ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

টিউন্টারভিউ: হাসিন হায়দার, হেড অফ আইডিয়াস এবং প্রতিষ্ঠাতা, Leevio

টিউন্টারভিউ গেস্ট: হাসিন হায়দার, হেড অফ আইডিয়াস এবং প্রতিষ্ঠাতা, Leevio
টিউন্টারভিউ হোস্ট: আরিফ নিজামী
সময়: মঙ্গলবার, ২৪ অগাষ্ট ২০১১ । দুপুর ২ টা ।
স্থান: Leevio অফিস, উত্তরা , ঢাকা ।

ADs by Techtunes ADs

হাসিন হায়দার, দেশের ওয়েব এপ্লিকেশন ডেভলপমেন্টে এক উজ্জল নক্ষত্র । তার অনুপ্রেরণায় পিএইচপি (PHP) কোডিংয়ের জগতে ডুব দিয়েছেন অগণিত মানুষ । দেশের প্রথম ZCE, আন্তর্জাতিক বিভিন্ন প্রোগ্রামিং বইয়ের লেখক, বাংলা দেশের সবচেয়ে বড় PHP গ্রুপ, PHPXpert এর পরিচালক, দেশের প্রথম বাংলা ইউনিকোড পার্সারের ডেভোলোপারদের অন্যতম, জনপ্রিয় ফেসবুক এপ্লিকেশন Miproapps/thruSocial এর প্রবর্তক এবং আন্তর্জাতিক মানের Startup Leevio এর এই প্রতিষ্ঠাতার কথা আজ জানবো টেকটিউনস টিউন্টারভিউ এর মাধ্যমে।

টেকটিউনস: কম্পিউটার ও কোডিং জগতে আপনার শুরুটা কিভাবে হলো ?
হাসিন হায়দার:
আমি যখন রাজশাহী বিআইটিতে (বতর্মানে রুয়েট) ভর্তির কোচিং করতাম তখন সেখানে একটা কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার ছিল । ক্লাসের পর প্রতিদিনই আমি সেখানে অনেক সময় ব্যয় করতাম । প্রথম প্রথম শুধু গেমিং, তারপর আঁকাআঁকি ইত্যাদি । এরপর আমার মাথায় একটা প্রশ্ন আসলো যে এই এপ্লিকেশনগুলো কিভাবে কাজ করে । আমি আমার বাবাকে বেসিক কম্পিউটার শেখার একটা বই এনে দিতে বললাম । তিনি যেহেতু কম্পিউটারের ব্যাপারে অভিজ্ঞ ছিলেন না তাই তিনি এক দোকান থেকে মাইক্রোসফট এক্সেলের একটা বই নিয়ে এলেন । এক্সেলে ফর্মুলা লেখা, ম্যাক্রো প্রোগ্রামিং আমার আবেগকে প্রজ্বলিত করল এবং আমি Foxpro এর উপর একটি বই কিনলাম, এভাবেই আমার প্রোগ্রামিং জীবনের শুরু ।

টেকটিউনস: আপনার ব্যাকগ্রাউন্ড সিভিল ইন্জিনিয়ারিং । সেখান থেকে প্রোফেশনাল কোডিং জগতে চলে আসার গল্পটা শুনব ।
হাসিন হায়দার: যেহেতু আমি FoxPro ও Qbasic এ প্রোগ্রামিংয়ে আগ্রহী ছিলাম এবং শিখছিলাম, তাই আমাদের নিউমারিক্যাল এনালাইসিস ক্লাসের সমস্যাগুলো সলভ করতে অনেক ভালো লাগত । বিআইটিতে একটি বিশাল কম্পিউটার রুম ছিল, 256 এবং 356 মেশিনে পূর্ণ একটি DOS এর জগৎ । তখন আমার এক বন্ধু বাংলা ডিকশনারী, বাংলা টেক্সট টু স্পিচ এর মত বাংলা এপ্লিকেশন তৈরীতে ভীষণ আগ্রহী ছিল । আমরা একসাথে অনেক সময় কাটিয়েছি । তখন আমি বাংলা একটা এপ্লিকেশন তৈরীর পরিকল্পনা করলাম যা দিয়ে মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে সহজে বাংলা লেখা যাবে । তখন আমি এবং চারজন জুনিয়র, ইমন, সুমন, আবিদ ও সুমি মিলে বাংলা ইন্টারফেস অর্ক (Orko) তৈরী করলাম । এটা ক্যাম্পাসে ভীষণ জনপ্রিয় হল এবং ব্যবসায়িকভাবেও সফল ছিল । এটিই আমাদের বাণিজ্যিক এপ্লিকেশন তৈরীতে ক্যারিয়ার গঠনে উদ্বুদ্ধ করল ।

