ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

সত্যি কি এন্ড্রয়েডে টাকা আয় করা যায়? জেনে নিন টাকা আয়ের আসল পদ্ধতি

টিউন বিভাগ আউটসোর্সিং
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

সত্যি কি অনলাইনে টাকা উপার্জন করা যায়? যে বিষয়টি আপনার অজানা ছিলে…
আলোচক- কামাল আহমেদ বাগী

অনলাইনে টাকা উপার্জন করা যায় কি না, এখন বলব না সম্পূর্ণ আর্টিকেলপড়ুলে তারপর নিজেই বুঝতে পারবেন ৷

ADs by Techtunes ADs

এন্ড্রয়েড ফোনের প্লে-স্টোরে অনেক অ্যাপ আছে, যাতে কাজ করে টাকা উপার্জন করা যায়, কোন কোন অ্যাপসে বিকাশ/রিচার্জ দেওয়া হয়, আর অন্য অ্যাপসে ব্যাংকের মাধ্যমে পেমেন্ট দেয় ৷
উপার্জনের জন্য অসংখ্য অ্যাপস থাকলেও প্রকৃত অ্যাপস খুবই কম ৷ দেখা যাচ্ছে, একটি ভালো মানের অ্যাপসে নিয়মিত পেমেন্ট দেয়, কিন্তু বাংলাদেশের জন্য প্রতিদিনের আয়ের লিমিট এতই কম যে, দশদিনেও এক ডলার আয় করা সম্ভব না ৷ তারপর ন্যুনতম বারো বা পনের ডলার না জমলে টাকা উঠাতে দেয় না ৷ অতি কষ্টে দু'তিন ডলার জমলেও সেখানে কাজ করার মনমানসিকতা থাকে না ৷

উদাহরণ দিলে সহয হবেঃ
আপনি একটি নামকরা এপ্লিকেশন নিয়ে কাজ করার কথা ভাবছেন, যেটি ইউটিউবে অনেক রিকম্মেন্ট, আর গুগলে অসংখ্য টিউন রয়েছে ৷ তাদের পরামর্শ অনুযায়ী অ্যাপসটি ইনস্টল করলেন ৷ মনে রাখবেন! অনলাইনে টাকা আয়ের অধিকাংশ অ্যাপসে ফেসবুক বা গুগোল একাউন্ট দিয়ে লগইন করা বাধ্যতামূলক ৷ ফেসবুক/গুগলের মাধ্যমে অথোরিটি দিলে পাসওয়ার্ড হ্যাক হওয়ার ঝুকি থাকে ৷

যা হোক অ্যাপসটি ইনস্টল করার পর আপনাকে কিছু অফার দিবে, যেমনঃ ১০ টি গেমস দিলো পাশে ক্রেডিট ৷
আপনি এই গেমসটি ইনস্টল করে ৫ মিনিট খেল্লে ৩০০ ক্রেডিট পাবেন, কিন্ত ইনস্টল করতে গিয়ে দেখেন ৭০ এমবি! তাও করলেন ৩০০ ক্রেডিট জমা হল ৷
আরেকটি গেমস দেখলেন ইনস্টল করলে ৫০০ ক্রেডিট, ইনস্টল করতে গিয়ে দেখেন ১২০ এমবি! এভাবে দু'তিনটি করার পর অন্যটি করতে গেলে বলা হল, আপনার জন্য আর অফার নেই! অধিকাংশ সময় দেখা যায়, শুধু অ্যাপস ইনস্টল নয় আরো কিছু শর্ত দিয়ে থাকে ৷ যেমনঃ গেমসটি কয়েক মিনিট খেলতে, বা গেমস খেলে এত পয়েন্ট উপার্জন করতে হবে, অথবা নিদৃষ্ট লেভেল পর্যন্ত যেতে হবে ৷
শর্ত পুরোন করতে গিয়ে দেখা যায় ১০ টির মধ্য ৭ টি-ই তাদের শর্ত মত হয় না ৷ তার মানে এমবি ঠিকই গেলো কিন্তু পয়েন্ট এলো না ৷ জেনে রাখুন! আপনি যদি বিশ এমবির একটি অ্যাপস ডাউনলোড করেন আরো পাঁচ থেকে সাত এমবি অটোমেটিক চলে যাবে ৷

আপনি একটি অ্যাপস ইনস্টল করে কাজ শুরু করলেন প্রথমে অফার ছিলো সব ভোগ করে সারাদিনে মাত্র ৫০০-৭০০ ক্রেডিট উপার্জন করলেন, তারপর আর কোনো অফার নেই, পরের দিনও না ৷ শুধু অ্যাপসে গেলে ডেইলি চেক ও অন্যন্য কাজ করে ১০০ ক্রেডিটের মতো আয় হয় ৷ ভাবুন তো! ১০০০ ক্রেডিট জমলে ১ ডলার হবে, মানে বাংলাদেশি আশি টাকার কাছাকাছি ৷ আপনি দেখবেন সারা সপ্তাহ কাজ করে ১০০০ এক হাজার ক্রেডিট মানে এক ডলার আয় করা সম্ভব হচ্ছে না!

