ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

আসুন জেনে নিই গ্রাফিক্স কার্ডের আদ্যোপান্ত

আমরা সকলেই কম্পিউটার কিনতে যেয়ে যে জিনিসটির প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দেই তা হল গ্রাফিক্স কার্ড। যারা সময়মত গুরুত্ব দেন না, তারা পরবর্তীতে সাধের গেমগুলো খেলতে না পেরে এই ব্যাপারে মনোনিবেশ করেন। প্রযুক্তির দিন দিন উন্নতির কারণে তৈরী হচ্ছে নতুন নতুন অ্যাপ্লিকেশান বা গেমস। এসব চালাতে হলে ভালো মানের গ্রাফিকস কার্ড কেনার বিকল্প নেই। আজ আমি গ্রাফিক্স কার্ড এর সাথে জড়িত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে টিউন করছি। চলুন শুরু করে দেই।

ADs by Techtunes ADs

প্রথম কথা: গ্রাফিক্স কার্ড কী?

গ্রাফিক্স কার্ড হল মাদারবোর্ড এর সাথে সংযুক্ত এমন একটি ডিভাইস যেটা এক বা একাধিক মনিটরে দেখার জন্য ভিডিও আউটপুট তৈরী করে, এবং অন্যান্য ডিভাইস যেমন ক্যাপচার কার্ড, টিভি, হোম থিয়েটার, মিউজিক সিস্টেম ইত্যাদি এ ভিডিও দেখানোর কাজে সাহায্য করে। আজকাল গ্রাফিক্স কার্ড এর সাথে ইন্টিগ্রেটেড সাউন্ড ডিভাইস থাকে। ফলে ভিডিও এর পাশাপাশি অডিও আউটপুটও পাওয়া যায়।

গ্রাফিক্স কার্ডে কী কী থাকে?

কোর ক্লক:

আগেই বলেছি যে এটা ভিডিও আউটপুট দিয়ে থাকে। এই কাজের জন্য সকল গ্রাফিক্স কার্ডে থাকে একটি ‘কোর ক্লক’ যেটা মাদারবোর্ড এর আসল প্রসেসরের মতই কাজ করে এবং নিজস্ব ফ্রিকোয়েন্সি রয়েছে। এটাকে বলা হয় GPU বা Graphics Processing Unit. এর স্পীড ২৫০ মেগাহার্টজ থেকে ৪ গিগাহার্টজ পর্যন্ত হয়ে থাকে। এই GPU যেকোন ছবিকে প্যারালাল পদ্ধতিতে পিক্সেলের পর পিক্সেল আকারে সাজিয়ে ছবি তৈরী করে। পিক্সেল (Picture থেকে Pix আর Element থেকে el নিয়েই Pixel)  হল যেকোনো ছবির ক্ষুদ্রতম অংশ যার নিজস্ব বৈশিষ্ট্য আছে, এবং তা লাল, নীল আর সবুজ ডট বা ফোঁটার সমন্বয়ে গঠিত।

ভিডিও বায়োস:

মাদারবোর্ড এর বায়োসের মতই গ্রাফিক্স কার্ড এর বায়োস অন্যান্য ডিভাইস ও অপারেটিং সিস্টেম এর কার্নেলের সাথে সংযোগ রক্ষা করে। এখানে কার্ডের ভোল্টেজ, মেমরি, ফ্যান স্পীড ইত্যাদি নিয়ে সেটিংস দেওয়া থাকে। অবশ্য এগুলো পরিবর্তন করে আরো বেশী পারফরমেন্স পাওয়া সম্ভব।

ভিডিও মেমরি:

র‍্যামের মতই গ্রাফিক্স কার্ডেও মেমরি থাকে যেটাকে ভিডিও মেমরি বলা হয়। বর্তমানে DDR ধরনের মেমরি নিয়ে গ্রাফিক্স কার্ড তৈরী করা হচ্ছে। DDR মানে হল Double Data Rate. অর্থাৎ গ্রাফিক্স কার্ডটি কি হারে ডাটা আদান প্রদান করবে তা নির্ভর করে এই মেমরি এর উপর। বিভিন্ন ধরনের মেমরি লেআউট রয়েছে। যেমন DDR, DDR2,  GDDR3, GDDR3, GDDR5. মেমরির সাথে ক্লক স্পীডের সম্পর্ক আছে। নিচের ছকে দেখে নিন কোন ধরনের মেমরিতে ক্লক স্পীড আর ডাটা রেট কত।

Memory Type

ভিডিও আউটপুট:

গ্রাফিক্স কার্ডের বাকি যা থাকে তা হল ভিডিও দেখানোর একটা ব্যাবস্থা। অর্থাৎ ভিডিও আউটপুট কোন মনিটর বা ডিসপ্লে ডিভাইস এ পাঠানোর উপায়। বিভিন্ন ইন্টারফেস আছে যার মাধ্যমে এটা করা হয়। চলুন দেখে নিই কিভাবে –

১. ভিজিএ:

এটা Video Graphics Array এর ছোট্ট ফর্ম। এটা বহুল ব্যাবহৃত আর জনপ্রিয় একটি ইন্টারফেস। ১৫ পিন বিশিষ্ট সকেটের মাধ্যমে ভিডিও পাঠানো হয়। এটা RGB এর মাধ্যমে সিগনাল প্রেরণ করে। ছবিটা দেখলেই চিনতে পারবেন।

VGAVGA Port

ADs by Techtunes ADs

২. এইচডিএমআই:

সম্প্রতি এটা খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে কারন ক্ষুদ্র পোর্ট আর হাইডেফিনিশান আউটপুটের কারনে। প্রায় সকল গ্রাফিক্স কার্ডে অন্তত একটি এইচডিএমআই পোর্ট থাকে। High-Definition Multimedia Interface কে HDMI বলা হয়। ছবি দেখুন।

HDMI

HDMI Port

৩. ডিভিআই:

Digital Visual Interface থেকেই ডিভিআই এসেছে। এটা ২৪ পিন বিশিষ্ট পোর্ট যা নয়েজ ছাড়া ছবি দেখাতে ব্যাবহৃত হয়। সকল এলসিডি ও এলইডি মনিটরে এটা থাকে কারণ ডিভিআই দিয়ে ফ্ল্যাট স্ক্রিনে ছবি অনেক ভালো দেখা যায়। এটা দেখতে এরকম।

DVI

DVI Port

৪. এস-ভিডিও:

Separated Video থেকেই বলা হয় এস-ভিডিও। বিভিন্ন ডিভিডি প্লেয়ার, টিভি ইত্যাদি এ ভিডিও দেখানোর জন্য এটা জনপ্রিয়। তবে আধুনিক গ্রাফিক্স কার্ডে এইচডিএমআই এর প্রসারের কারণে এটা আর ব্যবহার করা হয়না। এর পোর্ট দেখতে এরকম –

ADs by Techtunes ADs

অন্যান্য যা যা থাকে:

কোর ক্লক খুব বেশি গরম হয়ে যাওয়ার কারণে ঠান্ডা করতে হিট সিঙ্ক বা ফ্যান ব্যাবহৃত হয়। হাই-এন্ড পিসি তে ঠান্ডা করতে লিকুইড কুলিং সিস্টেম ব্যাবহৃত হয়। কিছু কার্ডে পাওয়ার দেওয়ার জন্য আলাদা কানেক্টর থাকে। এখানে পাওয়ার সাপ্লাই থেকে জ্যাক লাগানো হয়। লিকুইড কুলিং সিস্টেম দেখতে এরকম –

Cooling System

গ্রাফিক্স কার্ড কোথায় কিভাবে লাগানো থাকে?

প্রথমদিকে ১৯৯৩ সালের দিকে গ্রাফিক্স কার্ড মাদারবোর্ড এ যে সকেটে লাগানো হত তার নাম ছিল পিসিআই বা Peripheral Component Interconnect. এটা প্যারালাল পদ্ধতিতে কাজ করত। পরে ইন্টেল ১৯৯৭ এ AGP (Accelerated Graphics Port) নামে পোর্ট তৈরী করে। এটা প্যারালাল পদ্ধতিতে কাজ করতে বলে অনেক ধীরগতির ছিল। অনেকে গ্রাফিক্স কার্ডকে এজিপি কার্ড বলেন যা সম্পুর্ণ ভুল কারণ এজিপিতে ৩টা খাঁজ থাকত আর বর্তমানে পিসিআই গ্রাফিক্স কার্ডে ২টা খাঁজ থাকে। ২০০৪ এর পর বাজারে নতুন পোর্টযুক্ত মাদারবোর্ড আসে যাকে পিসিআই-ই বলা হয়। PCI-e এর ফুল ফর্ম PCI-Express. উল্লেক্ষ্য যে PCIe পোর্টে শুধু গ্রাফিক্স কার্ড না, অন্যান্য সাউন্ড কার্ড, ল্যান কার্ড, ওয়াইফাই কার্ডও লাগানো হয়। একারণে অনেক মাদারবোর্ড এ একাধিক PCIe স্লট থাকে।

নিচের ছকে দেখে নিন বিভিন্ন এজিপি, পিসিআই আর পিসিআই-ই এর বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য -

AGP-PCI-PCIe

পিসিআই-ই এর পরে x বসিয়ে কার্ডের পিন সংখ্যা আর দৈর্ঘ্য বোঝানো হয়। নিচের ছক দেখুন।

x

এই দেখুন বিভিন্ন ধরনের পিসিআই স্লট -

pci

ADs by Techtunes ADs

পাওয়ার সাপ্লাই:

গ্রাফিক্স কার্ড হল বিশিষ্ট পাওয়ার খাদক। যাদের ভালো গ্রাফিক্স কার্ড আছে তারা ভালো জানেন যে এটা কী পরিমাণ এনার্জি খায় এবং গরম হয়। গ্রাফিক্স কার্ড থেকে ভালো আউটপুট পেতে অবশ্যই ভালো মানের পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করা প্রয়োজন। মনে রাখা দরকার যে কেসিং এর সাথে যে পাওয়ার সাপ্লাই ইউনিট দেওয়া থাকে সেটা কখনোই আসল নয়। জেনে রাখুন যে ৪০০ ওয়াটের পাওয়ার সাপ্লাইয়ের দাম কয়েক হাজার টাকা। সেখানে একটা কেসিং মাত্র দেড় বা দুই হাজার টাকা দামের হয়। ভাল ব্র্যান্ডের যেমন থার্মালটেক এর পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করলে ভালো হবে। নিচের ছবিটা দেখুন গ্রাফিক্স কার্ড এতটাই গরম হয় যে ডিমও সেদ্ধ হয়ে যাচ্ছে।

Egg

বিল্ট-ইন গ্রাফিক্স কার্ড নিয়ে কিছু কথা

বলতে গেলে প্রতিটা মাদারবোর্ডেই বিল্ট-ইন জিপিইউ থাকে। এটা আসলে প্রসেসরের কিছু অংশ ব্যবহার করে ভিডিও প্রসেস করতে। আর ফিজিকাল র‍্যামের একটা অংশ ব্যবহার করে ভি-র‍্যাম হিসেবে। এটার কোর ক্লক স্পীড খুবই কম হয়। এই গ্রাফিক্স কার্ড দিয়ে চলার মত সকল কাজ করা গেলে কখনোই রিচ-অ্যাপ্লিকেশান চালানো সম্ভব নয়। তাই কম ক্ষমতার হলেও আলাদা গ্রাফিক্স কিনে নেওয়াই উত্তম।

গ্রাফিক্স কার্ড নির্মাতা প্রতিষ্ঠান

ভেবে অবাক হবেন যে গ্রাফিক্স কার্ড নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা অনেক। কি ভাবছেন? আজ পর্যন্ত এটিআই, এনভিডিয়া আর ইন্টেল এইচডি গ্রাফিক্স ছাড়া তো কিছুই শুনলাম না, এটা কি ধরনের কথা? আসলে আমি আপনি দুজনই সঠিক। জিপিইউ বা প্রসেসর চিপ তৈরী করে মুলত এএমডি, এনভিডিয়া আর ইনটেল। সেটাকে কাজে লাগিয়ে কার্ড বানায় এটিআই, এমএসআই, আসুস, বায়োস্টার, ফক্সকন, গিগাবাইট, এক্সএফএক্স, স্যাফায়ার ইত্যাদি কোম্পানি।

এএমডি: ১৯৬৯ সালে প্রতিষ্ঠিত এই কোম্পানি বাজারে অনেক এগিয়ে আছে তাদের অত্যাধুনিক ডিভাইসগুলোর কারণে। গত বছরগুলোতে মার্কেটে এদের শেয়ার তুলনামূলকভাবে বেড়েছে। এরা মাইক্রোপ্রসেসর, চিপসেট, জিপিইউ ইত্যাদি তৈরী করে বাজারে বেশ সুনাম গ্রহন করেছে। সবার আগে ৬৪-বিট প্রসেসর তৈরীর কৃতিত্বস্বরুপ amd64 মডেল আজো পরিচিত।

amd

এনভিডিয়া: নতুন কিন্তু খুব দ্রুত বাজারে নামডাক ফেলে দেওয়া এই কোম্পানি ১৯৯৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। শুধুমাত্র জিপিইউ তৈরীতে এদের জুড়ি শুধু এএমডি নিজেই। বিভিন্ন ফ্যামিলির এবং অনন্য ফিচারের কারণে এদের ভিডিও কার্ড সুপরিচিত।

nVIDIA

ইনটেল: চিপ জায়ান্ট নামে খ্যাত এই কোম্পানি ১৯৬৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ভিডিও এক্সিলারেটর, মাদারবোর্ড, প্রসেসর, নেটওয়ার্ক ডিভাইস ইত্যাদি তৈরীতে ইনটেল সুপরিচিত। এদের তৈরী ভিডিও চিপসেট বিল্ট-ইন গ্রাফিক্স হিসেবে সকল ব্র্যান্ডের কম্পিউটার, ল্যাপটপে বহুলভাবে ব্যাবহৃত হয়।

