ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

যে কারণে “প্রবাসী” ভাইয়ের টিউনটি যৌক্তিক ও বাস্তবসম্মত হতে পারে না।

সহটিউনার প্রবাসী ভাই এর একজন প্রবাসীর বিদায় এবং কিছু কথা।(শেষ টিউন) িদুঃখজনক হলেও যৌক্তিক নয়। “প্রবাসী” ভাইয়ের মত পরিপক্ক নিক থেকে এধরণের টিউন আমাদের হতবিহ্বল করেছে।

ADs by Techtunes ADs

যে কারণে তার টিউনটি বাস্তব সম্মত ও লজিক্যাল মনে হয়নিঃ

  • তিনি বলেছেন, টেকটিউনসের কিছু সাবেক মডারেটরের আচরণের জন্য তার অনলাইন অ্যাকটিভিটি বন্ধ রাখবেন। প্রশ্ন হল সাবেক মডারেটরদের আচরণের দায়ভার কি বর্তমান টেকটিউনসের উপর বর্তায়? ব্যাপারটা, খালেদাজিয়ার দূর্নীতির কারণে শেখহাসিনার মন্ত্রিসভার সদস্যের পদত্যাগের মতই অবাস্তব মনে হয়েছে।
  • তিনি বলেছেন, এর দায়ভার নিয়ে আমি আজ থেকে আমার অনলাইনের সকল কাজ স্থগিত করলাম। তিনি ফ্রিল্যান্সারদের ভিক্ষারী বলেছেন আবার Sorry বলে ব্যাপারটা চুকিয়েও নিয়েছেন। প্রশ্ন হল, অনলাইন থেকে বিরতিতে যাওয়ার পেছনে লজিকটা আসলে কি? ব্যাপারটা পথের মিসকিনকে ধমক দিয়ে ”আমি আর জীবনে ঘুমাবেনা না” িএমনটা পণের মত মনে হয়েছে। ব্যাপারটা বাস্তবতাবিবর্জিত।
  • তিনি বলেছেন, “আমি টিউন ছাড়ছি কিন্তু টেকটিউনসকে ছাড়ছি না।ভবিষ্যতে টেকটিউনসকে নিয়ে কোন প্রকার রাজনীতি সহ্য করা হবে না ”। প্রথমত, তিনি টিউন ছাড়ছেন। প্রশ্ন হল, কেন ছাড়ছেন? উত্তর হতে পারে, “সাবেক কিছু মডারেটরের কর্মকান্ডের জন্য”। কিন্তু এটা উদোর পিন্দি বুধোর ঘাড়ে চাপানো হল। “সাবেক দের কর্মকান্ডে” বর্তমানে টিউন ছাড়াটা লজিক্যাল হতে পারেনা। আবার তিনি বলেছেন, “টেকটিউনসকে ছাড়ছি না” এটা আগের বক্তব্য “আজ থেকে আমার অনলাইনের সকল কাজ স্থগিত করলাম” সাথে সাংঘর্ষিক।

মূল ঘটনা যা হতে পারেঃ

“প্রবাসী” ভাই এর মত একজন জেষ্ট, পরিপক্ক টিউনারের লেখার ধরণ এমন কাঁচা হতে পারেনা। তিনি যা লিখেছেন তা ক্ষণিকের আবেগবশতঃ হতে পারে। এর সাথে বাস্তবতার কোন মিল নেই। শীঘ্রই তিনি ফিরে আসবেন, কারণ সেবা একটি মহৎকর্ম। তিনি জাতিকে যে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তাঁর ক্ষণিকের আবেগ সেই সেবা প্রদানকে বন্ধ করতে পারেনা। কারণ তিনি নিজের বিবেকের কাছে দায়বদ্ধ।

