ADs by Techtunes tAds
ADs by Techtunes tAds

যে সকল মহান ব্যক্তিদের কারনে আমরা পেয়েছি আজকের এই ফটোশপ এবং ফটোশপ এর ইতিহাস সহ পেছনের কিছু গল্প

টিউন বিভাগ অ্যাডবি ফটোশপ
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

আসসালামু আলাইকুম,

ADs by Techtunes tAds

বিজয়ের মাসে বিজয়ী ভাব ভাব অবস্থায় ভালো আছেন সবাই আশা করি। আমাদের জাতীয় জীবনে যে কয়টি মাস ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ন স্বাক্ষী হয়ে আছে তার মধ্যে ডিসেম্বর অন্যতম। স্পষ্ট করে বললে ডিসেম্বর মাস আমাদের বিজয়ের মাস। আর সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে আজকের টিউন লেখা শুরু করলাম।

গ্রাফিক ডিজাইনারগন মুলত তিনটি প্রোগ্রামেই তাদের ডিজাইন কাজটি করে থাকেন। তার মধ্যে এডবি ফটোশপ হলো ইমেজ এডিটিং এর জন্য পৃথিবীর সেরা প্রোগ্রাম। অন্যদিকে এডবি ইলাষ্ট্রেটর ভেক্টর ভিত্তিক ডিজাইনের জন্য, এডবি ইনডিজাইন প্রিন্টিং ও প্রেসের প্রজেক্টগুলোর কাজে খুব বেশি পরিমানে ব্যবহৃত হয়।

ছবি - Shutter Stock

আজ শুধুই এডবি ফটোশপের আলোচনা। ফটোশপকে আমরা সবাই অনেক ভালোবাসি কারন পেশাদার ডিজাইনার থেকে শুরু করে ফটোগ্রাফার এমনকি শখের বসে যারা ফটো এডিটিং করেন তারাও ফটোশপ দিয়েই তাদের কাজ করেন। ফটোশপের ব্যবহার অনেক সহজ, টুলস গুলো সুন্দরভাবে সাজানো এমনকি একটি ডিজাইনকে চমকপ্রদ করে তুলতে যা যা করা লাগে প্রায় সবকিছুই ফটোশপে রয়েছে। তাই ফটোশপ ডিজাইনার, ফটোগ্রাফারদের কাছে এত জনপ্রিয়।

কিন্তু বলতে কিছুটা খারাপ লাগলেও এটাই সত্য যে আমরা অনেকেই ফটোশপের উৎপত্তি থেকে শুরু করে আজকের অবস্থানে আসার ইতিহাস, কোন কোন মহান ব্যক্তিদের পরিশ্রমের ফসল হিসেবে ফটোশপ পেয়েছি তা জানিনা। আর এই অজানা বিষয়কে জানার জন্য আজকের লেখা। আলোচনার বিষয়টিকে আমরা ঘুরিয়ে এভাবেও বলতে পারি

“যে সকল মহান ব্যক্তিদের কারনে ফটোশপ পেয়েছি আমরা তাদের সম্মন্ধে বিস্তারিত জানব আমরা আজই”

কারা সেই মহান ব্যক্তি আসুন জেনে নেইঃ

Thomas knoll পেশায় একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার। জন্ম আমেরিকার Michigan, গ্রেজুয়েশান শেষ করেন University of Michigan  থেকে। তার ভাই Jhon knoll যিনি পেশায় Visual effects supervisor. তাদের বাবা Glen knoll ছিলেন University of Michigan  এর একজন প্রফেসর।

সময়টা ১৯৮৭ সাল। তখন Thomas knoll একজন Phd student.  তিনি Macintosh Plus  এর জন্য একটি গ্রাফিক এপ্লিকেশন ডেভলপ করেন। এই এপ্লিকেশনটি এক কালারের পর্দায় সাদা-কালো ছবি শো করতে ব্যবহার হত। Knoll  এটির নাম দিয়েছিলেন Display. মূলত এই display এপ্লিকেশনটিকে Father of photoshop বলা যায়্।