Intel

ADs by Techtunes ADs

গ্রাফিক্স কার্ডের কতগুলো বিষয় যা দেখে কিনবেন

  • ট্রানজিস্টর সংখ্যা: কার্ডে যত বেশি ট্রানজিস্টর থাকবে, নয়েজ তত কম হবে, ভিডিও তত বেশি ভালোভাবে ফিল্টার হবে।
  • ক্লক স্পীড: এটা যত ভালো এবং বেশি হবে তত ভাল পারফরমেনস পাবেন। এটার দিকে নজর দিন।
  • মেমরি: এটাও আগে আলোচনা করেছি। এখন ১ জিবি থেকে ৪ জিবি পর্যন্ত কার্ড পাওয়া যাচ্ছে। আপনার কাজের ধরন অনুযায়ী দেখুন কোনটা লাগে।
  • মেমরি টাইপ: DDR, DDR2, GDDR3, GDDR4, নাকি GDDR5 তা দেখে নিন। যত ভালো হবে, তত ভালো পারফরমেন্স পাবেন। অবশ্য GDDR5 এর দাম একটু বেশি। জেনে রাখুন যে আপনার মাদারবোর্ড এর র‍্যাম DDR2 না DDR3 তার সাথে এটার কোন সম্পর্ক নেই।
  • বাস স্পীড: মেমরি বাস হল প্রসেসরটি একবারে কতটুকু ডাটা নিয়ে কাজ করে। বাস বেশি হলে খুব দ্রুত আউটপুট পাবেন। আবার বাস খুব বেশি হলে পাওয়ার খরচ তো বেশি হবেই, তার উপর আপনার মনিটর ছোট হলে বাস অব্যাবহৃত থাকবে।
  • পিসিআই ভার্সন: আপনার মাদারবোর্ড এর স্লট কোনটি তা দেখে কিনবেন। ধরুন আপনার PCIe x8, কিন্তু আপনি PCIe x16 2.0 কিনে আনলেন। তাহলে সেটা কাউকে দিয়ে দেওয়া ছাড়া উপায় নেই।
  • ডিরেক্ট এক্স সাপোর্ট: ডিরেক্ট এক্স হল মাইক্রোসফট এর অনন্য সংযোজন। নতুন নতুন হার্ডওয়্যার, ভিডিও এক্সিলারেশানের জন্য এটি অপরিহার্য। এর নতুন ভার্সন ১১। তাই গ্রাফিক্স কার্ড নতুন ভার্সন এর ডিরেক্ট এক্স সাপোর্ট করে কিনা দেখে নিন।
  • পিক্সেল শেডার: ভিন্ন মাত্রার পিক্সেল এবং আলোর তুলনামূলক প্রসেসিং এবং বৈশিষ্ট্য তুলে ধরতে পিক্সেল শেডার প্রয়োজন। আপনার গ্রাফিক্স কার্ড কত সাপোর্ট করে তা দেখে নিবেন। বর্তমানে এর ৫ ভার্সন রয়েছে।
  • ওপেন জি-এল: এটি হল ভিডিও প্রসেসিং-র জন্য অসংখ্য লাইব্রেরি ফাংশনের সমাহার, যেটা আউটপুটকে আরো দ্রুততর করে। কেনার সময় এটা সাপোর্ট করে কিনা এবং কত ভার্সন তা দেখে নিবেন।
  • অ্যান্টি-অ্যালাইজিং: এটা ব্যবহার করে ছবির ফেটে যাওয়া বা ঘোলাটে ভাব দূর করা যায়। বিভিন্ন গেম ও অ্যাপ এ এটা খুবই ব্যাবহৃত হয়। তাই এই ফিচার আছে কিনা দেখে নিন।
  • ম্যাক্স আউটপুট: আপনার মনিটর যদি ১৬০০ বাই ১২০০ রেজোলিউশানের হয় তাহলে নিশ্চয়ই ১০২৪ বাই ৭৬৮ আউটপুটের গ্রাফিক্স কিনবেন না। বর্তমানে সব কার্ডের আউটপুট ১৬০০ বাই ১২০০ থেকে ২৫৬০ বাই ১৬০০ এর মাঝে। তাই এটা আপাতত অত ভাবনার বিষয় না।
  • পাওয়ার ফ্যাক্টর: কার্ডটি কত ওয়াট সাপ্লাই চায় তা দেখুন। প্রয়োজনীয় পাওয়ার দিতে না পারলে কাজ করতে যেয়ে আটকে যাবে। ক্ষতিও হতে পারে। সাধারনত ৪০০ থেকে ৮০০ ওয়াট সাপ্লাই দরকার। লাগলে আপনার পিএসইউ আপডেট করুন।
  • মাল্টি আউটপুট: আপনি যদি একসাথে দুই বা ততোধিক মনিটরে দেখতে চান তাহলে এটা আপনার দরকার। খেয়াল করে দেখবেন যে প্রায় সব কার্ডেই দুই বা তিনের বেশি পোর্ট থাকে। এগুলো দেওয়া হয় যেন একই সাথে সকল মনিটরে দেখা সম্ভব হয়।
  • রিফ্রেশ রেট: আউটপুট কত রেটে পাবেন, অর্থাৎ মনিটরে কত হার্টজে ভিডিও আসবে তা দেখে নিন। এর ডিফল্ট মান ৬০। তবে সিআরটি মনিটরে ৬০ এর নিচে দাগ বা ফ্লিকিং দেখা যায়। কিছু মনিটর ৭৫ হার্টজ এর নিচে দেখাতে সক্ষম না। তাই আপনার মনিটর এর জন্য কোনটা দরকার তা দেখে নিবেন।
  • মাল্টি-জিপিইউ: এটা ডাই-হার্ড গেমারদের জন্য। যদি একটা ভিডিও কার্ড নিয়ে আপনার মন না ভরে তাহলে একের বেশি কার্ড লাগানো সম্ভব এরকম কার্ড কিনুন। আর সেই সাথে মাল্টি-জিপিইউ সাপোর্ট করে এরকম মাদারবোর্ডও কিনতে হবে আপনাকে। এনভিডিয়া আর এএমডি দুটাই মাল্টি-জিপিইউ সিস্টেম সাপোর্টেড চিপ তৈরী করে।
  • এনার্জি সেভিং: আপনার চিপটি কাজের পাশাপাশি দূর্ণীতি করে আপনার বিদ্যুৎ বিল উঠাচ্ছে কিনা তার দিকে খেয়াল রাখবেন। এই জন্য এনার্জি স্টারের রেটিং দেখে কার্ড কিনুন।
  • সফটওয়্যার সাপোর্ট: আপনি যে সিস্টেম এ কাজ করেন সেই সিস্টেমে কার্ড এর ড্রাইভার পাবেন কিনা তা দেখে নিন। এখন এএমডি উইন্ডোজ, লিনাক্স আর ম্যাকের জন্য অফিসিয়ালি ড্রাইভার দিচ্ছে। তাই পছন্দ আপনার।

গ্রাফিক্স কার্ড-সহ ল্যাপটপ কেনার সময় যা যা খেয়াল করবেন

  • ল্যাপটপ চলে ব্যাটারীতে। তাই কার্ড যদি বেশি পাওয়ার খরচ করে তাহলে দ্রুত চার্জ শেষ হবে, ব্যাটারীও নষ্ট হবে। তাই ওয়েবসাইটে খুঁজে দেখে নিন কোনটার পাওয়ার কনজাম্পশান কেমন। যেমন এটিআই ৪৬৭০ এর চেয়ে ৫৪৭০ বেশি ভালো। কিন্তু ৪৬৭০ অনেক কম বিদ্যুৎ ব্যবহার করে।
  • ল্যাপটপে গ্রাফিক্স কার্ড এর কারণে তৈরী হওয়া তাপ ঠিকমত বের হওয়ার জন্য পর্যাপ্ত এয়ার ভেন্ট আছে কিনা বা সেগুলো সহজেই ব্লক হয়ে যায় কিনা।
  • ল্যাপটপ এর গ্রাফিক্স কার্ড নষ্ট হলে ঠিক করা বেশ দূরুহ ব্যাপার। তাই ভালো রিভিউ এবং কনফিগারেশান দেখে কিনুন।

এবার আসুন দেখে নেই কয়েকটি শক্তিশালী গ্রাফিক্স কার্ড এর ছবি

যাদের ল্যাপটপে ডিসক্রিট জিপিইউ আছে তারা জানতে চান না যে মোবাইল গ্রাফিক্স কার্ড কেমন হয়? এই দেখুন -

আর যাদের কোনোটাই নেই, অর্থাৎ বিল্ট-ইন, তারা মন খারাপ করবেন না। ইনটেল গ্রাফিক্স মিডিয়া এক্সিলারেটর চিপটি দেখতে এরকম -

মাল্টি-জিপিইউ সহ মাদারবোর্ডগুলো দেখতে এরকম -

ADs by Techtunes ADs

গ্রাফিক্স কার্ড ভালো রাখার টিপস:

  • ড্রাইভার আপডেট রাখুন।
  • তাপমাত্রা মনিটর করুন। বেশি গরম হয়ে গেলে পিসি অফ করে ঠান্ডা হতে দিন। ফ্যান কন্ট্রোল করতে সফটওয়্যার ব্যবহার করুন।
  • না জেনে এবং অভিজ্ঞ কারো সাহায্য ছাড়া ওভারক্লকিং এর কথা চিন্তাও করবেন না।
  • কিছুদিন পর পর মাদারবোর্ড থেকে কার্ড খুলে স্লট পরিষ্কার করুন।
  • যথেষ্ট পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার করুন।
  • পারলে আমার মত সবসময় কেসিং খুলে রাখুন যেন দক্ষিণা হাওয়ায় গ্রাফিক্স কার্ড ভেসে যেতে পারে। (আনঅথোরাইজড টিপস)

বোনাস:

জানতে চান আপনার গ্রাফিক্স কার্ডের ক্লক স্পীড, মেমরি, ট্রানজিস্টর সংখ্যা, মেমরি টাইপ ইত্যাদি বিভিন্ন তথ্য? এক্ষুণি ডাউনলোড করে নিন নিচের সফটওয়্যারটি।

ডাউনলোড GPU-Z

আর উইন্ডোজ ব্যবহারকারীরা ডেক্সটপে গ্রাফিক্স কার্ড এর ক্লক স্পীড, মেমরি ফ্রিকোয়েন্সি, ফ্যান স্পীড ইত্যাদি তথ্য জানতে চাইলে ডাউনলোড করে নিন GPU Meter নামের গ্যাজেটটি।

ডাউনলোড GPU Meter
আজকের টিউন এখানেই শেষ। গ্রাফিক্স কার্ড কেনার সময় সচেতন হোন, নিজে খুঁজে, জেনে আপনার জন্য দরকারি কার্ডটাই কিনুন। ভালো থাকবেন আর ভুল ত্রুটি জানিয়ে মন্তব্য করবেন।

আমার পুর্ববর্তী টিউন: যেকোনো সিডি/ডিভিডি/আইএসও থেকে সেটআপ ইউএসবি তে বুটেবল বানানোর সহজ পদ্ধতি

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি মো মিনহাজুল হক। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 5 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 22 টি টিউন ও 2982 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 4 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Ek kothai awesome. Many many thanks. Ekta proshno 4 theke 5 hazar er modhe kon card ta sobche valo hobe? ektu jodi boten

    ধন্যবাদ। আপনি প্লিজ বাংলায় কমেন্ট করবেন। টিটিতে কমেন্ট বক্সে ফনেটিক দেওয়াই থাকে।

    এটিআই এইচডি ৫৪৫০ নেন। ভালো কাজ করে।

      আচ্ছা আমার কমেন্ট বক্সে ফনেটিক দেওয়া নাই
      আমি গুগলে থেকে বাংলা লিখি বিরক্ত লাগে

    Level 0

    আপনি ATI Raedon 4650 নিতে পারেন। 4 হাজার পরবে…বেশ ভাল কম দাম এর মধ্যে

    ডিম সিদ্ধ হওয়আর ব্যপার টা দেখে মজা পেলাম।

    একটা প্রশ্নঃ ধরুন আমার পিসি তে ১ জিবি গ্রাফিক্স কার্ড লাগানো আছে।এখন আমাকে কি পাওয়ার সাপ্লাই পরিবর্তন করতে হবে?আমি কি সারা দিন পিসি অন করে রাখতে পারবো?

    আপনার কার্ড এর ক্ষমতার উপর ভিত্তি করে দেখতে হবে যে পাওয়ার সাপ্লাই পরিবর্তন করতে হবে কিনা। যদি এতদিন ধরে কোন সমস্যা না হয় তাহলে হয়ত ঠিকই আছে।

    হ্যা, পিসি সারাদিন কেন কয়েকদিন অন করে রাখা সম্ভব। তবে সেক্ষেত্রে আপনি সিস্টেম এর কুলিং এর দিকে মনোযোগ দিন। সফটওয়্যার ব্যবহার করে সিপিইউ আর জিপিইউ এর ফ্যানের স্পীড বাড়িয়ে তাদের তাপমাত্রা কমালে পিসি সারাদিন অন রাখলেও সমস্যা নেই। ধন্যবাদ

Level 0

Onek sundor akta tune korlen. onek kisu jante parlam. Motherboard er built in graphics card er ki vabe memory barano jai Bios theke? amar motherboard intel G41.

    ধন্যবাদ। আপনিও প্লিজ বাংলায় কমেন্ট করবেন। টিটিতে কমেন্ট বক্সে ফনেটিক দেওয়াই থাকে।

    জি৪১ এ বায়োসে ম্যাক্স মেমরি দেওয়াই থাকে। মাদারবোর্ড এর বায়োস আপডেট করে অল্প সুফল পেতে পারেন। এটা দেখুন https://www.techtunes.co/tips-and-tricks/tune-id/62943/

valo

Level 0

@মিনহাজুল হক শাওন, একটা ব্যাপারে একটু help করতে পারবেন কি? আমি nVidia GeForce 9500 GT PCI Express card ব্যাবহার করছি যেটাতে একটি VGA এবং একটি DVI-I port আছে, কিন্তু আমার Monitor এ (Samsung SyncMaster 732NW) কোন DVI Port নেই, আমার Monitor কি PCI Express Card এর DVI Port থেকে চালানোর কোনো উপায় আছে?? আর এভাবে চালালে কি Video Quality Improve হবে নাকি খারাপ হবে??

    না যতদূর জানি সমস্যা নেই। ভিজিএ টু ডিভিআই কনভার্টার পাওয়া যায়। ব্যাবহার করে দেখতে পারেন। তবে পার্থক্য খুঁজে পাবেন না।

Level 0

অসাধারণ

grafix card ar price gula jodi diten tailay khub upokkrito hotam…. ar laptop ay kon dhoroner grafix card bebohar kora hoy…… dell,sony vaio,compac ar bisoy ta jana beshi joruri….. mansommoto gc card kintay kemon khoroch hotay pare….. vaia please jana ben…. kon laptop kinlay gc ar dik theke relax thakbo…… parle amake mail korben : [email protected] please vaia aktu kosto korien…. laptop kinbo tai ai grafix ar bepar ta niya khub tension ay asi……

    জ্বি ভাই, ল্যাপটপ এর জন্য পরামর্শ যোগ করে দিয়েছি। আপনাকে ইমেইলও দিয়েছি 🙂

Sorry. Pc ta noshto. mobile e comment korsi to tai ei bhabe lekhsi. Oi graphics card tar price koto?

বিশাল ব্যাপার

আপনার লেখার স্টাইল সবার থেকে আলাদা ! অসাধারন ভাবে সব ফুটিয়ে তুলেছেন………………মাইন্ডব্লোয়িং টিউন

Level 0

আমার কম্পিউটার এর cpu = Intel(R) Pentium(R) Dual CPU E2180 = 2.0 ghz
mother board = D945GCPE
ram = 1 gb
200 gb hard disk,128 builtin memory
আমি কি গ্রাফিক্স কার্ড ব্যবহার করতে পারব?

    ভাই আপনার কনফিগারেশন দেখলাম। আপনার বোর্ডএ PCIe স্লট নেই। তাহলে তো নতুন মডেলের গ্রাফিক্স কার্ড ব্যাবহার করতে পারবেন না। আর পুরনো মডেলের কার্ড বাজারে পাওয়া যায়না বললেই চলে।

অসাধারন ! !অসাধারন টিউন !!………………
অনেক কিছু জানতে পারলাম। আমার কাছে না, পাওয়ার সাপ্লাই টা দেখতে ডিমের কুসুমের মত লাগছে! হিঃ… হিঃ …হিঃ 🙂
এই ডিমের কুসুম টাই তো অতিরিক্ত টাকা খরচ করাইব!( বিদ্যুৎ ও যাইব)। কি আর করা?
আমার গ্রাফিক্স কার্ড বিল্ট-ইন ১০২৬এমবি। তার পরও শান্তিতে নাই!
গ্রাফিক্স কার্ড লাগালে কি ৩২ বিট থেকে ৬৪ বিট হবে? লাভ আছে?