মন্তব্যঃ

জেষ্ট ব্লগার হিসাবে ফেসবুক, টেকটিউনস্ সহ সকল ব্লগে কমেন্ট করবার সময় নিজের মর্যাদা অক্ষুন্ন রাখতে হবে। আমার বক্তব্যে যেন এমনকিছু প্রকাশ না পায় যার জন্য অন্যরা আমাকে কিছু বলার সুযোগ পায়। বক্তব্য হওয়া উচিত যৌক্তিক, ব্যক্তিগত-আক্রমণমুক্ত ও  প্রফেশনালীটি যুক্ত।

টেকটিউনসের বর্তমান মডারেটরদের এদিকে নজর দেবার অনুরোধ জানাচ্ছি। যখন আমি টেকটিউনসকে প্রতিনিধিত্ব করব, আমার বক্তব্যের ভাষা যেন হয় সে মোতাবেক।

ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন-

নেট মাস্টার ।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি নেট মাস্টার। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 10 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 68 টি টিউন ও 1841 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 6 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

সহমত।

Level New

amio akmot

ভাই আমি এইমাত্র গুম থেকে উঠলাম, আমি এত কিছু বুজিনা। আমি তা মানতে পারলাম না। আমি প্রবাসী ভাইকে টিটিতে চাই। নিলে আমি টিটিতে আসমু না।

শতভাগ সহমত জানাই।

সকালে টিউনটি দেখে মর্মাহত হয়েছিলাম !

    @Aowlad Hossain: Follow Me আগ বাড়িয়ে ঝগড়া বাধিয়েছে দেখা যায়। প্রবাসীভাই এক ব্লক করে সঠিক স্বীদ্ধান্ত নিয়েছেন।

      @নেট মাস্টার: Follow Me ঝগড়া বাধিয়েছে ঠিক কিনতু এই ঝগড়ার স্ক্রীণশট আরেকজন নিয়েছেন এবং কিছু মাথাগরম ফ্রীল্যান্সার ভাইদের উস্কে দিয়েছেন প্রবাসী ভাইয়ের বিরুদ্ধে প্রচারনার জন্য ।

Level 0

সহমত।

প্রবাসী ভাই ছাড়া টেকটিউনস অর্ধেক. প্রবাসী ভাই টিউন গুলো ফলু করার জন্যই আমার মতো অগণিত লোক টেকটিউনস এ আসে। টিটিতে প্রবাসী ভাই কে নিয়মিত দেখতে চাই সেই সাথে মধ্যের ব্যবহার সংযত করা চাই।

Level 0

🙂

probasir poribarer hari bosbena ?
Pagole kina bole sagole ki na khai oboshese প্রবাসী ভাই ছাড়া টেকটিউনস অর্ধেক.

শতভাগ সহমত জানাই।

Follow Me কতটা খারাপ বাহার করলো প্রবাসী ভাইয়ের সাথে দেখুন https://www.facebook.com/photo.php?fbid=4107932936814&set=a.1325568299437.2040573.1237786014&type=1&theater

Level New

টিটিতে প্রবাসী ভাই কে নিয়মিত দেখতে চাই

টিটিতে প্রবাসী ভাই কে নিয়মিত দেখতে চাই।

সহমত!

প্রবাসী ভাইকে শুরু থেকেই অনেক শ্রদ্ধা করি। আমি যেদিন থেকে টেকটিউন্স এর সাথে যুক্ত, সেদিন থেকে তার ভক্ত, প্রতি পর্বেই অনেক নতুন নতুন সফটওয়ার এর খোজ পেতাম।

ওই দিনকের স্টাটাসের পর খুব খারাপ লেগেছিল। তিন তার স্টাটাসের ফলো মি র Against এ কমেন্ট করেছিল,

“আপনার মত ঠুটো জগন্নাথ যদি ফীল্যান্সিং এর মত ভিক্ষাবৃত্তি কে কম্পিউটার কিনতে পারে, তাহলে আমি পরিশ্রমের টাকায় কিনতে পারবো না কেন??”

