গেমস জোন [পর্ব-৩১] :: রেসিডেন্ট ইভিল ৬ – Resident Evil 6 – バイオハザード 6 (2012-2013)

টিউন বিভাগ গেমস
প্রকাশিত

গেমস জোন

হাই! কেমন আছো তোমরা? নিয়ে এলাম গেমস জোনের আরেকটি নতুন পর্ব। এটি গেমস জোনের ১২৯ তম পর্ব।

আজকের পর্বে থাকছে  রেসিডেন্ট ইভিল গেমস সিরিজের লেটেস্ট গেম রেসিডেন্ট ইভিল ৬।

রেসিডেন্ট ইভিল ৬, জাপানে গেমটি বায়োহেজার্ড ৬ নামে পরিচিত। এটি একটি থার্ড-পারসন শুটার ভিডিও গেমস সিরিজ। সিরিজটি নির্মাণ এবং প্রকাশ করেছে ক্যাপকম। গেমটি সুরভাইবাল হরর গেম হলেও ক্যাপকম সিরিজটিকে ড্রাম্যাটিক হরর বলতে পছন্দ করে। রেডিডেন্ট ইভিল ৬ গেমটি অক্টোবর ২, ২০১২ সালে প্লে-স্টেশন ৩ এবং এক্সবক্স ৩৬০ গেমস কনসোল এর জন্য মুক্তি পায়। গেমটির পিসি ভার্সন এখনো নির্মাণাধীন রয়েছে।

রেসিডেন্ট ইভিল

 

নির্মাতা এবং প্রকাশক:

ক্যাপকম

সিরিজ:

রেসিডেন্ট ইভিল

ইঞ্জিণ:

এমটি ফ্রেমওর্য়াক

সর্বশেষ ভার্সন:

১.০৪

খেলা যাবে:

প্লে-স্টেশন ৩,

এক্সবক্স ৩৬০,

মাইক্রোসফট উইন্ডোজ

মুক্তি পেয়েছে:

অক্টোবর ২, ২০১২ সালে প্লে-স্টেশন ৩ এবং এক্সবক্স ৩৬০ গেমস কনসোলে,

মার্চ ২২, ২০১৩ সালে পিসি ভার্সনে।

ধরণ:

থার্ড পারসন শুটার।

মোড:

সিঙ্গেল এবং মাল্টিপ্লেয়ার

ট্রেইলার ভিডিও:

http://www.youtube.com/watch?v=sS_bGpe9qE8

http://www.youtube.com/watch?v=ha--jltIFto

http://www.youtube.com/watch?v=53dKjtAan6A

http://www.youtube.com/watch?v=o4VJljsHgSo

সিস্টেম রিকোয়ারমেন্টস:

কমপক্ষে:

ইন্টেল কোর টু ডুয়ো ২.৪ গিগাহার্টজ অথবা এএমডি এ্যাথলন এক্স২ ২.৮ গিগাহাটর্জ গতির প্রসেসর,

২ গিগাবাইট র‌্যাম,

এনভিডিয়া জিফোর্স ৮৮০০জিটিএস গ্রাফিক্স কার্ড,

উইন্ডোজ এক্সপি সাভির্স প্যাক ৩ অপারেটিং সিস্টেম,

১৬ গিগাবাইট ফ্রি হার্ডডিক্স স্পেস,

ডাইরেক্ট এক্স ৯.০সি সাথে শেডার মডেল ৩.০

গেম-প্লে:

রেসিডেন্ট ইভিল ৬ গেমটিতে তুমি ৩টি ভিন্ন পর্বে খেলতে পারো। এই তিনটি ভিন্ন পর্বে রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন স্টোরিলাইন এবং নিজস্ব ডিজাইন। তিনটি পর্বে রয়েছে তিনজন মূল প্লেয়ার চরিত্র লিওন, রেডফিল্ড এবং জ্যাক। প্রত্যেকটি মূল প্লেয়ার এর সাথে থাকবে নিজস্ব পার্টনার যাকে পিসি নিয়ন্ত্রণ করতে পারবে অথবা অনলাইনের মাধ্যমে অন্যকেউ। গেমটির ৩টি পর্ব পার করার পর গেমটির ৪র্থ পর্ব আনলক হবে। ৪র্থ পর্বে তোমাকে খেলতে হবে আদা ইয়ং এর ভূমিকায়। ৪র্থ পর্বে কোনো পার্টনার থাকছে না। এছাড়াও গেমটিতে মারছিনারিস এবং এজেন্ট হান্ট মোডও থাকছে।