অনেক ধন্যবাদ!…………………।।

    ধন্যবাদ। ওটা তো ডিমের কুসুমই। গ্রাফিক্স কার্ড এত গরম যে ডিম সিদ্ধ হয়ে গেছে।

    কিন্তু এই ডিম সিদ্ধ তো আর খাওয়া যাবে না ! 🙂
    উল্টো আমাকে খাবে!……:-)

    হুম তাও কথা! তবে সেখানে রান্নার কাজ সেরে নিতে পারেন 😀

    বিল্ট-ইন এ ১০২৬ এমবি দেখালেও ভেবে অবাক হবেন যে সেটা আসলে ৩২ বা ৬৪ এমবি মাত্র যা র‍্যামের সাথে শেয়ার করা অনেক বেশি দেখায়। ঠিক যেমন আমার ডেডিকেটেড ১০২৪ এমবি, শেয়ার করে ৩০৭২ এমবি দেখায়। আর ৩২ থেকে ৬৪ মানে কি? আপনি কি ৬৪ বিট সিস্টেম এ যেতে চান? তাহলে অপারেটিং সিস্টেম এর উপর সেটা নির্ভর করছে। আপনি যেটা ইন্সতাল দিবেন সেটাই হবে যদিও আপনার হার্ডওয়্যার ৬৪ বিট সাপোর্টেড হতে হবে।

    ৬৪ বিট সাপোর্ট করলে না !…… হিঃ… হিঃ …হিঃ 🙂

Level 0

আমার দেখা চমৎকার টিউনগুলোর একটি। সামান্য ধন্যবাদেও পোষাবে না…. ভাল থাকবেন।

খুব ভাল

এককথায় সুপার টিউন ।

সুন্দর, দারুন। অনেক ভালো হয়েছে আপনার টিউনটা।

ভাই জান আমার একটা সনি ভায়ও ল্যাপটপ আছে কয়দিন আগে ডিসপ্লে চলে গিয়ে ছিল ঠিক করার জন্য দোকানে নিয়ে যাওয়ার পর তারা এটাকে হিট দিয়ে কিছুটা ঠিক করল বলল এটা আর ঠিক করা যাবে না আর হিট দিলে ডেড হওয়ার সম্ভাবনা আছে । এখন ক্লিয়ার মাঝে মধ্যে লেখা ঘোলা আসে। ডিসপ্লে নারা দিলে আবার ঠিক হয় । আমার ল্যাপটপ এ মডেল নং- sony vayo Fe38Gp. বলেতছে ঠিক করতে হলে মাদার বোড` চেন্জ করতে হবে যার দাম ইউনাইটেড আরব আমিরাতে ৮০০ দিরহাম বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ১৫০৪০ টাকা। এর কি কোন সহজ সমাধান আছে জানলে জানাবেন দয়া করে।

    নাড়া দিলে যদি ঠিক হয় তাহলে LVDS connector অর্থাৎ বোর্ড থেকে এলসিডি তে কানেকশান যায় যে স্টিক বা রিবন দিয়ে তাতে সমস্যা হওয়ার কথা। আর এসব ক্ষেত্রে মাদারবোর্ড চেঞ্জ করা ছাড়া কোনো সমাধান পাওয়া যায়না। আপনার ল্যাপটপে NVIDIA® GeForce® Go 7600 লাগানো আছে। এই এনভিডিয়ার চিপ এশিয়াতে খুব সমস্যা করে মাঝে মাঝে। আপনি দেখুন যে বিল্ট-ইন গ্রাফিক্স চিপ দিয়ে কাজ করা যায় কিনা। ধন্যবাদ

আমার এইচপি মিনি নেটবুকে HDMI পোর্ট আছে (নিচের ছবির মত)। কিন্তু ভিজিএ পোর্ট নাই। একটা কনভার্টার দরকার। এতে নেটবুকটা থেকে সরাসরি প্রেজেন্টেশন করতে পারতাম।

অন্য কোনো উপায় আছে কি? কিংবা এই জিনিষ কি দেশে পাওয়া যায়?
http://www.amazon.com/HP-Mini-VGA-Monitor-Cable/dp/B001ULDP6E

    শামীম ভাই কি কন, মাথার উপর দিয়া যায় তো! এইসব জিনিস ঢাকায় সবখানে পাওন যায়। প্রোজেক্টরে ইউএসবি ইনপুট আছেনা? তাহলে HDMI-to-USB কিনে ফেলেন। কাজে দিবে। আর না থাকলে HDMI-to-HDMI, আর HDMI-to-DVI কিনে কানেক্ট করে ফেলেন। আমি তো রাজশাহী তে, এখানে HDMI-to-USB পাওয়া যায়।

Level 0

অসাধারন হয়েছে। ধন্যবাদ।

এই টিউনের ছবিগুলা দেখতে পাচ্ছি না কেন বুঝতে পারছি না। 🙁

অসাধারন টিউন!!!!!

    হাসান যোবায়ের ভাই আমি তো অন্য পিসি থেকে ও অন্য ব্রাউজার থেকে দেখলাম যে সব ঠিক আছে কিনা। ছবিগুলা পিকাসা এ হোস্টিং করা। পেজ রিলোড করে দেখুন তো!

    মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

    যোবায়ের ভাই আমি ঠিক করে দিয়েছি। এখন যে কেউ সব ছবি দেখতে পারবে। আসলে ছবিগুলা পিকাসায় সিকিউর করা ছিল। যাদের ব্রাউজার এ SSl এনাবল করা আছে তারা সহজেই দেখতে পেয়েছে। এখন সব লিঙ্ক https:// থেকে http:// করে দিলাম। আর কোনো সমস্যা হবেনা।

ভাই আপনি তো আমার জ্ঞান অনেক বাড়িয়ে দিলেন। অনেক ধন্যবাদ।

একেই না বলে টিটির মান অনুযায়ী টিউন, বিশাল তথ্যবহুল একটা টিউন অনেকদিন পরে টিটিতে দেখছি। অনেক ভাল লাগছে। অনেক অনেক ধন্যবাদ আপনাকে। এত কষ্ট করেও সুন্দর একটা টিউন আমাদের উপহার দেওয়ার জন্য।

    অমিত ভাই আশা করি আরো টিউন করতে পারবো। ২ বছর ধরে গ্রাফিক্স কার্ড নিয়ে যা যা জানি, যা যা ক্ষতি আর সমস্যার সম্মুক্ষীণ হয়েছি সব কিছুর আলোকে লিখে ফেললাম। ধন্যবাদ পড়ার জন্য।

কিছু মনে করবেন না- প্রশংসার ভাষা খুঁজে পাচ্ছিনা, তাই প্রশংসা করলাম না!!!

এখন আমার সমস্যার কথা বলি, আমার samsung lcd monitor SyncMaster733 wide। রেজুলেশন সর্বোচ্চ ১৪৪০*৯০০।
কেনার কয়েকদিন পর থেকে মনিটরে লাল আবরন দেখা যেত । দোকানদার বলে cable এর প্রবলেম। তাই cable চেঞ্জ করেছি। তারপর নতুন সমস্যা ঝিরিঝিরি। আবারো cable চেঞ্জ, তবে কোনো ফল পাইনি।
মাঝে মাঝে cable এর প্রান্ত পরিবর্তন করে লাগালে কিছুদিন ভালো চলে পরে আবার আগের মতই ঝিরিঝিরি এবং দিন দিন বাড়তে থাকে। রেজুলেশন ১১৫২*৮৬৪ আর ১২৮০*৯৬০ তে মোটামুটি ভালো চলে, অন্য গুলা দেওয়াই যায়না!!
আমি পরীক্ষা করে দেখেছি(বন্ধুর পিসির সাথে, যেখান থেকে কিনেছি সেখানেও) মনিটরের কোনো প্রবলেম নাই।

টিটির একভাই বলেছিলো আমার মাদারবোর্ড এর vga signal low. গ্রাফিক্স কার্ড use করতে হবে। আপনি কি বলেন?

উল্লেখ্য, আমার মাদারবোর্ড ফক্সকন ব্র্যান্ডের, মডেল G33/G31 এইরকম কিছু, গ্রাফিক্স কার্ড বিল্টইন।

    হু আমারো ১৪৪০*৯০০। এই সমস্যা আমার হয়েছিল কারণ VGA পোর্ট এর একপাশ ভেঙ্গে ফেলেছিলাম। G31 বা G33 চিপসেট অত শক্তিশালী না। অবশ্যই কার্ড কিনেন, তার আগে কার্ড সহ কারো পিসি তে লাগিয়ে শিউর হয়ে নিন যে মনিটর ঠিক আছে কিনা। অনেক সময় মনিটর এর কারণে এরকম হয়।

    প্রশংসা করে লজ্জা না দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ ভাই 🙂

http://www.comillait.com/bdcomputer/tune-id/396/#comment-39 শাওন ভাই লিংক টি দেখুন………

    404 – Not Found

    এটা দেখাচ্ছে। এখানে কী আছে ভাই?

    আমি তো দেখি……..আপনার টিউন টা পুরা কপি পেস্ট করা হয়েছে………

    রাসেল ভাই আমার বলার কিছুই নাই। আমি সারাদিন লিখে ২০ মে এটা প্রকাশ করি। আর ওই সাইট এ Dr. Masud নামের মহামান্য ব্যাক্তি ২১ মে আমার পোস্ট কপি পেস্ট করেছে। এমনকি টেকটিউনসের অনেক পোস্ট সেখানে উনাদের নামে শোভা পাচ্ছে। করুক গা, মানুষের উপকার হলেই হল, যদিও আমি অনেক শকড।

    করুক সমস্য নাই তবে আপনার নাম দিলে আর কোন কথা ছিলোনা………[email protected]শাওন

    হু। দিক গা, টিটি এর ধারে কাছেও যেতে পারবেনা এভাবে।

    রাসেল ভাই জব্বর একটা ব্যাপার ঘটেছে। একটু আগে কুমিল্লা আইটি থেকে ইমেইল করে আমাকে একটা পাসওয়ার্ড পাঠিয়েছে। আমি আইপি হাইড করে লগিন করে দেখি আমার ৩৯ টা পোস্ট। একেবারে টিটির মত সব তথ্য দেয়া।

    আচ্ছা ভাই আপনি কি আমার এই টিউনের সব ছবি দেখতে পারছেন? নাকি বক্স দেখায়?

    শাওন ভাই আমারেও টিটির ইউজার নেইম আর একটা পাসওয়াড পঠাইছে পরে আমি দুইটা পোস্ট দেই ওখানে কিন্তু আপনার টিউন ওখানে দেখে আর পোস্ট দিনাই আমিতো ছবি গুলো ভালো ভাবে দেখতেছি বক্স দেখায় না

    ধন্যবাদ তাহলে। 🙂

শাওন ভাই, ধন্যবাদ।
আমার মাদারবোর্ডের জন্য কোন ব্র্যান্ডের কোন মডেল ভালো হবে? বাজেট সর্বোচ্চ ৪০০০/=

    ATI Radeon HD5450 এটাই সবাইকে বলছি। কম দামের মাঝে চরম পারফর্মেন্স। DirectX 11, Pixel Shader 5, 650MHz ক্লক আর ১ গিগা মেমরি। আর কি চাই? 😀

ধন্যবাদ ভাইয়া…অনেক কিছু জানতে পারলাম 😀

Level 0

ভাইয়া, Nvdia Geforce 220 টে কি "Black Ops" play করা যাবে ?

    Black Ops এর জন্য লাগবে ৫১২ এমবি ভিডিও মেমরি আর ডুয়াল কোর প্রসেসর। আপনার প্রসেসর E5500 (2.8GHz) আর ২ গিগা র‍্যাম হলেই চলবে। ডিরেক্ট এক্স ৯, ১২ গিগা ডিস্ক স্পেস এগুলা তো ব্যাপার না 🙂

এক্কেবারে ফাটাই ফেলছেন!!!(পাম দেয় নাই কিন্তু)…অনেক নতুন কিছু জানলাম।গেমের প্রতি আগ্রহ নাই তাই গ্রাফিক্স কার্ড সম্পর্কে আইডিয়া ছিল না তবে সামনে থ্রিডি স্টুডিও ম্যাক্স শেখার ইচ্ছা আছে।গ্রাফিক্স কার্ড মনে হয় কিনতেই হবে…

    ধন্যবাদ। কিনে ফ্যালেন, ভালো দেখে নিয়েন, বুঝেনই তো, একবার কিনলে আবার কিনার কথা ভাবাই যায়না।

    অফটপিক: আপনি আমার ছবি দেখেছেন। আমাকে আপনি করে বলার মানেই হয়না। 🙄

      নাইম ভাই, এই সাইট টা দেখেন তো, টিটি এর মেলা পোস্ট চুরি করে লিখা আছে। আপনার ব্লগ টিউটরিয়ালও আছে

      http://www.comillait.com

      🙁

    কুমিল্লা আইটি টেকটিউনস ছেড়ে এখন বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ও টিউনার পেজ থেকে কপি মারতেছে। 😀

    মারুক। যারা নিজেরা লিখতেছে তারাই ভালো জানে। কপি পেস্ট করে কি কিছু শিখতে পারবে? বাদ দেন। দেশের মানুষ তবু তো কিছু জানতে পারবে। 😛

আমার বলার কিছু ছিলনা! আসাধারান। ধন্যবাদ।

Level 0

Bro আমি ATI Readon HD 5670 1GB DDR3 Card use করি। আমার power supply Space 400 Watt এর। আমার কি power supply change করতে হবে?? আমার card only 65 watt power use করে।

    আপনার যদি এতদিন ধরে কোন সমস্যা না থাকে তাহলে বুঝতে হবে যে আপনার পাওয়ার সাপ্লাই বেশ ভালো। চেঞ্জ করার দরকার নেই 🙂

Level 0

মিনহাজুল হক শাওন says:
২১ মে, ২০১১ at 8:23 অপরাহ্ন

বিল্ট-ইন এ ১০২৬ এমবি দেখালেও ভেবে অবাক হবেন যে সেটা আসলে ৩২ বা ৬৪ এমবি মাত্র যা র‍্যামের সাথে শেয়ার করা অনেক বেশি দেখায়। ঠিক যেমন আমার ডেডিকেটেড ১০২৪ এমবি, শেয়ার করে ৩০৭২ এমবি দেখায়।

আমি রেডন এইচডি ৫৪৫০ ইউস করি। মাদারবোর্ড ১২৪এমবি ভিডিও মেমোরি। কিভাবে র‍্যমের সাথে শেয়ার করে মেমোরি বারাবো?

    ভাইয়া যখন আলাদা জিপিইউ ব্যাবহার করা হয় তখন মাদারবোর্ড এর বিল্ট ইন টা ইনঅ্যাকটিভ থাকে। আপনার মেমরি বাড়ানোর দরকার নেই কারণ আপনার এটিআই ৫৪৫০ যেটা দিবে সেটা কাজের জন্য যথেষ্ট 🙂

চমৎকার! চমৎকার!!

ভবিষ্যতে উইনডো সেট-আপের খুঁটিনাটিঁ ছবিসহ পোষ্ট দিতে অনুরোধ রইলো। বুটএবল এবং নন্ বুটেবল (বায়োস সেটআপ দিয়ে) সিডি দিয়ে। আমাদের মতো আনাড়ি মানুষদের উপকার হবে।
প্লীজ, মেক ইট্ কাউন্ট।

অনেক অনেক ধন্যবাদ।

    নন বুটেবল মানে বুঝিনি। আসলে সেট-আপ দিতে গেলে মিডিয়া কে অবশ্যই বুটেবল হতে হবে। ইউএসবি মিডিয়া কে বুটেবল বানাতে এই টিউন দেখতে পারেন যা দিয়ে উইন্ডোজ, লিনাক্স ইত্যাদি অনেক কিছু বুটেবল বানানো যায় https://www.techtunes.co/tips-and-tricks/tune-id/69388/

    আর বায়োস সেট-আপ নিয়ে একটা টিউন করেছিলাম যাতে বায়োস ফ্ল্যাশ করে আপডেট করা যাত। সেটা এখানে https://www.techtunes.co/tips-and-tricks/tune-id/62943/

    মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ 🙂

অসাধারণ,,, জিটল,,,, চমৎকার

দারুন পোস্ট। আমিও একটা গ্রাফিক্স কার্ড কিনছি। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে পাওয়ার সাপ্লাই। আমার বাজেট ৭০০০-১০০০০ টাকা। কিন্তু এই দামে মনে হয় অতিরিক্ত পাওয়ার সাপ্লাই ছাড়া কার্ড ব্যবহার করা যাবে না। আপনি কি কোন সাজেশন দিতে পারবেন?

    হুম। ভালো কার্ড এর সাথে ভালো পিএসইউ না হলে চলে? এক কাজ করেন। ৮-৯ হাজার টাকায় ATI এর GDDR5 কার্ড পেয়ে যাবেন। আর বাকি হাজার টাকা দিয়ে ৬০০-৭০০ ওয়াটের পাওয়ার সাপ্লাই লাগান। যদিও এক্সাক্ট ৭০০ ওয়াট আউটপুট পেতে কয়েক হাজার টাকার পাওয়ার সাপ্লাই লাগাতে হবে।

    সমস্যা হচ্ছে পাওয়ার সাপ্লাই এর দাম তো ৩০০০ টাকার আশেপাশে। বাকি টাকায় তো হবে না বোধ হয় তাহলে।

    দেখুন ৩/৪ হাজার টাকায় পাওয়ার সাপ্লাই কিনে ৭০০ ওয়াটই পাবেন ঠিক আছে। তবে ৭০০ টাকায় ৪০০/৫০০ পেলে ক্ষতি কি? এক দুই বছরের মাঝেই নতুন প্রোডাক্ট আসবে। তখন তো আপডেট করাই লাগবে। তবে একটু দেরী করে কিনে যদি ভালো জিনিষ পাওয়া যায় তাহলে আপনার লাভ 🙂

    ও। আমি আসলে দামটার ব্যপারে বেশি জানি না। জানতাম যে ৬০০-৭০০ এর জন্যই অনেক দামি PSU লাগে। আর কমে যেগুলা ওইগুলায় নাকি আসলটা লেখা থাকে না। আপনি কি দাম সহ কোনটা সাজেস্ট করতে পারবেন?