স্ক্রীনসটঃ https://fbcdn-sphotos-a-a.akamaihd.net/hphotos-ak-ash4/252272_4107932936814_1476163081_n.jpg

Point to be noted…

এর মানে তিনি বোঝা গেল? ফ্রীল্যান্সিং হল একটি ভিক্ষাবৃত্তি! তাহলে, পৃথিবীর সব ফ্রীল্যান্সার রাই ভিক্ষুক।

কিন্তু তার টিউনে কৌশলে কথা ঘুরালেন।

” উত্তরে আমি বলেছিলাম আপনার মত ফ্রীল্যান্সার যদি ভিক্ষা বৃত্তির টাকায় কম্পিউটার কিনতে পারে তবে আমি আমার পরীশ্রমের টাকায় কিনতে পারবো না কেন? ”

একটা কথা বলে রাখা উচিত, ডুল্যান্সার ক্লিক আর ফ্রীল্যান্সিং দুইটা ভিন্ন জিনিস, এটাকে এক না করাই ভাল।

তিনি প্রবাস থেকে পাঠানো রেমিটেন্সের কথা বলেছেন,

“অবুঝদের জানাতে চাই আমরা রেমিটেন্স না পাঠালে আপনাদের চুলায় হাড়ি চড়ত না।যদি ব্যাপারগুলো না বুঝে থাকেন তবে পরিবারের শিক্ষিত সদস্যকে জিজ্ঞেস করলেই সদুত্তর পেয়ে যাবেন।আর কিছু বলার নেই।”

আমরা যারা ওডেস্ক, ইল্যান্স, ফীলান্সার এ বিভিন্ন বিদেশী ক্লায়েন্টের কাজ করি, তারাও কিন্তু দেশের রেমিটেন্সে অবদান রেখে যাচ্ছি। প্রবাসীরা বিদেশে কাজ করে দেশে টাকা পাঠান। আর আমরা দেশে বসেই কাজ করে বিদেশ থেকে প্রতিমাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আনি দেশে।

দেখা গেল কি? দুপক্ষই দেশের রেমিটেন্সে অবদান রেখে যাচ্ছি। কারও অবদানই কম নাহ!
কিন্তু তিনি গোটা ফ্রীল্যান্সার দের কাজকে ভিক্ষা বৃত্তি বলেছেন।

তার প্রবলেম ছিল, ফলো মি র সাথে। তাই গালাগাল শুধু তাকেই বলা উচিত ছিলনা? কেন তিনি গোটা ফীল্যান্সার দের হেয় করে কথা বলবেন?

কথায় আছে, মুখের বুলি আর গুলি এই দুইটা একবার বের হয়ে গেলে আর ফেরানো যায় না। আর রেগে গেলেন ত হেরে গেলেন। তাই কিছু বলার আগে বুঝে শুনে বলা উচিত।

এত কিছুর পর তার হেয় করা কথার জন্য ফ্রীল্যন্সারদের কাছে ক্ষমা চেয়ে একটা পোস্ট দিতে পারতেন। তাতে, শান্তিই আসত। ক্ষমা চাইলে কেউ ছোট হয় না।
কিন্তু নিজেকে পুরোপুরি নির্দোষ বানিয়ে, কথা ঘুরিয়ে বলে আর যুক্তি দেখিয়ে এভাবে চলে যাওয়ার ব্যাপারটা যুক্তিহীনই মনে হল।

আমিও চাই তিনি আমাদের মাঝে ফিরে আসুক।
ভুল মানুষই করে আর আমরা কেউই ভুলের উর্দ্ধে নই।

Level 0

প্রবাসী ভাইয়ের অবদান অনস্বীকার্য! কারনে অকারনে বাদানুবাদটি নোংরা পর্যায়ে চলে গেছে। দুঃখজনক।
সব ব্যথা ভুলে প্রবাসী ভাই আবার আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন, সে আশায় রইলাম।
প্রবাসী ভাইয়ের জন্য অনে অনেক শুভ কামনা রইল।