টেকটিউনস: পেজফ্লেক্স আর সামহোয়্যার ইনে তো একটা ব্যস্ত সময় পার করেছেন, ওটা নিয়ে কিছু বলুন ।
হাসিন হায়দার: সামহোয়্যার ইনে আমি টিম স্পিরিটের ব্যাপারে অনেক কিছু শিখেছি । সামহোয়্যার ইনের CEO অরিল্ড ক্লকারহগ সেই সময় আমার মেন্টর ছিলেন । তিনি আমাকে শিখিয়েছেন সাফল্য এমন কিছু যা সবার সাথে মিলে উৎযাপন করতে হয় এবং রঙ্গীন মূহুর্ত (colorful moments) বলতে আসলে কি বোঝায় । সামহোয়্যার ইনে আমি বেশ কিছু চমৎকার ডেভেলপার সাথে পরিচয় হয়েছে । আমার সময় সামহোয়্যার ইনে দেশের সেরা কিছু ডেভলপাররা কাজ করতেন । আমরা একসাথে অনেক কিছু শিখেছি । পেজফ্লেক্স এর ব্যাপারটাও অনেকা একই রকম । শিপলু বাহ, ওমর আল জাবির মিশো এবং অন্যান্য সহকর্মীরা সত্যি খুব উৎসাহ প্রদায়ক ছিলেন । এবং আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ জিনিস আমি পেজফ্লেক্সে থাকাকালীন শিখেছি, তা হলো এপ্লিকেশনের ভার্সন কন্ট্রোল টুলের ব্যবহার এবং স্কেলযোগ্য বৃহৎ আকারের এপ্লিকেশন তৈরী ।

টেকটিউনস: আপনার লেখা বেশ কিছু বইও বাজার মাতিয়েছে একসময় ।
হাসিন হায়দার: জ্বী, আমি এই পর্যন্ত চারটি বই লিখেছি

টেকটিউনস: আপনি তো বাংলাদেশের প্রথম ZCE (Zend Certified Engineer ), আপনার ZCE হওয়ার গল্পটা শুনতে চাই।
হাসিন হায়দার:
আমি যখন ZCE হওয়ার পরিক্লপনা করছিলাম তখন এই বিষয়ে রিসোর্স খুজে পাওয়া অনেক কষ্টের ছিল । এবং মানুষজন এমনভাবে তাকাতো যেন আমি ভীনগ্রহের কোন এলিয়েন ! অনেক খোজাখোজির পর নেট থেকে এই বিষয়ের কিছু বই পেলাম এবং সিদ্ধান্ত নিলাম পরীক্ষাটা দেয়ার । তিন চার মাসের বেতনের টাকা জমিয়ে পরীক্ষার ফি জোগাড় করলাম । তখন আমি একটা চাকরি করছিলাম এবং ওটাই আমার একমাত্র আয়ের উৎস ছিল । উপার্জনটা কষ্টের ছিল এবং ফেল করার ভার বহন করা আমার পক্ষে সম্ভব ছিল না । তাই আমি অনেক desperate ছিলাম । আর কোন কিছুতে প্রথম হওয়ার আনন্দের ব্যাপারটাও মাথায় ছিল । দেশে তখন কেউ ZCE ছিল না এবং এটা আমার কাজে ব্যবহৃত টুল PHP এর সাথেও সামন্জস্যপূর্ণ ছিল । তাই আমি ZCE পরীক্ষায় অংশ নিলাম ।

টেকটিউনস: TRIPART, SOMEWHEREIN, সহ আপনার কাজ করা বেশী ভাগ প্রতিষ্ঠানই সোসিয়াল নেটওয়ার্কিং নিয়ে এটা কি কাকতালীয় ?
হাসিন হায়দার: না, আমি দীর্ঘদিন ধরেই সোসিয়্যাল এপ্লিকেশন ডেভলপমেন্টের কাজ করছিলাম এবং এই বিষয়ে কাজ করছে এমন কোম্পানি ও ডেভলপারদের সাথে কাজ করতে আমি স্বাছ্যন্দ বোধ করি । কারণ এটাতে আমার ও অন্যদের জন্য কমিউকেশনে সহজ এবং আমরা একই অবস্থানে থাকতে পারি।

ADs by Techtunes ADs

টেকটিউনস: চাকরী ছেড়ে entrepreneurship এ চলে আসা কেন ?
হাসিন হায়দার: সত্যি বলতে কি আমার কিছু বেশ কিছু অদ্ভুত আইডিয়া ছিল যেগুলোতে হয়ত আমার চাকরীদানকারী কোম্পানি ফান্ডিং করতে আগ্রহী হতো না। তাই আমাকে নিজেকেই ওগুলো বাস্তবায়নে উদ্দোগী হতে হতো । এটাই আমার Entrepreneurship Spirit ছিল এবং এর কারণেই আমরা Leevio শুরু করি।

টেকটিউনস: আপনি পাচঁ সন্তানের পরিবারের একমাত্র ছেলে, আপনাকে নিয়ে নিশ্চয়ই সবার বিরাট প্রত্যাশা । এগুলো ক্যারিয়ারকে কিভাবে প্রভাবিত করেছে ?
হাসিন হায়দার: আমি নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে যেখানে আমার বাবা খুবই কষ্টে উপার্জন করতেন । তাই আমি অর্থে মর্ম জানতাম এবং অর্থ উপার্জনে কত কষ্ট করতে হয় তাও জানতাম । মাত্র একজন পুত্র সন্তানের আশায় আমাদের পরিবারে পর পর চারজন কন্যা সন্তান হয়ে ছিল, তাই আমার উপর দায়িত্বটাও বেশী ছিল । এই জিনিষগুলো আমাকে আমার সাফল্যের ব্যাপারে ফোকাসড হতে সাহায্য করে । আমাকে এটা করতেই হতো, তাছাড়া অন্যকোন পথ ছিল না (হাসি) । এবং আপনি যখন কোন কিছু নিয়ে থাকেন তখন আপনার জন্য চ্যালেন্জ নেয়া সহজ হয়ে যায় ।

টেকটিউনস: আমরা যদি গ্লোবালী দেখি তবে আমাদের সামনে তিনজন সেরা Entreprenuer আছে, বিল গেটস, স্টিভ জবস আর হালের মার্ক জাকারবার্গ । আপনার পছন্দের কে ? আপনার Entrepreneurship দর্শনটা কি ?

