ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

গুগল এ বেশি খোঁজা শব্দগুলো অশ্লীল

ADs by Techtunes ADs

Sexy Google

ইন্টারনেটে তথ্য খোঁজার জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগলের একটি বাংলা সংস্করণ আছে। এটা অনেকেই ব্যবহার করেন। সাম্প্রতিক এক পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে বাংলাদেশ থেকে গুগলের বাংলা সংস্করণে বেশি খোঁজা হয় অশ্লীল কাহিনি ও ছবি। ইংরেজি ২৬টি বর্ণের ২০টিতেই অশ্লীল শব্দ খোঁজার হার বেশি। এমনকি তালিকার দ্বিতীয়, তৃতীয় ও চতুর্থ নম্বরেও অশ্লীল শব্দগুলোই জায়গা পেয়েছে। আর যেসব অশ্লীল শব্দ, ছবি, যৌন উদ্দীপক বইয়ের খোঁজ করা হয়, সেগুলোর ডিজিটাল সংস্করণ যথেষ্ট পরিমাণেই আছে ইন্টারনেটে। কখনো সেসব ইউনিকোড বাংলায় লেখা কখনোবা বই থেকে স্ক্যান করা।

বাংলাদেশ থেকে ইন্টারনেটে অশ্লীল ওয়েবসাইট দেখার প্রবণতা এবং দেশি অশ্লীলও পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইট নিয়ে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন একটি পর্যবেক্ষণ করে। পর্যবেক্ষণের পর সংস্থাটি ৮৪টি ওয়েবসাইটের একটি তালিকা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) দিয়েছিল। এরপর সেই সাইটগুলো বন্ধ করে বিটিআরসি। সম্প্রতি আরেকটি পর্যবেক্ষণে বাংলা গুগলে অশ্লীল শব্দ খোঁজার হার বেশি বলেদেখা যায়। এ ব্যাপারে মনোবিজ্ঞানীরা জানান, এর ফলে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী তরুণদের মধ্যে মানসিক অস্থিরতা বাড়ছে। তবে শুধু আইন করে এটা থামানো সম্ভব বলেও মনে করছেন না কম্পিউটার প্রকৌশলীরা।

মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন-এর পর্যবেক্ষণ হলো, পর্নোসাইট দেখার প্রবণতা কয়েক বছরে বেড়ে গেছে কয়েক গুণ। পাশাপাশি এসব সাইটের ব্যবহারকারী হিসেবে শিশুদের পাওয়া যাওয়ায় তারা শঙ্কা প্রকাশ করেছে। তাদের অনুসন্ধানে জানা যায়, সাইবার ক্যাফে, মোবাইল ফোন, অফিস-আদালতে দুর্বল পর্যবেক্ষণ ব্যবস্থা এর অন্যতম কারণ। বিভিন্ন বয়সীর কর্মক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সাইট ছাড়া স্থির ও চলমান পর্নো ছবি দেখার সুযোগ না রাখার জন্য নিজেদের কর্মপরিবেশ নীতিমালা থাকা প্রয়োজন বলেও উল্লেখ করেছে তারা।

সমাজ গবেষকদের দাবি অনুযায়ী, গুগল বিডিতে ইংরেজি ২৬ অক্ষর একের পর এক দিয়ে দেখা গেছে, অশ্লীল শব্দ সবচেয়ে বেশিবার খোঁজা হয় ‘বি’ দিয়ে। ‘এ’তে খোঁজ হয় বিদেশি অশ্লীল ছবি। অশ্লীল শব্দ খোঁজার তালিকা থেকে বাদ পড়া অক্ষরগুলো হলো ডি (ঢাকা শেয়ারবাজার), ই-(একাত্তরের চিঠি), টি (টাকা আয়), ইউ ও ডব্লিউ (উইকিপিডিয়া) কোষ, শুধু ‘কিউ’ অক্ষর দিয়ে কোরআনের সঙ্গে সম্পৃক্ত শব্দ। পরিস্থিতি বিবেচনা করে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, অশ্লীল বিষয়গুলো খোঁজা এবং সেগুলোর পড়া ও দেখার বিষয়গুলোকে শুধু আইন করে বন্ধ করা যাবে না।

একই সঙ্গে দরকার কঠোর পর্যবেক্ষণ ও সামাজিক প্রতিরোধ। ২০০৯ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ পুলিশও পর্নোসাইট ঠেকাতে চিঠি দেয় বিটিআরসিকে। চিঠিতে বলা হয়েছিল, বেশ কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের বহু নর-নারীর আপত্তিকর স্থির ছবি ও ভিডিওচিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। পতিতাবৃত্তির চটকদার বিজ্ঞাপন এবং মেয়েদের মুখমণ্ডলের ছবি সুপারইম্পোজ করে নগ্নভাবে উপস্থাপনের যে প্রচলন শুরু হয়েছে তা বন্ধ করা প্রয়োজন।

