ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

ইউটিউবিং A টু Z বাংলা টিউটোরিয়াল। ইউটিউবিং শুরু করার আগে জেনে নিন ব্যাসিক জিনিস গুলো। (ইউটিউবিং পর্বঃ ১)

আসসালামুয়ালাইকুম। স্বাগত জানাচ্ছি বাংলা ভাষার সবচেয়ে বড় প্রযুক্তি ব্লগ টেকটিউনসে।  বর্তমান ইন্টারনেট জগতে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখছে গুগোল। তাই গুগোল হয়ে উঠছে লক্ষ লক্ষ মানুষের ক্যারিয়ার। গুগল অ্যাডসেন্সের কথা কারো অজানা নয় আপনার ওয়েবসাইট হোক বা ব্লগার ব্লগ হোক কন্টেন্ট ভাল হলে আপনাকে আয়ের সুযোগ দেবে গুগোল। তেমনই ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে আপনিও হতে পারেন হাজারো ইউটিউবারের মত একজন সফল ইউটিউবার। এবং আপনিও আয় করতে পারেন ইউটিউব থেকে মাসে 500$ ডলার থেকে 5000$ ডলার।

ADs by Techtunes ADs

কিছু কথাঃ ইউটিউবে আয় করা যায়, কিভাবে আয় করবেন, মাসে হাজার  হাজার টাকা আয় করুন, এমন টিউটোরিয়াল অনেক পেয়েছি কিন্তু সঠিক গাউড কোথাথেকে পাইনি। সবাই সবার লাভ হিসাব করে ইউটিউবে ভিডিও দিলে ভিউর হিসেব করে। যারা সফল ইউটিউবার তাদের এত সময় কোথায় যে আমাদের গাইড করবে তাই চলুন নিজেরা নিজেরা শিখি ইউটিউবিং।

আমার টিউটোরিয়ালে আপনাকে ইউটিউবিং সম্পর্কে স্টেপ বাই স্টেপ প্রত্যেকটি ব্যাপারে বোঝানোর চেষ্টা করব। চলুন শুরু করি

(যারা ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখতে চান তাদের জন্য ভিডিও লিংক টিউনের শেষের দিকে দেয়া আছে  একটু কষ্ট করে নিচে যেতে হবে)

ইউটিউব কি?

আমার মনে হয় না এই প্রশ্নের উত্তর কারো অজানা তারপরও ছোট করে বলছি। ইউটিউব হচ্ছে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় একটি ভিডিও শেয়ারিং সাইট যেখানে যে কেউ চাইলে ভিডিও আপলোড করতে পারে সম্পূর্ণ ফ্রিতে। এবং ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে আয়ও করা যায়।

কিভাবে আয় হয় ইউটিউব থেকে?

ইউটিউবে আয় নির্ভর করে সম্পূর্ণ আপনার ভিডিও ভিউর উপর মানে যত ভিউ বেশি তত বেশি আয়। কিন্তু এটা ভাবলে ভুল করবেন যে ইউটিউব ভিডিও ভিউর জন্য টাকা দেয়। ধরুন আপনি একটি ভিডিও আপলোড করলেন তারপর সেই ভিডিওতে আপনাকে প্রথমে গুগোল অ্যাডসেন্সের সাথে লিংক করতে হবে বা গুগোলের কাছে আবেদন করতে হবে যে আমি আমার ভিডিওতে বিজ্ঞাপন শো করাতে চাই।

গুগোল আপনার কন্টেন্ট দেখে বিজ্ঞাপনের জন্য আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি অ্যাপরুভ করে দিবে। তারপর যদি কেউ আপনার ভিডিও দেখে গুগোল বিভিন্নভাবে আপনার ভিডিওতে বিজ্ঞাপন শো করাবে, যদি কেউ ঐ বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে বা বিজ্ঞাপনটি ৩০ সেকেন্ডের বেশি দেখে সেই বিজ্ঞাপন থেকে আপনার কিছু আয় হবে। তাই যত ভিউ বেশি হবে তত বেশি বিজ্ঞাপন শো করবে আর আয়ও বেশি হবে। আপাতত শুরুতে এইটুকু জানলে চলবে পরে এগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। আশা করি বুঝতে পেরেছেন।

বাংলায় করবেন না ইংলিশে করবেন?

ইংলিশ তো আন্তর্জাতিক ভাষা তো সবচেয়ে ভাল হয় যদি আপনি ইংলিশে ইউটিবিং করেন কারন ইংলিশে করলে সারা বিশ্ব থেকে ভিউয়ার পাবেন। অনেকে আছেন ভাল ইংলিশ বলতে ও লিখতে পারেন তাদের জন্য বলছি যদি আপনার কন্টেন্ট ইংলিশে হয় তাহলে আপনার ভিউ পাবার সম্ভবনা অনেক বেশি। যদি ইংলিশে করতে না পারেন সমস্যা নেই হয়ত একটু দেরিতে কিন্তু ভিউয়ার পাবেন চিন্তার কিছু নেই।

ইউটিউবিং করতে হলে কি কি জানতে হবে?

