেজ দেখার জন্য এটাও খুবই ভাল একটি সফটওয়্যার। প্রায় ৪০০ ধরণের ইমেজ ফরম্যাট সাপোর্ট করে। কিছু অডিও এবং ভিডিও ফাইলও ওপেন করতে সক্ষম।

স্ক্রিনশটঃ

ADs by Techtunes ADs

ডাউনলোড করতে পারেন, মাত্র ৭ মেগাবাইট।

ডাউনলোড লিঙ্ক

বোনাসঃ

অনেক সময় আমাদের ইমেজ রিসাইজ করার প্রয়োজন হয়; তারজন্যও আছে ফ্রি সফটওয়্যার। এটি উইন্ডোজ ৭ এবং ভিস্তায় ব্যবহার করতে পারবেন।

এখানে যান , I accept বাটনে ক্লিক করুন; ডাউনলোড শুরু হয়ে যাবে।

রিসাইজ করবেন যেভাবেঃ

➡  রিসাইজ করার টিউটোরিয়াল পাবেন এখানে 

যারা Windows XP ব্যবহার করেনঃ

 যারা উইন্ডোজ এক্সপি ব্যবহার করেন তারা রিসাইজ করার সফটওয়্যার পাবেন এখানে

6. লেখালেখিঃ

যে সফটওয়্যার এড়াতে চাইঃ Microsoft Word

কি কাজে ব্যবহার করা হত?:

লেখালেখি, কম্পুটার কম্পোজ, ওয়ার্ড প্রসেসিং এর কাজে।

কেন এড়াতে চাই?:

বাংলার মধ্যে ম্যাথমেটিক্যাল ইকুয়েশন লিখতে বিরাট ঝামেলা, কম স্পিডওয়ালা পিসি এর জন্য যন্ত্রণাদায়ক স্লো, Mathtype সফটওয়্যার থেকে ম্যাথমেটিক্যাল ইকুয়েশন ইম্পোর্ট করতে অনেক জবাবদিহি করতে হয়, পর পর দুই দুইলাইন এর নির্দিষ্ট বর্ণ একই কলাম বরাবর সোজা রাখা অসম্ভব, দামী, বাইরে দিয়া ফিটফাট ভিত্রে দিয়া ......, আরও হাজার হাজার অভিযোগ।

এটার বিকল্প কী?:

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর বিকল্প হিসেবে অনেক কিছুই আছে। সাধারণ ডকুমেন্ট তৈরী করতে গুগল ডকস এর উপ্রে আমার মতে কিছু নাই। ওপেন অফিসের রাইটার এমএস ওয়ার্ডের একটি চমৎকার বিকল্প হতে পারে। এছাড়াও আছে লিব্রে অফিস। তবে খুব সাধারণ ওয়ার্ড প্রসেসিং এর জন্য আমার প্রথম পছন্দ ওপেন অফিসের রাইটার। একনজরে এগুলো দেখে নিন।

i) Google Docs:

একে ফ্রিওয়্যার না বলে ইন্টারনেট ওয়্যার বলাই ভাল। যাদের ইন্টারনেট কানেকশন লিমিটেড তাঁদের এটা ব্যবহার করা উচিৎ হবে না। তাহলে আমি এটা নিয়ে আলোচনা করছি কেন? কারণ হল, আপনি এমন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে পারেন যখন ইন্টারনেট কানেকশন ঠিকই আছে কিন্তু ওয়ার্ড প্রসেসিং করার কোন সফটওয়্যার নেই। তখন আপনি গুগল ডক্স ব্যবহার করতে পারবেন।

গুগল ডক্সের সাধারণ ইন্টারফেস ছাড়াও অনেক রকম সুবিধাও আছে। এটি দিয়ে আপনার ডকুমেন্টটি প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট ফরম্যাট যেমন .doc, .odt , .txt , .pdf  ব্যতীত আরও ২-৩ ধরণের ফরম্যাটে ডাউনলোড অথবা সেভ করে রাখতে পারেন।

ADs by Techtunes ADs

গুগল ডক ব্যবহার করতে জিমেইল অ্যাকাউন্ট লাগে। প্রথমে এখানে যান এবং ছবি অনুযায়ী কাজগুলো সম্পন্ন করুন।

এটি দিয়ে অভ্রের মাধ্যমে বাংলাও লেখা যায় চমৎকারঃ

Mathtype সফটওয়্যার থেকে সহজেই ইক্যুয়েশন ইম্পোর্ট করতে পারবেন গুগল ডকে।

অন্যান্য সুযোগ সুবিধাতো থাকছেই।

ii) Open office (Writer) :

ADs by Techtunes ADs

ওয়ার্ড প্রসেসিং এর জন্য খুবই চমৎকার একটি সফটওয়্যার। এটি দিয়ে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর ফাইলও ওপেন করা যায়। সেটা .doc হোক কিংবা .docx । একনজর দেখে নিনঃ

স্ক্রিনশটঃ

ডাউনলোড করুন এখান থেকে। 92 MB

iii)Libre Office:

ওপেন অফিসের মতই, এবং অবশ্যই ফ্রি। আসলে লিব্রে অফিস এর মূল ভিত্তিই হল সান এবং ওপেন অফিস। 😛

স্ক্রিনশটঃ

ডাউনলোড করুন এখান থেকে। 120 MB

ওয়ার্ড প্রসেসিং এর ব্যবস্থা তো হল, নোটপ্যাডের লেখালেখির কী অবস্থা হবে?