হাসিন হায়দার: বিল গেটস এবং স্টিভ জবস । আমার জীবনের বড় একটা সময় আমি ভিজুয়্যাল বেসিকে কাজ করেছি , যা মাইক্রোসফটের একটা চমৎকার প্রোগ্রাম। তারপর আমি পথ পরিবর্তন করে LAMP এবং তারপর Mac এ এপ্লিকেশন ডেভলপিং শুরু করি। স্টিভ জবস ও তার চমৎকার গেজেটগুলো আমাকে অনেক অনুপ্রাণিত করেছে।

টেকটিউনস: Leevio নামটার ইতিহাস কি?
হাসিন হায়দার: বিভিন্ন নেম জেনারেটরে আমরা ভালো কিছু নাম খুজছিলাম, এই নাম ওভাবেই পাওয়া । আমরা আরো তিনটা নাম বাছাই করে ভোটাভোটি করলাম । Leevio বন্ধুদের কাছ থেকে সরব্বোচ্চ নম্বর পেলো এবং আমরা সেইটাই গ্রহণ করলাম । Leevio এর কোন অর্থ নেই, এটা আরেকটা ভালো দিক । তাছাড়া এটা Life এর মতো শোনায়।

টেকটিউনস: Leevio এর Miproapps হঠাৎ i2We এর ThruSocial হয়ে গেল কিভাবে ?
হাসিন হায়দার: আমরা Miproapps এর ৮০% শেয়ার i2we এর কাছে বিক্রি করে দেই । তারা বুঝতে পারলো এর উপর ভিত্তি করেই সোসিয়্যাল ডেভলপমেন্টের নতুন সূচনা হতে পারে । তাই তারা এর নাম পরিবর্তন করে thrusocial দেয় এবং এই এপটিই পুরো কোম্পানির মূল আর্কষন হয়ে দাড়ায়।

টেকটিউনস: Leevio এর ব্যবসায়িক সাফল্য কিভাবে মূল্যায়ন করবেন ? এর মূল সোর্স কোনটি ?
হাসিন হায়দার: প্রথম দিকে যখন আমরা MiproApps তৈরী করছিলাম তখন আমরা ক্লায়েন্টদের কাজ ও করতাম । যে অর্থ আমরা উপর্জন করছিলাম তা ইন হাউজ ডেভলপমেন্টের কাজে লাগত । এখনও আমরা উপার্জিত আয়ের বড় একটা অংশ রিসার্চ ও ডেভলপমেন্ট ও ইন হাউজ ডেভলপমেন্টে খরচ করে থাকি।

ADs by Techtunes ADs

টেকটিউনস: অনেকের মতে এখন আমরা internationally স্টার্টআপের বাবলের (startup bubble) মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি, আপনার মতামত কি ?
হাসিন হায়দার: খারাপ না, Entrepreneurship স্পিরিট খুবই ভালো । তবে একটা কথা, আপনাকে আগে একজন ভালো টিম প্লেয়ার হতে হবে নিজের টিম পরিচালনা করতে । তাই আপনি যদি দুই তিন বছর কোন ভালো টিমের সাথে কোন কোম্পানিতে চাকরী করতে পারেন তবে তা নিজের স্টার্টআপ চালু করতে বেশ সহায়ক হবে।

টেকটিউনস: আপনকে inspire করে বা আপনার ক্যারিয়ারে অবদান আছে এমন কিছু ব্যক্তির নাম আমাদের যদি জানাতেন ।
হাসিন হায়দার: আমি এই বিষয় নিয়ে একটি পোষ্ট লিখেছি । সেটা দেখতে পারেন । ( http://hasin.wordpress.com/2009/01/19/hats-off-to-you-who-are-behind-the-scene/ )

টেকটিউনস: যারা উদ্যোক্তা হতে চান তাদের এই ক্ষেত্রে আসার আগে কি কি প্রস্তুতি নেয়ার পরার্মশ দিবেন ?
হাসিন হায়দার: এটার উত্তর আগেই দিয়েছি, প্রথমে ভালো টিম প্লেয়ার হতে হবে।

টেকটিউনস: ক্যারিয়র শেষে নিজেকে কোথায় দেখতে চান ? কোন ব্যক্তিগত লক্ষ্য ?
হাসিন হায়দার: আমি শুধু নিজের মন যা চায় তাই করে বেড়ানো মত সময় চাই । যেমন ১০দিনের মাছ শিকার করা, একটি বই লেখা বা পাহাড়ের চূড়ার বসবাস করা। তেমন বড় কিছু না :-)।