এক লাইনে ক্ষমা চাওয়া যায়না। অই লাইনে এর উপরের লাইন টাই দেখেন । ওনার পোস্ট এর উদ্দেশ্য ক্ষমা চাওয়া ছিলনা । ছিল আত্ম পক্ষ সমর্থন । একই পোস্ট এ গরু ও মারেছেন আবার জুতাও দান করার চেষ্টা করেছেন।
” অজ্ঞানে কিংবা স্বজ্ঞানে আমি সকল ফ্রী ল্যান্সার …” উনি এখনও বলছেন এটা স্বজ্ঞানে করাও হতে পারে । ভুল স্বীকার করেন নি। বরং কিছু হুমকিও দিলেন “…এর দায়ভার নিয়ে আমি আজ থেকে আমার অনলাইনের সকল
কাজ স্থগিত করলাম।লিখবো না কোন টিউন,ফেসবুকে দেবো না কোন ষ্টাটাস(যেটা দেবো পরিবারের সদস্য এবং বন্ধুদের জন্য দেবো),লিখবো না কোন ব্লগে (মনে মনে ঠিক করেছিলাম সূডো ব্লগে লিখবো)এমন কি নিজের ব্লগেও লিখবো না
…।…। আগামী ৭ দিনের মধ্যে প্রায় দুই হাজার ফেসবুক ফ্রেন্ড থেকে কমপক্ষে ১৮০০ জনকে আনফ্রেন্ড করবো… ”

তার চেয়ে বরং ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে আগের থেকে আরও ভাল কিছু করার কথা বলতে পারতেন । এবং এটাই হোতে পারত তার সব চাইতে বড় শাস্তি।

    @সাহিত্য মাহমুদ: ফেসবুক সূত্র থেকে যা বোঝা গেল, তিনি ফ্রিল্যান্সার গোষ্টিকে মূল টার্গেট করেননি, বরং ফলো মিকে টার্গেট করতে গিয়ে আউলিয়ে ফেলেছেন। এটা হরহামেশাই হতে দেখা যায়। তার পোষ্টের কোথাও এন্ট্রি ফ্রিল্যান্সিং কোন বাণী মেলেনি। যা পাওয়া গেল তা ব্যক্তিগত রেশারেষি। তবে চতুর ফলো মি ফ্রিল্যান্সার গোষ্ঠীকে ব্যক্তিগত স্বার্থে ব্যবহার করলেন ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করবার জন্য। এবং সফলভাবেই তিনি ফ্রিল্যান্সারদের টোপ গিলিয়ে নিজ স্বার্থ উদ্ধারে সফল হলেন।

    পুরো ব্যাপারটিতে রয়েছে উষ্কানী, আর প্যাচ। অন্যদিকে প্রবাসীভাই যথেস্ট সহিষ্নতার পরিচয় দিতে ব্যর্থ হন। একজন সিনিয়ন টিউনারের আরো ধৈর্যশীল ভূমিকায় থাকা উচিত ছিল। আমার অনুরোধ দুপক্ষের উচিত মাথা খাটিয়ে কাজ করা, যাতে অন্যকেউ ব্যক্তিগত স্বার্থে কাউকে ব্যবহার করতে না পারে।

    @সাহিত্য মাহমুদ: ভাই “স্লিপ অফ টাং” বলে একটা কথা আছে। অসাবধানতাবশত অনেক সময় আমরা অনেক কথাই বলে থাকি যেগুলো সবাই বুঝতে ভুল করে। নেট মাস্টার ভাই এর সাথে সহমত।