যেই সফটওয়্যার এড়িয়ে যেতে চাইঃ Notepad

কেন এড়াতে চাই?:

পুরান জিনিস। ফিচারের বড়ই অভাব।

এর বিকল্প কী আছে?:

➡ Notepad এর বিকল্প হিসেবে আছে Notepad ++ , Notepad2

কী আছে নোটপ্যাড ২ এবং ডাবল প্লাসে?

i) Notepad ++:

নোটপ্যাডের সাধারণ সব ফিচারের পাশাপাশি

  • ড্র্যাগ অ্যান্ড ড্রপ
  • একাধিক ক্লিপবোর্ড
  • স্প্লিট স্ক্রিন
  • স্পেল চেকার
  • বিভিন্ন টেক্সট এনকোডিং ফরম্যাট যেমন ইউনিকোড, আনসি ইত্যাদি সাপোর্ট করে।
  • একাধিক ডকুমেন্ট এর জন্য শব্দ ফাইন্ড অ্যান্ড রিপ্লেস করা যায়।
  • আরও অনেক কিছু।

স্ক্রিনশটঃ

ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

 ii) Notepad2:

এটা মাইক্রোসফট উইন্ডোজ এর জন্য একটা ওপেন সোর্স টেক্সট এডিটর। সাইজে ছোট, দ্রুত এবং সহজে ব্যবহারযোগ্য।

একনজরে ফিচারগুলো দেখা যাকঃ

  • এটার মধ্যে বিভিন্ন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ এর জন্য সিনট্যাক্স হাইলাইটার আছে, ল্যাঙ্গুয়েজগুলো হলঃ ASP, Assembly, C, C++, C#, CGI, CSS, HTML, Java, NSIS, Pascal, Perl, PHP, Python, SQL, Visual Basic (VB), VB Script, XHTML এবং XML । এছাড়াও বিভিন্ন ফাইল ফরম্যাট যেমনঃ BAT, DIFF, INF, REG এর জন্যও সিন্ট্যাক্স হাইলাইটিং এর দ্বারা সম্ভব।
  • অটো ইন্ডেন্টেশন
  • কিছু টেক্সট এনকোডিং যেমনঃ ASCII, UTF-8 এবং UTF-16 এর মধ্যে পারস্পারিক কনভার্সন করতে সক্ষম।
  • ফাইন্ড অ্যান্ড রিপ্লেস তো আছেই।
  • DOS, Unix এবং Macintosh ফরম্যাটের পারস্পারিক Newline কনভার্সন করা যায়।

স্ক্রিনশটঃ

এখান থেকে ডাউনলোড করুন

7. সিডি/ডিভিডি বার্নিং বা সিডি/ডিভিডি রাইটিং:

লেখালেখির পালা আপাতত শেষ। আপনার কম্পুটারের হাড্ডিতে নিশ্চয়ই অনেক কিছু জমা পড়ে আছে, আর সেকারণে নতুন কিছু ডাউনলোড করে হাড্ডিতে রাখতে পারছেন না!। অসুবিধা কী? ১৫ টাকায় ব্ল্যাঙ্ক ডিভিডি কিনে প্রয়োজনীয় ফাইলগুলো রাইট করে ফেলুন। ও, নিরো বুঝি বেশি জ্বালাচ্ছে? আর উইন্ডোজ এর ডিফল্ট রাইটার দিয়ে সুবিধা করতে পারছেন না?! সমস্যা নেই। দেখুন এই ফ্রি সফট ডিভিডি ডাটা ডিস্ক তৈরী করার সকল সমস্যার সমাধান দেবে। বিশ্বাস হচ্ছে না? 😮  , একবার দেখুনই না ট্রাই করে।

যেই সফটওয়্যার এড়াতে চাই: Nero, Windows default disk burner, Roxio Creator

কী কারণে এড়াতে চাই?:

ডিভিডি বা সিডি বার্ন করতে গিয়ে বেশি ভংছং করে। এক একটার ওজন আবার মেগাবাইটে হয় না, গিগা লাগে 😛 । ডিস্ক বার্ন করার সফটওয়্যার; ডিস্ক বার্ন করব, তা না, নিরুতো মাল্টিমিডিয়া প্লেয়ার ইন্সটল করে আরেক যন্ত্রণার সৃষ্টি করে হিরু হতে চায়। হুহ, আর রোক্সিয়র কথা বাদই রাখলাম। উইন্ডোজ ডিফল্ট ডিস্ক বার্নারের কথা বলতে লইজ্জা লাগে 😳

সমস্যার সমাধান আছে কী?:

অবশ্যই আছে! বার্ন অ্যাওয়্যার ইউজ করুন। খুবই আরাম পাবেন। চাকচিক্য এবং মেদবর্জিত। ডেটা সিডি, ডিভিডি বার্ন করতে ঠিক যতটুকু দরকার ততটুকুই পাবেন এখানে। আগে নিরো ব্যবহার করে থাকলে এটা ব্যবহার করতে খুউউব সহজ লাগবে। আর ভিডিও সিডি বা ডিভিডি তৈরী করার জন্য আছে DVD Flick যার সাহায্যে ডিভিডি তৈরী করে ঘরের ডিভিডি প্লেয়ারে অনায়াসে চালাতে পারবেন।

i) BurnAware Free:

কীভাবে ডেটা ডিভিডি বার্ন করবেন সেটা একটু দেখিয়ে দিলাম।

যেভাবে ডেটা ডিভিডি বার্ন করবেনঃ

  • বার্ন অ্যাওয়্যার এর উপরে দেখুন Data DVD নামের বাটন আছে। সেখানে ক্লিক করলে নিচের মত একটি উইন্ডো ওপেন হবেঃ

  • যেসব ফাইল ব্ল্যাঙ্ক ডিভিডিতে বার্ন করবেন সেই ফাইলগুলো ড্র্যাগ অ্যান্ড ড্রপ পদ্ধতি কিংবা ছবিতে দেখানো বাটনটিতে ক্লিক করে অ্যাড করতে পারেন।
  • এরপর বার্ন (লাল) বাটনটিতে ক্লিক করলেই বার্নিং শুরু হয়ে যাবে।

টিউটোরিয়ালঃ

                     ➡      অন্যান্য টিউটোরিয়াল পাবেন এখানে

খুবই ছোট, মাত্র 4.3MB।

ডাউনলোড করুন এখান থেকে,

[ দ্রষ্টব্যঃ বার্ন অ্যাওয়্যার ফ্রি এর নিচেই ডাউনলোড NOW বাটন আছে। সেখানেই ক্লিক করুন। আবার প্রোফেশনাল কিংবা হোম ডাউনলোড করবেন না, কেননা প্রোফেশনাল আর হোম ডাউনলোড এর পরে টাকা চাইলে আমি দিতে পারব না 😛 😉  ]