টেকটিউনস: আপনার পরিবারের সদস্য নিয়ে কিছু বলুন।
হাসিন হায়দার: আমি আমার বাবা মাকে নিয়ে গর্বিত। আমার মা আমার পাচঁ বছর বয়স থেকে প্যারালাইজড। তবুও তিনি আমার বাবার সাথে মিলে সকল ঝক্কি ঝামেলা সহ্য করে গেছেন। আমাদের পড়ালেখা খরচ ও খাবার জোগাড় করার উদ্দ্যেশে টিউশিনির মত বাড়তি কাজও করেছেন। আমার ইচ্ছে করে আমি যদি তাদের মত হতে পারতাম। আমি আমার স্ত্রী ও দুই সন্তানকে ভীষণ ভালোবাসি। তারা আমার অনুপ্রেরণার উৎস। আমার বোনরা, যদিও আমাদের মাঝে দারুন ঝগড়া হতো, তবুও আমরা একে অপরকে খুব ভালোবাসি।

টেকটিউনস: আপনার দুই সন্তানদেরও কী প্রোগ্রামার বানানোর ইচ্ছা না অন্য কোন পরিকল্পনা আছে?
হাসিন হায়দার:
না আমি একজন লিবারেল মানুষ । আফিফ এবং ইভানকে তাদের নিজের জীবন গড়তে দিব । আমি তাদের সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণে সাহায্য ও নিদের্শনা দিব কিন্তু কখনও ক্যারিয়ারের ব্যাপারে চাপ দিব না।

টেকটিউনস: Titanium প্লাটফরমে আইফোন app বানানো নিয়ে আপনারা বেশ কিছু কাজ করেছেন। এটা সম্বন্ধে কিছু বলুন।
হাসিন হায়দার: ১৭ তারিখে JSCON2011 তে আসুন এবং নিজেই দেখে নিন :)।

ADs by Techtunes ADs

টেকটিউনস: Leevio এর সুদূর প্রসারি কোন চিন্তা বা ভবিষ্যতে কি কি প্রোডাক্ট আসতে পারে ?
হাসিন হায়দার:
সিক্রেট 🙂 ।

টেকটিউনস: Leevio থেকে বাংলা লেখার টুল স্লেট বেরিয়েছে । দেশের জন্য আরো কোন কিছু করার পরিকল্পনা কী Leevio এর আছে?
হাসিন হায়দার: আমি বাংলা এপ্লিকেশন তৈরীতে আগ্রহী । দেখা যাক নতুন আর কি আইডিয়া আমার মাথায় আসে, আমরা সেগুলো নিয়ে অবশ্যই কাজ করব যদি না এটা আমার স্কিলের বাইরের কিছু হয়।

টেকটিউনস: PhpXpert গ্রুপ কিভাবে শুরু । এর প্রোগ্রামগুলোর পিছনে Intention কি ?
হাসিন হায়দার: সবাইকে সচেতন করা এবং এই অসাধারণ ভাষাটাকে সবার কাছে পৌছে দেয়া । আরেকটা বড় কারণ যার কারণে আমরা ওয়ার্কশপ, সেমিনার আয়োজন করি হচ্ছে একটা কমিউনিটি গড়ে তোলা এবং দিক নির্দেশনা প্রদান করা ।

টেকটিউনস: টেকটিউনস কেমন লাগে? টেকটিউনস সম্বন্ধে আপনার মতামত ও পরামর্শ জানতে চাচ্ছি।
হাসিন হায়দার: আমি টেকটিউনস অনেক পছন্দ করি । টেকটিউনসের নির্মাতা, পরিচালক, CEO & CTO - মেহেদী হাসান আরিফ একজন চমৎকার মানুষ এবং আমরা দীর্ঘদিন ধরে একে অপরকে চিনি। আপনার মত এবং অন্যান্যরা টেকটিউনসকে পরিশ্রমের মাধ্যমে জীবন্ত রাখছেন। শুধু একটা জিনিষ আমার অপছন্দ যে এখানে অনেক কপিরাইটেড ম্যাটেরিয়াল শেয়ার করা হয় । আমি ব্যাক্তিগতভাবে পাইরেসী পছন্দ করি না এবং একে এড়িয়ে যেতে চেষ্টা করি । আমাদের "পাইরেসীকে না বলুন" - এ ধরণের সচেতনতা তৈরী করা উচিত । আপনার সময়ে জন্য ধন্যবাদ , JS Conference এ দেখা হবে।

Leevio অফিস ফটোট্যুর

হাসিন হায়দার একজন অমায়িক ব্যাক্তিত্ব । নিজের মূল্যবান সময় খরচ করে দেশের প্রোগ্রামিং জগতের উন্নয়নে ২০০৪ সালের ৩১ অক্টোবরে তিনি দেশের পিএইচপি প্রেমীদের এক অভিন্ন কমিউনিটি গড়ার লক্ষ্যে PHPXpert গ্রুপ তৈরি করে তাঁর বন্ধুদের সাথে কাজ করে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। PHPXpert গ্রুপ দেশের অন্যতম সক্রিয় ও জনপ্রিয় টেকি গ্রুপ। আগামী ১৭ তারিখ Software Freedom Day 2011 (SFD 2011) উপলক্ষে বেলা ৩টা থেকে AIUB Auditorium -এ জাভাস্ক্রিপ্ট প্রেমীদের জন্য বিশেষ টেক কন্ফারেন্সের JSCON2011 এর আয়োজন করেছে PHPXpert.

