ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

ডিজিটাল বাংলাদেশের ডাকে সাড়া না দিয়ে আর পারছি না (আমার মতে)

১৯৪৭ সাল থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের বহু মানুষ নিজেদের প্রনের মায়া ত্যাগ করে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জন করেছে কিন্তু আজকে বাংলাদেশের দিকে তাকালে আমার করুনা হয় কেননা এমন সুন্দর একটি দেশকে প্রতিনিয়তই কিছু মানুষ রক্তচোষা জোকের মত বাংলাদেশকে চুষে খাচ্ছে। যারাই শহীদ বা যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছিলেন কি এইরকম দেশকে দেখার জন্য। আমরা মুক্তি যুদ্ধের সময় হিন্দু, বৌদ্ধ, মুসলিম, খ্রীষ্টান সবাই কাধে কাধ মিলিয়ে মুক্তি যুদ্ধ করেছি। কিন্তু আমরা কি আমাদের অর্জিত স্বাধীনতা ধরে রাখথে পেরেছি। আমার মনে হয় আমরা ৯০% ব্যার্থ হয়েছি। না হলে মালায়শিয়ার অবস্থা কোন এক সময় আমাদের থেকেও খারাপ ছিল। কিন্তু তারা দিনে দিনে উন্নতির উচ্চশিখরে চলে যাচ্ছে আথচ আমরা হা করে তাদের অবস্থা দেখছি এবং তাদের চাকর হয়ে সে দেশে পাড়ি জমাচ্ছি। হায় রে বাঙ্গালি.....

ADs by Techtunes ADs

আমাদের এই দেশ কেন পিছিয়েঃ

১. আমাদের এই দেশও হয়ে পারত মালায়শিয়ার মত একটি মধ্যউন্নত দেশ। কিন্তু বাংলাদেশের ২টা প্রধান রাজনৈতিক দল আমার কাছে মনেহয় দায়ী।
২. দায়ী তাদের মন-মানসীকতা
৩. দূর্ণীতি
৪. তাদের সন্তাসী কার্যকলাপ

এইরকম আরও অনেক কথা বলা যাবে কিন্তু আমার মূল উদ্দেশ্য হল ২ টা প্রধান দলেরই প্রতিহিংসার রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে না হলে বাংলাদেশ কখনই উন্নতি লাভ করতে পারবে না। এটা আমি ছোট মস্তিস্কে গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি। কেননা যখনই আওয়ামিলীগ ক্ষমতায় আসে তখন তারা বিরোধী দলে থাকা বি.এন.পি এর বিভিন্ন ভবনের নাম পরিবর্তন করে থাকে এবং বি.এন.পি ক্ষমতায় থাকলে তারাও এই কাজটি করে থাকেন। আমার কথা হচ্ছে যদি নাম দিতেই হয় নিজের দল নির্মান করে নাম রাখলেই তো হয়।


আগে এই থিয়েটারের নাম ছিল ভাষানী নবথিয়েটার কিন্তু বর্তমান নাম ........... আপনারাই ভাল জানেন

চীন মৌত্রি সম্মেলন কেন্দেরও নাম ব্যপকভাবে পরিবর্তিত হয়ে তা এখন বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে নামান্তর হয়েছে। কিছুদিন পরে দেখবেন বাংলাদেশ হয়ত কোন একটি দেশের গোলাম হয়ে গেছে। বাংলাদেশের মানুষ কি আজও প্রকৃত স্বাধীনতার স্বাধ উপভোগ করতে পেরেছে। তেমনি নামকরন করা হয়েছিল বঙ্গবন্ধু সেতু। আসলে আমাদের এই নোংরা রাজনীতি পরিহার করতে হবে। কিছুদিন আগে বাংলাদেশ সরকার থেকে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছিল যে আগামি ৪ সাল মানে ২০১৪-২০১৫ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্য আয়ের দেশে রুপান্তরিত হবে। কিন্তু বাংলাদেশের অর্থনীতিবিদগন এই বিবৃতির সরাসরি বিপক্ষে চলে গিয়েছীলেন কেননা তারা অর্থনীতির প্যাচ ভালই বুঝেন। যদি হয় তা হলে তা হবে কাগজে কলমে মানেটা হল কিছু মানুষই ১৫-১৮ কোটি মানুষের টাকা ভোগ করছে। সে হিসেবে হয়ত কাগজে এবং আয়ের দিক থেকে বাংলাদেশ মধ্য আয়ের দেশ হতে পারে কিন্তু কখনই ৪০-৫০ বছরের মধ্যে মানে প্রধান ২ দলের দাসত্ত থেকে বাংলঅদেশের মানুষ মুক্তি পাবে ততদিন বাংলাদেশ এই অবস্থা থেকে সামনের দিকে যেতে পারবে না।