কিন্তু এখনো বুঝি চিন্তা?! দোকানের মত ডিভিডি ভিডু (ভিডিও) বার্ন করবেন কীভাবে? চিন্তা নাই। আছে DVD flick । এর সাহায্যে আপনি ঘরে (কম্পুটারে) বসেই বানাতে পারবেন বিভিন্ন মুভি দিয়ে দোকানের ঐ ডিভিডি গুলোর মত। যা আপনার ঘরের ডিভিডি প্লেয়ারেও চলবে। কম্পুটারে তো কথাই নাই।

ii) DVD flick:

আপনারা মুভির ডিভিডি কিনে নিশ্চয়ই প্রথমদিকে কোন না কোন সময় অবাক হয়েছেন, দুকানদারেরা এধরণের ডিভিডি তৈরী করেন কীভাবে? জবাব পাবেন এখানেই এবং ফুল টিউটোরিয়ালসহ। এটাও আশ্চর্যের বিষয় যে এই অসাধারণ সফটওয়্যারটিও ফ্রি। দেরি কেন? ঝটাপট ডাউনলোড করুন আর সামুর পুশকিন ভাইয়ের টিউটোরিয়াল দেখে বানিয়ে নিন আপনার মুভি ডিভিডি এবং পরিবারের সাথে কাটান চমৎকার সময়!  🙂

স্ক্রিনশটঃ

এটাও সাইজে ছোট। মাত্র ১৩ মেগাবাইট।

ডাউনলোড লিঙ্ক

টিউটোরিয়ালঃ

          ➡   বাংলায় সচিত্র টিউটোরিয়াল দেখতে কার্সর দিয়ে এখানে গুতা মারেন

এবার হাড্ডি খালি করতে অসুবিধা নেই নিশ্চয়ই?

8. কম্প্রেসনঃ

ব্ল্যাঙ্ক ডিভিডি শেষ? ফাইলের সাইজ কমাতে চান? তাহলে এবার আসুন জিপ আর রার নিয়ে কিছু করা যায় কিনা?!

যেই সফটওয়্যার এড়াতে চাই?: উইনজিপ এবং উইনরার

কেন এড়াতে চাই?:

এখনকার উইন্ডোজ প্ল্যাটফর্মে বিল্ট ইন জিপ আনপ্যাক করার ব্যবস্থা আছে তাই উইনজিপ এখন অচল। আর উইনজিপ এর কম্প্রেসন অতটা ভাল না। উইনরারে কাজ চলে তবুও এর চেয়ে ভাল জিনিস ফ্রিতে পাওয়া গেলে ক্ষতি কি?

এর বদলে কী ইউজ করব?:

7zip:

7zip আছে না?! অনেক ধরণের কম্প্রেসড ফাইল আনপ্যাক করতে এর তুলনা নেই। এর কম্প্রেসন উইনরার থেকেও ভাল

এটি যত ধরণের ফাইল আনপ্যাক করতে পারে তার লিস্টঃ

APM, ARJ, CAB, RAR, MSLZ, EXE, SWF, FLV, SquashFS, CramFS, NTFS, FAT, VHD, MBR, Z, LHA, cpio, smzip, JAR, ISO CD/DVD images (7-Zip version 4.42 এবং এর উপরে ), DMG, HFS, RPM, onepkg and Debian DEB আর্কাইভ।

স্ক্রিনশটঃ

সাইজে অনেক কম, মাত্র ১ মেগাবাইট ;

ডাউনলোড লিঙ্ক

9.পিসি অপটিমাইজেশনঃ

A) ডিফ্রাগমেন্ট করা (De-fragmentation):

এবার ডিফ্রাগমেন্টের কী হবে? উইন্ডোজ এর সাধারণ ডিফ্রাগমেন্ট অ্যাপটা অনেক স্লো।

এটা আপনারাও জানেন যে কোন অপশনটা বেস্ট। 🙂

IObit Smart Defrag:

খুবই ফাস্ট এবং চমৎকার ইন্টারফেসযুক্ত এই সফটওয়্যারটি সবার কাছেই সমাদৃত। এটি ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্টের কাজে বহুলভাবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। কিছুদিন আগেই নতুন ভার্সন বের হয়েছে। থাকলে ভাল, না থাকলে নিয়ে নিন ,  প্রায় চার মেগাবাইট।

ডাউনলোড লিঙ্ক

স্ক্রিনশটঃ

B) রেজিস্ট্রি পরিষ্কার রাখা (Registry Cleaning):

রেজিস্ট্রির অবস্থা খারাপ? চিন্তা নেই তার জন্যও ব্যবস্থা আছেঃ

Little Registry Cleaner:

নামে লিটল হলে কী হবে? এটা লিটল মাস্টার 😉 । উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের রেজিস্ট্রি ক্লিন করার জন্য বিশেষভাবে তৈরী করা হয়েছে। [ দ্রষ্টব্যঃ এটা চালাতে গেলে .NET Framework 3.5 এর প্রয়োজন হয়। তাই আগে দেখে নিন আপনার এই ভার্সনের .NET Framework আছে কিনা? ]

এবার দেখুন স্ক্রিনশটঃ

সাইজে ছোট,  মাত্র 3.46MB

ডাউনলোড লিঙ্ক

ফ্রি(!) সফটওয়্যার ডাউনলোড সাইট যেমন ডাউনলোড, ব্রাদারসফট, সফটপিডিয়া, সফটনিক একে ৫ তারা দিয়েছে... আপনি ব্যবহার করে দেখুন; একে আপনি কত তারা(স্টার) দেবেন?