যাতে হাসিন হায়দার সহ দেশের প্রায় ১২ জন খ্যাতনামা জাভাস্ক্রিপ্ট এক্সপার্টরা অংশ নিবেন এবং বক্তব্য রাখবেন। আপনিও চাইলে PHPXpert এর এই JSCON2011 টেক কন্ফারেন্সে যোগ দিতে পারেন।

হাসিন হায়দারের আত্মবিশ্বাসী পথচলা স্বপ্ন দেখায় বড় কিছু করার। তাঁর ব্যক্তিগত ব্লগ পাবেন http://hasin.wordpress.com/

ADs by Techtunes ADs

টেকটিউনস টিউন্টারভিউ হয়ে উঠেছে অসম্ভব জনপ্রিয়

টেকটিউনসের প্রথম টিউন্টারভিউ প্রকাশের সাথে সাথে তা পুরো দেশ জুরে সারা পড়েছে। কর্পোরেট, মিডিয়া ও নেটিজেন থেকে শুরু করে টিউজিটর সবার কাছে টিউন্টারভিউ অসম্ভম রকম প্রশংশিত ও সমাদিত হয়েছে। টিউন্টাভিউকে আরও শৃঙ্খল, সজ্জিত ও পরিকল্পিত করার জন্য অনেকেই বিভিন্ন পরামর্শ ও অভিমত দিয়েছেন। তাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। টেকটিউনসের এ ধরনের সৃজনশীল আয়োজনের আরও বেশ কিছু পরিকল্পনা রয়েছে এবং তা বাস্তবায়ন হবে ইনশাল্লাহ।

আসছে আরও নতুন টিউন্টারভিউ হোস্ট, নতুন আরও প্রণোদিত টিউন্টারভিউ গেস্টদের নিয়ে

ইতোমধ্যেই টেকটিউনস টিউন্টারভিউ হোস্ট হতে আবেদন করেছেন অনেকে। টেকটিউনস টিউন্টারভিউ প্যানেল আগামী কিছুদিনের মধ্যই নতুন হোস্ট হতে ইচ্ছুকদের সাথে কথা বলবে এবং তাদের প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দিবে। তাই আগামী দিনগুলোতে আপনারা খুঁজে পাবেন নতুন, উদ্যমী  ও মেধাবী টিউন্টারভিউ হোস্ট যারা দেশের উজ্জ্বল আর প্রতিভাবান টিউন্টারভিউ গেস্টদের আপনাদের সামনে তুলে ধরবেন।

টেকটিউনসের সোসিয়াল অলিগলিতে যুক্ত হোন। সাপোর্ট করুন আর প্রমোট করুন টেকটিউনসকে

টেকটিউনসকে টুইটারে ফলো করে, টেকটিউনসের RSS Feed ও Email RSS এ সাবস্ক্রইব করে এবং আপনার ফেসবুক ও টুইটার প্রোফাইলে টেকটিউনস পিকচার ব্যাজ পরিধান করে আপনার প্রাণ প্রিয় টেকটিউনসকে সাপোর্ট ও প্রমোট করতে পারেন। টেকটিউনসের সাথে আরও নিবিড় ভাবে যুক্ত হতে এবং রিয়েলটাইম আপডেট পেতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা টেকটিউনসের সোসিয়াল অলিগলিতে যুক্ত হোন এখনই।

শুধু নিজে নয় আপনার বন্ধু-বান্ধব, পরিজন আর সবাইকে নিয়ে আসুন এই প্রযুক্তি বলয়ে।

সাথে থfকুন টেকটিউনসের আর ভালোবাসুন প্রযুক্তিকে। 🙂

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি টিউন্টারভিউ হোস্ট : আরিফ নিজামী। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 6 টি টিউন ও 13 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

চররররররররররররমমমমমমমমমমমমমমমম জোসসসসসসসসসসসসসসস ভাই আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। কি দেখাইলেন বুকটা ফররর করে উঠিল

Level 0

Thanks Arif Bhai for a tremendous tunterview.

Level 0

হাসিন ভাই, বস……… আমার রুয়েটের গর্ব, আমার ডিপার্টেমেন্টের গর্ব।

অনেক ভালো লাগল হাসিন ভাইকে জেনে।

অনেক ভালো লাগল ।

Level 0

আমার প্রিয় একজন ব্যক্তিত্ব। ওনার সম্পর্কে জেনে বড় লাগল। উনি বাংলাদেশের গর্ব। চেষ্টা করব ওনার মত হতে।

হাসিন ভাই আসলেই বস পাবলিক।সিভিলের ছাত্র হয়ে প্রোগ্রামিং ক্ষেত্রে যেভাবে তিনি নিজেকে মেলে ধরেছেন তা এক কথায় অতুলনীয়।অনেকেই যারা মনে করছেন, কম্পু বিজ্ঞানের ছাত্র না হলে প্রোগ্রামিং এ ভাল হওয়া যায় না তাদের জন্য হাসিন ভাই হতে পারেন দিকপ্রদর্শক।

হাসিন হায়দার ভাই আসলেই একজন জিনিয়াস । ওনার দেখাদেখি অন্যরাও অনুপ্রানিত হয়ে টেক জগতে এগিয়ে আসবে ।
টিউন্টারভিউ পুরোটা এনজয় করলাম ।

