ADs by Techtunes tAds
ADs by Techtunes tAds

আইফোনে ফ্লাইট ট্র্যাক করার ৫টি বেস্ট অ্যাপস

ট্রাভেলিং আপনার সখ? কিংবা ব্যবসায়িক বা অফিসের কাছে প্রায়ই বিমানে যাতায়াত করেন আপনি? তাহলে আপনার জন্য আজকের এই টিউন! যারা প্রায় প্রতিনিয়ত বিমানে দেশ বিদেশে যাতায়াত করেন তারা নিশ্চয় ফ্লাইটের নিয়ম কানুন সম্পর্কে জেনে থাকবেন। ফ্লাইটে মোবাইল ফোনের পাশাপাশি ইদানিং ল্যাপটপ ক্যারি করার উপরেও বাধা নিষেধ আসতেছে।

ADs by Techtunes tAds

এছাড়াও যারা প্রতিনিয়ত বিমানে যাতায়াত করেন তাদেরকে অনেক সময় ফ্লাইট বিপর্যয়ে পড়তে হয়, যেমন মাঝে মাঝে ফ্লাইট আসতে দেরী করে, ফ্লাইটের মেইনটেন্স করার সময় বেশি নেয় ইত্যাদি। এসব সমস্যা থেকে মুক্তি দেবার জন্য বেশ কিছু আইফোন অ্যাপস রয়েছে যেগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার ফ্লাইটগুলো ট্রাকিং রাখতে পারবেন।

তবে সাধারণত প্রায় প্রতিটি এয়ারলাইনসের নিজস্ব এপপ থাকে এসব কাজের জন্য। তবে থার্ড পাটিং অ্যাপসগুলোতে একুরেট এবং ঘন ঘন আপডেট দেওয়া থাকে। আজকের টিউনে আইফোনে ফ্লাইট ট্র্যাক করার সেরা ৫টি অ্যাপস নিয়ে কথা বলবো। তো চলুন সরাসরি টিউনে চলে যাই:

১) অ্যাপ ইন দ্যা এয়ার:

App In The Air হচ্ছে তাদের জন্য যারা ঘন ঘন বিমানে ভ্রমণ করতে ভালোবাসেন বা ব্যবসায়িক কাজে যাদেরকে প্রায়ই বিমানে যাতায়াত করতে হয়। বাজারের অনান্য সাধারণ ফ্লাইট ট্র্যাকিং এপের মতো এটি নয়, এপপ ইন দ্যা এয়ারকে আপনি ভার্চুয়াল এবং মাল্টি-ফেসড ট্রাভেল এসিসটেন্সের মতো ব্যবহার করতে পারবেন।

এই এপে প্রতিটি ফ্লাইটকে চারটি ভাগে ভাগ করা হয়ে থাকে, তা হলো চেক-ইন, বোর্ডিং, টেক অফ এবং ল্যান্ডিং। এই প্রতিটি ধাপকে App in the Air চেক-ইন, সিকুরেটি এবং কাস্টমস এর ওয়েটিং টাইম সহ ট্র্যাকিং করে পারবে। এই সকল তথ্য এপের টাইমলাইন থেকে একসেস করা যাবে।

এছাড়াও দুনিয়া ব্যাপী বড় বড় এয়ারপোর্টের বর্তমান আবহাওয়ার তথ্য, ফ্লাইট ক্যানসেল কিংবা ফ্লাইট ডিলে সহ কারেন্সি জাতীয় সকল তথ্যও এই এপপ আপনার জন্য ট্র্যাকিং করবে। আর এপের অনান্য ইউজারদের মতামতগুলো আপনি এপে চেক ইন করে নিতে পারবেন। App in the Air এ ফ্লাইট হিস্টোরি সেভ করে রাখারও ফিচার রয়েছে, তাই এখন আপনি আপনার অতীতের সকল ফ্লাইটের তথ্যগুলো সহজেই সংস্করণ করে রাখতে পারবেন।