C) হারানো ফাইল উদ্ধার করা (File Recovery):

আপনার ছোট ভাই/বোন দুষ্টুমি করতে গিয়ে প্রয়োজনীয় ফাইল মুছে দিয়েছে?!  😡

থাক আর রাগ করবেন না। ঝটপট নামিয়ে  নিন এই ফ্রি ফাইল রিকভার করার সফটওয়্যার Recuva । এটি আসলেই অনেক কাজের জিনিস। 😀

Recuva:

একনজরে রিকিউভার ফিচারসমূহঃ

  • সহজ সরল ইন্টারফেস। শুধু স্ক্যান দিয়ে যেসব ফাইল উদ্ধার করতে চান অগুলোতে টিক দিয়ে ওকে দিলেই হবে।
  • ফাইল উদ্ধারের জন্য উইজার্ড রয়েছে
  • খুবই হালকা, তাড়াতাড়ি ওপেন হয় এবং ফাইল উদ্ধার করেও অনেক তাড়াতাড়ি
  • চর্বিযুক্ত (FATX, X=12,16,32) ফাইল সিস্টেম এবং NTFS ফাইল সিস্টেম সমর্থন করে।
  • মেমরিকার্ড, ফ্লপি ডিস্ক, মেমরি স্টিক, পেন ড্রাইভ(ফ্ল্যাশ ড্রাইভ), ইস্মার্ট মিডিয়া কার্ড, সিকিউরড ডিজিটাল কার্ড, পোর্টেবল/এক্সটার্নাল হাড্ডি, ইন্টার্নাল হাড্ডি সাপোর্ট করে।
  • সেকেন্ডের মধ্যে কাজ শুরু করে দেয়।

স্ক্রিনশটঃ

ডাউনলোড করতে পারেন, মাত্র 2.45MB

ডাউনলোড লিঙ্ক

D) অপ্রয়োজনীয় ফাইলপত্র মোছা (Cleaning unnecessary Files):

আপনার কঠিন চাকতি(হার্ড ডিস্ক) টেম্পোরারি আর হাবিজাবি ফাইল-পত্রে ভর্তি? এবার এগুলোকে ঝেটিয়ে বিদায় করুন CCleaner, অথবা Glary Utilities দিয়ে। এগুলোর ব্যপারে আপনারা সবাই জানেন; তাই বিস্তারিত কিছু লিখলাম না। শুধু ডাউনলোড করে নিন

i)Ccleaner:

মাত্র, 3.4MB

ডাউনলোড লিঙ্ক

ii)Glary Utilities:

পোর্টেবল, 6MB

ডাউনলোড লিঙ্ক

E) অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার কম্পুটার থেকে সম্পূর্ণভাবে দূর করাঃ (Un-installation)

শুধু হাবিজাবি নথিপত্র মুছে দিলে হবে? অনেক আজেবাজে সফটওয়্যারও নিশ্চয়ই বিজ্ঞাপনের প্রলোভনে পড়ে ডাউনলোড করে ইন্সটল করেছিলেন!! সেগুলোকে বিদেয় করতে হবে না? তারজন্যও আছে সফটওয়্যার;

IObit Uninstaller:

এই আনইন্সটলার টা দারুন! রেভো আনইন্সটলার হয়ত সবার প্রথম পছন্দ, তবে এটাও কম যায় না। রেজিস্ট্রি কি সহ আপনার ইন্সটলকৃত আউল ফাউল সফটওয়্যার এর যাবতীয় চিহ্ন মুছে দিতে সক্ষম। এটির বিটা ভার্সন IObit AdvancedSystem Care 4 এর সাথে দেওয়া আছে; 5 এর কথা জানিনা। তবে আলাদাভাবেও ডাউনলোড করে নিতে পারেন। চমৎকার ইন্টারফেস তো বটেই (IObit এর সফটওয়্যার এর ইন্টারফেস বা থিমগুলান ভালা পাই  😳  ) এছাড়া সহজে ব্যবহারযোগ্য এবং ইন্সটল করার ঝামেলা নেই। ডাউনলোড করুন আর ব্যবহার করুন।

স্ক্রিনশটঃ

খুবি ছোট, মাত্র 1.5MB 😀

ডাউনলোড করুন এখান থেকে

ফ্রি সফটওয়্যার নিয়ে অন্যান্য টিউনের লিঙ্কঃ

➡  সহজে জিফ অ্যানিমেশন তৈরীঃ

সহজে কিভাবে জিফ অ্যানিমেশন তৈরী করবেন, তাও আবার ফ্রি সফটওয়্যার দিয়ে তা জানতে আমাদের প্রিয় উন্মাদ তন্ময় ভাইয়ের এই চমৎকার এবং বিস্তারিত টিউনগুলি দেখতে পারেনঃ

➡  ফ্রি সফটওয়্যার নিয়ে প্রতিবেদনঃ

ফ্রি সফটওয়্যার নিয়ে শাওন ভাইয়ের এই অসাধারণ প্রতিবেদন দেখতে ভুলবেন না। এখানে কিছু ফ্রি-ওয়্যার এর লিস্টও পাবেন শেষের দিকে।

➡ গ্রাফিক্স ডিজাইন নিয়ে ফ্রি সফটওয়্যারঃ

নিশাচর নাইম ভাইয়ের এই টিউনেও গ্রাফিক্স ডিজাইনের উপর ওপেনসোর্স সফটওয়্যার পাবেন।

আরও অসংখ্য টিউন হয়ত আছে টেকটিউন্সে তবে এই মুহূর্তে আমার পক্ষে সবগুলোর লিঙ্ক দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। রিসেন্টলি যেই টিউন হয়েছে সেগুলোর লিঙ্কই দিলাম।

ফ্রি সফটওয়্যার নিয়ে কিছু কথাঃ

  • ফ্রি-ওয়্যার শেয়ার করুন সবার সাথে।
  • যেখান থেকে ডাউনলোড করলেন, যদি ভাল লাগে তাহলে কষ্ট করে রিকমেন্ডেশন করে আসুন।
  • যদি সম্ভব হয় মেইলের মাধ্যমে ফিডব্যাক দিন।
  • আর কিছু না পারুন, লাইক দেওয়ার ব্যবস্থা থাকলে নিদেনপক্ষে একটা লাইক দিন।
  • ক্র্যাক ও কিজেন একবারেই ত্যাগ করতে বলেছি তা না, আপনি সবকিছুর সাথে সাথে ফ্রি-ওয়্যার ব্যবহার করতে থাকুন তাহলেই দেখবেন এর প্রতি আপনার আলাদা ভালবাসা জন্মাবে। তখন আপনার এম্নিতেই লিনাক্সে মাইগ্রেট করতে ইচ্ছা হবে।

তাহলেই ফ্রি-ওয়্যার ডেভেলপাররা আরও সুন্দর সুন্দর ফ্রি-ওয়্যার আমাদের সাথে শেয়ার করবেন!