    আমার আসল মডেলটার নাম মনে নাই। তবে ৫৬৭০ বা ৫*** সিরিজের একটা। দাম ৮ হাজারের মাঝে। দেখুন, এই মডেল চায় ৪০০ ওয়াট সাপ্লাই। এই ৪০০ ওয়াটের মাঝে মাদারবোর্ড এর জন্য ৭৫ ওয়াট, হার্ডডিস্ক ডিভিডি ড্রাইভার জন্যে ১০০-১৫০ ওয়াট সবই হিসাব করা আছে। তাই ৭০০ টাকায় ৬০০ ওয়াটে যদি ৪০০/৪৫০ ও পান তাহলেই আপনার চলে যাবে। আর এক্সাক্ট ৭০০ ওয়াট নিয়ে কি হবে বলেন তো? যারা একসাথে দুইটা বা তার বেশি কার্ড ব্যবহার করবে তাদেরই লাগে ৫০০-৬০০ ওয়াট। আর ৫*** সিরিজের কিছু কার্ড এমনিতেই চলে। তাই ভেবে সিদ্ধান্ত নিবেন। আর হ্যা, কেনার আগে http://www.amd.com/US/PRODUCTS/DESKTOP/GRAPHICS/ATI-RADEON-HD-5000/Pages/ati-radeon-hd-5000.aspx এখান ঢুঁ মারবেন। সব পেয়ে যাবেন। আমি এটিআই কে সাপোর্ট দেই।

    power supply nia sabdhane decision niben…Ami mone kori 5**** series er card gulo jonno premium maner PSU use kora uchit. Ami nijei 5770 card er jonno thermaltake 500w psu use kori. jodi pc te core i3/i5 lagano thake tobe to must valo psu use korte hobe. thnx…

    মিঃ গিক ভালো একটা কোম্পানির নাম বলেছেন।

Level 0

এক কথায় অসাধারন টিউন, আগে একবার দেখছিলাম নিরবাচিত হবার পর আবার দেখলাম।

Level New

গুরুজী এটা টিউন করলেন না ফাটায়া দিলেন……….!
অসাধারন। আমার দেখা টিটির চমৎকার টিউনের মধ্যে অন্যতম একটা টিউন।
আচ্ছা ভাই টিউনের মধ্যে থাকা ইমেজগুলো দেখা যাচ্ছে না কেন বলুন তো?
একটু দেখে দিবেন দয়া করে?
ভালো থাকবেন।

    এহ? লজ্জা দেন ক্যান?

    ভাই ইমেজগুলা পিকাসায় হোস্ট করা। পারলে জিমেইল এ লগইন করে রেখে টিউন দেখেন। ছবি তো সবাইই দেখতে পারছে। আপনার ব্রাউজার এর ক্যাশ ক্লিন করে ট্রাই মারেন। আশা রাখি কাজ হবে 🙄

অনেক উপকৃত হলাম। চালিয়ে যান। সুন্দর টিউন উপহার দেওয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

Level 0

ধন্যবাদ এমন একটি টিউনস এর জন্য।
আমার মাদার েবাড িট Intel ® Desktop Board DH67CL .গ্রাফিক্স কাড built in. processor core i5. আমার RAM 4 GB. আমার সমস্যা হলো আমান pc প্রায়ই হ্যাং করে
(direct plug off করা ছাড়া উপায় নাই) । আমি ডিজাইনের কাজ করি। এই অল্প কয়দিনে পিসির এই অবস্থা আমাকে দারুন হতাশ করছে। এটা কি গ্রাফিক্স কাডের কারণে? তাহলে আমি মোটামুটি কমের মধ্যা কোন গ্রাফিক্স কাডটি কিনতে পারি?

    আপনার মাদারবোর্ড তো বেশ ভালো। আচ্ছা আপনি কি ঠিকভাবে মাদারবোর্ড এর সকল ড্রাইভার ইন্সটল করেছেন? যদি দোকান থেকে দিয়ে থাকে তাহলে আবার চেক করে দেখুন। নতুন ড্রাইভার না থাকলে বা "কম্পাটিবল মুড' এ ড্রাইভার ইন্সটল করলে সিস্টেম স্ট্যাবল হয়না। খুবই ভালো হয় যদি ইন্টারনেট থেকে এক্সাক্ট আপনার অপারেটিং সিস্টেম এর জন্য ড্রাইভার ডাউনলোড করেন। কোর আই৫ বেশ ভালো গ্রাফিক্স আউটপুট দেয়। ডিজাইন এর কাজ মানে কি? ছবি বা ড্রয়িং এর জন্য অত বেশি গ্রাফিক্স প্রসেসর লাগেনা। কিন্তু অনেক বড় ডিজাইন, বা ভেক্টর মডেল রেন্ডার করতে অবশ্যই গ্রাফিক্স কার্ড লাগানো উচিত।

    আপনার মাদারবোর্ড এর জন্য ইনটেল র‍্যাপিড স্টোরেজ ড্রাইভার, চিপসেট, এইচডি গ্রাফিক্স, ইউএসবি ৩.০ – এসব আবশ্যক ড্রাইভার। এগুলো ভালমতো না কাজ করলে হার্ডডিস্ক, জিপিইউ ঠিকমত কাজ করবেনা।

    আপনার বায়োসের কারণে যদি সিস্টেম আন-স্ট্যাবল হয় তাহলে ফ্ল্যাশ করে নিন এখানে দেখে https://www.techtunes.co/tips-and-tricks/tune-id/62943/

    শেষ কথা: প্লাগ অফ না করে কেসিং এর রিসেট সুইচে চেপে কাজ করুন, ভালো হবে।

ভাই আমার Intel Dual core 2.6ghz, ram 2gb, motherboard Intel G41, Built in AGP 1024mb.

আমি অনেক গুলু HD গেইম খেলতে পারছি না । যেমন – Call of Duty black ops, Prince of persia forgotten sands ইত্যাদি । এই ধরনের HD গেইমগুলি একদম স্লো মোশন এ চলছে । তাহলে কি external Gaphics Card লাগাতে হবে ?

    ডুয়াল কোর দিয়ে এই গেম খেলা যাচ্ছে সেটাই বোনাস। এই গেমের জন্য কোর ২ ডুয়ো দরকার। আপনার মাদারবোর্ড কিন্তু ভালো। তাই চেষ্টা করুন রেজোলিউশান, টেক্সচার ইত্যাদি কমিয়ে খেলতে। আর গ্রাফিক্স কার্ড কিনতে চাইলে আগে প্রসেসর কিনেন। এই প্রসেসর দিয়ে নতুন গেম আটকে যাবে। কোর ২ ডুয়ো বা কোয়াড কোর লাগান। তারপর ৪/৫ হাজার দিয়ে মোটামুটি মানের কার্ড কিনলেই চলবে।

Level 0

amar processor intel core duo 2
Motherboard Intel 3G31PR
RAM 2GB..Amr pc r jonno ei ''Nvidia GeForce GT 220 2GB ddr2'' Graphics card ta kemon hobe..ektu janaben…..r 10,000 Taka r modde..valo graphics card…r information chai jeta amr ei pc te cholbe..

    কার্ড কেনার সময় আমি সবাইকে এটিআই কিনতে বলি। কারণ এরা খুব ভালো আউটপুট দেয় (অন্যরা খারাপ দেয় তা না)। ২ গিগা DDR2 খুব ভালোনা। আপনি কমের মাঝে (৪ হাজার) এটিআই ৫৪৫০ দেখেন। জিটি ২২০ এর চেয়ে কোর ক্লক, মেমরি ক্লক, ডিরেক্ট এক্স, ট্রানজিস্টর – সবকিছুই বেশী। আর ১০ হাজার হলে তো কথাই নেই। চোখ বন্ধ করে ৫৬৭০ বা এরকম একটা কিনে নেন। আর চিন্তা করতে হবেনা। পছন্দ আপনার।

prothomei bole rakhi gpu nia amr aggroho osim er ei tune ta amr moto gpu freak er jonno Asirbad sorup. Tai sei sukhe apner sathe ekta(!!) problem share korbo aj 🙂 Simply boli…amr pc te ati 5770 lagano ase er 2 gb ddr3 ram use kori. Problem ta holo…gpu ta 2 gb system ram theke 731 MB(system shared memory) share kortise. Er karon ta ki?? Ami ki ei poriman ram always harassi?? Naki only gaming er somoy use kortise?? Ram ki upgrade koratai lavjonok hobe amar jonno?? Somadhan dite parle valo lagto. Extremely sry, banglay likhte parlam na 🙁

    ভাই আপনার নামটা জটিল!

    আপনি কোথায় দেখলেন যে সিস্টেম থেকে ৭৩১ মেগাবাইট মেমরি শেয়ার করা আছে? সেটা কি পেজড বা অন্য কিছু? আপনার মেমরি ২ গিগা হলে যদি এক্সপি বা ৭ চালান তাহলে কার্নেলের জন্যেই ২০০-৫০০ মেগাবাইট লোড হয়ে থাকবে। আর কম্পিউটার র‍্যাম আর পেজফাইল মিলে ভার্চুয়াল মেমরি নামে কনসেপ্ট তৈরী করে রাখে যা অ্যাপ ব্যবহার করে। এক্ষেত্রে কিছু র‍্যাম "হার্ডওয়্যার রিজার্ভড" থাকে। ঠিক যেমন আমার ৪ গিগা র‍্যামের মাঝে ১৫০ মেগা রিজার্ভড আছে। পাচ্ছি ৩.৮৫ এর মত। সেখানে আবার ১১০০ মেগা খেয়ে ফেলেছে সব অ্যাপ্লিকেশান আর উইন্ডোজ। আশা করি বুঝেছেন। আরো জানতে চাইলে বিস্তারিত বলুন কি সমস্যা। ধন্যবাদ 🙂

    ami monehoe baper ta thik moto bujhate parini…

    apnake ekta screen shot pathatam. Tahole sob clear hoto…mail addrss ta janale valo hoe 🙂

    BDW, amr id ta valo lagse jene mojai pailam. Ami kintu vai geek, Atel na 😉

    এই পেজের একদম উপরে ডানে আমার মেইল অ্যাড্রেস দেওয়া আছে। তাও আবার দেই minhazul ডট haq এট gmail ডট com

    thnx a lot…stay well and tuned 🙂

আমার pc এর কনফিগারেশন হল:
সি পি ও: dual core 2.7 gh
র্যম: 2 gb
হার্ড ডিস্ক: 1 tera
মাদার বোর্ড: intel g41
এই কনফিগারেশনে কোন গ্রাফিক্স কার্ড ভাল হবে জানাবেন(৪-৫ হাজারর টাকার মধ্যে)

    এটিআই ৫৪৫০ 🙂

    এটা দিয়ে কি সব ধরনের গেইম খেলা যাবে?nvdia পাওয়া যাবে না?

    nVIDIA পাওয়া যাবেনা কেন? অবশ্যই যাবে। তবে আপনি ডিরেক্ট এক্স ১১, ৬৫০ মেগাহার্টজ ক্লক, হাই ডাটা থ্রো রেট রেখে কম (ডিরেক্ট এক্স ১০.১, ওপেন জিএল ৩.১, ৬১০/৬৩০ মেগাহার্টজ ক্লক) নিতে চাইলে nVIDIA নিতে পারেন।

    ভাইয়া,এত ভাল তো বুঝিনা,এটিআই ৫৪৫০ এর দাম কিরকম হবে?এটা দিয়ে কী সব গেইম খেলা যাবে?আর nVIDIA কিনলে কোন মডেল টি ভাল হবে এবং দাম কেমন হবে,দয়া করে জানাবেন।ধন্যবাদ।

    এটার দাম ৪ হাজার এর কাছেই। nVIDIA পাবেন। তবে এই দামের মাঝে এটা কিনলে ঠকবেন না বিশ্বাস রাখেন।

    আর একটা কথা,প্রসেসর core 2 dou হলে ও কি এটিআই ৫৪৫০ ভাল হবে?জানাবেন,প্লীজ।ধন্যবাদ।

    ভাইয়া,গ্রাফিক্স কার্ড এর ফ্যান কোথায় থাকে?

হা আমি Resolution এবং Texture একদম কমিয়েই খেলতেছি , ভালভাবে চলতেছে । কিন্তু আগের মত পরিস্কার থাকে না । আমার মাদারবোর্ডে কি Core 2 due চলবে ?

    চলবেনা আবার, কোয়াড কোর চলবে 😛

    Core2 duo এর বর্তমান দাম কত হবে?

    আমি আসলে সঠিক জানিনা। আজকের কাগজে দেখলাম কোর ২ ডুয়ো ২.৯৩ গিগাহার্টজ ৯ হাজার আর কোর ২ কোয়াড ১২ হাজার। আসল দাম কম বেশি হতে পারে।

আপনার কাছে জানতে চাইছি laptop এর graphic card, আলাদা লাগানো নাকি বিলটিন, কি করে সহজ ভাবে বুজবো, desktop er মত আলাদা কার্ড লাগান জায় কি ল্যাপটপে, ধন্যবাদ

    এটা আসলে জানতে হয় ল্যাপটপ কেনার সময়। কার্ড সহ ল্যাপটপ এর দাম একটু বেশী হয়। আপনার ভিডিও কার্ড কোনটি তা জানতে Control Panel > Device Manager > Display Adapters এখানে কী আছে দেখুন। যদি Intel HD Graphics বা Intel 945/G41/G45 Chipset হয় তাহলে আপনার ডেডিকেটেড কার্ড নেই। আর যদি ATI HD XXXX বা nVIDIA GeForce XXX এরকম হয় তাহলে আপনার কার্ড লাগানো আছে। আর না পারলে আপনার মডেল লিখে গুগলে দেখুন, কি কি আছে আপনার ল্যাপটপ এ জেনে যাবেন।

    ডেক্সটপ এর মত কার্ড লাগানো যায়, তবে সেই সম্ভাবনা খুবই কম। যদি কার্ড না থাকে তাহলে আপনি আলাদা কার্ড লাগাতে পারবেন না কারণ মাদারবোর্ড সেভাবেই তৈরী। আর যদি কার্ড লাগানো থাকেও তাহলে কার্ড এর মানের উপর নির্ভর করে বোঝা যাবে যে চেঞ্জ করা যাবে কিনা। যেমন ডেল এর বেশ কিছু সিরিজের কার্ড খোলা যায় ও বদলানো যায়। তবে বাংলাদেশে থেকে এই সুবিধা পাওয়া কঠিন। পেলেও খরচ অনেক হবে।

    ধন্যবাদ

অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে আমি অনেকের কাছে প্রশ্ন করে এ ব্যপারে জানতে পারিনি, আপনার কাছ থেকে বিস্তারিত জানতে পারলাম ধন্যবাদ

খুব সুন্দর হয়েছে ভাই।টিউনটি সেরকম হয়েছে ভাই। তবে BOSS কিন্তু Nvidia এর গ্রাফিক্স card 😉

    হুম। কথা কিন্তু মিথ্যা না। কিছু গেইমস nVIDIA তে ১০ এ ১০ পায়। কিন্তু ATI সবগুলোতে ১০ এ ১০ না পেলেও অনেক ভালো স্কোর করে। তবে এইজন্য বলছি যে nVIDIA এর চেয়ে ATI লিনাক্স আর উইন্ডোজ এর জন্য বেশি ভালো সাপোর্ট দেয় (ওভারক্লক, কুলিং, বায়োস ফ্ল্যাশ)। আর কথা বাড়ালাম না। আসলেই কোনটাই খারাপ না। আমি নিজে এবং চারপাশে এটিআই দেখে হয়ত nVIDIA চোখে বাধেনা 😛 ধন্যবাদ মন্তব্য করার জন্য 🙂

    আপনার মন্তব্য খুবই সুচিন্তিত।আমার মন্তব্য এর বিপরতে এরকম ভালো একটি মন্তব্য রিপ্লাই পেলাম, খুবই খুশি হলাম।আপনাকে ধন্যবাদ।

    হুম। মাইন্ড করেন নি তো? কইরেন না পিলিজ 🙂

গুড, সুন্দর

Level 0

আমি ভাষা হারিয়ে ফেলেছি 😐 দারুন লেগেছে । বিশেষ করে
"পারলে আমার মত সবসময় কেসিং খুলে রাখুন যেন দক্ষিণা হাওয়ায় গ্রাফিক্স কার্ড ভেসে যেতে পারে। (আনঅথোরাইজড টিপস)" 😀