না হওয়ার কারণে ভিপিএনের আশ্রয় নিলেন, দেখা যায় প্রচুর অফার রয়েছে কিন্তু ইনস্টল করতে গেলে সামনে লেখা আসে বাংলাদেশ বা আপনার ফোনের জন্য এই অফার প্রজোয্য নয় ৷ তার মানে ক্রেডিট জমছে না ৷ সব মিলিয়ে যদি একমাস পরিশ্রম করে তিন বা চার ডলার আয় করা না যায়, তাহলে সেখানে আর কে কাজ করতে চায়? সব থেকে বড় কথা ১২ থেকে ১৫ ডলার না হলে টাকা উঠাতে দেয় না ৷

এখানে শুধু এটা বলা হয়েছে কেউ প্রচন্ড আগ্রহী ছিলো,
কিন্তু কোন পর্যায়ে গিয়ে তার আগ্রহটা মরে যায় ৷ দেখুন এখানে তার কতটা মেধা, সময়, শ্রম, ও অর্থ ব্যয় হয়েছে! শুধু এক ব্যক্তি নয়, এরকম অসংখ্য ব্যক্তিদের দ্বারা পরিক্ষিত একটি উদ্দীপনার ইতি কথা সংক্ষিপ্ত করে বলা হলো ৷

এখানে যে উদাহরণটি দেয়া হয়েছে, তা বিখ্যাত একটি অ্যাপসের; সেটি বলছে টাকা উপার্জন করা সম্ভব ৷
উদাহরণটি দেয়ার কারণ: কেউ যদি শুনে অনলাইনে টাকা আয় করা যায়, কিছু না ভেবেই কাজে লেগে যায়, কারণ সে ভাবে ঘরে বসে টাকা আয় করার থেকে আর বড় সুযোগ নেই! কিছু লোক আছে যারা ওয়েব ডিজাইন কি সেটাও জানে না কোনরকম একটি সাইটে রেজিষ্টেশন করে, আর দেখে যে একটা সাইট হয়ে গেলো! এর মানে সে একজন ওয়েব ডিজাইনার! এখন তার প্রধান টার্গেট সাইটে ভিজিটর আনা! তাই আকর্ষণীয় হেড লাইন দিয়ে কোন রকম একটি আর্টিকেল লিখে টিউন করে যাতে মানুষ তার সাইটে গিয়ে আর্টিকেলটি পড়ে, আর যারাই পড়তে যায় তারাই হলো ভিজিটর…(সংক্ষিপ্ত) ৷

কিভাবে অনলাইনে উপার্জন করবেন?
আপনিতো দিনের বেশি সময় ফেসবুকে থাকেন, কিছুক্ষণ পরপর স্টাটাস দেন, এতে কোন লাভ পেয়েছেন? তেমনি ২ ঘন্টা নয় ১০ মিনিট ব্যবহার করলেও কোন লস হবে না ৷
সোস্যাল নেটওয়ার্ক আপনারা দ্বারা যতই পরিচিতি পাক, আপনাকে টাকা দিবে না অবশ্যই টাকার পথে হাঁটতে হবে ৷

যদি আসলেই অনলাইনে টাকা উপার্জনের ইচ্ছা থাকে, তাহলে এখন থেকেই ফ্রিল্যান্সার হওয়ার প্রস্ততি নিন ৷

ADs by Techtunes ADs

http://www.freelancer.com
http://www.upwork.com

গুগোল ও ইউটিউবে এই সাইটগুলো সম্পর্কে জানুন, ওয়েব ডিজাইন, গ্রাফিক্স ডিজাইন ও আউটসোর্সিংয়ের কাজ শিখুন, এতে সময় নষ্ট হবে না, মনে রাখবেন অ্যাপ ব্যবহার করে যদি টাকা আয় করা যায়, তবে তা হবে খাজনা থেকে বাজনা বেশির সমান, আপনার সময় অনেক মূল্যবান সেটা কাজে লাগান, অনেক লাভ হবে ৷

কৃতজ্ঞতায়ঃ- কামাল আহমেদ বাগী

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি কামাল আহমেদ বাগী। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 10 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 9 টি টিউন ও 5 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

ভোলা জেলার পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নাধীন, চরপক্ষিয়া গ্রামে, ৫ই শ্রাবণ ১৪০৫ বঙ্গাব্দে যশশ্রীয় মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন ৷ বাবা মফিজুল হক একজন স্বনামধন্য ব্যাবসায়ী, মা মরিয়ম বেগম গৃহিণী, তিন ভাই, ও তিন বোনের মধ্য তিনি সবার ছোট ৷ —সংক্ষিপ্ত কামাল আহমেদ বাগী'র "রোমান্টিক কবিতা" এন্ড্রয়েড অ্যাপ ডাউনলোড করুন, ধন্যবাদ ৷ www.kabbd.net


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Good information for all of us.