Level 0

আমি টেকটিউন্স এ নিয়মিতই আসি, কিন্তু লেখার অলসতার কারোণে কোন টিউনে কমেন্ট করা হয় না, কিন্তু আজকে প্রবাসী ভাইয়ের এ রকম বিদায় এর কথা শুনে, কমেন্ট না করে থাকতে পারনাম না!
পরিশেষে আমি এই আশাবাদ ব্যক্ত রেখে বলছি “প্রবাসী ভাই অবশ্যই আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন”, তিনি তার টিউনে বলেছেন…“টিউন করা ছাড়লেও টেকটিউনস ছাড়ছিনা” আবেগবশত অনেককিছু লিখলেও এখান থেকেই বুঝা যায় টেকটিউন্সের প্রতি কেমন টান! আর যেহেতু টেকটিউন্সের প্রতি তার টান রয়েছে… তাই তিনি অবশ্যই টেকটিউন্সে আবার ফিরে আসবেন “ইনশাআল্লাহ”!

আমি টেকটিউনস এ এসে যা শিখেছি তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবনা। দু জনের বক্তব্য শুনলাম, প্রবাসী ভাই ভুল করে ক্ষমা চেয়েছেন কিন্তু @সাহিত্য মাহমুদ আপনি তো পারতে SORRY বলতে। আসলে এই সামান্য ব্যপারটা নিয়ে এত কিছু করার কি দরকার। freelancing & networking (MLM) যারা করে তারা তো কাউকে হেয় প্রতিপন্ন করে না, তাহলে কেন এমন হচ্ছে। চেষ্টা করুন যাতে প্রবাসী ভাই ফিরে আসে।

    @শহিদুল ইসলাম: আমি প্রবাসী ভাই আর সেই ফলো মি র ঝামেলার সাতেও ছিলাম না, পাচেও ছিলাম না। আমার ত স্যরি বলার কিছু নেই।
    আজ টেকটিউন্স আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু প্রবাসীর বিদায়, এপ্রসঙ্গে শুধু কিছু ঘটনাপ্রবাহ তুলে ধরলাম মাত্র।

সুদীর্ঘ ৪ মাস হয়ে গেল টেকটিউনসে লগিন করা হয় নি। ভিসিট করা হয়েছে কদাচিৎ। খবর পাওয়া মাত্র তৎক্ষণাৎ চলে এলাম।

প্রবাসী ভাইর ফেসবুকে কথা কাটাকাটি ও মনোমালিন্যের কারণে টেকটিউনস ছেড়ে দেওয়া একদমই অযৌক্তিক ব্যাপার। দুইটার সাথে কোন সম্পর্ক নাই। তাছাড়া এখানে বরাবরই যে প্রসঙ্গ উঠে আসছে সেটা হল সাবেক মডারেটর। সাবেক মডারেটরের সাথে টেকটিউনসের কোন সম্পর্কই নাই। থেকে থাকলেও তা পুরনো। সাবেক মডারেটরের অ্যাডমিনিস্ট্রেশন পাওয়ারের ছিটেফোঁটাও থাকার কথা না। তাই তাদের সাথে টেকটিউনসকে মিশানোও আমার দৃষ্টিতে সঠিক নয়। একটা সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের সব কিছু মিটমাট হবে সেখানে এখানো একটা টেক ব্লগের কথা বারবার আসছে কেন?

সব কিছুর উর্ধ্বে বলতে চাই, হয়ত ছোঁড়া তীর এবং বলা কথা নেওয়া যায় না। তাই বলে সাধারণ একটি বাক্যকে কেন্দ্র করে প্রবাসী ভাইর চলে যাওয়া সত্যিই দুঃখজনক। আমি চাই উনি আবার ফিরে আসুন এবং টেকটিউনসকে তার অসাধারণ টিউন দিয়ে মুখর করে রাখুন।

ধন্যবাদ।
——————— প্রবাসী ভাইর টিউনের একজন গুণমুগ্ধ ভক্ত।

We NEED You প্রবাসী ভাই।

ei manushtake ami mon theke onek shomman kori. bosor 2-3 age amar hdd format hoie gesilo.. ami unar kase ekta software cheye email koresilam… uni amar jonne personally sei EASEUS data recovery software er full version upload kore diesilen. emon ekjon hridoyban baktir emon oviman khubi onakankhito.