বাংলাদেশ সরকার এবং বিরোধী দলের জন্য করনীয়ঃ

১. আমার মতে গনতান্ত্রিক ব্যবস্থা আমেরিকার মত করা মানে একজন ২ বারের বেশী প্রধানমন্ত্রী অথবা রাস্ট্র্রপতি হতে পারবে না।
২. নিয়মিত সংসদে উপস্থিত হতে হবে।
৩ . নির্বাচনের আগে এবং পরে এমপি মন্ত্রীদের সম্পত্তির হিসাব দিতে হবে।
৪. কোন এমপি বা মন্ত্রীর বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ পেলে তা দ্রুত এবং সঠিক বিচার করতে হবে
৫.বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে।
৬. সিন্ডিকেটদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।
৭. চাঁদাবাদ এবং সন্ত্রাসমুক্ত রাজনৈতিক দল গঠন করতে হবে।
৮. শিক্ষাঙ্গনে আর্মি ক্যাম্প দিতে হবে যাতে সম্পূর্ন হানাহানিমুক্ত শীক্ষার পরিবেশ বজায় থাকে।
৯. পুলিশ চাচাদের প্রতি বিশ্বাস এখন বাংলাদেশের মানুষের নেই বললেই চলে তাই প্রত্যেক এলাকায় আর্মি ক্যাম্প দেওয়া উচিৎ তাহলে অন্তত সাধারন মানুষ কিছুটা হলেও শান্তিতে ঘুমোতে পারত।

আমার এই কথাগুলো শুনতে খারাপ লাগলেও আর কতকাল সহ্য করা যায় এই অবস্থা। আমাদেরও তো স্বাধীনতা বলতে কিছু আছে। আমরা চাই তিনবেলা পেটপুরে ভাত খেতে এবং রাতে শান্তিতে ঘুমোতে। টেকটিউনসে এই টিউন প্রকাশ করা আমার ঠিক হচ্ছে না কিন্তু তবুও সম্প্রতি পোষ্ট নেই বলে এই বিতর্কিত পোষ্টটি করা। ভুল হলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন। সকলকে ধন্যবাদ.....................

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি রাখাল বালক। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 11 বছর 4 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 214 টি টিউন ও 1132 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

এদেশের ৯৯% মানুষই কোন না কোন ভাবে দূর্নীতির সাথে জড়িত। হয়ত কেউ ঘুষ দেয় অথবা কেউ নেয় দুটোই তো সমান অপরাধ। আর মায়ের পেটে থাকা শিশুটিও দূর্নীতির অর্থে কেনা খাবার খেয়ে বড় হয়ে উঠে। আর আমরা আশা করছি দেশপ্রেমিক এক নেতা। এটা নিম গাছ লাগিয়ে আম আশা করার মত হয়ে...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