এটি একটু বেশি ই ভাল লাগলো 😀 ধন্যবাদ এত সুন্দর করে গ্রাফিক্স কার্ড কে উপস্থাপন করার জন্য । 🙂
ভাইয়া, একটা প্রশ্ন : আমি বিদেশের বেশিরভাগ ফোরামে দেখলাম সবাই nvidia এর চরম fan । আবার, আমাদের দেশীয় কিছু ফোরাম Ati কে সমর্থন করে। আপনি ব্যক্তিগতভাবে কোনটির পক্ষে ? আবারো ধন্যবাদ। 🙂

    মন্তব্য করার জন্যে অগ্রীম ধন্যবাদ।

    ভাইয়া আমাদের এশিয়া এর জন্যে মেইড ইন ফিলিপাইন বা ওকল্যান্ড ইত্যাদি প্রোডাক্ট পাওয়া দুষ্কর। আমাদের জন্য চায়না বা জাপানের জিনিস দেওয়া হয়। আমি ATI কে সাপোর্ট দেই, কারণ এদের কিছু অনন্য ফিচার – যেমন ডিরেক্ট এক্স ১১, পিক্সেল শেডার ৫.০ ইত্যাদি আমার কাছে চরম লাগে। দাম কিন্তু নাগালের মাঝেই। আর ট্রানজিস্টর কিন্তু ATI তে বেশী থাকে। ভিডিও ভালো ফিল্টার হয়। আর পছন্দের আরেকটা বড় কারণ – ওপেন সোর্স ড্রাইভার, লিনাক্স এর জন্য ক্যাটালিস্ট কন্ট্রোল সেন্টার তারা দেয়। লিনাক্স এর সাথে তাই ATI কে প্রেফার করা হয়। আর AMD এর মার্কেটে পজিশান কিন্তু বাড়ছে। nVIDIA xfx এর চেয়ে ATI এর স্যাফায়ার বা আসুসের কার্ড গুলাো ওভারক্লক করে অসাধারণ পারফরমেন্স পাওয়া সম্ভব। অবশ্য আমি nVIDIA কে কম ভা খারাপ কখনোই বলবনা। তবে ব্যাক্তিগতভাবে ATI নিয়ে কাজ করার কারণে আমার পছন্দ এটাই।

    Level 0

    ধন্যবাদ 🙂

খুব ভাল টিউন।একটা অন্য প্রস্নগ । ভাই আমার ল্যাপটপ টা মাঝে মাঝে মনিটর টা একদম সাদা হয়ে যায়।কারন টা কি? জানাবেন

    ধন্যবাদ। আপনি কি সঠিক ড্রাইভার ইন্সটল দিয়েছেন? না দিলে ছবির মান খারাপ হতে হতে বিশ্রী হয়ে যাবে। ড্রাইভার ইন্সটল দিন।

    আর মাঝে মাঝে সাদা কেন হয়? নারাচাড়া করলে? তাহলে রিবন বা কানেক্টর স্টিকে সমস্যা। সেটা চেঞ্জ করলে সমাধান পাওয়ার কথা।

@শাওন ভাই, আমি পিসি আপগ্রেড করবো, তাই আপনার একটু পরামর্শ চাই। আমার প্রোসেসর ইন্টেল কোর ২ ডু, আমি জাস্ট মাদারবোর্ডটা, র‍্যাম এবং গ্রাফিক্স কার্ড এড করবো।
এখানে বলে রাখা ভালো যে আমি পিসি কে সুপার গেমিং উপযোগী করতে চাচ্ছি। আমি প্রোসেসর চেঞ্জ না করে, ৮জিবি র‍্যাম, ১জিবি গ্রাফিক্স কার্ড লাগাতে চাই। তাই কোন মাদারবোর্ড টা লাগানো যায় যা গেমিং এর জন্য উপযোগী হবে? একটু খোজ নিয়ে দাম সহ বিস্তারিত যদি জানাতেন তবে খুব উপকার হত।

    হুম। কোর ২ ডুয়ো যুক্ত ভালো মাদারবোর্ড নিতে হলে গিগাবাইট বা অন্য কারো বা সাটা ৩.০ বা ইউএসবি ৩.০ সহ নিতে পারেন। PCI-e 2.1 পাবেন যা আরো ভালো। তবে ভালো মাদারবোর্ড এ তো এখন কোর সিরিজ লাগানো যাবেনা। সেগুলা এখন কোর আই সিরিজের প্রসেসর এর জন্য। আর ৮ গিগা র‍্যাম মানে কি বলেন? অনেক অ্যাপ একসাথে ব্যবহার করলেও ২ গিগা পার হবে কিনা সন্দেহ। সেক্ষেত্রে ৪ গিগা যথেষ্ট। এটা অত ফ্যাক্ট না কারণ ভিডিও কার্ড এর মেমরি আর ক্লক ভালো হলেই চলে যাবে। আসলে প্রসেসর রেখে বাকিগুলাকে আপডেট করে অতটা সুফল পাবেন না। কারণ প্রসেসর এর নির্দিষ্ট এফএসবি আছে। বেশি র‍্যাম লাগিয়ে অ্যাক্সেস করতে না পারলে কি লাভ? তবে ভালো পরামর্শ হল ভালো একটা গ্রাফিক্স কার্ড (এটিআই এইচডি ৫০০০ সিরিজের) ১০ হাজারের মাঝেই GDDR5 থ্রো রেট পাবেন আর সাথে থার্মালটেকের পাওয়ার সাপ্লাই লাগাই নেন। পরে মাদারবোর্ড, র‍্যাম চেঞ্জ করলেও এই কার্ড দিয়ে দিব্যি চলে যাবে। দামের ব্যাপারে দুঃখিত ভাই। অনেকদিন বাজারে যাইনি। ক্লাস শেষে বাসায় ফিরি ৫ টায় 🙁

Level 0

ভাই কিসু ডিন আগে ৫৫৭০ কিনসি। কি জে ঝামেলায় ছিলাম। power suplly tenson পরে আমর ৪৫০ ওআট দিয়া হোইসে কিনতু কারেনট গেলে UPS থাকার পোওরেও মাজে মাজে রিসটারট মারে। কি কোরই কোনতো

    আপনি ৫৫৭০ এর সাথে আলাদা ভালো পাওয়ার সাপ্লাই লাগাননি? নাকি কেসিং এর টাই চলছে? মিটার দিয়ে মেপে দেখেন কেসিং এর সাথে যেটা থাকে সেটা ২০০ ওয়াটও দেয়না। আর UPS এর নির্দিষ্ট ক্ষমতা আছে। 650VAC এর ইউপিএস যতটা পাওয়ার দেয়, 850VAC তার চেয়ে বেশি দেয়। কম ক্ষমতার ইউপিএস তো বেশিক্ষন কার্ড টানতে পারবেনা।

    Level 0

    ভাই মিটার দিয়া মাপার সিসটেম টা একটু কইবেন?এক্তু মাইপা দেখতাম। র আমি ছাত্র মানুষ ৩০০০ টেহা দিয়া কেমনে কিন্মু কন। তাই আপাতত নতুন এক্তা কিন্সি ৪৫০ wintech দুকান্দার কইসে আইতা দিয়াই হইব আত দামি কার্ড না তাই আইটা তে কুনু সমসা নাই। র ইউপিএস এ ২ ডা বেটারি লাগানু। কিন্তু ৬৫০ va। কেছু সারকিটে মডিফাই করাইসি। যদি ৭০০ watt লাগাই তে হইব?

    র ভাই এক্তু side help। আমিও নতুন প্রোফাইল পিচ বদলামু কেমনে? কইতে পারেন?

উপরের লিংকের জন্য সকলের কাছে ক্ষমা চাইতেছি কাজটি আমি সঠিক ভাবে করতে পারি নাই।

শাওন ভাই আপনি আসলেই অসাধারণ একজন পর উপকারী মানুষ । প্রতিটা ধাপে ধাপে আল্লাহ আপনাকে সাহায্য করবেন। God bless you.

Level 0

ভাই মিটার দিয়া মাপার সিসটেম টা একটু কইবেন?এক্তু মাইপা দেখতাম। র আমি ছাত্র মানুষ ৩০০০ টেহা দিয়া কেমনে কিন্মু কন। তাই আপাতত নতুন এক্তা কিন্সি ৪৫০ wintech দুকান্দার কইসে আইতা দিয়াই হইব আত দামি কার্ড না তাই আইটা তে কুনু সমসা নাই। র ইউপিএস এ ২ ডা বেটারি লাগানু। কিন্তু ৬৫০ va। কেছু সারকিটে মডিফাই করাইসি। যদি ৭০০ watt লাগাই তে হইব?

র ভাই এক্তু side help। আমিও নতুন প্রোফাইল পিচ বদলামু কেমনে? কইতে পারেন?

    আরে জোশ তো! ৭০০ ওয়াট লাগবেনা। এভারেজ ৪০০ ওয়াটই যথেষ্ট। আর মাপা লাগবে ২৪ পিনের কানেক্টরে ওয়াট মিটার লাগিয়ে। ওয়াটমিটারের কোন দুইটা তার শর্ট করে দিতে হয় ভুলে গেছি :"> ৪০০ ওয়াট আসল ৩০০০ টাকা, নকল (মোটামুটি) ৬০০ টাকা দাম।

    আর প্রোফাইল পিচ চেঞ্জ করতে http://www.gravatar.com এ যান, আপনার ইমেইল দিয়ে লগিন করে নতুন ছবি আপলোড করে দিন। 🙂

শাওন ভাই, আমি একটা পিসি তৈরী করছি এর কনফিগারেশন হল
Processor – Intel Core i7 2.93GHz (Quad Core 870 LGA 1156)
M/B – Asus P7P55DE Pro
Ram – 4GB (1333) + 4GB upgrading soon
HDD – 500GB (OS – উইন ৭ ৬৪ বিট), 2+1 TB (Data And others)
Monitor – Asus 24"
Casingand powersupply – Cooler Master HAF-X 942 Chassis Full Tower with 700 Watt powersupply
এখন আমি গ্রাফিক্স কার্ড হিসেবে AMD 6870 টা লাগাতে চাই। আমি হার্ডকোর গেমার নই কিন্তু গেম খেলতে পছন্দ করি এবং এইচডি মুভি চালাতে চাই। এই কার্ড সম্পর্কে আপনার ধারণা ও মতামত চাচ্ছি।
ধন্যবাদ

    যে কনফিগারেশনের কথা বললেন তাতে নতুন করে কিছুই বলার নাই। তবে কোর আই-৭ ৬ বা ৮ কোরওয়ালা নিতে পারেন। চার কোর এত ভালো কনফিগারেশন এর সাথে কেমন যেন লাগে। হাহা

    কার্ড টা তো নতুন আর খুব শক্তিশালী। আমি কাউকে এইচডি ৬০০০ সিরিজ নিয়ে পরামর্শ দেইনি কারণ এত দাম দিয়ে কে কিনবে! তবে আপনার মনিটর যেহেতু বড়, তাই বাস বেশি আর থ্রো রেট বেশি নিতেই হবে। আর এই জিনিস একবার কিনলে আর তো চিন্তা নাই 😛 ধন্যবাদ

    অসংখ্য ধন্যবাদ আপনার গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্যের জন্য।
    ভাই কিছুই করার নাই প্রসেসরের ক্ষেত্রে, কারণ মাদারবোর্ডটি আগেই US থেকে আনিয়ে ফেলেছি 🙁 প্রসেসরটিও অনেক উচ্চমূল্যে কিনতে হয়েছে। আমদের এখানকার vendor রা আস্ত কসাই মাদারবোর্ড ছাড়া কেউ প্রসেসর বিক্রি করতে রাজিই হয়নি, ঢাকার সব মার্কেট ঘুরেছি 🙁 অগত্যা ২৬০০০ টাকায় একজনের কাছ থেকে পেয়েছি। Intel Core i7 hexa core এর price তখন ছিল about ~ ৯০০০০ আশেপাশে। এখন AMD 6870 এর price about ~ ২০০০০+ হবে সঠিক জানা নেই।
    আবারও অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে 🙂

oh……………

Level 0

thnks boss change কোরসি

Level 0

ati এর মাজে কুন ব্রান্ড কার্ড তা ভাল।আমি সাফায়র ৫৫৭০ কার্ড টা নিসি। trix দিয়া এক্তু এডিট করসি আখন temperature 50 এর নিচে রাখি আর কমামু? তবে ভাই ati এর পারফন্মেস জটিল এক্কারে বস।

    Level 0

    ভাই এডিট না থাকায় অনেক সমস্যা। windows 7 এ জেরকম gou meter আসে অই রকম মিটার কি xp তে আসে না? গুগল ডেক্সটপ নামাইলা কাম হই নাই।

    হুম। এটিআই তো ৪০ এর নিচেও ঠান্ডা রাখা যায়। বেশি চেঞ্জ করতে যেয়েন না। পুড়ে যেতে পারে। এক্সপি এর জন্য হয়ত টাস্কবারে মিটার শো করে এরকম সফটওয়্যার পেতে পারেন। সমস্যা না থাকলে উইন্ডোজ ৭ এ চলে আসুন 😛

জটিল টিউন বস!

    ভাই এভাবে জনসমক্ষে বস বললে লজ্জা পাই। আমি মোটেই সেরকম কিছুনা। 🙂 টিউন দেখাত জন্য ধন্যবাদ

ভাই, আমার মাদারবোর্ডঃ Intel DG41RQ,
Processor: Core 2 duo 2.8 Ghz,
Ram: 2 GB DDR2,
HDD: 320 GB,

আমি কি GDDR5 মানের গ্রাফিক্স কার্ড গুলো ব্যবহার করতে পারব ???

    একেবারেই আমার কম্পিউটার এর কনফিগারেশান দিলেন। ভাই টিউনে বলেছি যে মাদারবোর্ড এর মেমরির সাথে গ্রাফিক্স কার্ড এর সম্পর্ক নেই। আপনি আপনার মাদারবোর্ড এ PCIe x16 2.0 এর মাঝে যেকোন কার্ড লাগাতে পারবেন 🙂

দারুণ একটা লেখা। অনেক ধন্যবাদ। তবে আপনি বোধহয় আমার মত নির্দিষ্ট সাইট ভিত্তিক লিখতে পছন্দ করেন। আমার সকল লেখা যেভাবে প্রজন্মকে ঘিরে, তেমনি আপনার লেখা টেকটিউনস কে ঘিরে।

    হুম। কপিরাইট বলে একটা ব্যাপার আছে। অনেকে একই লেখা নিজের ব্লগে লিখেন, তারপর সেটা ধারাবাহিকভাবে টেকটিউনস, প্রজন্ম, সামু, বিজ্ঞান প্রযুক্তি ইত্যাদি যায়গায় লিখছেন। আমার কেমন যেন লাগে। 🙁 যাক আপনি ব্যাপারটা ধরতে পেরেছেন, ধন্যবাদ আপনাকে। 🙂

জোটিললল

ভাই জটিল হইছে।ভাই আমার pc configuration
gpu nvidia gt 240
ram ddr3 2gb
mb dh55tc
monitor samsung b2230
psu 450 watt internal.
problem হোইলো পিসি মাঝে মাঝে হাং খাইতাছে।কি করন যায় কন তো

    আপনার কার্ড এর Minimum Recommended System Power 300 W

    মনিটর টা তো ২১" তাইনা? ১৯২০*১০৮০ এই রেজোলিউশানে আউটপুট দিতে গেলে কতটা ভালো পাওয়ার সাপ্লাই লাগবে চিন্তা করেছেন?