কবে যে এমন হতে পারব আল্লাহ্‌ই জানে একমাত্র???উনার সম্পর্কে জেনে খুব ভালো লাগলো,চমৎকার উপস্থাপনার কারনে পোস্টটা আরো ভালো লাগতেসে।
১টা অফটপিক দুঃখঃআমাদের চট্টগ্রামে IT তে কোনো সফল ব্যক্তিত্ব মনে হয় নেই। 🙁 🙁 🙁

    Level 0

    ভাই কিছু মনে করবেন না, আমি একটা জিনিস খেয়াল করেছি, চট্টগ্রামে প্রায় লোকই নিজেদের আলাদা করে দেখতে এবং দেখাতে চায় এবং সেই সাথে আলাদা গন্ডির মধ্যেও থাকতে চায়। ফেসবুকে চট্টগ্রামের যত পাব্লিক দেখি, তাদের প্রায় সবার নামের সাথে ctg কথাটা লাগানো আছে। জিনিসটা খুবই খারাপ লাগে। সফল ব্যক্তিত্ব কি প্রতি জেলায় একটা করে হওয়ার দরকার আছে। কেন ভাবছেন না, হাসিন ভাই একজন বাংলাদেশি, আপনি একজন বাংলাদেশি। বাংলাদেশি- এটাই তো বড় পরিচয়। এর মধ্যে কেন আবার নিজেদের আলাদা করছেন, কেন নিজেদের গন্ডী ছোট করছেন। আমারও তো জন্ম চিটাগাং, কই, আমি তো এভাবে গন্ডি বা আলাদা করে দেখিনি। আমি দুঃখিত, যদি কড়াভাবে কিছু বলে থাকি, আসলে ব্যক্তিগত কারণে আমার মনটা খুব খারাপ এবং তাও এই চিটাগাং সম্পর্কিত।

      আপনার ১ম কথাটা দেখে চিন্তা করে অনেকক্ষন হাসলাম কারন কথাটি প্রায়ই সত্য,:D ।আমি বাংলাদেশি এইটাই বড় পরিচয় ঠিক আছে,তবে আমি কিন্তু এইটা মিন করিনাই।আমি ও কিন্তু কখনো আলাদা গন্ডির মধ্যে থাকতে চাইনি।আমি ও দুঃখের থেকে কথাটা বলেছি।আমার অনেক আগ্রহ প্রযুক্তি সম্পর্কে শেখার যা দুর্ভাগ্যক্রমে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে পারিনি।এখন যখন আলাদা করে শিখতে চাচ্ছি তখন খবর নিয়ে জানতে পারি যে চট্টগ্রামে তেমন কোন ভাল প্রতিষ্ঠান নেই,যদি তেমন কোন ব্যক্তিত্ব থাকতো তাহলে আমরা ও সামনে আগানোর সুযোগ পেতাম,আমার মত এই আফসোস টা আরো অনেকেই করে।আর আমি অত mind করি না কারন mind করলে shine করা যায় না। 😀 😀 😀

      @MITHU: মাখন ভাই কক্ষনো এমন টা খেয়াল করি নি তঁ ??? আমি নিজেও তঁ একজন চাটগাইয়া, যাওকগা সবচেয়ে বড় কথা আমরা বাংলাদেশি…

    পুরো টিউমেন্টটাই অফটপিক 😛
    হা হা আমিও তো চট্টগ্রামের বাসিন্দা। 😛 চট্টগ্রাম নিয়ে গর্বও করি, সত্যিই অসাধারণ একটা জায়গা এটা, তা বসবাস এর ক্ষেত্রে হোক কিংবা বেড়ানোর ক্ষেত্রে।
    মিঠু ভাই যেটা বললেন সত্যি বলতে সেটা আগে কখনো খেয়াল করি নাই। এখানে আমরা সবাই বাংলাদেশী তাই চট্টগ্রাম কিংবা অন্য জেলার কথা আলাদা করে বললে সেটা খুব বেশি একটা খারাপ হওয়ার কথা নয়। তাছাড়া আপনি নিজেও কিন্তু রুয়েটের কথা বলেছেন, আপনার ডিপার্টমেন্টের কথা বলেছেন। মানুষের সহজাত বৈশিষ্ট্যেই এইটা তার চেয়ে ভালোদের সে নিজের সর্বোচ্চ কাছে পেতে চায়। 😉

      “চট্টগ্রাম নিয়ে গর্বও করি, সত্যিই অসাধারণ একটা জায়গা এটা, তা বসবাস এর ক্ষেত্রে হোক কিংবা বেড়ানোর ক্ষেত্রে।। মানুষের সহজাত বৈশিষ্ট্যেই এইটা তার চেয়ে ভালোদের সে নিজের সর্বোচ্চ কাছে পেতে চায়।” সহমত মাখন ভাই এর সাথে,আপনি তো আমার বদ্দা হবেন 😛 ।মেইলটা ১টু চেক কইরেন পারলে 😉

      @মাখন: দাওয়াত দিতে মাখন ভাই। ছুটির সময় চট্রগ্রাম না যেতে পারলে ছুটিটাই বরবাদ মনে হয়।