প্রথম আলোর একটা ডাযলগ আছে
আপনি আগে বদলান বাকীরা ঠিকই বদলাবে

আমরা সবাই যদি এটা মেনে চলতাম

    শাকিল ভাই, আপনি আগে বদলান বাকীরা ঠিকই বদলাবে.. ( ভাই যে ভাবে প্রতিদিন আপনাকে বদলানোর জন্য চড়-থাপ্পর মারছে ঠিক সেই পরিমান চড়-থাপ্পর যদি ইয়ে…………………..কে মারুন তাতে কাজ হবে না।) হ্যা নিজে ভালো সব ভালো, তবে আগামী প্রজন্মের জন্য কিছু একটা করেন… হাসিব ভাই অনেক ধন্যবাদ আপনার সাহসী টিউনসটির জন্য।

    শাকিল ভাই আমি আপনার সাথে একমত হতে পারলাম না কেননা এটা কোন সাধারন মানুষের কাজ নয়। এগুলো সৃষ্টি হচ্ছে কিছু স্বার্থান্বেষী মানুষের জন্য। যারা শুধুই ক্ষমতায় থাকতে চায় কিন্তু দেশের কথা চিন্তা করে না।

    হাসিব ভাই আমি আপনার সাথে একমত। “সাধারন জনগন” শব্দটার আওতায় কি সবাই পরে। সাধারন জনগন সাধারনই আছে আর সাধারনের বাহিরে যেতে পারেনা।
    আমি নিজেই অনেক ভিতু।
    শাকিল আরেফিন ভাই প্রথম আলোর ডাযলগ প্রথম আলোরে ফিরিয়ে দিন, এখানে এটা ব্যবহার করলে মনে হয় রাজনিতিতে নামার ইঙ্গিত দিচ্ছে। সব যায়গায় সব প্রবাত সমান মানে রাখেনা।
    সাধারনেরা সাধারন এটা সাধারনদের একটা বৈশিস্ট, r……

not a good idea-“শিক্ষাঙ্গনে আর্মি ক্যাম্প দিতে হবে যাতে সম্পূর্ন হানাহানিমুক্ত শীক্ষার পরিবেশ বজায় থাকে।”, better to ban students’ politics..

    ভাই কখনই রাজনীতি থেকে চাত্র রাজনীতি বন্ধ হবে না কেননা রাজনৈতিক দলের প্রধান শক্তি হচ্ছে ছাত্র রাজনীতি। আমি কেবলমাত্র সুস্থধারার ছাত্র রাজনীতির জন্যই বিশ্ববিদ্যালয়ে আর্মি ক্যাম্পের কথা বলেছিলাম। ধন্যবাদ……………

দারুন লিখেছেন। ফিল করি কিন্তু মুখে আসেনা। আপনার টিউনটি পরে মনটা খারাপ হয়ে গেল, যা ভুলে থাকতে চাই তাই মনে করিয়ে দিলেন।
সবকিছু মিলিয়ে পজিটিভ কিছু ভাবতে গেলে টেনশন বেরে যায়, মাথায় অনেক চিন্তা ঘোরপাক করে। শেষমেশ কি? করার আছে কিছুই করার নেই, চলুক এভাবে, সব ভুলে থাকতে চেস্টা করি।
মিথ্যে হলেও সবকিছু ঠিক আছে ভাবতেই ভাল লাগে, ভাই “অল ইজ ওয়েল” “অল ইজ ওয়েল” ।

হাসিব ভাই দারুন বলেছেন… মনে হয় হাসিনা ম্যাডাম তার মৃত বাবার কমস থেয়ে রাজনীতি করছে, আর খালেদা ম্যাডাম তার মৃত স্বামীর কসম থেয়ে… এসব ভাবলেই মনে হয় ……………………………….. থাক আর বললাম না… 😛

    ভাইরে বাংলাদেশে কি গনতন্ত্র চলতাছে নাকি রাজতন্ত্র বুঝাই মুশকিল।

মেরা দেশকা ভারতি। আমাদের এখন থেকেই ভারতের জাতীয় সঙ্গীত প্রকটিস করা উচিত.। এ দেশ মনে হয় বেশিদিন দিকবনা ।