ADs by Techtunes ADs

একটা সময় ছিল ইউটিউবিং নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের এত  আগ্রহ ছিল না  এমনকি আমারও না কিন্তু বর্তমানে ইউটিউবিং নিয়ে বেশ কম্পিটিশন চলছে, মানে যার কন্টেন্ট ভাল তার ভিউইয়ার ও তত বেশি। তাই ইউটিউবিং করতে হলে আপনাকে কিছু জিনিষ অবশ্যই জানতে হবে। যেমন -

  • ব্যাসিক ইংলিশ জানতে হবে। 
  • কমপক্ষে একটি ভাষা ভালভাবে বলতে ও লিখতে জানতে হবে।  
  • ব্যাসিক কম্পিউটার নলেজ থাকতে হবে।
  • ব্যাসিক ফটো এডিটিং জানতে হবে।
  • ব্যাসিক ভিডিও এডিটিং জানতে হবে।
  • ইন্টারনেট সম্পর্কে মোটামুটি ধারণা থাকতে হবে।

যদি কেউ মনে করেন এগুলো ছাড়াও তো ইউটিউবিং করা যায়। হ্যাঁ আপনার কথা সত্য কিন্তু  হাজারো  ইউটিবারের ঝরে পড়ার পেছনে এই কারণগুলো থাকে। আমার লিখা পড়ে হয়ত একজনও সিদ্ধান্ত নিতে পারে যে আমি ইউটিউবিং করব, কিন্তু এই বেসিক নলেজ গুলো না থাকলে ঝরে পরার সম্ভবনা বেশি। তাই আমি চাই না শুধু সুধু কাউকে মিথ্যে স্বপ্ন দেখাতে।

সিদ্ধান্ত নিন কি নিয়ে কাজ করবেন

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিষ হচ্ছে সিদ্ধান্ত নেয়া যে আসলে আপনি কি নিয়ে কাজ করতে চান। আমি সবসময় সবাইকে একটা কথা বলি যে আপনি আপনার মন থেকে কাজটি করুন। কারন প্রত্যেকটি মানুষের কিছু না কিছু গুণ অবশ্যই থাকে। যেমন যদি উদাহরন হিসেবে বলি - অনেকের প্রযুক্তি সম্পর্কে ভাল জ্ঞান আছে,অনেকের ধর্ম সম্পর্কে ভাল জ্ঞান আছে, অনেকে অভিনয়ে ভাল, আবার অনেকে ভাল গান গাইতে পারে, আবার অনেকে ভাল মোটিভেশনাল কথা বলতে পারে ইত্যাদি আপনি সেই স্কিল গুলো মিলান যদি পারেন সেগুলো দিয়ে শুরু করেন। তাহলে আপনার আর নতুন করে কোন জিনিষ শিখে তারপর ইউটিবিং করতে হবে না। আর চেষ্টা করবেন ব্যতিক্রম কিছু নিয়ে শুরু করতে। উপরের এগুলো শুধুমাত্র উদাহরনের জন্য দিলাম।

কি কি লাগবে ইউটিউবিং করতে হলে?

আমি আপনাকে ২ ভাগে ভাগ করে দিচ্ছি তাহলে বিষয়টি সম্পূর্ণ পরিষ্কার হয়ে যাবে।

১। যদি নিজেকে শো আপ করেন।

২। যদি নিজেকে শো আপ না করেন।

১। যদি আপনি নিজেকে শো আপ করেনঃ

যদি আপনি কামেরার সামনে আসেন তাহলে চেষ্টা করবেন যে যে জিনিষগুলো নিয়ে ইউটিউবিং শুরু করতে -

আমি এটাকেও ২ ভাগে ভাগ করে দেখাচ্ছি -

ADs by Techtunes ADs

         i.  বাজেট থাকলে।

        ii. বাজেট না থাকলে।

বাজেট থাকলেঃ

  • একটি DSLR নিয়ে শুরু করতে কারন এই ক্যামেরাটি আপনার ভিডিওর কোয়ালিটি খুব ভাল রাখবে ও আপনাকে অডিয়েন্স তারাতারি গ্রহন করবে। যদি না পারেন তাহলে চেষ্টা করবেন ভাল কোয়ালিটির একটি ডিজিটাল ক্যামেরা নিতে।
  • একটি ভাল মানের কম্পিউটার যা দিয়ে আপনি আপনার ভিডিওকে বিভিন্ন সফটওয়্যার দিয়ে খুব ভাল ভাবে এডিট করতে পারবেন।
  • একটি ভাল মানের ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট কানেকশন (যদি আপনার এলাকায় থাকে)। কারন হল ভিডিও কোয়ালিটি ভাল রাখতে হলে একটি ৫ মিনিটের ভিডিও অনেক সময় ৫০০-১৫০০ মেগাবইটের হয়ে যায়।অপরদিকে ভিডিও কোয়ালিটি ভাল হলে যে কেউই আপনার ভিডিও সহজে পছন্দ করবে। তাই মোবাইল কম্পানি থেকে এত ডাটা কিনে খরছ বহন করতে পারবেন না।
  • ২ টি লাইটিং থাকলে ভাল হয় যদি আপনি ঘরে কোন ভিডিও রেকর্ড করেন তবে এই লাইট গুলো ভিডিও কোয়ালিটি আরো উন্নত করবে।
  • ভাল মানের একটি ক্যামেরা স্ট্যান্ড (যেগুলো মুভ করা যায়)।