Thomas knoll এর ভাই Jhon knoll প্রোগ্রামটি দেখলেন। Jhon knoll ফটোর প্রতি অতিমাত্রায় আগ্রহী ছিলেন। Jhon  তার ভাই Tom কে একটি ফটো এডিটিং প্রোগ্রাম বানানোর জন্য রাজি করালেন। তখন Thomas knoll তার চলমান শিক্ষা জীবন থেকে ৬ মাসের বিরতি নিয়ে তৈরি করেন ফটো এডিটিং প্রোগ্রাম যেটির নাম দিতে চেয়েছিলেন Image pro. কিন্তু কপিরাইট সংক্রান্ত জটিলতার কারনে সে নামের বদলে আমরা পেয়ে যাই ফটোশপের প্রথম ভার্সন ফটোশপ ০.৭। দুই ভাইকে একটু দেখে নেই-

Thomas Knoll

ADs by Techtunes tAds

Jhon Knoll

ফটোশপের শুরু দিকের ভার্সনগুলোঃ

ফটোশপ ১.০ >>

সেপ্টেম্বর ১৯৮৯ এডবি কর্পরেশন ফটোশপ প্রোগ্রামটি কিনে নেওয়ার পর এর ফিচার এ ব্যাপক পরিবর্তন আসে। ১ ফেব্রুয়ারী ১৯৯০ ডিজিটাল কালার এডিটিং ও ইমেজ রিটাচিং সহ ফটোশপ ১.০ ভার্সন রিলিজ হয়। SciTex এর মত উচ্চমানের ফ্ল্যাটফরমে ব্যবহারের জন্য এটি চালু হয় এবং সাধারন মানের একটি Photo retouching এর জন্য ৩০০ ডলার ব্যয় করতে হত তখন।

ফটোশপ ২.০ >>

জুন ১, ১৯৯০ আর নতুন ফিচার যুক্ত করে ফটোশপ ভার্সন ২.০ রিলিজ করে। এই ভার্সনে যুক্ত করা হয় adding Paths, CMYK color and the Pen tool এর মত গুরুত্বপূর্ন ফিচারগুলো।

১৯৯০ সালের নভেম্বর মাসে সর্বপ্রথম উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে চালানোর উপযোগী করে ফটোশপ ২.৫ রিলিজ করা হয়। এই ভার্সনেই ফটোশপে প্যালেট যুক্ত করা হয়।

১৯৯৪ সালে ফটোশপ ৩.০ রিলিজ হয়। এই ভার্সনে ফটোশপের লেয়ার প্যানেল যুক্ত করা হয়। এই লেয়ার যুক্ত হওয়ার ফলে ডিজাইনারদের কাজ অনেক সহজ হয়ে যায়। অনেক জটিল বিষয় সহজ হয়ে যায়। আসলে সবই সম্ভব হয়েছে Thomas Knoll এর জন্য।

ADs by Techtunes tAds

ফটোশপ ৪.০ >>

প্রায় দুই বছর পর ফটোশপের পরবর্তী ভার্সন ফটোশপ ৪.০ রিলিজ হয়। এই ভার্সনে যুক্ত করা হয় Adjustment layer ও  macro ফিচারদুটি। এছাড়াও ফটোশপের user interface  যুক্ত করা হয় এই ভার্সনে। একটু ভেবে দেখুন ডেভেলপারদের অক্লান্ত পরিশ্রম না থাকলে এ্কটি ইমেজে ওয়াটারমার্ক দিতে আমাদেরকে কতইনা কষ্ট করতে হত আজও।

ফটোশপ ৫.০ >>

১ মে ১৯৯৮ ফটোশপের ভার্সন ৫.০ রিলিজ করা হয়। Editing type, Undo command, History panel, Magnetic lasso tool প্রভৃতি ফিচার চালু করা হয় এই ভার্সনে। ইমেজ এডিটিং এ কিছু বিষয় কত সহজ হয়ে গিয়েছে এই ভার্সনটি রিলিজ হওয়ার পর। এরপর মাত্র ১ বছর পর ফটোশপ ৫.৫ রিলিজ করা হয়। এই ভার্সনে Save for web  ফিচারটি যুক্ত করা হয়। আর এর সাথে সাথে PNG ফরমেট এ ইমেজ এক্সপোর্ট করার ব্যবস্থাও পেয়ে যায়।

ফটোশপ ৬.০ >>

বিংশ শতাব্দীর একেবারে শেষপ্রান্তে ফটোশপ ৬.০ রিলিজ হয়। ভেক্টর শেপ, টাইপ টুল, ব্লেনডিং অপশান প্রভৃতি ফিচার যুক্ত করা হয় এই ভার্সনে। এই ভার্সনে টাইপ টুল হয়েছে আরও সহজ। চোখ ধাধাঁনো এফেক্ট দেওয়ার জন্য ব্লেনডিং মোড এই ভার্সনেই পরিপূর্নতা পায়।

ফটোশপ ৭.০ >>

ফটোশপ ৬.০ রিলিজ হওয়ার ঠিক ২ বছর পর এ যাবত কালের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও বহুল ব্যবহৃত ভার্সন ফটোশপ ৭.০ রিলিজ হয়। খুব সহজে ফাইল ও ফোল্ডার ব্রাউজ করার জন্য ফাইল ব্রাউজার, ব্রাশ ও প্যাচ টুল যুক্ত হয় এই ভার্সনেই। ফটোশপের পূর্ন রুপ বলতে আমরা এই ভার্সনকেই বুঝি। আজও অনেক বড় বড় বিখ্যাত ডিজাইনগন ফটোশপ ৭.০ তে কাজ করেন।

ফটোশপ ‍ক্রিয়েটিভ স্টুডিও (সিএস ৮.০) >>
যেহেতু ফটোশপের ডেভলপমেন্ট একটি চলমান প্রক্রিয়া হিসেবে চলছে। ডেভেলপারগন অক্লান্ত পরিশ্রম করছে নিত্যনতুন ফিচার যোগ করার কাজে। ২০০৩ সালে ডিজাইনারদের প্রয়োজনীয় সবকিছু, গ্রাফিক ডিজাইনে লে-আউট ফিচার, ফটোগ্রাফির সবকিছু যুক্ত করে ফটোশপ রিলিজ করে ফটোশপ ৮.০ (সিএস)। Script, language, grouping of layer  প্রভৃতি ফিচার যুক্ত করা হয় এতে। যা কিনা এই প্রোগ্রামটির অন্য এক উচ্চতায় নিয়ে যায়।

ফটোশপ সিএস ২ >>

২০০৫ সালে ফটোশপ সিএস ২ ভার্সন রিলিজ হয়। Red-eye removal tool, Vanishing point tool, Smart object এর মত ফিচার নিয়ে আসে এই ভার্সনে যার সাহায্যে ফটোশপের এডিটিং হয়ে উঠে কোন ধরনের Quality লস করা ছাড়াই। সত্যিই ধন্যবাদ দিতে হয় ডেভেলপার টিমের প্রত্যেকটি সদস্যকে।

ADs by Techtunes tAds

ফটোশপ সিএস ৩.০ >>

২০০৭ সালে ফটোশপ সিএস ৩.০ রিলিজ হওয়ার পর এই সফটাও্য়্যারে আমরা বৈপ্লবিক পরিবর্ফতন দেখতে পাই। টূলস এ ব্যাপক পরিবর্তন আসে। এর নেভিগেশান প্রক্রিয়া ফটোশপে কাজ করাকে আর দ্রুততর করে তোলে। ক্যামেরা র ও কুইক সিলেকশান টুলের মত চমতকার বিষয়গুলো যুক্ত হয় এই ভার্সনে।

ফটোশপ সিএস ৪ >>

২০০৮ সালে ফটোশপের নতুন ভার্সন সিএস ৪ আসে। Panning, Zooming, Masking, Adjustment panel ফিচারগুলোকে আধুনিক করে ডিজাইনার কাজকে আরও দ্রুতগতির ও আর চমকপ্রদ করার বিভিন্ন কমান্ড আসে এই ভার্সনে।

ফটোশপ সিএস ৫ >>

২০১০ সালে ফটোশপ সিএস ৫ রিলিজ হয়। এই ভার্সনে যুক্ত হয় Puppet Warp Tool, Bristle tips, Mixer Brush and Automatic Lens correction প্রভৃতি ফিচারগুলো। Masking ফিচারটিকে আরও আধুনিক করা হয় এই ভার্সনে।

ফটোশপ সিএস ৬ >>

মে ৭, ২০১২ বহুল প্রতিক্ষিত ফটোশপ সিএস ৬ রিলিজ হয়। এই ভার্সনে সম্পূর্ন নতুন একটি ইউজার ইন্টারফেস আমরা পেলাম। যাতে নিজেদের সুবিধা মত কালার এডজাস্ট করা সম্ভব। Auto saving, patch tool, move tool, blur gallery, vector shape with dash and dotted stroke প্রভৃতি নতুনভাবে সংযোজন করা হয়েছে। অর্থাৎ ফটোশপকে পরিপূর্ন করার যা প্রয়োজন সবই করা হয়েছে এই ভার্সনে। ভিডিও, এনিমেশন তৈরি করা অনেক সহজ হয়েছে এই ভার্সন আসার পর।

ফটোশপ Creative Cloud (সিসি) >>

ফটোশপ সিএস ৬ এর মজা পুরোপুরি নিতে পারলামনা। ঝড়ের বেগে রিলিজ হয়ে গেল ফটোশপের একেবারে লেটেস্ট ভার্সন Photoshop creative cloud (CC). এটি মূলত আসে সফটওয়্যার পাইরেসি কমানোর লক্ষ্যে যাতে করে এডবি কোম্পানি তাদের খরছটা কমাতে পারে। যে কারনে তারা ব্যবহারকারীদের জন্য কিছু অর্থ এর বিনিময়ে এটি এডবি থেকে ব্যবহার করার সুযোগ/সেবাটি রেখেছে।

ADs by Techtunes tAds

Smart sharpen ও Camera sharp reduction এর মত অবিস্বাশ্য কিছু ফিচার যোগ করা হয়েছে এই ভার্সনে।

উপরের আলোচনা থেকে আমরা যদি একটু পিছন ফিরে তাকাই তাহলে দেখব Thomas Knoll ও Jhon Knoll ভাইদ্বয়ের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় Display দিয়ে যা শুরু হয়েছিল তার আধুনিক সংস্করন হলো বর্তমান ফটোশপ সিসি। বর্তমান ভার্সনটি দিয়েই গ্রাফিক ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইনের প্রয়োজনীয় কাজ, ভিডিও এডিটিং, সীমিত এনিমেশন প্রভৃতি খুব সহজেই করা সম্ভব। এডবি কোম্পানির ডেভেলপার গন যে ভ্রত নিয়ে  সামনে এগিয়ে যাচ্ছে তাতে আমরা ভবিষ্যতে ফটোশপকে অন্য ভুমিকায় আর অত্যাধুনিক চেহারায় দেখলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবেনা। আমরা সবাই সে অপেক্ষায় থাকি এবং বর্তমান পর্যায়ে যতটুকু পেয়েছি তার সুধা পান করি।

“আমরা সবাই ফটোশপ ভালোবাসি”

শেষ কথাঃ

এই প্রোগ্রামটির বহুমুখি ব্যবহার ডিজাইনারদের জন্য অাশির্বাদ। এই লেখাটি একটি তথ্যমূলক লেখা। যতগুলো তথ্য তুলে ধরা হয়েছে সবই সঠিক ভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। ভবিষ্যতে চেষ্টা করব আবার এরকম তথ্যসমৃদ্ধ লেখা নিয়ে হাজির হবার জন্য। সবাই ভালো থাকবেন আশা করি। কোন প্রশ্ন থাকলে মতামত অংশে জানাবেন। নিজের কাছে ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যকে জানানোর দায়িত্ব নিবেন আশা করি। কারন জ্ঞান বিতরনে জ্ঞানভান্ডার সমৃদ্ধ হয় সবসময় এটা চরম সত্য।

আজ আর নয়। আবার আসব। আর সরাসরি আমাকে পেতে নিচের ইমেজ লিংকে ক্লিক করে ফেসবুকে আসুন। ধন্যবাদ সবাইকে।

সরাসরি আমাকে পাবেন ফেসবুকে

ADs by Techtunes tAds

ADs by Techtunes tAds
Level 0

আমি মোঃ সাইফুল। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 5 বছর 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 22 টি টিউন ও 148 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

    @Rakib Sharker: রাকিব, আশা করি ভালো আছ। আর মতামতের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

Sundor Tune. Thanks.

apnar tune ti khub sundor o guchano… onek darun ekta tune,,, sob mile oshadaron,,, donnobad apnake..

সাইফুল ভাই অনেক অজানা তথ্য জানলাম । ধন্যবাদ এত সুন্দর টিউন করার জন্য। আশা রাখি আমরা ফটোশপের প্রতিটি টুলসের ব্যবহার আপনার মাধ্যমেই শিখব।

    @নাজমুল ইসলাম: ধন্যবাদ ভাই। আস্তে আস্তে আসছি। ফটোশপ এর মূলটা বের করে আনার চেষ্টা করছি আমি। ফটোশপ নিয়ে আমার চেইন টিউন ২ পর্ব পাবলিশ হয়েছে। সেখানেই সম্পূর্ন ফটোশপটা তুলে আনব। চেইন টিউনটা ফলো করবেন। তাহলে সবই পাবেন বলে আশা রাখি।

এ রকম সুন্দর, গুছানো ও তথ্য বহুল টিউনের জন্য ধন্যবাদ।

    @িশহাব: শিহাব ভাই, ধন্যবাদ। আপনি আমার সাথে দেখা করবেন সময় করে।

Photoshop 7 er download link kaw ektu diben…

Newbie

প্রসংশা করার মত ভাষা নাই

জানার ছিল অনেক কিছু। ভালো লাগলো। 🙂

    @রনি সাটিয়ার: ভাই প্রশংসা করায় দাওয়াত দিলাম।

অনেক সুন্দর সাইফুল ভাই @ এতদিন ধরে ফটোশপ ব্যবহার করি কিন্তু এত কিছু জানতাম না, আজকে জানলাম @ ধন্যবাদ

    @হোছাইন আহম্মদ: হোছাইন ভাই, কি আর বলব। আপনি প্রফেশনাল মানুষ। শুধু ধন্যবাদ দিলাম। আপনাদের মত মানুষ উৎসাহ দিলে পুলকিত হই।

মডারেটরদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি, টিউনটি নির্বাচিত করা হোক।
আর হ্যাঁ, সাইফুল ভাই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

    @কাজী কামরুজ্জামান: ধন্যবাদ। আমার ভালো থাকার জন্য দোয়া করবেন।

অনেক সুন্দর টিওন করেছেন সাইফুল ভাই, আর অবশ্যই প্রশংসার দাবীদার।

    @রাজিবুল হাসান: আপনাদের প্রশংসায় অনুপ্রানিত হই। ধন্যবাদ।

অনেক সুন্দর টিউন! Photoshop এর অনেক কিছু জানলাম।

অনেক তথ্যে সমৃদ্ধ ফটোশপের ইতিহাস সম্পর্কে একটি অতুলনীয় পোস্ট, ধন্যবাদ।

আপনার আরো পোস্টের অপেক্ষায়…

    @জাকারিয়া বাবু: ধন্যবাদ আপনাকেও। অপেক্ষা করুন, আরও সুন্দর টিউন পাবেন এই সপ্তাহেই।