      Level 0

      হুম, গর্ব করেছি, কিন্তু আলাদা করে ফেলিনি। আসলে আমি বিরক্ত এই জন্য যে, ফেসবুকে প্রোফাইল নামে Ctg লিখে আগে থেকেই নিজেকে আলাদা করে ফেলা হয়,জানিনা এটা কি শুধুই আলাদা করা নাকি এতে অহংকারও আছে। আর এত কিছুতে আলাদা আলাদা ভাব দেখে আমার কাছে তাই হয়ত অকারনেই সমাধান ভাইয়ের কথাতেও আলাদা মনে হইসে। শুনছি নাকি, চিটাগাং এর মেয়েদেরও নাকি চিটাগাং এর এর বাইরের ছেলেদের সাথে বিয়ে দেয়া হয় না!!!! এটা কি বাইরের এলাকাকে অপমান করার শামিল নয়?

      MITHU ভাই=>অনেকে ctg লাগাই,তবে তারা কেন লাগাই সেইটা শুধু তারাই ভাল বলতে পারবে।এই লাগানোটা আমি ও পছন্দ করি না।বিয়ে দেয়া হইনা এইটা সম্পূর্ণ সত্য না,দেয় তবে কম।এইটা ব্যাখ্যা দিতে গেলে অনেক বড় হয়ে যাবে,আমি শুধু মুরুব্বীদের ১টা প্রবাদ বলবো তা হল,”ঘরের মেয়ে ঘরের পাশে থাকা ভালো,সুখে-দুঃখে জলদি পাশে পাওয়া যায়”।
      জাকির ভাই=>দাওয়াত আমি দিলাম।আমার বাসার ঠিকানা আপনাকে ফেবুতে ম্যাসেজ করে দিবো।

      @: কই আমার নামের শেষে ও তঁ কোন দিন ctg লাগালাম না। চাটগাইয়া ছেলে বলে আসলেই গর্বিত বোধ করি কিন্তু আলাদা করে ভাবিনা। মিঠু ভাইয়ের সাথে একমত। তবে মেয়ে সংক্রান্ত বিষয়ে একমত নই কারন ওরা ওদের মেয়ে দের কে দূরে রাখতে চায়না বলে এমনটা করে আর সমাধান ভাইয়ের সাথে একমত ”ঘরের মেয়ে ঘরের পাশে থাকা ভালো,সুখে-দুঃখে জলদি পাশে পাওয়া যায়”। কিন্তু ভাইয়েরা এই দৃস্টিভঙ্গি কিন্তু এখন চেঞ্জ হচ্ছে। অন্যান্য জেলার মানুসের কাছে ওরা এখন ওদের মেয়েদের বিয়ে দিচ্ছে…

wow!

Great. Dekha hocche Java script conference a @ AIUB 🙂

অনেক কিছু জানা হলো হাসিন হায়দার ভাই সম্পর্কে… নিজামী ভাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ এই টিউন্টারভিউটি হোস্ট করার জন্যে… কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি… :mrgreen:

😛 ভাইস রে ভাইস ।।।। অনেক সুন্দর

চরম হইসে……এরকম আরো ইন্টারভিউ চাই।
Virtual DJ ডাউনলোড করুন এখান থেকে।এটা নিয়ে খুব শিঘ্রই টিউন করবো।
http://goo.gl/hcejc

    Level 0

    এটা নিয়ে তো বেশ কয়েকবার টিউন হয়ে গেল, আর আমি নিজেও পুরো টিউটোরিয়াল সহও টিউন করেছি।

একটা জিনিষ আমার অপছন্দ যে এখানে অনেক কপিরাইটেড ম্যাটেরিয়াল শেয়ার করা হয়
এর সাথে সহমত।

রুয়েটের ছাত্র জেনে আরো খুশি লাগছে। সবার জন্যেই উনি অনুপ্রেরণা হয়ে থাকুক।

    Level 0

    এটা কি এখন জানলা!!!!

নিজামী ভাই, আবারো অসাধারণ একটা কাজ করলেন। অনেক অনেক ধন্যবাদ আপনাকে। 😀
হাসিন হায়দার ভাই সম্পর্কে আগে থেকেই একটু একটু জানতাম, তার ব্লগে নিয়মিত আসা যাওয়াও করি। কিন্তু আমার ইংরেজী জ্ঞানের কারণে খুব একটা বেশি জানা হয় নি। আজকে জানলাম। আসলেই অসাধারণ মানুষ। তার জন্য অনেক শুভকামনা রইল। 😀

Level 0

ow অনেক অনেক অনেক অনেক …………………………………সুন্দর

খুবই ভাল লাগল যা ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। অনেক ধন্যবাদ। আগামিতে আরও আশা করি।

অসাধারন !!!

http://dnc.techtunes.co/tDrive/tuner/arifnezami_tuneterview-host/86967/20.jpg

লিনাক্স-মিন্টের লোগো সমৃদ্ধ টি-শার্টটা দেখে লিনাক্স-মিন্টের কথা মনে পড়ল। অনেক মিস করছি লিনাক্স-মিন্টকে। শালার পচা ল্যাপটপ আর পিসিয়াই ডিভাইস। যাই হোক, এরকম একটা টি-শার্ট নিতে মুঞ্চায়।

সুপার TUNE.অনেক অনেক ভাল লাগলো হাসিন ভাই কে জেনে।হাসিন ভাই keep it up we are with you

Level 0

khove valo luglo. hasin saheb sompork janar issa selo. php ar boss.