Probashi vaier r ki dosh… oi dhoroner comment amare dile ami nijei to oi fajilre shuddo bakoronio bangla gail dia sartam…

Level 0

টেটির মডারেটরের একটা সমস্যা হল , তারা কোন কারন বশত ছাড়াই টিউনটি কেটি দেয়। আমার কথা হল , কোন টিউন যদি নীতি ভঙ্গ করে তাহলে এর জন্যে কেন তারা সতর্কবার্তা ম্যাসেজ দেয় না।

ফুঃ। দরকার নাই। কেউ গেলে কিছু আসে যায় না। নতুনরা আসবে। আসতে দেন।

সহমত।

Level 0

@নেট মাস্টার আপনাকে ধন্যবাদ জানাই ,সুন্দর অভিভাবক সূলভ টিউনের জন্য । টেকটিউনসকে আমরা সবাই ভালবাসি । তার একটি বড় মাধ্যম হলো নিঃস্বার্থ টিউনারগণ অক্লান্ত পরিশ্রম করে আমাদের জন্য সুন্দর সুন্দর টিউন উপহার দিয়ে থাকেন। আমরা কাউকেই ছোট করতে চাই না ……দেশের জন্য প্রবাসী/ ফ্রী ল্যান্সার কাউকেই হেয় করার অবকাশ নেই । অনেক সময় অনিচ্ছাকৃত ভুলের কারণে মানুষের বেশী ক্ষতি হয়ে যায় । ভুল মানুষেরই হয় ….আমাদের সকলের প্রত্যাশা প্রবাসী ভাই আবারও টিটিতে ফিরে এসে উদারতার পরিচয় দিবেন । আপনি স্বদেশীদের ভালবাসেন প্রবাসে থেকে …আমরাও আপনাকে ভালবাসি বাংলাদেশে থেকে…সবাই ভাল থাকুন ।

সহমত !

আমরাও কামনা করি রওনক ভাই আবারও আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন,সেই প্রতিক্ষাতেই রইলাম I

যাই হোক, আমি মনে করি না প্রবাসী ছাড়া টেকটিউনসের কিচ্ছু হবে। টেকটিউনসের কাজ এম্নিতেই এগিয়ে যাবে। তবে প্রবাসী যা করেছেন বা বলেছেন তা কোন সুস্থ মানুষ বলতে পারে না। তার ভেতর প্রচন্ড অহংবোধ আছে বোঝা যাচ্ছে। এই দেশেও যে তাদের মত প্রবাসীর চেয়ে ক্ষমতাওয়ালা টাকাওয়ালা থাকতে পারে তার মনে নেই। রেমিটেন্সের ব্যাপারটা বলেই সে প্রমান করে দিয়েছে সে আর দশজনের মতই হাততালির জন্য টিউন করত, যদি তা না-ই হত কেন সে দেশে তার আত্মীয় স্বজনদের টাকা পাঠাবে আর সবার উপর তার দাবি দিয়ে এত বড় অপমান করতে পারে দেশের মানুষদের? তার রেমিট্যান্সের টাকা কি সব আমরা খাই? সরকার যা ট্যাক্স কাটে তাতে আমাদের কি হাত? হিসেব করলে সবার ভাগে রেমিটেন্সের আট আনা করেও পরে না। দেশে নিজের ফ্যামিলিকে টাকা পাঠাবে অথচ অপমান করবে সবাইকে এ কেমন কথা।
আর ফকির মিসকিন কখনো ফ্রিল্যান্সিং করে না। ফ্রি ল্যান্সিং করতে গেলে ব্রেন লাগে ব্রেন, যাদের মধ্যে ব্রেন নেই তারাই উলটাপালটা যুক্তি দিয়ে এভাবে অপমান করতে পারে এদেশের ফ্রিল্যান্সারদের। এখন যুক্তি দেয়া হচ্ছে একজনকে বলেছে। একজনকে বললে প্রাইভেট মেসেজে না দিয়ে পাবলিকলি কিভাবে আসে? আর কত লোক ফ্রিল্যান্সিং করে নিজের ভাগ্যের চাকা ঘুরিয়েছে জানে সে? জানার কথাও না, কেননা সে নাকি সযতনে এড়িয়ে গেছে ফ্রিল্যান্সিং টিউনগুলো!