বাজেট না থাকলেঃ 

  • একটি ভাল স্মার্ট ফোন (৭-১০ হাজার টাকার ফোন হলেই চলবে)।
  • একটি ভাল মানের হেডফোন।

২। যদি নিজেকে শো আপ না করেন।

  • একটি ভাল মানের কম্পিউটার।
  • একটি ভাল মানের মাইক্রোফোন (ভয়েজ রেকডিংইয়ের জন্য)।
  • একটি ভাল মানের DSLR ক্যামেরা (যদি আউটডোরে কিছু শুট করতে চান) যেমন - নিউজ টাইপের,  বা কোন প্লেস সম্পর্কে।
  • ভাল মানের একটি ক্যামেরা স্ট্যান্ড (যেগুলো মুভ করা যায়)।
  • যদি স্ক্রিন ক্যাপচার টিউটোরিয়াল বানান তাহলে ক্যামেরা ও স্ট্যান্ড না হলেও চলবে। (এক্ষেত্রে  উপরের প্রথম ২ টি স্টেপ ফলো করুন)।

যে জিনিষ গুলো অবশ্যই মাথায় রাখবেন

  • ইউটিউবিং শুরু করার আগে টাকা টাকা করবেন না।
  • অন্যের ভিডিও আপলোড করে টাকা আয় করবেন ভুলেও ভাববেন না।
  • অন্যের ভিডিও দেখে ইন্সপায়ার হতে পারেন কিন্তু হুবহু উনার মত ভিডিও বানাবেন না।
  • ১৮+ কোন কন্টেন্ট নিয়ে কাজ করবেন এমন চিন্তা ভাবনা থেকে বিরত থাকুন।
  • আপলোড হবার পর থেকে ভিউ হতে শুরু করবে এমন চিন্তা ভাবনা করবেন না একটু অপেক্ষা করতে হবে।
  • ইউটিউব কমিউনিটি গাইডলাইন অবশ্যই ফলো করতে হবে।

আজকের টিউটোরিয়াল এই পর্যন্তই প্রথম টিউটোরিয়ালে এর চেয়ে বেশি আলোচনা করা ঠিক হবে না দ্বিতীয় পর্বের টিউটোরিইয়াল দেখার আমন্ত্রন রইল। যে কোন মতামত টিউমেন্টে জানাবেন।

দেখুন ভিডিও টিউটোরিয়াল -

আমাকে পাবেন - FaceBook

YouTube

Website

ADs by Techtunes ADs

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি পাপ্পু ভাই। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 6 বছর 1 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 28 টি টিউন ও 117 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 2 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

প্রিয় টিউনার,

আমি টেকটিউনস কমিউনিটি ম্যানেজার, শোয়াইব,

টেকটিউনস থেকে আপনার সাথে অফিসিয়ালি যোগাযোগ করতে চাচ্ছি। টেকটিউনস থেকে আপনার সাথে অফিসিয়ালি যোগাযোগ করার জন্য http://techtun.es/2obSQxE লিংকটিতে ক্লিক করে আপনার সাথে যোগাযোগের প্রয়োজনীয় তথ্য সাবমিট করে আমাদের সাহায্য করবেন আশা করছি।

ছদ্ম ছবি, নাম, ইমেইল, ফোন, ঠিকানা ও সৌশল Contact পরিহার করে আপনার প্রকৃত/আসল ছবি, নাম, ইমেইল, ফোন, ঠিকানা ও সৌশল Contact দিন। যেহেতু টেকটিউনস থেকে আপনার সাথে অফিসিয়ালি যোগাযোগ করা হবে।

সাবমিট করার পর আমাদের এই ম্যাসেজের রিপ্লাই আপনার কাছ থেকে আশা করছি।

বিশেষ নোট: আপনি যদি পূর্বে আমাদের এই ম্যাসেজ পেয়ে ফর্মটি সাবমিট করে থাকেন তবে আর পুনরায় সাবমিট করার প্রয়োজন নেই। কিন্তু যদি আপনি এখনও আমাদের এই ফর্মটি পেয়ে সাবমিট করে না থাকেন তবে অবশ্যই এখনই সাবমিট করুন এবং সাবমিট করার পর অবশ্যই আমাদের এই ম্যাসেজের রিপ্লাই দিন।

ধন্যবাদ আপনাকে।