এককথায় দারুন !

অনেক কিছু জানলাম আমাদের বিভাগের লোক সম্বন্ধে ..

হাসিন ভাই কে আমি অনেক পছন্দ করি, কারণ উনি দেশের গর্ব বলে, @সমাধান আপনি কি আসলেই জানেন যে চট্টগ্রামে IT তে কোনো সফল ব্যক্তিত্ব নেই? আসলে ctg লাগানোটা আমিও পছন্দ করি না, কিন্তু কেন যে লাগায় তাও বুঝিনা।

যে কজন মানুষকে আমি অনলাইন জগতে গুরু হিসাবে মানি এবং শ্রদ্ধা করি তাদের মধ্যে হাসিন ভাইয়া অন্যতম একজন। অনেক ব্যাপারই জানতাম হাসিন ভাইয়া সম্পর্কে, কারন সবাই তার নিজের প্রিয় ব্যক্তিত্য সম্পর্কে জানতে অনেক উদগ্রীব থাকে যেমন টা আমিও। বেশ কিছু অজানাও ছিলো আর যা নিজামী ভাইয়ের টিউন্টারভিউ এর মাধ্যমে জানতে পারলাম। আসলেই হাসিন ভাইয়া একজন বস পাবলিক। উনি আমাদের বাংলাদেশের গর্ব। 🙂

অনুপ্রানিত হলাম। ধন্যবাদ আরিফ ভাইকে।

অনেক অনুপ্রাণিত হলাম এই টিউন টা পড়ে…
ধন্যবাদ

Level 0

অনেক কনফিডেন্স পেলাম এই টিউন টা পড়ে।

অনেক অনেক ধন্যবাদ।

জেনে খুব ভাল লাগল

সেলুট হাসিন হায়দার ভাই। ধন্যবাদ আরিফ নিজামী ভাই।

আরিফ নিজামী ভাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ। হাসিন হায়দার আমার সপ্নের মানুষদের মধ্যে একজন। পড়ে খুব ভাল লাগল।

অসাধারন !!! এককথায় দারুন !

ভাল লাগল টিউন্টারভিউটি পড়ে এবং অনেক কিছু জানতে পারলাম,ধন্যবাদ।

ভালো লাগল, সবচেয়ে ভালো লাগছে ছবিতে দেখলাম আপনাদের টেবিল এর উপরে একটা কুরআন তাফসির একটা বই দেখলাম (দুনিয়ার সাথে সাথে আখিরাত দরকার) ভালো থাকবেন।

Level 0

I like u man 🙂

Level 0

Via ami apnader web a account khuleci kintu akhono kisu suru kori nai tobe apnara jodi amake help koren tobe ami apnadesr ekjon guni sadosso hote cai ebong apnader nay amar jibontao asohay o doridro manushe ke help korte parbo tader jibonke sundar poth dakhate. amio khub lower stage theke amar bortoman position a eseci tai ami amar sakol geyan utsargo korte chai ebong sundor ekta blog korte cai amader somajke change korte doridrota mukto korte. Amar pakkho theke apnaderke lakho salam karon ei somajer sob caite ucu maper manush jara taraito apnara ar amio apnader pase thakte cai. Please amake help karun ami share korbo amar life history and other of how to change life style.
Rasheduzzaman Badhon

দারুন ………।।Computer Programming is great.
But in our universities teacher suggest students for making good result,other is not matter.
But i do not care them.
Sometimes they give me grief and disappoint.But my target is programming.

Level 0

যদি দুই তিন বছর কোন ভালো টিমের সাথে কোন কোম্পানিতে চাকরী করতে পারেন তবে তা নিজের স্টার্টআপ চালু করতে বেশ সহায়ক হবে। This is absolutely truth!!

ধন্যবাদ অসাধারণ টিউনের জন্য…
আমি একটি এন্ড্রয়ড এপ তৈরি করেছি, বিক্রয়[ডট]কম এর অল্টারনেটিভ হিসেবে। ইচ্ছে হলে ট্রাই করে দেখতে পারেন।
এপটির ফীচার সমূহঃ
* কোনো রেজিস্ট্রেশন ছাড়াই এড পোস্ট করতে পারবেন
* দিনে আনলিমিটেড এড পোস্ট করতে পারবেন
* লোকেশন বেইসড এড সার্চ করতে পারবেন
* কোন হিডেন চার্জ নেই, একদম ফ্রী
* ইনশা আল্লাহ, আমি যতদিন বেঁচে থাকব, অতদিন সার্ভিসটা ফ্রী রাখব
* ইউজার ফ্রেন্ডলি ইন্টারফেস
* ছোট APK সাইজ ( মাত্র ৩ এমবি)
.
গুগল প্লে ডাউনলোড লিঙ্কঃ https://play.google.com/store/apps/details?id=p32929.buysellbd
APK ডাউনলোড লিঙ্কঃ http://tiny.cc/buy_sell_bd
.
এপটি ডাউনলোড করে দয়াকরে একটি হলেও এড পোস্ট করুন। অনেক খুশি হব। আগাম ধন্যবাদ…