হাজার হাজার পর্নো ছবি প্রকাশ করার পেছনে যারা রয়েছে, তাদের প্রত্যেককে খুঁজে বের করা কঠিন বলে সাইটগুলো বন্ধ করে দেওয়ার সুপারিশ করেন তাঁরা। বিটিআরসির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) জিয়া আহমেদ বলছেন, ‘আমাদের একার পক্ষে এ কাজ বেশ কঠিন।’ গুগলে অশ্লীল বাংলা গল্প ও বাংলাদেশি নারীর ছবির প্রদর্শন সম্পর্কে জানানো হলে তিনি বলেন, ‘সার্চ ইঞ্জিন বন্ধ করি কী করে?’ চেয়ারম্যানের এই উক্তি যৌক্তিক নয় বলে দাবি করেন বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, ‘বিটিআরসির নিজস্ব যে যন্ত্রপাতি আছে তা দিয়ে পর্যবেক্ষণের ব্যবস্থা করা সম্ভব হলেও তারা তা করেনি। বিটিআরসির দাবি, বিষয়টি আইনি সিদ্ধান্তের মাধ্যমে হতে হবে এবং সামাজিক মূল্যবোধ সম্পর্কে তরুণ জনগোষ্ঠীর মনোভাব গঠনমূলক করে তোলাও গুরুত্বপূর্ণ। মোস্তাফা জব্বার বলেন, ওয়েবসাইট বন্ধ করার আইনগত ক্ষমতা বিটিআরসির যদি নাও থাকে সেই ক্ষমতাটা অর্জন করা তাদের কর্তব্য। তবে গুগলের ক্ষেত্রে কীভাবে এটা বন্ধ সম্ভব জানতে চাইলে তিনি বলেন, কারিগরিভাবে সেটা সম্ভব।

পাশাপাশি সামাজিক প্রতিরোধ ও সচেতনতার দরকার আছে। মনোবিজ্ঞানীরা বলছেন, এ ধরনের অসুস্থ সংস্কৃতি প্রতিরোধে যদি ব্যবস্থা না নেওয়া হয় তবে ভবিষ্যতে ঘরে ও বাইরে নারীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতে পারেন। এর প্রভাব সম্পর্কে মনোরোগ বিশেষজ্ঞ মেহতাব খানম বলেন, যৌন সম্পর্কগুলো অবদমনের কারণে আমাদের মানসিক বিকারগ্রস্ততা বাড়ে। শুধু লুকিয়ে দেখার ফলে কিশোরেরা শুরু থেকেই অবৈধ ভোক্তার অনুভূতি নিয়ে বড় হচ্ছে। যেটা সমাজে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে। বয়সের পার্থক্য অনুযায়ী যৌন বিষয়গুলো সম্পর্কে জানানোর ব্যবস্থা পরিবার বা সমাজে থাকলে এসব ভোক্তা কমে আসবে বলেও তিনি বিশ্বাস করেন।

লেখাটা এখানে প্রথম প্রকাশিত

ADs by Techtunes ADs

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি সুমন খান। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 30 টি টিউন ও 245 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

My Name Is "SuMoN". I'm Study in "Computer Science & Engineering". I Live in Dhanmondi, Dhaka, Bangladesh.


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

এক্ষেত্রে আমাদেরও সচেতন হওয়ার কিছু ব্যপার স্যাপার আছে।

সকলকেই সচেতন হওয়া দরকার… বিশেষ করে তরুণদের মধ্যে এর খারাপ প্রভাব পড়ে বেশী…

Level 0

আমাদের সচেতন হতে হবে।

ধন্যবাদদদদদদ

Level 0

সচেতন হতে হবে। পাশাপাশি আইনের প্রয়োগের ব্যবস্থাও থাকতে হবে।

সুন্দর টিউন করার জন্য ধন্যবাদ।

    হ্যাঁ, এই দুটো একসংগে প্রয়োগ করলে হয়তো বা ঠিক হতে পারে।
    আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ।

    http://sobarforum.wordpress.com

আমাদের রিপোর্ট জানানো উচিত

আমাদের রুচির পরিবর্তন হওয়া দরকার এই সমস্ত কুরুচিপুর্ন মানুষ গুলুই সমাজে অশান্তির সৃষ্টি করে,আর আমাদের সবাইকে আল্লাহকে ভয় করা উচিত কারন একদিন আমাদের সবাইকে আল্লাহর দরবারে দাড়াতে হবে এবং সকল বিষয়ে জবাব দিহি করতে হবে।

    ধন্যবাদ ভাই আপনাকে সুন্দর কমেন্ট করার জন্য।

    আপনার সাথে একমত।

    একমত।

Welcome for the comment Bro,

http://sobarforum.wordpress.com

আমাদের মানুষিকতা পরিবর্তন হলে এটা পরিবর্তন হবে ।

    হ্যাঁ, ফাহিম ভাই। আমিও তাই মনে করি। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ কমেন্ট করার জন্য।

এক মাত্র সচেতনতাই এর সমাধান।

    ঠিক বলেছেন আপু, আমি আপনার সাথে একমত।

Level 0

Nurjahan; Please remove your অশ্লীল Image.

    ভাই, আপনি এখানে নুরজাহান আপুর কি অশ্লীল ছবি দেখলেন ?

Level 0

উদবেগের বিষয়

Level 0

কাজ নাই শুধু অকাজ

শুধুমাত্র সচেতন হলে হবে না আমাদের সকলকে ওয়াদা করতে হবে যে এসকল সাইট ভিজিট না করার জন্য।আর বেশি বেশি বাংলা ব্লগিং করার জন্য।আর যে সকল কীওয়ার্ডে এসকল অশ্লীল শব্দ আছে সকল কীওয়ার্ডে বেশি বেশি সুন্দর সুন্দর আর্টিকেলের মাধম্যে আমার মনে হয় এ সমস্যা থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি পাওয়া যাবে।

আমি ঠিক বুজলাম না। একদিন গুগুল.কম.বিডিতে ঢুকলাম, কি যেন একটা সার্চ দেবার জন্য “M” চাপ দিতেই, গুগুল অটো সাজেশন দিল কিছু লিঙ্কের, তার সবই অশ্লীল, আমি হল্প করে বলতে পারি আমি জীবনে অই লিঙ্ক গুলাতে যাই নাই যে আমার ক্যাশে থেকে যাবে।

Level 0

bhalo akta subject nia likhlan tar jonno thanks !