এপপ ইন দ্যা এয়ার একটি ফ্রি এপপ যেটি আপনি আইফোন, আইপ্যাড এমনকি এপল ওয়াচ য়েও ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। তবে কিছু কিছু ফিচার আপনাকে কিনে নিতে হবে। যেমন ৪.৯৯ ডলার দিয়ে সাবস্ক্রিপশন কিনে নিয়ে আপনি রিয়েল টাইম ফ্লাইট স্ট্যাটাস আপডেটস, অটোমেটিক চেক-ইন এবং এসএমএস মাধ্যমে পুরো পরিবারের জন্য এই এপের ফিচারগুলো পেয়ে যাবেন।

২) ফ্লাইট স্ট্যাটস:

FlightStats যারা এপের পিছনে টাকা খরচ করতে চান না আবার রিয়েল টাইম ফ্লাইট ইনফরমেশন পেতে চান তাদের জন্য এই এপপটি বেশ কাজে দেবে। এপপটি ডাউনলোড করে ইন্সটল দেবার পর ফ্লাইট নাম্বার, এয়ারপোর্ট কিংবা রুট এর তথ্য লিখে এন্টার দিলেই উক্ত ফ্লাইট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে।

ADs by Techtunes tAds

এপপটি প্রতিটি ফ্লাইটকে ম্যাপের মাধ্যমে আপনার সামনে সিটি লেভেলস, একচুয়াল ফ্লাইট পাথ, বর্তমান রাডারের তথ্য সহ বিভিন্ন তথ্য পেশ করবে। এপল ওয়াচ ব্যবহারকারীর জন্য FlightStats দারুণ একটি এপপ। তবে যেহেতু এটি একটি ফ্রি এপপ, তাই এডভারটাইসের ঝামেলা পোহাতে হবে আপনাকে।

তবে এপের ফিচারের কাছে এই ঝামেলা তুচ্ছ মনে হবে আপনার। এপে সরাসরি এয়ারপোর্টের নাম লিখে সার্চ দিলে উক্ত পোর্টের ফ্লাইট ডিলে ইনডেক্স দেখতে পারবেন এবং আবহাওয়ার পূর্বাভাসও পেয়ে যাবেন। আজই ট্রাই করে দেখতে পারেন এই চমৎকার ফ্রি এপপটি।

৩) দ্যা ফ্লাইট ট্র্যাকার:

The Flight Tracker হচ্ছে একটি প্রিমিয়াম ফ্ল্যাইট ট্র্যাকিং এপপ। এপল স্টোরে এপটি ৫.৯৯ ডলার খরচ করে আপনাকে কিনতে হবে। এপটি সম্পূর্ণ এডভারটাইস ফ্রি এবং ফ্লাইট বোর্ড, নোটিফিকেশন, রিমাইন্ডারস এবং মাল্টি ডিভাইস Syncing ফিচার সার্পোট করে।

দ্যা ফ্লাইট ট্র্যাকার এপপটি এছাড়াও দুনিয়ার সমস্ত এয়ারপোর্টের সকল ফ্লাইটের ছেড়ে যাবা এবং ফ্লাইট নামার রিয়েল টাইম ইনফরমেশন দিতে সক্ষম! এছাড়াও টার্মিনাল এবং গেইট ইনফরমেশনও থাকছে এপপটিতে। দ্যা ফ্লাইট ট্র্যাকারের ইনফরমেশনগুলো আপনার আইফোন কিংবা আইপ্যাডের আইক্লাউডে অটোমেটিক্যালি সিঙ্ক হয়ে যাবে।

এছাড়াও আপনি ফ্লাইট ইনফরমেশনগুলোকে ইমেইল, এসএমএস কিংবা সোসিয়াল নেটওর্য়াকে শেয়ার করতে পারবেন। আর আপনার ডিভাইসের ক্যালেন্ডারেও ফ্লাইট ইনফরমেশনগুলো অটো সিঙ্ক হয়ে থাকবে। এপপটির আরেকটি মজার ফিচার হলো ফ্লাইট বোর্ডে এবং ফ্লাইট ম্যাপে আপনি উক্ত এয়ারলাইনের / এয়ারপোর্টের সকল ফ্লাইটগুলোকে দেখতে পারবেন!