আজ এই পর্যন্তই থাক। টেকটিউন্সে এটাই (আপাতত) আমার শেষ টিউন। আমার আগেরটাই শেষ টিউন ছিল তবে কিছু সময় হাতে পাওয়ার ফলে টিউনটি করেই ফেললাম। সবাই ভাল থাকবেন ও সুস্থ থাকবেন এবং বেশি বেশি ফ্রি-ওয়্যার ব্যবহার করবেন সেই কামনায় আজ বিদায় নিলাম।

ধন্যবাদান্তে-

বিজয়ের মাসে; আসুন মাতি ফ্রি-ওয়্যার এর উল্লাসে!!!

আমার অন্য টিউনঃ

       শব্দের এবং ৩৫ ছবির মেগাটিউন

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি নিওফাইটের রাজ্যে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 12 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 13 টি টিউন ও 1399 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

শ্রবণ, মনন , অনুশীলন


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

সুন্দর টিউন ।

টিউন খুলতেই আমার খবর হইছে 😛

দারুন সুন্দর উপস্থাপনা।
সফটগুলাও সুন্দর 🙂

এক কথায় অসাধারন,

কোপাকুপি পোস্ট

এত বড় টিউন করছ কেমনে?

প্রিয়তে 😀

আর কালকে কখন, কোথায় থাকবি?

Level 0

Boss…..eto shundor kore lekha tune ami ar techtunes e paini!!! You are a ultra ginius……..jara tune koren tader ei tune ti baddhotamulok vabe pora uchit. Thanks for share……

তোমাকে টেকটিউনসের ”স্টিভ জবস” উপাধী দেয়া হোক! তোমার স্টাইলিস টিউনগুলো দেখে মাঝে মাঝে ঈর্শ্বা বোধ করি।
ধুম-ধামাকা একটা টিউন। নির্বাচিত টিউন না হয়ে কোন উপায় নেই… স্টিকি করার জন্য আবেদন জানাচ্ছি। 😀

পাওয়ার থাকলে টউনটি স্টিকি করতাম এক্ষুনি……….

ধন্যবাদ টিউনার ভাই

টিউন্স টি বড় হলেও পরতে খারাপ লাগেনি ।ধন্যবাদ ।

আমার দেখা সব চেয়ে ভাল টিউন

চমৎকার , চমৎকার ! অতীব সুন্দর …………
পড়িয়া অনুধাবন করিতে পারিলাম যে অনেক ঊষা AND রজনীর (!) গবেষণা লব্ধ টিউন …………। 😉 😀
আপাতত প্রিয় তে রাখিলাম, সুবিধামতন সময়ে ডাউনলোড করিয়া লইবো……… 😉 🙂

    @প্রফেসর শঙ্কু: জ্বি প্রফেসর বাবু। আমাদের এখানে বিদ্যুতের প্রস্থান আগমন একটু বেশি পরিমাণে হয়ে থাকে তাই বিদ্যুৎ গমনের সময় কাজে লাগিয়ে টিউনটি প্রস্তুত করিলাম। 🙂
    অবশ্যই ডাউনলোড করিয়া লইবেন এবং সকলের সাথে ভাগাভাগিও করিবেন।
    অসংখ্য ধন্যবাদ। 😀

Level 0

ভাই এত বড় tune আপনি কেমনে করছেন……মাশাল্লাহ…আল্লাহ আপনার হায়াত বাড়িয়ে দেন। tune টা ভাল হইছে…চমতকার tune.

    @Robin: আমি টিউন করার জন্য ওপেন অফিস ব্যবহার করি। তাই এতবড় হয়। 😛
    চমৎকার মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ। 🙂

Level 0

চরম ………………… স্টিকি করা হোক।

যারা পাইরেসী করে আর খালি ক্র্যাকের লিংক চায় তাদের মুখের সামনে এই টিউন ধরা উচিত।
চরম হৈছে!
স্টিকি করার আবেদন জানিয়ে গেলাম। অনেকদিন ধরেই টিটিতে মান সম্মত টিউনের বড় অভাব।

অট: ল্যাপি আছে না গেছে? লল

    @মিনহাজুল হক শাওন: গুরুজী, আপনার দেওয়া ফ্রি সফটওয়্যার এর লিস্ট থেকে বেশ কিছু ডাউনলোড করে দেখি যে এগুলো যেকোন প্রিমিয়াম সফটওয়্যার এর সাথে টেক্কা দেওয়ার ক্ষমতা রাখে। ইউজ করতেও আরাম। আরও কিছু সফট গুগল দিয়া বের করে ভাবলাম একটা টিউন করে ফেলি।
    কমেন্টের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। 🙂

    [ অটঃ টিউনের এট্টা অক্ষরও পড়েন নাই সেইটা বোঝা গেল, রিকিউভার স্ক্রিনশট টা দেখলেই বুঝবেন। ল্যাপি দিয়াই পুরাডা তৈরী করলাম। 😛 ]

      @নিওফাইটের রাজ্যে: এতবড় অপবাদ! আমি টিউন পড়িনাই!! যাও মিয়া আস টিটিতে আমুনা।

      স্ক্রিনশটে উইন্ডোজ ৭ এর থিম দেখেই বুজা যাইতেছে যে ল্যাপি।

      শিরোনাম জশিলা হইসে।

    @মিনহাজুল হক শাওন: হে হে………… অপবাদ দিলাম কৈ? 😮
    আমার মত পুচকা পুলার সাথে রাগ কইরা না আইলে আমার কিচু কওয়ার নাই।
    সুন্দর কমপ্লিমেন্টের জন্য আরেক বস্তা ধইন্ন্যাপাতা। ^_^ 😆

nice post.

Level 0

টিউনটি অসাধারণ হয়েছে।

দারুন হয়েছে……….

