রাসায়নিক সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য যা আপনার জানা উচিৎ

টিউন বিভাগ কী কেন কীভাবে
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

পৃথিবীর অদ্ভুত একটি বিষয়ের নাম হচ্ছে রসায়ন। কি হয়না এটা দিয়ে, আপনাকে হাসাতে পারে কিংবা কাঁদাতেও পারে। কি বিশ্বাস হচ্ছে না, তাহলে আর্টিক্যালটি আপনার জন্য। চমৎকার এই রসায়ন অধ্যায়টি পড়ার জন্য নড়েচড়ে বসুন আর হারিয়ে যান জানা অজানার জগতে।

১.লাফিংগ্যাস
লাফিংগ্যাসের আরেকটি অন্যতম নাম হচ্ছে নাইট্রাস অক্সাইড, এর রাসায়নিক সংকেত N2O, এই গ্যাসটি কোনো কারণ ছাড়াই আপনার মুখে হাসি ফোটাতে পারে। ১৭৭৫ সালে জোসেফ পিস্টলী নামক একজন ভদ্রলোক এটি আবিষ্কার করেন। যার উদ্দেশ্য ছিল  ব্যাথা কমানো এবং মানুষের মনে চনমনে ভাব তৈরি করা। এটি অল্প মাত্রায় গ্রহন করলে আপনার ৩২টি দাত বের করার জন্য যথেষ্ট। আর বেশি মাত্রায় এটি
ব্যবহার করলে অক্সিজেনের অভাবে অজ্ঞান হতে পারেন কিংবা মারাও যেতে পারেন।

২.হিলিয়াম গ্যাস
১৮৬৮ সালে ফরাসি জ্যোতির্বিজ্ঞানী পিয়ের জানসেন এটি আবিষ্কার করেন। এর রাসায়নিক সংকেত He, যা শ্বাসতন্রে গেলে আপনার ভয়েস অদ্ভুত ভাবে পরিবর্তন হয়ে যাবে। বেলুন ভর্তি হিলিয়াম গ্যাস দিয়ে এই পরিক্ষাটি করা যায়। আপনাকে যা করতে হবে, হিলিয়াম ভর্তি বেলুনে মুখ দিয়ে বড় করে একটি শাস নিন, এবার কথা বলুন, আপনি নিজেই অবাক হবেন নিজের কথা শুনে।

৩.ক্লোরোফর্ম
১৯৪৭ সালে জেমস ইয়ং সিম্পসন এটি আবিষ্কার করেন। ক্লোরোফর্ম একটি যৌগিক পদার্থ এর রাসায়নিক সংকেত CHCL3 যা ক্লোরিন ও মিথেনের সংমিশ্রণে তৈরি হয়। এটি মানুষকে অজ্ঞান করতে কিংবা দেহের কোন অংশকে অবশ করতে ব্যবহার হয়।

সতর্কবার্তাঃ ব্লিচিং পাউডারের সাথে টয়লেট ক্লিনার বা অ্যালকোহল মিশাবেন না। কারন এতে তৈরি হয় ক্লোরোফর্ম যা মানব দেহের পক্ষে খুবি ক্ষতিকর। সবাই সুস্থ থাকুন, পরিবেশকে নিরাপদ রাখুন, ধন্যবাদ।

Level 2

আমি আহমাদ উল্লাহ। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 21 টি টিউন ও 24 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 7 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।

সফল হওয়ার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো প্রতিবার হার মানার আগে আরেকবার চেষ্টা করা।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

সবাইকে জানাই অনেক ধন্যবাদ।