সিরিজের অন্যান্য গেমগুলোর মতো প্লেয়ার বিভিন্ন আইটেম এবং অস্ত্র তাড়াতাড়ি পরিবর্তন করতে পারবে এবং এমিং এর সময়ও মুভমেন্ট করতে পারবে। গেমটি নতুন কয়েকটি ফিচার যুক্ত করা হয়েছে। যেমন ট্যাবলেট ফিচার, যেখানে প্লেয়ার তার হেলথ রিচার্জ করতে পারবে এক বাটনে। হার্ব এর পরিমাণের উপর ট্যাবলেট কাজ করবে। যখন প্লেয়ার এর হেলথ প্রায় শেষের দিকে তখন কিছুটা সময় হাতে থাকবে পার্টনার এর আশায়। প্লেয়ার মারা গেলে লাস্ট চেকপয়েন্ট হতে খেলা পুনরায় শুরু হবে। গেমটিতে তোমাকে জুম্বিলি এবং নতুন শত্রু জাভোর বিরুদ্ধে লড়তে হবে।

স্টোরিলাইন / কাহিনী:

ডিসেম্বর ২৪, ২০১২। ফিকশনাল সাউথ-স্ল্যাভিক ইডোনিয়ান লিবারেশন আর্মির সদস্য জ্যাক মুলার  র একটি বায়ো-টেরোরিস্ট হামলার তদনে- বের হয়ে পড়ে। তার পার্টনার হিসেবে জয়েন করে রকোন সিটির সুরভাইবর শেরি বিরকিন। শেরিকে এডোনিতে পাঠানো হয়েছিল জ্যাক এর দেশ হতে পলায়ন নিশ্চিত করার জন্য। যাতে করে জ্যাক এর রক্ত পরীক্ষা করা যায় নতুন সি-ভাইরাস এর এন্টি-বডির জন্য। একই সময়  বায়ো-টেরোরিজম সিকুরিটি এসেসমেন্ট এলিয়েন্স এর ক্যাপটেইন ক্রিস রেডফিল্ড এবং তার টিম দুটি অরগোম্যান এবং জাভোর বিপক্ষে যুদ্ধ করে। তাদের উপর হামলা চালিয়েছিল নিও-আমব্রেলা এজেন্ট আদা ইয়ং। আদা ইয়ং সবচেয়ে বেশি বিএসএএ মেমবারদের মেরেছিল সি-ভাইরাস এর ইনজেকশন এর দ্বারা। সি-ভাইরাস কারো শরীরে প্রবেশ করালে সে জুম্বিলি হয়ে যায়। এইদিকে জ্যাক এবং শেরি এডোনিয়া হতে পালিয়ে আসার সময় তাদের বহনকারী বোউ একটি পাহাড়ে ক্র্যাশ করে। এটার পিছনেও আদার হাত রয়েছে।

জুন ২৯, ২০১৩। আমেরিকান প্রেসিডেন্ট এডাম বেনফোর্ড অফিসিয়াল ভাবে সিদ্ধান- নেয় যে, ১৯৯৮ সালে র‌্যাকোন সিটির ইনসিডেন্ট এর সত্যতা এবং সরকার এবং আমব্রেলার সালে আলোচনায় বসবে। তার বিশ্বাস ছিল এতে বর্তমান সময়ের বায়ো-টেরোরিস্ট কার্যক্রম বন্ধ হবে। প্রেসিডেন্ট এর সাথে আছে ডিএসও এজেন্ট লিওন এস. কেনেডি এবং মার্কিন সিক্রেট সার্ভিস এজেন্ট হেলেনা হারপার।

আলোচনার ভেন্যু যখন বায়ো-টেরোরিজম এর দ্বারা হামলার শিকার হয় তখন প্রেসিডেন্ট সি-ভাইরাস দ্বারা আক্রান- হয়ে পড়ে। তখন লিওন এর আর কিছুই করার ছিল না প্রেসিডেন্টকে মেরে ফেলা ছাড়া। হেলেনা লিওনকে নিয়ে সেখান থেকে বেরিয়ে আসে।

এরমধ্যে জ্যাক এবং শেরি ল্যানশিয়াং এর জেলখানা হতে পালিয়ে আসে ছয় মাস পর। একই সাথে ক্রিস বিএসএএ তে রিটার্ন করে এবং নতুন একটি টিম তৈরি করে আদার বিরুদ্ধে বেরিয়ে পড়ে। এবং আদাকে আটকও করে ফেলে। এরই মধ্যে এজেন্ট শিমসন আদা, লিওন, হেলেনা, শেরি এবং জ্যাক এর উপর হামলা চালায়। শিমনসকে মেরে ফেলার পর লিওন জানতে পারে যে শিমনসকে জাভো নিয়ন্ত্রণ করছিল এতক্ষণ। তখন শেরি এবং জ্যাককে আবারো আটক করে ফেলা হয়। লিওন এবং হেলেনা সিটি হতে চলে যাবার সময় ক্রিস তাদেরকে একটি সর্তক বার্তা পাঠায় এই বলে যে, একটি মিসাইল ছোড়া হয়েছে এবং এটিকে আটকানো এখন যাবে না।