৪) ফ্লাইটএওয়েয়ার ফ্লাইট ট্র্যাকার:

Push Notifications সহ যারা ফ্রি ফ্লাইট ট্র্যাকার এপপ খুঁজছেন তাদের জন্য FlightAware Flight Tracker এপটি উপযুক্ত। দুনিয়াব্যাপী যেকোনো কর্মাশিয়াল ফ্লাইটের টাইমলাইন ট্র্যাক করার সুবিধা সহ আমেরিকা এবং কানাডার কিছু প্রাইভেট এবং চ্যারিটির প্লেনসমূহকেও এই এপপটি ট্র্যাক করতে পারবে।

আপনি এয়ারক্রাফট রেজিস্টেশন, রুট, এয়ারলাইন, ফ্লাইট নাম্বার, সিটি কোড কিংবা এয়ারপোর্ট কোডের মাধ্যমে ফ্লাইট সার্চ করতে পারবেন। এপটি ফ্লাইটের ডিটেইলসগুলো কে ফুল স্ক্রিণ NEXRAD রাডারের মাধ্যমে আপনার সামনে উপস্থাপন করবে। এছাড়াও এপটির পুশ নোটিফিকেশনে আপনি ফ্লাইট আসা যাওয়ার ইনফো, ক্যানসেল, গেট চেঞ্জ, ডিলে সহ ইত্যাদি তথ্যগুলোকে আনতে পারবেন।

এছাড়াও আপনার আইফোনের জিপিএস এর মাধ্যমে আপনি নিকটবর্তী এয়ারক্রাফটের তথ্যও এপপটিতে দেখতে পারবেন। FlightAware Flight Tracker একটি ফ্রি এপপ কিন্তু আপনি চাইলে ২.৯৯ ডলার খরচ করে প্রিমিয়ার সাবক্রিপশন কিনে নিয়ে সকল এডভার্টাইজগুলো মুছে দিতে পারেন। এপটি আইফোন ছাড়াও সকল মডেলের আইপ্যাডে ব্যবহার করা যাবে।

ADs by Techtunes tAds

৫) প্লেনস লাইভ:

Planes Live হচ্ছে আরেকটি চমৎকার ফ্রি ফ্লাইট ট্র্যাকিং এপপ। যারা বিমানে মাঝে মাঝে ভ্রমণ করেন এবং যারা শুধু বিনোদনের জন্য বিমানগুলোকে চেক করতে চান তাদের জন্য এই এপটি বেশ কাজের। প্লেনস লাইভ এপপটি দুনিয়াব্যাপী এয়ারপ্লেনস এবং হেলিকপ্টারসমূহকে ট্র্যাক করতে পারে।

এছাড়াও এই এপেও রয়েছে পুশ নোটিফিকেশন সিস্টেম, যেখানে আপনি ফ্লাইট স্ট্যাটাস, ক্যানসেলেশন, নতুন টাইমলাইন সহ বিভিন্ন তথ্যগুলোকে দেখতে পারবেন। এপপটি নির্দিষ্ট এয়ারপোর্টের ফ্লাইট আসা যাওয়ার তথ্য, লোকাল টাইম, আবহাওয়ার পূর্বাভাস সহ বিভিন্ন তথ্য সরবরাহ করতে পারবে। এপটি ফ্রি হবার কারণে বিভিন্ন বিজ্ঞাপণ দেখতে পাবেন, তবে এপটির কোনো প্রিমিয়াম ভার্সন নেই।

আশা করবো আপনার ফ্লাইটগুলোকে ট্র্যাকিং করার জন্য এই ৫টি এপপ আপনার সহায়ক হবে। সামনের দিনে অন্য কোনো টপিক নিয়ে আলোচনা করতে চলে আসবো আপনাদেরই প্রিয় বাংলা প্রযুক্তি ব্লগ টেকটিউনসে। আজ এ পর্যন্তই।

ADs by Techtunes tAds
Level 10

আমি ফাহাদ হোসেন। Supreme Top Tuner, Techtunes, Dhaka। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 বছর 1 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 662 টি টিউন ও 435 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 74 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

যার কেউ নাই তার কম্পিউটার আছে!


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস