ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

উবুন্টুতে এন্টিভাইরাস ও ফায়ারওয়াল

আজকাল আমরা অনেকেই উবুন্টু অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে থাকি। এটি ওপেন সোর্স হওয়াতে সুবিধাও বেশি। অনেকে মনে করেন, উবুন্টুতে কোন ভাইরাস আক্রমন করতে পারে না, এটি খুবই শক্তিশালী। যদি তাই হই, তাহলে আপনার ধারনা সঠিক ধরা যায়। কেননা, এটি এমন ভাবে তৈরি যাতে খুব সহজে ভাইরাস আক্রমন করতে না পারে। তবে বিভিন্ন কারনে এন্টিভাইরাস ইন্সটলের প্রয়োজন হতে পারে।

ADs by Techtunes ADs

কারনঃ

  • ডুয়েল বুট ব্যবহার করলে ইউন্ডোজ এর ফাইল স্ক্যান করতে।
  • মেইলিং সিস্টেম ব্যবহার করলে মেইলের ভাইরাস থেকে রক্ষা করতে।
  • ইন্টারনেটের দ্বারা অজান্তে আক্রমনের শিকার হতে পারেন যদি Firewall না থাকে।
  • অন্য কাউকে মেইলে ফাইল পাঠাতে

উবুন্টুতে এভির চেয়ে ফায়ারওয়াল এর গুরুত্ব বেশি, তাই এ সম্পর্কে আগে আলোচনা করিঃ

Ubuntu তে ডিফল্ট ফায়ারওয়াল আছে যার নাম IPTABLES/ UFW (Uncomplicated Firewall). কিন্তু এটা এনাবল্ড নয় এবং টারমিনালে রান করতে হয়। তবে আপনাদেরকে যেন তা না করতে হয়, সে ব্যবস্থাই করছি।

  1. প্রথমে Terminal এ যান। (Applications>Accessories>Terminal)
  2. লিখুন, sudo apt-get update . কাজ শেষ হতে দিন।
  3. আবার লিখুন sudo ufw enable - এটি আপনার FW এনাবল করবে।
  4. আবার লিখুন sudo apt-get install gufw - এটি ফায়ারওয়ালের GUI ইন্সটলে করবে।
  5. কম্পিউটার লগ-আউট করে আবার লগ-ইন করুন। এবার System>Administration>FireWall Configuration এ গেলেই আপনার FW দেখতে পাবেন।

ফায়ারওয়ালের কাজ শেষ। এবার আমরা যাব এন্টিভাইরাসে। আমি সুন্দর ভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করব। উবুন্টুর জন্য বেশ কয়েকটি এন্টিভাইরাস আছে। তবে সবচেয়ে বেশি ভাল ClamAV. এটি ওপেন সোর্স এবং সহজেই উবুন্টুতে সাপোর্ট করে। Avast বা অন্য কোন এন্টিভাইরাস উবুন্টুতে ইন্সটল করবেন না। কারন ClamAV Recommended.

  1. Terminal এ গিয়ে লিখুন sudo apt-get install clamav-daemon
  2. এটি ইন্সটল হলে লিখুন sudo apt-get install clamtk - এটি এভির GUI (Graphical User Interface) ইন্সটল করবে।
  3. এটাও যখন কাজ শেষ করবে তখন লিখুন sudo freshclam - এটি AV আপডেট শুরু করবে। আপডেট শেষ হলে যা দেখায় দেখাক, আপনি ক্লোজ করে বেরিয়ে আসুন।
  4. System>Administration>Software Sources>Update (tab) এ যান। এখানে Unsupported Updates এ টিক দিয়ে দিন। Administration>Update Manger এ গিয়ে আপডেট চেক করুন। তাহলে clamav সম্পর্কিত অনেক আপডেট পাবেন। সবগুলো ইন্সটল করুন, কোনটাই বাদ রাখবেন না।
  5.  এবার এখান থেকে ClamTk এর লেটেস্ট ভারসন ডাউনলোড করুন এবং ইন্সটল করুন। ইন্সটল শেষে কম্পিউটার লগ-আউট করে আবার লগ-ইন করুন।
  6. Terminal এ গিয়ে লিখুন sudo freshclam -  আপডেট সম্পন্ন হবে।

এভি ইন্সটল করাও শেষ। Applications>Accessories>ClamTK এ গেলে আপনি এন্টিভাইরাস রান করতে পারবেন। খেয়াল রাখবেন, সেখানে যেন স্ট্যাটাস বারে সব সবুজ আইকন দেখায়, কোন লাল যেন না থাকে। মাঝে মাঝে sudo freshclam লিখে এভি আপডেট করবেন।

আশা করি আপনাদের ভাল লেগেছে।  আগেভাগেই সাবধান থাকা নিশ্চয়ই বুদ্ধিমানের কাজ।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি আহমেদ সাদমান। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 26 টি টিউন ও 231 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

ধন্যবাদ। ক্লেম ইউজ করতাম। পরে আর করা হয়নি। আর আমার তো সবই লিনাক্স পার্টিশন, কাজেই ভয় নাই। ওয়াইন অবশ্য মুছে ফেলেছি।

ভাই কেউ আমাকে একটু হেল্প করেন
আমি একতা উবন্তু র সিডি কই পাব।

    @faysal drew: http://www.ubuntu.com থেকে ডাউনলোড করা সবচেয়ে ভাল। আজকাল অনেক দোকানেই উবুন্টুর সিডি পাওয়া যায়, সেখান থেকে নিতে পারেন। তবে বাংলাদেশে অনেক সেচ্ছাসেবক সিডি বিতরন করেন। তবে এদের ব্যাপারে আমি কিছু বলতে না পারায় দুঃখিত।

    @রিং: রিংদা কেমন আছেন? আপনাকে আর দেখিনা কোথাও। শরীর ভালো?

@রিং। ধন্যবাদ আপনাকে। অত্যন্ত গুছিয়ে সুন্দরভাবে বুঝিয়ে দেয়ার জন্য। আরও উপকৃত হবো যদি আপনি আমাকে উবুন্টু বা লিনাক্স এর ব্যাপারে একটু সাহায্য করেন। আমি উবুণ্টু/লিনাক্স সিস্টেমের জন্য বলতে এখনো বাচ্চা রয়ে গেছি। উবুন্টুতে কোত্থেকে শুরু করবো তা আমি জানি না। এ ব্যাপারে ‍এ….বি….সি….ডি থেকে আমাকে শুরু করতে হবে। আমি যতটুকু জানি উবুণ্টু খুব শক্তিশালী অপারেটিং সিস্টেম। এখানে কি আমি উইন্ডোজ এর মতো সব ধরনের এপ্লিকেশন চালাতে পারবো? বিস্তারিত জানালে উপকৃত হতাম। ই-মেইল[email protected]

    @Shafiqul: ধন্যবাদ যাকে দিচ্ছেন তিনি যে কে আল্লাহই জানে, তিনি আমার পোস্টের বিরুদ্ধে যা-তা অযৌক্তিক কথা তুলে ধরেছেন। যাই হোক, আপনাকে আমি সাহায্য করছি।
    http://ubuntu-manual.org এ গিয়ে প্রয়োজনমত বই ডাউনলোড করে নিন। ABCD থেকেই শুরু হবে।

    @Shafiqul: না, উইন্ডোজের মত অ্যাপ্লিকেশন চালাতে পারবেননা, তবে উইন্ডোজে যেসব অ্যাপ চলে সেগুলো ক্রসপ্লাটফরম হলে সেগুলো লিনাক্সেই পাবেন যেমন ভিএলসি, পিকাসা, স্কাইপে, কোডব্লকস, ভুজে, ফায়ারফক্স, ক্রোম … আর কি চাই! 😀