এক বিরাট>>>>>>>>>>> টিউন্স এর পষ্ট। অনেক বড় কালেকশন। ধন্যবাদ শেয়ার করার জন্য। আমার কাছে সবচেয়ে জুটিল লেগেছে আপনার animation গুলো। ভাই আপনি কিভাবে এই animation গুলো তৈরি করেন। জানালে খুশি হব। আমার মনে হয় আপনার এই টিউনটি করতে অনেক দিন সময় নিয়েছে। আবার ধন্যবাদ সুন্দর , জটিল এবং ভাল একটি টিউন করার জন্য।

    @মোঃ আল মামুন: এই ধরণের অ্যানিমেশন গিম্প দিয়ে তৈরী করা যায়, টিউটোরিয়াল এর লিঙ্ক দিয়েছি। উন্মাদ তন্ময় ভাইয়ের টিউন দেখতে পারেন। হাসানাত ভাইও জট্টিল জিফ অ্যানিমেশন তৈরী করেন। তাঁর পাঠশালায় ভর্তি হোন। আমি আরেকটা সফটওয়্যার দিয়ে তৈরী করেছি। ডাউনলোড লিঙ্ক পেলেই কমেন্টের নিচে দিয়ে দেব।

    আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ সুন্দর, জটিল এবং উৎসাহমূলক কমেন্ট করার জন্য। ভাল থাকুন। 🙂

    @মোঃ আল মামুন:
    Photoscape ডাউনলোড করতে এখানে যানঃ http://www.photoscape.org
    এটা দিয়ে জিফ ইমেজ তৈরীর জন্য ইফেক্টও দিতে পারবেন।
    ধন্যবাদ। 🙂

টিঊনটি বুকমার্ক করে রাখলাম।ধন্যবাদ

Level 0

অত্যন্ত তথ্যবহুল এবং প্রয়োজনীয় টিউন, সবারই কাজে লাগবে। ধন্যবাদ।

অনেক ধন্যবাদ । ডালো দিলাম

টিউনটি যে এতো ফাটাফাটি হইছে আর বলার অপেক্ষা রাখে না ……….:cool: 😎 😎
Excellent !!!

Level 0

tune er bepar e na bole ami apnar manoshikotar bepar e bolte chai, ei tune ta die ontoto 10 ta tune kora jeto, ebong ta kore apni tothakothito shera tuner howoar poth e egie jete parten, kintu ta na kore etogulo upokari soft & tader bornona die eto chhoto boyosh e je matured manoshikotar porichoy apni dieachhen shei manoshikota ke salute.

    @learner: এত সুন্দর কমেন্টের জন্য আপনাকে ধন্যবাদ ভাই। টেকটিউন্সে অনেকেই দেখি ভাল ভাল ফ্রি-ওয়্যার নিয়ে টিউন করেন। কিন্তু একটা দুটো হওয়ার কারণে অনেকেই সেই টিউনগুলোতে কমেন্ট করেন না কিংবা উৎসাহিত করতে ব্যর্থ হন। তাই আমি ভাবলাম প্রয়োজনীয় সফটওয়্যারগুলো নিয়ে টিউন করি। যাতে সবাই সবকিছু একসাথে পান।
    ভাল থাকুন। 😀

Level 0

শুধু মাত্র আপনার টিউন টি তে কমেন্ট করার জন্য রেজিস্টার করলাম techtune এ । এক কথায় এত ভাল ও গুছান টিউন আর দেখি নাই। অসংখ্য ধন্যবাদ।

    @mehedee06: তাই…… ❓ :shocked:
    তাহলে এটাই হবে আমার টিউনিং সময়কালের শ্রেষ্ঠতম অর্জন।
    কমেন্টের মাধ্যমে টিউনারদের উৎসাহিত করুন, তাহলেই দেখবেন টেকটিউন্স ভাল ভাল টিউনে সমৃদ্ধ হয়ে উঠবে।
    অগণিত ধন্যবাদ। ভাল থাকুন। 🙂

Level 0

আজকে যখন টেকটিউনসে আপনার নাম দেখলাম তখনি বুঝলাম আজকে নতুন কিছু জানতে পারব। সত্যিই আমি আপনার লেখার জন্য আগ্রহভরে অপেক্ষা করি। ভবিষ্যতে আরো অনেক অনেক সুন্দর টিউনের অপেক্ষায় রইলাম।

Level 0

good tune bro.

কি লিখব ? সবার কমেন্ট খুটিয়ে খুটিয়ে পড়লাম । সবার সবগুলি ভালো ভালো কমপ্লিমেন্টেসের সামেশন করে দিয়ে দিলাম তোমাকে ! যুগ যুগ জিও মেরে ভাই ! আর উপস্থাপনা ! “কি কারণে এড়াতে চাই?:
আমরা কি এখনো ১৯৯৫ সালে আছি?!?!? — অসাধারন । হ্যাটস অফ টু ইউ । আজ একটু নস্টালজিক হ্যে যাচ্ছি – মনে পড়ে গেল তমাকে কর আমার প্রথম কমেন্ট । তখন তোমার এত ভক্ত বৃন্দ হয় নাই । একদম সঠিক ছিল সেই মূল্যায়ন ।

    @অপু.পশ্চিমবাংলা: হা হা……টিউনের সার্জারি তো ভালই করেছেন! 😛
    আপনাকে কিছু নতুন বললে সেটা ঘুরেফিরে পুরনো কথাই হয়ে যাবে। তাই কিছু বললাম না।
    তবে কষ্ট করে এসে একটি কমেন্ট করার জন্য ধন্যবাদ। 🙂

অসাধারণ… অনেকদিন পর কোয়ালিটি টিউন পেলাম… “নিওফাইটের রাজ্যে” ধন্যবাদ আপনাকে অনেক সময় নিয়ে দারুণ টিউনটি করার জন্যে… :] আগামীকালের মিট-আপে আসছেন তো?

অসাধারণ টিউন। আসলেই আপনার লেখার হাত অনেক ভালো।এত কষ্ট করে লেখার জন্য ধন্যবাদ।

[অঃটঃ সামনে পরীক্ষা না?]

    @নিশাচর নাইম: কমেন্ট করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ নাইম ভাই।

    [অফ টপিকঃ হুম পরীক্ষা, ৫ দিন আগে আমার নানা মারা গিয়েছেন তাই আমি ছাড়া বাসার সবাই গ্রামের বাড়িতে যায়, একা একা ভাল লাগছিল না আর মনটাও নানার জন্য অনেক খারাপ ছিল; তাই টিউনটি এর মাঝে তৈরী করলাম। গতকাল সবাই আসাতে আজকে পোস্টটা জমা দিলাম। খোঁজ নেওয়ার জন্য আবারো ধন্যবাদ। ভাল থাকুন]

অসাধারণ

Level New

khubi valo akta tune. onek din por amon akta post pelam,
atha lagabar jonne jor todbir chalalam.