প্রবাসীও দেশপ্রেমিক ছিল, গোলাম আযমও বাংলাদেশের মন্ত্রী ছিল।

Level 0

প্রবাসীর বিদায়ী পোস্ট দেখে হতাশ। এখানের মন্তব্য গুলো দেখলেই রওনক ভাই বুঝতে পারবেন-তার প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা ভালবাসা কেমন আছে। তার উপস্থিতি আমাদের কাম্য কিনা। একজন প্রবাসী হিসাবে জীবন থেকে নেওয়া শিক্ষা আমাদের চেয়ে উনারই বেশী। তাই আবারো বলবো তিনি তার সিদ্ধান্ত পূর্ণবিবেচনা করবেন। টিটিতে আবারো ফিরে আসবেন।
তবে, ফলো মি, ফলো করে মাইকিং করলেও কেউ কাউকে ফলো করানো যাবেনা, যতক্ষণ না তাকে ফলো করার মতো কিছু না পাওয়া যাবে। এখানে কেউ যোগ্যতাহীন হয়ে ইন্টারনেটে বসে বসে বনের মোষ তাড়ায় না। প্রয়োজনেই কেউ কাউকে ফলো করে। রওনক ভাইকে কখনোই বলতে হয়নি ফলো মি, কিংবা এখানে ক্লিক করে টাকা কামানো ব্যবস্থা করে সফটওয়্যার নিন। কিন্তু এখানে রওনক ভাইয়ের উপস্থিতি কাউকে কাউকে ম্লান করে দিয়েছে বা দেওয়ার মতো পরিস্থিতি হয়েছে বলে অনেকে বেহুদা অনুমান করে তাকে আক্রমন করার সুযোগ খুজঁছিলেন বহুদিন ধরেই। তারা খুবই কৌশলে সফলতার দিকে যাচ্ছেন। একজন রওনক আলীকে সুবিধাবাদীরা টিটিতে না আনতে পারলেও বিদায় করতে পারছেন-সেটাতেই তারা আনন্দিত, অনেকের মন্তব্য দেখে তাই মনে হচ্ছে। নিজে কিছু করবেন না, অন্যকেউ করলেও আতেঁ লাগে-এই মানসিকতা নিয়েও বহু প্রযুক্তিবিদ ব্লগে তাদের উপস্থিতি জানান দিচ্ছেন।

রওনক ভাই ব্যক্তিগত ভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন, হয়তো তার সাময়িক উত্তেজনাপূর্ণ মন্তব্যটি তাকে তার অবস্থানকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে-দুঃখ প্রকাশের পর হয়তো ভুল বুঝাবুঝিটা থাকবেনা এবং রওনক ভাই আবারও টিটিতে লিখবেন-এমনটা আশা করছি। কেউ কেউ হয়তো দাবী করতে পারেন, রওনক ভাই যেন বাইতুল মোকারমের উত্তর গেটে দাড়িয়ে মাইকিং করে ক্ষমা চান-তাহলে তাদের উদ্দেশ্য নিয়েও প্রশ্নতোলা যাবে এবং সূদূরপ্রসারী কুভাবনাটিও অন্যান্য ব্লগারের কাছে কুৎসিতভাবে ধরা দিবে।