    ইনটার্নাল বা কেসিং এর সাথে দেওয়া যেটায় ৪০০ ওয়াট লেখা সেটা কখনোই ৪০০ ওয়াট আউটপুট দিবেনা। আপনি পারলে হাজার খানেক টাকা খরচ করে ৪০০ ওয়াটের সাপ্লাই কিনে নিন। আর সমস্যা হবেনা 🙂

আমার আলাদা কোন গ্রাফিক্স কার্ড নেই
কেসিং এর সাথে দেওয়া ছাড়া অন্য ভাল পাওয়ার সাপ্লাই ইউজ করা কতটা ভাল বা জরুরী
সুন্দর টিউন
ধন্যবাদ

    জরুরী এই কারণে যে পর্যাপ্ত পাওয়ার না পেলে কার্ড বা অন্যান্য ডিভাইস তাদের সর্বোচ্চ আউটপুট দিতে পারবেনা। আপনার যেহেতু আলাদা কার্ড নেই তাই সমস্যা হওয়ার কথা না 🙂

শা োন ভাই, আমি একটা Mother Board িকন েত চাই েকান ধর েনর Mother Board kinle Valo hobe? apner koster tune k srodda janai. Thank.'s

এক কোথায় অসাধারন। খুব সহজ,সরল সুন্দর ভাবে বুঝানো হয়েছে। এই রকম টউনের জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।
* শাওন ভাই পিসি অন করলে আমার মনিটরে কিছুই আসে না। মাদারবোর্ড ছারা সবই চেক করলাম। আমার মাদারবোর্ড intel DG41 মাদারবোর্ড থেকে সব খুলে আবার সব লাগিয়েছি কিন্তু কোন কাজ হয় নাই। এখন আমি কি করতে পারি দোয়া করে জানাবেন।

    ভাই এভাবে বলা সম্ভব না যে কেন ডিসপ্লে আসছেনা। প্রথমে জানা দরকার মাদারবোর্ড এর লাইট জ্বলে কিনা। সেটা কাজ না করলে পাওয়ার সাপ্লাই পাচ্ছেনা। তারপর ডিস্ক লেড না জ্বললে হার্ডডিস্ক এ সমস্যা। সব হয়েও পিসি অন হওয়ার পর অফ হলে বা হ্যাং হলে বায়োসে সমস্যা থাকতে পারে। আপনি আরো তথ্য জানান। ধন্যবাদ

Minhazul vai kemon achen ? Apnar Tune ta khub e joshhhhhhhhh. Shekhar jonno chesta korche….

ভাই এবার সাউন্ড কার্ড নিয়ে বিস্তারিত টিউন চাই। 😀

    গ্রাফিক্স কার্ড থেকে সরাসরি সাউন্ড কার্ড? ডিস্ক, অপ্টিকাল ডিস্ক, ইউএসবি ইত্যাদি নিয়া লিখা পড়ে থাকবে তো তাহলে!

Level 0

ভাই আমার মাদারবোর্ডঃ Intel DG33FB
Processor: Core 2 duo 2.4 Ghz,
Ram: 3 GB DDR2,
HDD: 250 GB,

আমার কোনটা ভালো হবে ৪০০০-৫০০০ হাজার টাকার মধ্যে হলে ভাল হয় , এর কম হলে তো আরও ভালো ।
আর একটা সাউন্ড কার্ড জন্য টিউন করেন আর আমি কি সাউন্ড কার্ড ব্যবহার করতে পারি সেটা একটু
বলবেন ।
সুন্দর টিউন

    যদি পারফর্মেন্স দেখেন তাহলে ATI RADEON HD 4650 বা 4670 এরকম নিতে পারেন। খুব ভালো।

    আর নতুন ফিচার যেমন ডিরেক্ট এক্স ১১ পেতে ATI REDEON HD 5450 নেন। দুইটাই ৪ হাজারের মাঝে 🙂

    সাউন্ড কার্ড নিয়ে সেরকম অভিজ্ঞতা নেই 🙁 তবে ক্রিয়েটিভ বা সাউন্ড ব্ল্যাস্টারের টা ভালো শুনেছি।

    ধন্যবাদ 🙂

ভাই আমার একটা Nvidia 8800gts card ছিলো। Black ops খেলার সময় হঠাট একদিন pc hang করে আর display তে vertical red line আসে। কিনতু motherboard VGA port টা কাজ করে। আমি কোনো game খেলতে পারছিনা। এটা কি ঠিক কোরার কোনো উপায় আসে? আমি ১৯২০*১০৮০ তে full detail এ খেলতাম। আমার PC configuration: Core2duo 2.4Ghz, 2GB RAM, DG31PR, 200GB HDD, Thermaltake 430W PSU. Repair না হলে এখন যদি HD 5670 কিনি টাহোলে কি খেলত পারবো এ game টা? 5670 card এ কি Hot pursuit 2 চলবে 1920*1080 তে? 5670 কিনলে কোন brand er কিনবো? gigabyte/asus ? pls help.

    গ্রাফিক্স কার্ড এর প্রসেসর বা মেমরি নষ্ট হলে ঠিক করা খরচের ব্যাপার। যেসব গেইমের নাম বললেন এগুলা Radeon 4xxx সিরিজেও চলে। ব্ল্যাক অপ্স অবশ্য আমি 5450 এ খেলেছি। আপনি ৫৬৭০ নিতে পারেন। স্যাফায়ারের টা পেলে নেন। নাতো আসুস এর 🙂

    ভাই অনেক অনেক ধন্যবাদ. কোন model er card কিনলে future gaming er jonno wise হয় within 6500 budget? 5450/4650/4670/5670 or onno kisu ??? apnar decision na jene card kinbona… 🙂

    5450 বা 4670 এর দাম তো ৪০০০ এর কাছেই। 5670 বেশ ভালো কার্ড, ৭৭৫ মেগাহার্টজ কোর ক্লক আর ১ গিগাহার্টজ মেমরি ক্লক। দাম ৬ থেকে ৭ এর মাঝেই। আশা করি এতেই কাজ হয়ে যাবে 🙂

    ধন্যবাদ ভাই …

Level 0

দুঃখিত দেরীতে কমেন্ট করার জন্য…………..আসলে আপনার টিউন যত পড়ছি তত মুগ্ধ ও অবাক হচ্ছি। আশা রাখি সবসময় টিটির সাথে পাব আপনাকে………….
ধন্যবাদ………………।

ভাইয়া,গ্রাফিক্স কার্ড এর ফ্যান কোথায় থাকে ?

ভাইয়া,আমি আপনার কথা মত এটিআই ৫৪৫০ কিনলাম,এর ফ্যান কোথায় থাকে?পাইলাম না তো।গেইম খেলার জন্য কি এর সেটিংস এ বিশেষ কোনো পরিবর্তন করতে হবে?দয়া করে জানাবেন।আর একটা কথা,দাম নিলো ৪০৫০ টাকা,বেশি নিলো?

    আচ্ছা, আপনি তাহলে হিট সিঙ্ক সহটা নিয়েছেন? ভালো তো। লাল রঙের মেটাল জালির মত আছেনা? ওটাই হিট সিঙ্ক। দাম ঠিকই আছে। 🙂

    হিট সিঙ্ক এর কাজ কি?আমার পিসি এর রেম তো ২ জিবি,এতে চলবে;নাকি বাড়াতে হবে?আর একটা সমস্যা,আমার কেসিং হলো SPACE এর।এটার পাওয়ার সাপ্লাই ভিতরে,তাই এর ওয়াট দেখা যায় না।পাওয়ার সাপ্লাই কি পালটাতে হবে?কি করব জানাবেন।পিসি তে কত ওয়াট প্রয়োজন হয়?
    কষ্ট করে আমার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য আপনাকে আন্তরিক ধন্যবাদ।

    হিটসিঙ্কই ফ্যানের কাজ করে অর্থাৎ ঠান্ডা করে। র‍্যাম না বাড়ালেও চলবে। DDR2 র‍্যাম বাড়িয়ে লাভ নেই এখন। কিছুদিন পর DDR3 নিয়েন। হাহা।
    পাওয়ার সাপ্লাই লাগবেনা। তবে কাজ করতে করতে হ্যাং মারলে বা আটকালে লাগবে। 🙂

    আমি যেটা কিনসি ওটার লিংক টা দিলাম,সময় হলে কষ্ট করে একটু দেইখেন।
    http://www.sapphiretech.com/presentation/product/?psn=0001&pid=316

Level 0

সাউন্ড কার্ড নিয়ে একটি টিউন করুন।

পোস্ট এর জন্য অনেক ধন্যবাদ । আমার PC configuration দিলাম এখানে –
Motherboard – ASUS P5Q-EM এটা তে Intel G45 chipset আর PCIe 2.0 x16 slot available
Processor – Intel Core 2 Duo 3.0 GHz
RAM – 2 GB DDR2 (800 FSB)
আমার max budget 7000/- টাকা । আমার জন্য কোনো graphics card suggest করেন । আর আমি DELUX – MG432 casing ব্যবহার করছি । এটার power supply 450W তাই মনে হচ্ছে আলাদা power supply কেনার দরকার নাই । কেনার দরকার হলে তাও জানাবেন । আর আমার RAM বাড়ানো কি recommended ? আমি mainly Linux user. আমি game মাঝে মাঝে খেলি কিন্তু HD movie চালাই। তাই ভাই সব দিক বিবেচনা করে আমার জন্য একটা কার্ড suggest করেন । ভাল থাকবেন 🙂

    আপনার পোস্ট দেখে অনেক ঘাটাঘাটি করলাম। কথা হচ্ছে যে গেইম খেলবেন লিনাক্স না উইন্ডোজ এ? কার্ড এর বিভিন্ন ফিচার যেমন ডিরেক্ট এক্স কিন্তু উইন্ডোজ নির্ভর। আবার লিনাক্স ওপেন জিএল ব্যবহার করে। লিনাক্স এ কম্পিজ বা এক্সবিএমসি অথবা ব্লেন্ডার ব্যবহার করতে হলে অবশ্যই এগুলোর ড্রাইভার লাগবে। লিনাক্স এ এগুলোর ড্রাইভার পাওয়া যায় কারণ এএমডি প্রথম থেকেই ওপেন সোর্স। বাংলাদেশে লিনাক্স এর জন্য এটিআই কে প্রেফার করা হয়। বাইরের দেশে আবার এনভিডিয়া খুব চলে। লিনাক্স এ বিল্ট ইন কার্ডেও গেইম চলে, ভিডিও দেখা যায়। তবে আরো ভালো রেন্ডারিং পেতে হলে ভালো কার্ড লাগবে। ৪ হাজারের মাঝে এটিআই ৪৬৭০ বা ৫৪৫০ অথবা এনভিডিয়ার ৯৪০০ জিটি পাওয়া যাবে। ৬/৭ হাজারের দিকে গেলে এটিআই রেডিওনের ৫৬৭০ বা এই সিরিজের নিতে পারেন। আসলে আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে চিপ ভালো পাচ্ছেন কিনা। প্রোডাক্ট আসল পেলে যেটাই হোক চিন্তা নেই। উইন্ডোজ এর গেমস খুব হাই রিকোয়ারমেন্ট দিয়ে তৈরী হয়। তাই এটিআই ই ভালো মনে করি।

    আপনি এই সাইট এ যেয়ে কম্পেয়ার করে কার্ড নিতে পারেন http://www.hwcompare.com/

    ধন্যবাদ

Motherboard – Intel D101ggc
Processor – Intel Pentium 4
RAM – 1 GB DDR1
amer pc er jonno konta valo hobe???

    আপনি যেকোন PCIe x16 কার্ড লাগাতে পারবেন, তবে আপনার সিস্টেম বাস অল্প, ভালো স্পীড নাও পেতে পারেন। তবে কার্ড কিনলে সেটা পরে অন্য পিসি তে ব্যবহার করা যাবে 🙂

আমি যেটা কিনসি ওটার লিংক টা দিলাম,সময় হলে কষ্ট করে একটু দেইখেন।
http://www.sapphiretech.com/presentation/product/?psn=0001&pid=316
…ঠিক আছে?

শুরুতেই আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ এতো তথ্যবহুল টিউন করার জন্যে।আমি গত মাসেই গেমস খেলবো ভেবে পিসি আপগ্রেড করেছি।মজার ব্যাপার হচ্ছে আমি পিসি আই এক্সপ্রেস কার্ড-ই নেওয়া হয়নি।যাই হোক আমার পিসি পাওয়ার সাপ্লাই গেমস খেলার উপযুক্ত কিনা আমি জানিনা তবে দাম নিয়েছিলো ৩৫০০ টাকা।কারণ এইটা নাকি যেসব পিসি দীর্ঘ সময় ধরে চালায় তাদের জন্যে বানানো।যাই হোক আমি যা জানতে চায়ছি হচ্ছে আমার পিসি আই এক্সপ্রেস কার্ড কেনার বাজেট হচ্ছে ১০০০০ টাকা।আর আমার পিসির কনফিগারেশন নিচে দিলাম।দয়া করে ব

    গুরুকে কিভাবে পরামর্শ দেই? হাহা। আর হ্যা, পাওয়ার সাপ্লাই যদি ৩৫০০ টাকার নেয়, তাহলে বেশ ভালোই হওয়ার কথা। কমের মাঝে ৪ হাজার আর বেশির দিকে ৭ হাজারের মাঝে সকল গেইম খেলার মত কনফিগারেশন পাওয়া যায়। আর ১০/১২ হলে তো …

    আপনার পুরো লেখা আসেনি। বাকিটা দিন।

    ধুর পুরাপুরি লেখার আগেই পোস্ট হয়ে গেলো।আমি বলতে চায়ছিলাম দয়া করে বলবেন আমার পিসির জন্যে কোন পিসি আই এক্সপ্রেস কার্ডটা ভালো হবে?
    Intel® Core™ i5 Processor-2300 2.80 GHz Cache(6 MB)
    Intel® DH61WW
    Ram (2 * 4 GB) = 8 GB DDR3 1333 MHz
    1 TB HDD

    এখন এই কনফিগারেশন বিচার বিবেচনা করে আর আমার বাজেটের দিকে খেয়াল রেখে একটা পিসি আই এক্সপ্রেস কার্ড যদি রেফার করতেন তাহলে আপনার কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকতাম।ভালো থাকবেন।

    আমি যতটা খুঁজে দেখলাম, এটিআই ৫৬৭০ অথবা ৫৭৭০ নেওয়া ভালো। ৫৬৭০ আমার অনেক পরিচিত মানুষ ব্যবহার করে। কাজ করে অনেক ভালো। এটা ৭ হাজারের মাঝেই পাওয়া যাবে। এনভিডিয়া জিটি ২৪০ পাওয়া যাবে। তবে আমি সবাইকে এটিআই এ সাজেস্ট করি। এটিআই ৫৬৭০ তে কোর ক্লক ৭৫০ মেগাহার্টজ, মেমরি ক্লক ১ গিগাহার্টজ, শেডার ৫.০ আর ফুল ডিরেক্ট এক্স ১১ সাপোর্ট 🙂

শাওন ভাই আমি পুরো লেখাটা নিচে দিয়েছি যাই হোক এইখানে আবার দিচ্ছি………
নিচে আমার পিসির কনফিগারেশন দেখে দয়া করে বলবেন আমার পিসির জন্যে কোন পিসি আই এক্সপ্রেস কার্ডটা ভালো হবে?
Intel® Core™ i5 Processor-2300 2.80 GHz Cache(6 MB)
Intel® DH61WW
Ram (2 * 4 GB) = 8 GB DDR3 1333 MHz
1 TB HDD

আর আমার বাজেট তো ১০০০০ টাকা আগেই বললাম।

এখন এই কনফিগারেশন বিচার বিবেচনা করে আর আমার বাজেটের দিকে খেয়াল রেখে একটা পিসি আই এক্সপ্রেস কার্ড যদি রেফার করতেন তাহলে আপনার কাছে চির কৃতজ্ঞ থাকতাম।ভালো থাকবেন।

আপনার মতামতের জন্য ধন্যবাদ। 🙂

Level 0

ভাইয়া আমি এই দুই টা মডেল চয়েস করেছি। এই দুইটার মাঝে কোনটা ভালো হয় বলবেন। Gigabyte ATI 5670 1 GB DDR3 and Gigabyte nVIDIA GT440 1 GB DDR3.

আমার পিসির
Intel G-31 1.6 GHz
Ram: 1 GB
আমি কোন গ্রাফিক্স কার্ড ইউস করব

    ভাইজান বাজেট না বললে কিভাবে বলি বলেন? তবে উপরে তো সব ফিচারের কাজ লিখেছি, কেনার সময় বুঝবেন কোনটা ভালো হয়

Level 0

Ekta proshno 15 hazar er modhe kon card ta sobche valo hobe game khaler jonno? ektu jodi boten.