    Abdullah Sayed ভাই বুশ বলেন আর ওবামাই বলেন সবাই তাদের পররাস্ট্রনীতিতে অটল। অন্যদেশ থেকে সম্পদ লুটকরে আনে নিজের দেশের জন্য। আর বাঙ্গালীরা নিজের দেশের সম্পদ অন্যকে দেয় তার মানে নিজেই ভিক্ষা করে খায় আবার অন্যকেও ভিক্ষা দেয়। যা খুবই হাস্যকর লাগে।

বাঙালী যে সাহসী জাতী ……… মনে করিয়ে দেয়ার জন্যে হাসিবকে লাখো ধন্যবাদ

    ধন্যবাদ টিনটিন ভাই আপনার সমর্থনের জন্য।

সুন্দর বলেছেন হাসিব ভাই । গত ১৮.০২.২০১০ তারিখে বি সি এস ডিজিটাল এক্সপো খুলনা ২০১০ এ আয়োজিত একটি সেমিনারে যোগদান করেছিলাম । সেমিনারে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মোস্তফা জব্বার আমাদের সামনে ২ টি বিদেশী প্রতিবেদন তুলে ধরেন । একটি দক্ষিন কোরিয়ার এবং আরেকটি সিঙ্গাপুরের । প্রতিবেদন ২ টি দেখার পর সত্যিই খুব খারাপ লাগলো । কারণ যেখানে ২০১৫ সালে তারা যতো এগিয়ে যাবে সেখানে বাংলাদেশ সরকার ঘোষিত ২০২১ সালের বাংলাদেশ কোথায় দাড়াবে, একটু ভাবুন তো?

বাংলাদেশে রয়েছে কিছু সা‍‌থ্বন্বেষী মানুষ , যারা সুধুই সৃষ্টি করতে পারে অরাজকতা , সহ্য করতে পারে না কোনো পরিবর্তন । সর্বদা উচ্চমর্গীয় ও সুশীল বাক্যে বিতর্ক তথাকথিত ঝগড়া করতে অভ্যস্ত । যারা আপন দেশের কথা ভুলে সামান্য বিষয় নিয়ে লিপ্ত হয় দন্দ -সংঘাতের মত হিংস্র কার্যকলাপে ।
আমরা কি এতটুকু সহনশীল হতে পারিনা ?

    সম্পূর্নভাবে একমত

    সা‍‌থ্বন্বেষী মানুষের সংখ্যা কিন্তু বেশি না। তারা নিজেদের স্বার্থে আমাদের ব্যবহার করে।
    কখন কিভাবে আমাদের ব্যবহার করা হয় তা আমরা নিজেরাই জানিনা।
    —-তারা সবকিছুর উর্ধে—- অপরিবর্তনশিল। খেলারি no 1.
    তাই তাদের কাছে কিছুই আশাকরে লাভ নেই…………

___হাসিব ভাই একটা অনুরোধ এরপর এই ধরনের পোস্ট আর দিয়েন না, উত্তর না দিয়ে পারা যায় না।
কিছু মনে করবেন না, এ ধরনের লেখা পরলে মন খারাপ হয়ে যায়। এর আগে somewhereinblog এ ডু মারতাম কিন্তু কিবোর্ডের বাটন ভেঙ্গে লাভ নাই। তাই এখন শুধু টেকিতে। আবার যেন…

নাম চেঞ্জ করো মিয়া। ভালা লিখসো।

হাসিব ভাই ধন্যবাদ আপনার সুন্দর লেখার জন্য . আপনি যে ভাবে বাংলাদেশের সবজায়গায় আর্মি সেট করতে বলসেন তাতেতো সেনানিবাসে একটা লোক ও থাকবেনা . আর আমার মতো লোকের কষ্ট অনেকগুন বেরে জাবে . দয়াকরে এই প্রস্তাবটা আর কোনো জায়গায় দেয়েন্না .

    rajon530 ভাই আসলে বাংলাদেশের মানুষ যদি একটু সুশৃঙ্খল জাতি হত তাহলে অনেক আগেই মধ্য আয়ের দেশ হতে পারত। আমরা বাংলাদেশকে সুখী এবং সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে দেখতে চাই। চাই অন্যান্য জাতীর মানুষের পাশাপাশি মাথা উচু করে বলতে আমরাও পারি নিজেদের দেশকে উন্নত জাতী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে। ভাই আসলে সুখ যেন একটা সোনার হরিন যাকে কখনই হাতের নাগালে পাওয়া যায় না। সবাই কোন না কোন দিক দিয়ে অসুখী। ভুল হলে ক্ষমা করবেন। ধন্যবাদ……………………….