@রিং: এইযে মহাজ্ঞানী, এই লিংক সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, ভিজিট করতে ভুলবেন না। https://help.ubuntu.com/community/Linuxvirus
আশা করি এর পরেও নির্লজ্জের মত লাগতে আসবেন না। এরকমই একটা সলিড লিংক খুজছিলাম, যাক, আল্লাহ আমার সাথে আছেন। আর মনে রাখবেন, পার্মিশন লেয়ার আপনাকে প্রটেক্ট করতে যথেষ্ট নয়।

আহমেদ সাদমান, আপনি উবুন্টু কত দিন ধরে ব্যবহার করছেন জানতে চাইছি?
ডেবিয়ান বেসড কোন সিস্টেমে ভাইরাস ইনস্টল দিতে হবে আপনাকে নিজ হাতে রুট পাসওয়ার্ড টাইপ করে পারমিশন দিতে হবে। আপনি নিজে পারমিশন দিলে ফায়ারওয়াল কেন ওর বাপও ভাইরাসকে আটকাতে পারবে না।
আপনি নিজে আগে ভাল করে জানুন। অল্প বিদ্যা মানুষকে দিয়ে বিভ্রান্ত না করার অনুরোধ রইল।

    @নুরুজ্জামান মিলন: যেদিন উইন্ডোজ ধরেছি, সেদিনো আমার উবুন্টু ছিল না। তবে আমি একটু একটু ব্যবহার করতাম। আমি বলিনি যে উবুন্টুতে এন্টিভাইরাস লাগবেই। প্যাকেজ যা রিপোসেটরিতে নেই, তৃতীয় পক্ষের এপ্লিকেশন ইত্যাদি চালনার জন্য আমি এন্টিভাইরাস ও ফায়ারওয়াল দুটোই ব্যবহার করি। বিভিন্ন ফোরামে জানতে পারি যে তৃতীয় পক্ষের এপ্লিকেশন ভুল রুট এক্সেস চেয়ে ক্ষতি করতে পারে, তাই যারা এন্টিভাইরাস চান, তাদের জন্যই এন্টিভাইরাস ইন্সটল পদ্ধতি আমি দিলাম, এমনি যদি কেউ ClamAV ইন্সটল করতে চায়, পারবে না।
    আর অল্পবিদ্যার কথা বলছেন, ঠিকাছে হইল না হয়। সব মানুষেরই কিছু দিকে দুর্বলতা আছে, আমারো হতে পারে যেহেতু আমি এই পর্যন্ত দুইজনের সমালোচনা পেলাম, রিং এবং আপনি। আমি এও জানতাম, ফায়ারওয়াল বা এন্টিভাইরাস সম্পর্কে লিখলে অনেকেই সমালোচনা করবে, তবুও আমি দিয়েছি। আর ব্যবহার বাধ্যতামূলক নয়। মূলত কয়েকটি ফোরাম এবং ওয়েবসাইট আমাকে বিভ্রান্ত করেছে, সে জন্য দুঃখিত। তবে ClamAV যে লিঙ্ক দিয়েছি, সেখানে দেখুন, লেখা আছে কিজন্য এন্টিভাইরাস ব্যবহার করবেন। আমি তো বলিনি যে আপনাকে উবুন্টুই স্ক্যান করতে হবে। তবে পরে বুঝতে পেরেছি যে কিছু কিছু লাইন আছে, যেগুলো পড়ে আপনারা ভাবতে পারেন যে উবুন্টুতে হয়ত উইন্ডোজের মত সবসময় ভাইরাস ঢোকে, কিন্তু আসলে তা না। তবে বলুন, আমি যা লিখিছি সেগুলোতে কি কমান্ডে কোন ভুল ছিল? ছিল না।
    আর সবশেষে, সুন্দরভাবে সমালোচনা করার জন্য ধন্যবাদ।

টিউনটা এডিট করা হল…

আমি সব পরলাম রিং ভাই ঠিকই বলসেন । সাদমান ভাই আপনার ভুল হইসে। আমি জানি রিং ভাই এর ব্যাবহার অনেক অনেক ভালো ওনার ব্যাবহার সম্পর্কে আপনার কোন ধারনা নাই কোনো ।