Level 0

THANKS

ভাই আমি আগে থেকেই আপনার ভক্ত নতুন কইরা কিছু কইবার চাইনা। ওহে একটা বিশেষ কারনে গ্রাফিক্স কার্ড সম্পর্কে একটু বিস্তারিত জানার ইচ্ছা হইলো সাধ সকাল বেলা দিলাম টিটিতে সার্চ, পেলাম আপনার টিউন। পুরাই ফাটাই ফেলছেন মিয়া ভাই, যদিও আমরা জানি আপনি সব সময় ই বস টিউন করে (পাম দিতাছি না)। আমি সব সময় টিউনের মধ্যে ক্রিয়েটিভিটি খুঁজি আর সব সময় নিজেও ওইরকম টিউন করতে চেষ্টা করি। কিন্তু এই গুন টা আপনার মেলা আছে বিশ্বাস করবেন না টিটিতে এমন অনেক টিউনার আছে, যাওকগা কই আর কমু ! চালাইয়া যান আপনার কিবোর্ডে আঙ্গুল চালানো। ভালো থাকেন। ধন্যাপাতা 😛

আপনার এই পোষ্টটা আমার অনেক বেশি কাজে লাগবে। তাই প্রিন্ট করে রাখলাম।
আমি প্রায় চার বছর ধরে মাদারবোর্ডের সাথে বিল্ট-ইন গ্রাফিক্স দিয়ে কাজ চালাচ্ছিলাম। কিন্তু বর্তমানে অনেক সময় হাই রেজুলেশনের ব্লু রে মুভি ( যেগুলোর সাইজ ৮ থেকে ১০ গিগা’র মত) সেগুল দেখতে গেলে প্রায়ই ভিডিও আটকে আটকে যায়। তাই ভাবছি গ্রাফিক্স কার্ড একটা কিনতেই হবে। আমার ডুয়েল কোর প্রসেসর, তো আমার জন্য আপনি মোটামুটি কমের ভিত্রে একটা ভাল গ্রাফিক্স কার্ড রিকমেন্ড করেন। (দাম সহ)
পোষ্টের জন্য কৃতজ্ঞতা রইল।

    @এস.কে.ফয়সাল আলম: এখন অবশ্য গ্রাফিক্স কার্ড আরো উন্নত হচ্ছে, কাজেই কিছুদিনের মাঝে আমার এই পোস্টটা আরো উন্নত করা লাগবে।

    আপনি যদি বেশী আউটপুট চান তাহলে কমের মাঝে ৪ হাজারে রেডিওন ৪০০০ সিরিজের যেকোন একটা কার্ড [৪৬৫০/৪৬৭০] ই ভালো হবে। আর যদি বেশি নতুন ফিচার যেমন ডিরেক্ট এক্স ১১ চান তাহলে ৫ হাজারের মাঝে রেডিওন ৫৪৫০/৫৪৭০ নিতে পারেন। বাজেট বেশি হইলে ৭/৮ হাজারের উপরে স্যাফায়ার ৫৬৭০+ এবং ১০/১২ হাজার ছাড়ালে এটিআই ৬০০০ সিরিজের অথবা এনভিডিয়া জিটি৫২৫ নিতে পারেন।

Level 0

ভাইয়া আপনার পোস্টের জন্য ধন্যবাদ। আমি অনেকদিন ধরে গ্রাফিক্স কার্ড কিনব বলে ঠিক করছি।
কিন্তু কোনটা কিনব? দাম কত? সব গেমস খেলা যাবে কিনা? আমার বাজেটে হবে কিনা?
এই সব প্রশ্নের সঠিক পরামর্শের অভাবের কারণে কিনতে পারছিনা।
আমার বাজেট 6000-7000 টাকা
configuration
CPU : Intel Core i3 2.93 GHz
MB : Intel DH55PJ
RAM : 2GB
HDD : 500GB
Monitor : Samsung SyncMaster 743

এই কনফিগারেশনে কোন গ্রাফিক্স কার্ড কনিলে আমার জন্য ভালো হবে? মানে বর্তমানের নতুন নতুন গেইম High Quality -তে কি খেলা যাবে? যেমন : FIFA 2012, Battlefield 3, Crysis 3, Need for Speed-Shift 2.
অর্থাৎ নতুন সব গেইম খেলা যাবে কিনা?

ধন্যবাদ।

    @Ahmed111: @Ahmed111: এখন কয়েক হাজারেই বেশ ভালো কার্ড পাওয়া যায়। ATI এর 5000 সিরিজের সব কার্ডই ভালো চলে। DH55PJ তে PCIe 2.1 বলে একটু কম মানের নিতেই হবে। এক্ষেত্রে 5670 বা সমমানেরগুলা 6000-7000 এ পেয়ে যাবেন 🙂 তবে অবশ্যই PCIe 2.0 দেখে নিবেন, বাকিটা আপনার ইচ্ছা 🙂

Level 0

ভাইয়া ধন্যবাদ আপনার পরামর্শের জন্য।
আমি আরো জানতে চাচ্ছি 5670 এটার ওয়ারেন্টি কত বছর? কোন স্টোর থেকে কিনলে ভালো হবে? আমি সিলেটে থাকি তাই বলছি। Flora PC বা Computer Source এ কি পাওয়া যাবে?
ও আরো একটা কথা আমি গ্রাফিক্স কার্ডের ব্যাপারে কম বুঝি, তাই আগে জানতে চেয়েছিলাম নতুন গেমসগুলো High Quality-তে চলবে কিনা এবং আগামীতে যে নতুন নতুন গেমস সেগুলোতে 5670 গ্রাফিক্স কার্ড সাপোর্ট দিবে কি বা খেলা যাবে?

বুঝি কম তাই অনেক প্রশ্ন করছি।

    @Ahmed111: আমি রাজশাহীতে, কাজেই সিলেটে কোনটা ভালো হবে বলতে পারছিনা। এগুলা Computer Source, Rayans সবখানেই পাওয়া যায়, না গেলে অন্য জায়গায় খুজবেন।

    নতুন গেমস চলবে, ভালোমতই চলবে, তবে সেজন্য ভালো প্রসেসর লাগবে। আর কার্ডের ফুল পারফর্মেন্স পেতে ভালো পাওয়ার সাপ্লাই কিনতে হবে যা 600-6000 এ পাওয়া যাবে।

Level 0

vai .. amar grapics card e problem … grapics card er port e monitor er port lagale monitor e open hoi na.. mane black hoye take.. but motherboard er internal grapics card e lagale normaly chole….. problem ta kivabe thik hobe bolben plz

    @মিনহাজুল হক শাওন: পিসি চালু হওয়ার আগে বায়োসে ঢুকে PCI Graphics অপশনটি অটো করে দিন অথবা External করে দিন। এবার কার্ডে মনিটর লাগিয়ে দেখুন কি হয়। তার আগে খেয়াল রাখুন ড্রাইভার ঠিক আছে কিনা। না থাকলে বিল্ট ইন কার্ডে মনিটর লাগিয়ে ড্রাইভার ইন্সটল করে তারপর এক্সটার্নাল কার্ডে লাগান।

ভাই আমি একটা বিষয় জানতে চাচ্ছি এমন কিছু গেম আছে সে গেম গুলা চালাতে হলে nvidia PhysX সফ্টওয়ার সেটআপ দেওয়া লাগে এখন প্রশ্ন হচ্ছে যে, ATI Raedon এ কি nvidia PhysX সফ্টওয়ার কি সার্পোট করবে ।

    @মারুফ হাসান: না তা করবেনা অবশ্যই। আসলে এনভিডিয়া কার্ডে ৩ ধরণের ক্লক থাকে – জিপিইউ, মেমরি আর শেডার। এটিআই-তে ২টা – জিপিইউ আর মেমরি। তাই PhysX লাগেনা। ওপেনজিএল বা যত ভিডিও সাপোর্ট দরকার সবই ক্যাটালিস্ট থেকে আসে 🙂

তাহলে আমি একটি গ্রাফিক্স কার্ড কিনতে চাচ্ছি । আমার পিসিতে mercury g31 চিপসেটের মদারবোর্ড এ একটি pcie স্লট আছে যথা সম্ভব 16x , আমার বাজেট ৫০০০ টাকায় কি কার্ড কিনবো।

    @মারুফ হাসান: হ্যা সব বোর্ডে অন্তত ১টা পিসিআইই-এক্স১৫ লাগানো থাকেই। ৪-৫ হাজারে এটিআই 4650 বা 5450 এর মাঝে যেকোন মডেল পাবেন। তবে দাম এবং উদ্দেশ্য দেখে কিনবেন। ভবিষ্যতে খুব ভালো গেম খেলতে চাইলে 5450 বা একটু বেশী খরচ করতে হবে। আর যদি পাওয়ার সাপ্লাই তো লাগবেই।

Level 0

vi apnar nmbr ta dewa jabe.. ami bustesina ki korbo

Level 0

bios e PCI Graphics er kono option nei

    @riyads: তাহলে যে ড্রাইভার ইন্সটল করার চেষ্টা করছেন তা ঠিক হয়নি। পারলে ইন্টারনেট থেকে সঠিক অপারেটিং সিস্টেম ও মডেলের ড্রাইভার নামিয়ে নিন। মডেল নাম্বার সহ বিস্তারিত বলুন, লিংক দিচ্ছি।

Level 0

@শাওন ভাই,আমি একজন নতন উসের,গামিং এর শখ আছে,নতুন একটি কম্পিউটার নিতে চাই,গ্রাফিক্স কারড সহ,যদি দাম সহ একটা কনফিগারেশন সাজেস্ত করতেন তাহলে খুব উপকার হত।আপ্নার টিউন টা অনেক সুন্দর হইসে।

    @sourav0172: ভাই বাজেট জানান। পিসি যেমন ইচ্ছা নিন, তবে PCIe 2.0 নিলে যেকোন কার্ড লাগাতে পারবেন। বাজেট ঠিক করুন। তারপর বলছি কোন মডেল নেওয়া যায়।

      হুম বিশাল বাজেট। ভালো মাদারবোর্ড কিনুন, যদি PCIe 2.1 কেনেন তাহলে দশ থেকে ১৩ হাজারে কার্ড + ৪ হাজারে পাওয়ার সাপ্লাই পাওয়া যাবে। কথা হল ঠিক কেমন কনফিগারেশন মানে কোন জিনিস কতটা চান তা তো বলতে পারছিনা। তবে কার্ডের জন্য ১৫ হাজার বরাদ্দ রাখলে হাই ডেফ জিনিস পাবেন।

Level 0

আমি সম্প্রতি গিগাবাইট এর ATI HD 6670 DDR3 1GB গ্রাফিক্স কার্ড টা কিনি “স্মার্ট বিডি” থেকে ৭০০০ টাকা দিয়ে। এখন একটা সমস্যা হচ্ছে যখন আমি mkv,mp4.avi File চালাতে যাই তখন আমার পিসি Hang হয়ে যায়। তখন আমাকে বাধ্য হয়ে পিসি আবার চালু করতে হয়। অন্য ফাইল ও মাঝে মাঝে hang হয়ে যায়। আমি আমার পিসি তে Call Of Duty: Modern Warfare 2 খেলেছি কোন সমস্যা ছাড়া। কিন্তু যখন আমি Sniper Ghost Worrior Game খেলতে যাই তখন একদম Low Settings এ খেলতে গেলেও গেম আটকিয়ে যায়। কিন্তু Call Of Duty: Modern Warfare 2 হাই সেটিংস্‌ খেললেও সমস্যা হয় না।
আমার পিসি কনফিগারেশন হল
Intel Dual-Core E5500 2.80 ghz
Intel DG91PR Motherboard
DDR2 2 GB RAM
320GB Hard Drive
Power Supply (Non-Brand) 500 watt
Gigabyte Ati 6670 DDR3 1GB
Monitor Philips 17″
Windows 7 32 Bit (OS)
এখন আমি কি করতে পারি? আমার সমস্যা টা কোথায় হচ্ছে? আমার কি পাওয়ার সাপ্লাই এ সমস্যা হচ্ছে নাকি অন্য কোন সমস্যা।

Level 0

ভাইয়া আমি উইন্ডোজ ৭ ৩২ বিট ব্যাবহার করি। আমি কোডেক হিসেবে K-Lite Codec latest version তা চালাই। যখন আমি উইন্ডোজ মিডিয়া প্লেয়ার দিয়ে ভিডিও ফাইল ওপেন করি তখন তা হাং হয়ে যায়। কিন্তু আমি দেখলাম যে যখন power dvd 10 যে কোন ভিডিও ফাইল ওপেন করলেও হাং হয় না। যে ফাইল গুলো উইন্ডোজ মিডিয়া তে চালাতে হাং হয় সেই ফাইল power dvd 10 দিয়ে চালালে হাং হয় না। আমার এই গ্রাফিকস কার্ড দিয়ে Call Of Duty : Black ops একদম লো সেটিংস্‌ ও খেলা যাচ্ছে না, অনেক slow হয়ে যাচ্ছে। Ati 4350 দিয়ে এই গেম আমার এক ফ্রেন্ড খেলেতেসে তার কোন সমস্যা হচ্ছে না। আমার তা তো তার থেকে ভালো। তাহলে আমার এই গ্রাফিক্স এ সমস্যা তা কোথায়।

মিনহাজুল হক শাওন ভাই আমার XFX ATI Radeon 4600 । আমার PC Dual Core 2.20 RAM 2GB DDR2 Original 430WD[3600 টাকা] Main-board G31. NFS Hot Persuade 2011 আঁটকে যায়। কি করবো ?

    @Tasnim Ahmed RiSAN: বুঝলাম। ডুয়াল কোর 2.2 গিগাহার্টজ – এটা সমস্যা হতে পারে। ওবারক্লক কইরা নেন, 2.6 পাইবেন 🙂

ভাই,ওবারক্লক কিভাবে করবো ?

    @Tasnim Ahmed RiSAN: বায়োসে যেয়ে কোর ক্লক স্পীড 275 থেকে বাড়িয়ে 280, 285, … 300, 333 এরকম করে দেখুন কোনটায় পিসি স্ট্যাবল থাকে 🙂 তবে সবধান! নিজ দায়িত্বে করবেন 🙂

অসাধারণ একটি টিউন। ধন্যবাদ আপনাকে

ধন্যবাদ শাওন ভাই ।

@shaon vai at first i m sry coz ami keyboard a bangla likta pari na……vai…..amr laptop a ATI REDEON ar graphics HD 6470M 1 GB akti graphics card asa….[brand asus…model x 42jy] ami janta chai ami atata ki configaration ar game khalta parbo and ki rokomer vari kaj korta parbo…..janala upokrito hobo………

    @Xceptionaltanmoy: অবশ্যই বেশ ভালো মানের গেমস ও ভিডিওর কাজ করতে পারবেন। বলতে গেলে এটা বর্তমান সময়ের তুলনায় খুব ভালো। আপনি খুব বেশী গরম না হওয়া পর্যন্ত যতখুশি ব্যবহার করতে পারেন। চাইলে কুলার ব্যবহার করে সারাদিন চালু করে রাখেন, সমস্যা নাই 🙂

@shaon vaia onnek upokrito hoilam…..apnar motamoti sob tune gula porlam….porar por mone hoitasa….bd ta aktai boss asa seita apni……tnx vaia……..

মিনহাজুল হক শাওন ভাই Gigabyte 6750 ও Sapphire HD6770 এই দুইটার থেকে কোনটা ভাল হবে????????

একটু বলেন ভাই।

vai amar motherboard imtel dh55tc.ami asus rog gtx580 kinte chai.amar mb jehetu uatx ami kigpu amar mb te lagate parbo.amar mone hoy sata port gulo dheke jabe.apni ki advice den?

Level 0

দারুন লিখছেন…। what is the difference between HDMI to DVI & HDMI to HDMI????

    @shams6: HDMI এবং DVI দুটি আলাদা ধরণের পোর্ট।

    HDMI to DVI ব্যবহার করতে হবে কম্পিউটারে HDMI এবং মনিটরে DVI পোর্ট থাকতে হবে।

    HDMI to HDMI ব্যবহার করতে হলে দুটোতেই HDMI পোর্ট থাকা লাগবে যেটা সবসময় নাও থাকতে পারে।

Level 0

@shawon vai, amar monitor e HDMI port ache & amar GPU te both DVI & HDMI ache….
amar both HDMI to DVI & HDMI to HDMI cabel ache…….. akn ami HDMI(monitor) to HDMI(PC) use kori… actually ami jante chachilam HDMI to DVI & HDMI to HDMI er modhe kono difference ache kina 🙂

    @shams6: ওহ সেটা! হুম, HDMI to HDMI ই সবচেয়ে ভাল 🙂 কেননা HDMI এর কোয়ালিটি সবচেয়ে বেশী ভাল

এক কথায় চমৎকার !