    @hadinoyan: কমেন্টের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আঠা লাগাবে কি না সেটা অ্যাডু আর মডু ভাইয়েরাই জানে। ভাল থাকুন। 🙂

স্রেফ অসাধারন। তবে মনে হয় পার্টিশনেরটা বাদ পরে গেছে।
1. easeus partition master home
2. minitools partition wizard home – এই দুইটার যে ফিচার আছে এর বাইরে আর কিছু ব্যবহার করার কোনো মানেই হয় না।

ব্যক-আপ, ক্লোনিং, ইমেজিং এর জন্যঃ
1. easeus todo backup free – acronis true image এর চেয়ে কোনো অংশে কম না। easy, neat & clean
2. macrium reflect free

আমার আরো কিছু প্রিয় ফ্রি-ওয়্যার, সবার সাথে শেয়ার করি :

1. Minitools power data recovery – আসলেই পাওয়ারফুল; মারাত্মক কাজ করে। ফ্রি হলেও অন্যতম সেরা রিকভারি সফট

2. Auslogic disk defrag – আমার দেখা সেরা defragmentar; folderwise-ও defrag করা যায়

3. Picasa 3 – অসাধারন ফটো ভিউয়ার + বেসিক এডিটর। জুমিং করার ক্ষমতাটা জটিল। এটাকে আপনার লিস্টে যোগ করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি

4. Komodo Edit – a versatile & open source code editor; সফটওয়ার টা একটু ভারী (46 mb) তবে খুবি ভালো এডিটর। full featured। অনেক প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ সাপোর্ট করে + cross platform. প্রত্যেক ল্যাংগুয়েজ এর জন্য আলাদা IDE’র দরকার নাই। এই এডিটর আর compiler হলেই চলবে।

5. eclipse IDE এবং Netbeans IDE। চমৎকার এবং স্বয়ংসম্পূর্ণ। visual studio র সাথে পাল্লা দিতে সক্ষম – আরো বেশি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ সাপোর্ট করে। প্রয়োজনমত plugins add করা যায়। ব্যবহার না করলে বোঝা যাবে না কাজ করে কত আরাম পাওয়া যায়।

6. Tera copy – জানালার কচ্ছপ গতির ফাইল কপির চাইতে অনেক দ্রুত কপি করে (আমার মতে) । সবচেয়ে যে জিনিসটা ভালো লাগে – কোনো ফাইলে এরর থাকলে (যেমন bad sector) ওইটা বাদে বাকি টুকু কপি করে ফেলে। জানালার মত 99% গিয়ে stop হয়ে যায় না। এইরকম আরো আছে FastCopy199r4, unstoppable copier, copy handler । সবগুলাই ফ্রি 😀

আরো অনেক গুলা ছিল। আজকের মত থাক। অনেক ধন্যবাদ এত সুন্দর একটা টিউন করার জন্য।

    @নিবিড় ফরহান: আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ এতগুলো ফ্রি-ওয়্যার এর খোঁজ দেওয়ার জন্য। Picasa আর Partition ম্যানেজার শাওন ভাইয়ের টিউনে আছে, বাকিগুলার কথা একদমই জানতাম না। 🙁
    ভাল থাকুন। সময় পেলে এগুলো দিয়ে টিউন আপডেট করে ফেলব। 😀
    আসলে আমি যেগুলো পেয়েছি সেগুলো নিয়েই টিউন করলাম।
    আপনাকে আবারো অসংখ্য ধন্যবাদ। ভাল থাকুন। :mrgreen:

এই টিউনে কমেন্ট ‍না করে উপায় আছে! চরমমমমমমমমমমমমমমমমমম হইছে

আরও ফ্রি ওয়্যার আছে নিবিড় ফরহান ভাইয়ের কমেন্টেঃ
পার্টিশনেরটা বাদ পরে গেছে।
1. easeus partition master home
2. minitools partition wizard home – এই দুইটার যে ফিচার আছে এর বাইরে আর কিছু ব্যবহার করার কোনো মানেই হয় না।

ব্যক-আপ, ক্লোনিং, ইমেজিং এর জন্যঃ
1. easeus todo backup free – acronis true image এর চেয়ে কোনো অংশে কম না। easy, neat & clean
2. macrium reflect free

আমার আরো কিছু প্রিয় ফ্রি-ওয়্যার, সবার সাথে শেয়ার করি :

1. Minitools power data recovery – আসলেই পাওয়ারফুল; মারাত্মক কাজ করে। ফ্রি হলেও অন্যতম সেরা রিকভারি সফট

2. Auslogic disk defrag – আমার দেখা সেরা defragmentar; folderwise-ও defrag করা যায়

3. Picasa 3 – অসাধারন ফটো ভিউয়ার + বেসিক এডিটর। জুমিং করার ক্ষমতাটা জটিল। এটাকে আপনার লিস্টে যোগ করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি

4. Komodo Edit – a versatile & open source code editor; সফটওয়ার টা একটু ভারী (46 mb) তবে খুবি ভালো এডিটর। full featured। অনেক প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ সাপোর্ট করে + cross platform. প্রত্যেক ল্যাংগুয়েজ এর জন্য আলাদা IDE’র দরকার নাই। এই এডিটর আর compiler হলেই চলবে।

5. eclipse IDE এবং Netbeans IDE। চমৎকার এবং স্বয়ংসম্পূর্ণ। visual studio র সাথে পাল্লা দিতে সক্ষম – আরো বেশি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ সাপোর্ট করে। প্রয়োজনমত plugins add করা যায়। ব্যবহার না করলে বোঝা যাবে না কাজ করে কত আরাম পাওয়া যায়।