ধন্যবাদ ৥আহমেদ সাদমান, এবং ৥ মিনহাজুল হক শাওন। আপনাদের উভয়কেই ধন্যবাদ আমাকে তথ্য দিয়ে সাহায্য করার জন্য। তবে আপনাদের যুক্তি তর্কের ভিতর দিয়ে আমি অনেক কিছু জানতে পারলাম। ব্লগে এই যুক্তি তর্ক আছে বলেই আমরা নতুনরা কিছু শিখতে পারছি। আশা করি, যুক্তি তর্কগুলো আরো সামঞ্জস্যপূর্ণ হবে। ব্লগাররা আছেন, টিউন করছেন বলেই আমরা অনেক নতুন তথ্য জানতে পারছি। আশা করছি এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।

    @Shafiqul: জি, আপনাকেও ধন্যবাদ। ঠিকই বলেছেন, যুক্তিতর্ক গুলো আরো সুন্দর হলে ভাল হত। তবে “রিং” আমাকে কিছু অপমানজনক কথা বলায় মেজাজ ঠিক রাখতে পারিনি, দুঃখিত।

Level 0

ভাইয়া;

আমি ubuntu 11.10 setup দেওয়ার সময় install ubuntu beside windows 7 এর রকম একটি option নির্বাচন করেছিলাম। কিন্তু windows 7 crash করার পর; আগে যে drive এ windows 7 এবং ubuntu 11.10 setup দিয়ে ছিলাম সেই drive এ windows 7 setup না করে এবার অন্য ড্রাইভ এ setup দিয়েছি।

কম্পিউটার চালু করলে শুধু windows 7 চালু হয় ubuntu 11.10 এর boot manager কিভাবে আনবো এবং ubuntu 11.10 ই বা কিভাবে চালাবো। একটু সাহায্য করুন please.

আর ubuntu 11.10 setup এর কোনও বাংলা ভিডিও টিউটোরিয়াল থাকলে please জানান। আমি আনলিমিটেড ইন্টারনেট ইউজ করি আশাকরি ডাউনলোড করতে অসুবিধা হবে না। উল্লেক্ষ ubuntu setup এর সময় আমার hard disk এ আলাদা দুটি পারটিশন হয়েছে ঐ দুটিই আমি ubuntu install এর জন্য use করতে চাই।

আসলে আপনার উইন্ডোজ যখন ক্রাস করেছিল তখন আপনাকে নতুন সেটাপ দিতে হয়েছে, জানলে ভাল হত উবুন্টু আর উইন্ডোজ আপনি একই ড্রাইভে দিয়েছিলেন কি না, যদি এরকম করে থাকেন তবে ভবিষ্যতে আর করবেন না, অন্য ড্রাইভে উবুন্টু দেয়াই ভাল।
যাই হোক, আপনি যখন নতুন উইন্ডোজ দিয়েছিলেন, তখন আপনার boot.ini ফাইলটি নতুনভাবে তৈরি হয়েছে। এটি হল সেই ফাইল যা পিসি ওপেন হওয়ার সময় বুট অপশন শো করে।
এখন সমাধান হল, আগের উবুন্টু মুছে ফেলে নতুন করে উবুন্টু সেটাপ দিন (ঐ Install Inside Windows ব্যবহার করুন, ইন্সটল আপনার বলা অনুযায়ী যে ২ টি পার্টীশন বানিয়েছেন, তার যে কোন একটিতে সেটাপ দিন)।
এমনিতেও করতে পারেন, কিন্তু এতে boot.ini ফাইল এডিট করতে হবে যা ঝুকিপূর্ণ এবং কম্পিউটারের বড় ক্ষতি হতে পারে, প্রক্রিয়াটিও সহজ নয়।
আর উবুন্টু সম্পর্কে ধারনা নিতে http://www.ubuntu-manual.org এ যান এবং 11.10 এর জন্য বই নিয়ে নিন।
উবুন্টু সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে Linux for Dummies বইটি ট্রাই করতে পারেন, চাইলে আমি আপনাকে দিতে পারি। আমিও এই বই দেখেই উবুন্টুর জ্ঞান লাভ করছি।