খুব সুন্দর এবং তথ্যপূর্ণ টিউন।

Level New

হেল্প করেন ।
https://www.techtunes.co/help-ask/tune-id/158546

খুব সুন্দর এবং তথ্যপূর্ণ টিউন।

ধন্যবাদ শাওন ভাই । আমিতো একটা জিনিস বুঝতে পারছিনা ।
১.Gigabyte gtx630 এ লেখা আছে যে এর জন্য নাকি 400W এর PSU লাগবে । আর আমি যতক্ষন পিসি চালু রাখব সব সময়েই কি এটি 400+250 (My other device like mainboard, processor,HDD)=650W বিদ্যুত্‍ খাবে ? নাকি শুধু গ্রাফিক্সের কাজ করার সময় খাবে ?
২. আর pentium g630 2.7Ghz sandy bridge (gigabyte H61+Intel HD2000 ) দিয়ে কি GTA 4 &NFS MW 2012 খেলা যায় ? ১৭ইন্চি মনিটর 1280×1024 . কার্ড লাগবে কি ?
জানাবেন প্লিজ ।

    @MD.ASAD:
    ১। গ্রাফিক্স কার্ডটি সর্বোচ্চ ৪০০ ওয়ার পাওয়ার নিবে। সাধারণ কাজ করার সময় কার্ডটি খুবই কম পাওয়ার নেয় এবং নতুন মাদারবোর্ডগুলোয় সাধারণ কাজ করার সময় বিল্ট ইন গ্রাফিক্স চিপ ও গেমস বা ভারী কাজ শুরু হলে গ্রাফিক্স কার্ডটি চালু হয়ে যায়। এইটা প্রসেসর, হার্ডডিস্কের জন্যেও প্রযোজ্য।

    ২। উপরের দুইটা গেম কোয়ালিটি কমিয়ে বিল্টইন গ্রাফিক্স দিয়েই চালানো যায়। সেখানে HD গ্রাফিক্স দিয়ে অবশ্যই চলবে। তবে হাই কোয়ালিটিতে চলবেনা।

Thank you . I am MD.ASAD

ভাই আপনার সুবিধার জন্য অনেক কষ্ট করে বাংলা লিখলাম 🙂
আমাকে ইক্টু হেল্প করেন প্লিজ :/

আমার পিসির কনফিগারেশন :
intel dual core 2.70 ghz processor
gigabyte G31 motherboard
ram-2GB DDR2
16″ LCD monitor
আমি একটা গ্রাফিক্স কার্ড
কিনতে চাচ্ছি ৫ হাজার টাকার মধ্যে!
প্লিজ প্লিজ প্লিজ আমাকে এই বাজেট
+কনফিগারেশনের জন্য সুইটেবল
ভালো কোন কার্ড সাজেস্ট করুন,
মূলত গেইম খেলার জন্যই আমি কার্ড
কিনতে আগ্রহি

রিপ্লাইয়ের অপেক্ষায় থাকলাম 🙂

    @Muntasir Tamim: ৫ হাজারের মাঝে AMD Radeon HD 6450 নিতে পারেন। ধন্যবাদ।

      @মিনহাজুল হক: AMD Radeon HD 6450 এর প্রাইস কত পড়বে???
      প্রাইস কোন ওয়েবসাইট থেকে জানা যাবে???

      আর SAPPHIRE HD 6570 কেমন হবে??? REDEON এর চেয়ে ভালো নাকি খারাপ?

        @Muntasir Tamim: স্যাফায়ার 6570 ভাল হবে। দামের জন্য রায়ানস, কম্পিউটার সোর্স ও <a href="http://www.pcworldrajshahi.com/"পিসি ওয়ার্লড রাজশাহী এ খোজ নিতে পারেন। দাম আসলে কমবেশী হয়, এজন্য সঠিক বলা যাচ্ছেনা। 6450 এর দাম ছিল ৪৫০০ টাকা যখন আমি দেখেছিলাম।

          @মিনহাজুল হক: নেটে সার্চ করে দেখলাম স্যাফায়ার 6570 এর জন্য মিনিমাম 300W psu থাকা লাগবে,
          আমার psu কত তা বুঝবো কীভাবে? পাওয়ার সাপ্লাই এর পিছনে লেখা আছে INPUT-220V
          OUTPUT-220V

          আরেকটা ব্যাপার জানার ছিলো….
          আমার মাদারবোর্ড GIGABYTE G31M-ES2C
          এইটার pcie slot কোনটা????

        @Muntasir Tamim: আসলে কেসিং এর পাওয়ার সাপ্লাই তেমন ভাল হয়না কারণ কেসিং কমদামী হয়। আপনি ৫০০-৫০০০ টাকার মাঝে বিভিন্ন কোয়ালিটির পাওয়ার সাপ্লাই পেয় যাবেন।

        আর আপনার মাদারবোর্ড 1 x PCI Express x16 slot সাপোর্ট করে।

আর একটা ব্যাপার জানিয়ে দেই,আপনার সুবিধা হবে 🙂
আমার মনিটরের রেজ্যুলেশন 1366*768

Component Details Subscore Base score
Processor Pentium(R) Dual-Core CPU E5700 @ 3.00GHz 6.4 3.5
Determined by lowest subscore

Memory (RAM) 4.00 GB 6.4
Graphics Intel(R) G41 Express Chipset 4.1
Gaming graphics 1534 MB Total available graphics memory 3.5
Primary hard disk 31GB Free (49GB Total) 5.9
Windows 8 Pro

System
——————————————————————————–

Manufacturer To Be Filled By O.E.M.
Model To Be Filled By O.E.M.
Total amount of system memory 4.00 GB RAM
System type 32-bit operating system
Number of processor cores 2
64-bit capable Yes

Storage
——————————————————————————–

Total size of hard disk(s) 466 GB
Disk partition (C:) 31 GB Free (49 GB Total)
Disk partition (E:) 83 GB Free (104 GB Total)
Disk partition (F:) 50 GB Free (104 GB Total)
Disk partition (G:) 100 GB Free (104 GB Total)
Disk partition (H:) 81 GB Free (104 GB Total)
Media drive (J:) CD
Media drive (K:) CD/DVD

Graphics
——————————————————————————–

Display adapter type Intel(R) G41 Express Chipset
Total available graphics memory 1534 MB
Dedicated graphics memory 128 MB
Dedicated system memory 0 MB
Shared system memory 1406 MB
Display adapter driver version 7.15.10.1637
Primary monitor resolution 1366×768
DirectX version DirectX 10

Network
——————————————————————————–

Network Adapter Qualcomm Atheros AR8152 PCI-E Fast Ethernet Controller (NDIS 6.30)
Network Adapter TAP-Win32 Adapter V9
Network Adapter Bluetooth Device (Personal Area Network)

Notes
——————————————————————————–

The gaming graphics score is based on the primary graphics adapter. If this system has linked or multiple graphics adapters, some software applications may see additional performance benefits.

ভাইজান আমি কোন graphics card kinle game খেলতে পারব…।।আমার বাজেট ৭০০০ টাকা
Awesome একটা TUne….♥ ☺♥♥♥☻☺♠♦◘•○

Level 0

ভাই আমার acer intel core i3-380M আছে।কিন্তু আমার ল্যাপটপ এর gpa card কত জানি না। আমাকে সাহায্য করুন। আমি অনেক গেমস খেলতে পারছি কিন্তু কতগুলো গেমসে .dll file miss হচ্ছে।যেমন max payne 3 ..pls help me…my email id is [email protected]

    @@nis_rn: DLL ফাইল কোনগুলা মিসিং দেখাচ্ছে? এটার সাথে গ্রাফিক্স কার্ডের সম্পর্ক নেই। আপনাকে ওই গেমসের জন্য দরকারী প্যাকেজ যেমন ভিজুয়াল সি রানটাইম, ওপেনজিএল, ওপেন ওডিও, ডিরেক্ট এক্স ইত্যাদি লাগে কিনা চেক করুন। আবার কিছু গেমস থাকে যেগুলোর জন্য স্পেসিফিক কার্ডের প্রয়োজন হয়। যেমন nVIDIA Physx লাগতে পারে।
    কার্ড চেক করতে পোস্টে উল্লেখ করা GPU-Z সফটওয়্যারটি ব্যবহার করেন।

Level 0

>> ভালো লিখেছেন… আশা করছি সামনে আরো ভালো কিছু নিয়ে আসবেন।। ধন্যবাদ।।

Level 0

https://www.techtunes.co/help-ask/tune-id/230254 . ভাই এই পোস্ট টা আক্তু দেখুন।।আর প্লীজ আমাকে সাহায্য করুন।

মিনহাজুল ভাই… আমিও আপনার মতই (প্রায়) কলেজিয়েট‘10 ডিগ্রি‘12….. পরবর্তীর জন্য কাম চলতেছে…………

ভাই আমি একটা পিসি কিনতে চাইতেছি…যাতে আমি ব্যাটলফিল্ড এবং থ্রিডি এক্স ম্যাক্স 2014 চালাইতে চাই …..
জিনিসটাকি কেনা ঠিক হবে নাকি একটু বলেন….যার কনফিগ অনেকটা এইরকম

মাদারর্বোড—– Asus F2A85-V pro
প্রসেসর——–AMD A10-6800K (Black Edition) 4.1 GHz
র‌্যাম———–8 GB DDR3
জিপিইউ——- সাজেশন চাই (7000) এর মধ্যে [পাওয়ার সাপ্লাইটা কেমন হতে হবে সেটাও বইলেন]

একটু বললে খুবই উপকৃত হইতাম……

    জনাব আশিক মাহমুদ: আসলে বর্তমান মার্কেট প্রাইস ও প্রোডাক্ট নিয়ে খোজ খবর রাখিনা আগের মত। আমার মনে হয় মার্কেট ঘুরে কয়েক মডেলের প্রোডাক্ট সিলেক্ট করে তারপর কম্পেয়ার করলে ভাল হয়।

    প্রসেসর: প্রসেসরের ব্যপারে আমি নিজের পছন্দ মত নিতে বলবো। তবে আপনি যে মডেলটার নাম উল্লেখ করেছেন তার বদলে বাজারে পাওয়া যায় যেমন কোর আই ফাইভ 3570কে নিলে কিছু ক্ষেত্রে সুবিধা হত। মূলত এএমডি’র এপিইউ সিরিজের প্রসেসরে সেকেন্ডারি ক্যাশ বেশী কিন্তু থার্ড লেভেল নাই। আর এখনকার বেশীরভাগ অ্যাপ্লিকেশনই কিন্তু সিংগেল কোরের ওপর নির্ভর করে যদিও মাল্টিকোর প্রসেসরে অনেক কাজ একসাথে করা যায়। কিন্তু প্রতি কোরের পারফরমেন্সটাও জরুরী। আপনি যদি দাম কম এবং ক্লক স্পীড বেশী দেখে এই প্রসেসর কিনতে চান তবে আমি বলবো একটু অন্যান্য ফিচার ঘেটে দেখতে। যেমন এখানকার তুলনামূলক কম্পেরিজন দেখতে পারেন।

    র‍্যাম আমার মতে ৪ জিবি যথেষ্ট, তবে ৮ লাগালে অসুবিধা নেই। আমার মনে হয় ৪ জিবি মেমরির টাকা আপনি জিপিইউ’র পিছে খরচ করলে লাভ হবে। যদিও থ্রিডি’র কাজ করতে প্রচুর র‍্যাম লাগে।

    আর জিপিইউ’র ব্যপারে আমি নির্দিষ্ট মডেল সাজেস্ট করতে পারছিনা। আসলে বাজারে এখন সব প্রোডাক্টই ভাল চলে। কোনটাই খারাপ না। আপনি কয়েকটা মডেল বললে আমি হয়ত সেখান থেকে কোন একটা সাজেস্ট করতে পারি। পাওয়ার সাপ্লাইটা কার্ডের মডেল অনুযায়ী কিনতে হবে যদিও ৩-৪ হাজারে যেসব পাওয়া যায় ওগুলা মোটামুটি কার্ড সাপোর্ট করতে পারবে। আর টাকা দিয়ে নিশ্চয় কম কোয়ালিটির জিনিস কিনবেন না।

    ধন্যবাদ।

Level 0

আমার লগিন করা ছিল না।আপনার পোস্ট দেখে লগিন করলাম।কি বলব সেইরাম একটা পোস্ট লিখেছেন ।
এই বার আমারে একটা হেল্প করেন ।আমি ডিসিশন নিয়েছি sapphire hd7870 টা নিবো ।আমার মাদারবোর্ড ইন্টেল DH61SA .আর প্রসেসর pentium duel core 2.60 ghz.আমি আগে গ্রাফিক্স কার্ড টা কিনতে চাই ।এর পর প্রসেসর কিনবো।কোন সমস্যা হবে কিনা।আর এইভাবে কমেন্ট না করে যদি পারেন আপনার ফেসবুকের আইডির লিঙ্ক টা দেন ।আমি কিছু হেল্প নিবো ।

    @patoary: জনাব পাটোয়ারী, আপনি ইচ্ছামত গ্রাফিক্স কার্ড নিতে পারেন, তবে ভাল কম্পিউটিং এর জন্য প্রসেসরটাও ভাল হওয়া জরুরী। যেহেতু পরে প্রসেসর কিনবেন, তাই সমস্যা হওয়ার কথা নয়। ডুয়াল কোরও খারাপ না, ওভারক্লক করে 2.80/3.00 ও করতে পারেন।

    আর ভাইয়া আমি ফেসবুক কারো সাথে সাপোর্টের জন্য ব্যবহার করিনা। যেকোন সমস্যা বা পরামর্শের জন্য় যোগাযোগ করতে পারেন ইমেইলে। অথবা এখান থেকেও। ধন্যবাদ।

      Level 0

      @মো: মিনহাজুল হক: ভাই pentium duel core 2.60 ghz নাকি অভার ক্লক করা যায় না।আপনি সিস্টেম টা বলেন প্লিজ ।আর দেশে sapphire hd7870 মডেলের এই দুইটা কার্ড পাওয়া যায় মনে হয় ।http://www.ucc-bd.com/sapphire-hd7870-ghz-edition-2g-gddr5-pci-e-dl-dvi-i-sl-dvi-d-hdmi-dp-oc-version-full.html আরেকটা http://www.ryanscomputers.com/Sapphire-HD7-2171 একটু কষ্ট করে দেখে বলেন ।কোনটা নিবো রায়ান্স এর টা না ইউসিসি এর টা ?

Level 0

@মো: মিনহাজুল হক ভাইয়া আমি (core i3 3220 3.3 ghz (3rd gen), Asrock h71m dgs, 4gb ram, deluxe casing, dell 20 inch monitor) এই কনফিগারের পিসি use করি । আমি Radeon R7 260x graphics card ta kinte chaitesi.Budget-10,000.কেমন হবে বলবেন ভাইয়া ?

নতুন দিশা পেলাম ভাই ধন্যবাদ মিনহাজ ভাই

1.Intel HD Graphics 4400
2.Intel HD Graphics 5500
3.Intel UHD Graphics 620
4.Nvidia GeForce 940MX Up to 2 GB Dedicated Graphics
5.AMD Radeon R5 M430 Graphics 2 GBDDR3 Dedicated
@মিজানুল হক ভাই আমি কয়েকটা লেপ্টপ চয়েজ করছি কিনার জন্য। আমি গ্রাফিক্স এর কাজ করব
এগুলার মধ্যে কোনটার গ্রাফিক্স কাড ভাল একটু বলবেন

মূল্য কম্পেয়ার করতে এই সাইটি দেখতে পারেন https://www.bdstall.com/desktop-pc/

ধন্যবাদ অসাধারণ টিউনের জন্য…
আমি একটি এন্ড্রয়ড এপ তৈরি করেছি, বিক্রয়[ডট]কম এর অল্টারনেটিভ হিসেবে। ইচ্ছে হলে ট্রাই করে দেখতে পারেন।
এপটির ফীচার সমূহঃ
* কোনো রেজিস্ট্রেশন ছাড়াই এড পোস্ট করতে পারবেন
* দিনে আনলিমিটেড এড পোস্ট করতে পারবেন
* লোকেশন বেইসড এড সার্চ করতে পারবেন
* কোন হিডেন চার্জ নেই, একদম ফ্রী
* ইনশা আল্লাহ, আমি যতদিন বেঁচে থাকব, অতদিন সার্ভিসটা ফ্রী রাখব
* ইউজার ফ্রেন্ডলি ইন্টারফেস
* ছোট APK সাইজ ( মাত্র ৩ এমবি)
.
গুগল প্লে ডাউনলোড লিঙ্কঃ https://play.google.com/store/apps/details?id=p32929.buysellbd
APK ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://tiny.cc/buy_sell_bd
.
এপটি ডাউনলোড করে দয়াকরে একটি হলেও এড পোস্ট করুন। অনেক খুশি হব। আগাম ধন্যবাদ…