ক্রিস এবং পিয়ার্স ওয়েল প্লাটর্ফম গিয়ে জ্যাক এবং শেরিকে মুক্ত করতে সক্ষম হয়। জ্যাক এবং শেরি আসটানাককে মেরে ফেলতে সক্ষম হয় পালানোর সময়। শেরি নিজেই একটি সি-ভাইরাস ইনজেকশন দিয়ে তাকে বিসর্জন করে দেয় নিও-আমব্রেলা বেসকে ধ্বংস করার জন্য।

আদার স্টোরিতে, এখানে দেখা যায় যে এতক্ষন ধরে যে আদার সাথে আমরা রয়েছি সেটি আসলে আদা নয়। আদার একটি ক্লোন মাত্র। লিওন এবং শেরি নিও-আমব্রেলা বেসকে ধ্বংস করার সময় এটি জানতে পারে। তখন আসল আদার চিকিৎসা করা হচ্ছিল। লিওন এবং হেলেনার সাথে শিমনস এর লড়াইয়ের সময় আদা তার ক্লোন নির্মাণ এর ল্যাব এ যায় এবং সবকিছু ধ্বংস করে দেয়।

গেমটি শেষ হয়, আদা নতুন একটি আসাইমেন্ট পায় এবং লিওন এবং হেলেনা ডিউটি থেকে ছুটি নেয় ওদিকে ক্রিস বিএসএএ থেকে নতুন একটি স্কোর্য়ড এর কমান্ড নেয়। শেরি তার ডিউটি করতে থাকে ডিএও এজেন্ট হিসেবে এবং জ্যাক তার আসল পরিচয়ে বিএসএএ এর সদস্য হয়ে একটি অনুন্নত দেশে বাউস এর বিপক্ষে লড়তে যায়।

নির্মাণ:

গেমটির নির্মাণ কাজ রেসিডেন্ট ইভিল ৫ গেমটির মুক্তির পর পরই শুরু হয়। তবে ২০১০ সালে পুরোদমে নির্মাণ কাজ শুরু হয়। নির্মাণ টিম সদস্য ৬০০ এরও বেশি, ক্যাপকম এর সবচেয়ে বেশি প্রোডাকশন এটি। মে, ২০১২ সালে ক্যাপকম গেমটির বিক্রির সংখ্যা ৭ মিলিয়ন নির্ধারণ করে, পরে অবশ্য এটিকে কমিয়ে ৬ মিলিয়নে নিয়ে আসা হয়। গেমটি প্রথম ট্রেইলার বের হয় জানুয়ারী ১৯, ২০১২তে এবং দ্বিতীয় ট্রেইলার বের হয় এপ্রিল ১০, ২০১২ সালে। ডেমো বের করা সেপ্টেম্বর ৫, ২০১২ সালে শুধুমাত্র এক্সবক্স লাইভ এবং প্লে-স্টেশন নেটওর্য়াক এর জন্য। পরে অবশ্য এক্সবক্স ৩৬০ এবং প্লে-স্টেশন ৩ এর জন্যও ডেমোটি বের করা হয়।

আশা করি গেমস জোনের আজকের পর্বটি তোমাদের ভাল লেগেছে। গেমস জোনের পরবর্তী পর্ব থেকে নতুন কিছু আইটেম যুক্ত করতে পারবো বলে আমি আশা রাখি। তো, ভাল থেকো তোমরা এবং গেম খেলায় বেশি বেশি সময় নষ্ট না করে পড়াশোনায় মনোযোগ দাও।

ধন্যবাদ।

 www.facebook.com/games.zone.bd

 

Level 10

আমি ফাহাদ হোসেন। Supreme Top Tuner, Techtunes, Dhaka। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 662 টি টিউন ও 429 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 118 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

যার কেউ নাই তার কম্পিউটার আছে!


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

very nice tune

Level 0

ডাউনলোড অপশান কই????

I love resident evil games…..

Level 0

ভাই, গতকাল গেইমটা কিনে আনলাম। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে, রান করলে ব্ল্যাক স্ক্রিন আসে, মাউসের কার্সরটাও আসে কিন্তু গেইমটা চলে না। ক্রেক ফাইল দুইটা steam_api.dll ও steam_rld.ini কপি/পেস্ট করছি। কিন্তু কোন লাভ হয় নাই। একটু সাহায্য করতে পারেন?

    @Atique: Launcher name kono file thakle sheta diye open korun.

      Level 0

      @saif_precio: Launcher নামে কোন ফাইল নাই। BH6.exe দিয়ে ওপেন করতে হয়।

Level 0

গেমসটি খুব বাজে। খেলতে ভালো লাগবে না। এর graphics টা চরম হলেও খেলে মজা পাওয়া যায়না।