6. Tera copy – জানালার কচ্ছপ গতির ফাইল কপির চাইতে অনেক দ্রুত কপি করে (আমার মতে) । সবচেয়ে যে জিনিসটা ভালো লাগে – কোনো ফাইলে এরর থাকলে (যেমন bad sector) ওইটা বাদে বাকি টুকু কপি করে ফেলে। জানালার মত 99% গিয়ে stop হয়ে যায় না। এইরকম আরো আছে FastCopy199r4, unstoppable copier, copy handler । সবগুলাই ফ্রি :D

ওরে কি টিউনরে!
তুমি যে এমন জটিল টিউন করতে পারবা আমি আগেই ভেবেছিলাম।
শুধু বলবো নিয়মিত টিউন কইরো। 🙂 😀

sundor hoyce

অসাধারণ টিউন।এতো এতো কমেন্ট। পড়তে পড়তে প্রাণ জুড়িয়ে গেলো।মঙ্গল কামনা করছি এতো ভালভাল জিনিস উপহার দেয়ার জন্য। অবশ্য হিংসে যে হচ্ছে না তা না। এত সুন্দর টিউন করার মত যোগ্যতা আমার নেই।ইস যদি থাকত…!!!

    @roufmomen: প্রথমেই বলি, অনন্যসাধারণ কমেন্ট! আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ একটি সুন্দর কমেন্ট করার জন্য।
    ভাই এইসব কী বলেন, যোগ্যতা নাই?!!! আমার তো টিউন করার যোগ্যতা ছিল না; সিনিয়রদের থেকে আস্তে আস্তে শিখছি।
    কমেন্ট যখন করেছেন, টিউনও করুন; তাহলেই দেখবেন অসাধারণ কমেন্টের মত আপনি অসাধারণ টিউনও করতে পারছেন।
    ভাল থাকুন; শুভকামনা রইল। :mrgreen:

@নিওফাইটের রাজ্যে, এত বড় টিউন করার ধৈর্য্য তুমি পাও কই? 😉

আমার Recuva সফটটা পছন্দ হইসে।

DU মিটারের মত কোন ফ্রিওয়্যার আছে নাকি তোমার সংগ্রহে?

ধন্যবাদ তো থাকছেই 😀

    @আরাফাত বিন সুলতান: অল্প লেখার ধৈর্য আছে না? অল্প অল্প লিখেই তো বড় টিউন করি।
    🙁 নারে ভাই, প্রি-পেড বিলাই ইউস করি; ওইটাতেই DU Metre এর মত ব্যবস্থা আছে।
    কষ্ট করে এসে মন্তব্য দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ। 😀

    Level 0

    আরাফাত বিন সুলতান vai, amar kachhe achhe ,link to dite parchina, karon onek age download korechhilam, kintu software tar naam “netspeedmonitor_2_5_4_0” , DU meter er baap, onek option ache matro share 3 MB.apni google mamar kachhe search kore ber koren, ar jodi ekantoi na pan, tahole amake eikhane abar mail ID die reply dien, ami mail kore pathie debo inshallah.

স্ক্রল করতে করতে আঙ্গুল আর হাতের বারোটা বেজে গেছে……জানিনা কতদিনে এই টিউনটি লিখেছেন, এতো দেখছি আত্মোৎসর্গ করে দিয়েছেন রীতিমতো …সরাসরি প্রিয়তে নিলাম ।

অসাধারণ .

আপনার পরীক্ষা কেমন হল?টিউনটা আগেই পড়া ছিল কিন্তু আজকে আবার চোখে পরে গেল।আপনার লেখার ভঙ্গিমাটা মজার।আর আপনার কিছু টিউন দেখে মনে হল আসলেই একটু আলাদা কিছু।স্বকীয়তা আপনার টিউনকে ফুটিয়ে তুলছে।ধন্যবাদ আমাদের সাথে সুন্দর কিছু শেয়ার করার জন্য। 😀

    @Ochena Balok: পরীক্ষা ভালই হল। হেহেহ কম্প্লিমেন্ট পইড়া কিঞ্চিৎ লজ্জিত হইলাম 😳 😛 😆
    আরও কিছু শেয়ার করার ইচ্ছা ছিল, তাছাড়া এই টিউনের কিছু লিঙ্ক আপডেট করতে হবে। ইদানিং আলসেমির কারণে কিচ্ছু করতে মুঞ্চায় না :P। খালি খাই, দাই ঘুমাই 😛 😀

কই 22 December, 2011 অর কই আজ 30 June, 2012. তারপরেও টিউমেন্ট করতেছি কারন এক সাথে এত ফ্রিওয়ার কখনও দিখিনাই । সোজা প্রিয়তে নিয়েছি । অনেক অনেক ধন্যবাদ ।
@ Ochena Balok : আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ । আপনার কমেন্ট থেকেই এই টিউনের খবর পেয়েছি ।

    @জ্ঞান-অন্বেষী: হি হি হি পুরান টিউনে কমেন্ট করতে যেই মজা

      @Ochena Balok: আমিও মজা পাই, তয় আপনার টিউন দেখি না কেন? কমেন্ট না করলেও আপনার শেয়ার করা ফ্রিডবিড দিয়া চলতেছি। চরম একটা সাইট। 🙂 আরও কিছু লিচিং সাইট প্লিজ শেয়ার করেন না আমাদের সাথে! 😥

    @জ্ঞান-অন্বেষী: হুম, আসলেও আমরা ফ্রি-ওয়্যারের থেকে ক্র্যাক কিজেনের খবর রাখি বেশি। অথচ দেখেন প্রিমিয়াম সফটওয়্যারগুলো আমাদের যে প্রয়োজন মেটাতে সক্ষম ফ্রি-গুলোতেও সে সব সুবিধা দেয়। আমি বিশ্বাস করি প্রতিটি প্রিমিয়ামেরই ওপেনসোর্স কিংবা ফ্রি অল্টারনেটিভ থাকে, এবং আমি পেয়েছিও 😀
    টিউনের খবর দেখতে কমেন্ট দেখা লাগবে না, যার সব টিউন দেখতে ইচ্ছা করবে শুধু তার নামের উপ্রে ক্লিক করবেন 🙂 😆
    প্রিয়তে নেওয়ার জন্য ধইন্ন্যা, সবগুলাই কিন্তু কাজের 😉