নতুন কিছু জানলাম। টিউনটির জন্য অনেক ধন্যবাদ

Level 0

অসাধারন তথ্যবহুল একটি টিউন পড়ার সৌভাগ্য হল।

পড়ে অনেককিছু জানলাম। আপনি টিউন না করলে হয়ত কোনদিন ফটোশপেন ইতিহাস জানার আগ্রহ জমত না 😛
অনেক ধন্যবাদ।

    @সাইফুল ইসলাম: ধন্যবাদ সাইফুল ভাই। আপনি ভালো আছেন নিশ্চয়ই।

দারুন লিখেছেন
ভাল লাগছে 🙂

বাট আমি সি এস 8.0 ইউজ করি।

ফটোশপ Creative Cloud (সিসি)
এর লিঙ্ক টা দিবেন তো

    @পল্লব পাড়ই: ফটোশপ সিসির লিংক টিটিতেই আছে। একটু খুজে নিন। প্রবাসী ভাইয়ের লেখাতেই পাবেন। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

তাদের এই অবদান এর জন্য আজ আমরা ফটোশপ এর মত একটা গ্রেট সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারি। তাদের পতি রইল আমার সম্মান।আপনাকে ধন্যবাদ এই ইনফর্মেশন জন্য।

আপনাকে ধন্যবাদ টিউনের জন্য, আর তাদেরকে অনেক ধন্যবাদ জানাচ্ছি যে যাদের জন্য আমরা পেয়েছি আজকের এই ফটোশপ।

ধন্যবাদ–অনেককিছু জানতে পারলাম।

    @আকরামুল হাসান: আপনাকেও ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন। নিয়মিত টিটির লেখা পড়বেন আশা করি।

Hlw sir,
U just like a Diamond for me,I have a lot of work for u my work will be part time,of course about designing,something like Logo Designing,Flyer Design,BAnner Design,cover Design,Card making,Corporate ideintity Design.Etc, Minimum 3hours of a month at any time, I just need the work not your time, Time is need to you cause u r the person who earn starting 5000tk per month,i want to appoint u,Plz make a call- 01675877748
Your viva will be in skype.
I.e: u need a computer and a higher net speed,cz all the work will be held via online.
Regards 🙂

    @StylozScorpio: Thank you very much for nice proposal. But Brother actually @StylozScorpio</@<a I am busy also lazy man. So i cannot accept ur proposal though i have everything as per ur requirement. THanks again.

দারুন হইছে। অনেক দিন থেকে টিটি পড়ি কিন্তু কমেন্ট করতে পারতাম না… কেউ কি দয়া করে বলবেন প্রফাইল পিক কিভাবে change করব?

আপনাকে ধন্যবাদ না দিয়ে পারলাম না, ধন্যবাদ আপনাকে।

আপনার tune পড়ে খুব ভালো লাগলো । আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।

আপনাদের সবাইকে অনেক ধন্যবাদ। ব্যস্ততার কারনে নিয়মিত টিটিতে আসা হয়না তাই জবাব দিতে দেরি হয়েছে। আশা করি এখন থেকে নিয়মিত হব এবং সুন্দর কিছু লেখা নিয়ে আসব। স্ক্রিপ্ট লেখা শেষ। কিছুদিনের মধ্যে পাবলিশ করব ইনশাআল্লাহ। আবারও ধন্যবাদ সবাইকে।

অনেক অনেক ধন্যবাদ এইরকম তথ্যবহুল Tune করার জন্য।

অনেক ধন্যবাদ তথ্যসমৃদ্ধ পোস্টের জন্য। সাথে সাথে যদি ইলেস্ট্রটর ও ফটোশপ ২০১৯ ক্রাক ফাইলসহ এবং ফুল ভার্সন করার তরীকা দিতেন তাহলে ষোলকলা পূর্ণ হতো একটু বাকী থাকলো। আশাকরি এখন দিবেন। অনেকেই দেয় কিন্তু কাজ করে না। সঠিকটা দিবেন। আবারো ধন্যবাদ