গত কয়েকদিনের সংসদ দেখছেন ভাই ? দুই দল খালি ঝগড়া করে ……আওয়ামী লীগ বলে জিয়া ছিল সৈরশাসক ……আর বি এন পি কয় আওয়ামী লীগ চোর,,,,,,,,এই নিয়ে লেগে যায় তুমুল ঝগড়া ……..আমরা এদের ভোট দেই………..সংসদে গিয়া আমগো কথা কওয়ার লিগা……হেরা গিয়া নিজেগো নিয়া ঝগড়া করে যেন সংসদ তৈরী হইছে খালি ঝগড়া করনের লিগা …….ঝগড়া করণ ছাড়া এগো কোনো কম নাইক্কা……..কি আর কমু ভাই কান্দন ও আহে ….হাসিও আহে এগো কাম কারবার দেইখা………..

Level New

১০০% হাসিব ভাইয়ের সাথে একমত। আমরা প্রতিটা মানুষ বৃহত্তর স্বার্থ ত্যাগ করে নিজ স্বার্থ নিয়ে ব্যস্ত যারজন্য আমরা বিদেশী রাষ্ট্রের কাছে পদস্তলন। একটি রাষ্ট্রের প্রধানকে একটি পরিবার এর আর্দশ পিতা/মাতা হতে হবে যে পিতা/মাতা নিজের ক্ষুদ্রস্বার্থ ত্যাগ করে সম্পূর্ণ পরিবার এর স্বার্থ মাথায় রেখে কাজ করতে হবে। তাহলেইত এই পরিবার এর সন্তানেরা অধর্দশ শিক্ষায় শিক্ষিত হবে। আর যেখানে একটি পরিবার অথবা রাষ্ট্রের প্রধান নিজ স্বার্থ নিয়ে ব্যাস্ত থাকে তাহলে এ প্রধান হয় চোর না হয় ডাকাত হবে আর এই ধারাবাহিকতা তারদেশ অথবা পরিবারের সন্তানদের উপর প্রভাব ফেলবে ১০০% । আমার মোট কথা হচ্চে “পরিবার এর প্রধান যে দিকে তার সন্তান সেই দিকে একই ভাবে রাষ্ট্রের প্রধান যেই দিকে তার দেশের জনগণও সেই দিকে”। এই অবস্থা যদি হয় একটি পরিবার অথবা রাষ্ট্রের তাহলে গঠন স্বপ্নের বিষয় হতে পারে তবে ধ্বংস অতিদিকটে। তাই কোন পরিবার/দেশ গঠন করতে হলে এই গঠনের পিছনের প্রধানকে এগিয়ে আসতে হবে তাহলেইত সন্তান/দেশের জনগণ এগিয়ে আসবে। ( আমি আমাদের দেশের রাজন্যৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে এটি ফিলমের কাহিনী লিখেছিলাম। কিন্তু চলচিত্র আকারে প্রকাশ করলে আমার মনে হয় আমার উপর রাষ্ট্র্রদ্রুহী মামলাও রূপনিতে পারে পরিবার থেকেও বহিঃস্কৃত হতে পারি। তাই মনে অনেক ভয়। সুযোগ পয়ে আনেক লম্বা লেকচার দিয়ে দিলাম যারজন্য আন্তরিক ভাবে দুঃখিত।

    ১০০% সত্য কথা, কখনই সত্য কথা বলতে পিছ পা হতে নেই।