ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

ডিজিটাল বাংলাদেশের জন্য পেপাল এর গুরুত্ব কতখানি?

আমাদের বর্তমান বাংলাদেশ "ডিজিটাল বাংলাদেশ"। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসেই তিনি এই বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তুলবে বলে আক্ষ্যায়িত করেছেন। অবশ্য তিনি ইতিমধ্যেই অনেক ইতিবাচক পদক্ষেপও নিয়েছেন ইতিমধ্যেই এবং আমরা স্বপ্নও দেখতে শুরু করে দিয়েছি যে আমাদের বাংলাদেশ "ডিজিটাল বাংলাদেশ"। বর্তমান বাংলাদেশ সরকার যেমন নতুন নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে আমাদের দেশকে "ডিজিটাল" করে গড়ে তোলার জন্য তেমনি কিন্তু আরো কিছু বিষয় তিনি ভুলে হোক আর না ভুলেই হোক তিনি পদক্ষেপ নেননি।

ADs by Techtunes ADs

PayPal for Bangladesh

এর মধ্যে একটি হচ্ছে পৃথিবীর সবচেয়ে দ্রুততম এবং সহজ ও নিরাপদ টাকা এবং অনলাইনে কেনাকাটার নির্ভরযোগ্য মাধ্যম পেপাল সিষ্টেম। দুঃখের বিষয় হচ্ছে বর্তমান সময়ে পৃথিবীর প্রায় সকল দেশেই পেপালের সাপোর্ট রয়েছে কিন্তু বাংলাদেশ এই সময়ের এমনই একটি দেশ যেখানে পেপাল সাপোর্ট করে না। এটা আমাদের একটি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং কষ্টের একটা ব্যাপার। আজকে যদি আমাদের দেশে পেপাল এর ব্যবস্থা থাকতো তাহলে আমরা ঘরে বসেই পেয়ে যেতাম আমাদের প্রয়োজনীয় এবং কাংখিত সকল কিছু।

বর্তমান যুগ অনলাইন এবং ওয়েবের যুগ। এখন একটা মানুষের বেঁচে থাকার যা প্রয়োজন এবং যা না প্রয়োজন তার সবকিছুই অনলাইনে পাওয়া যায় এবং খুব সহজেই কেনার ব্যবস্থাও রয়েছে। আর পেপালের মাধ্যমে এই সকল কিছু সকলেই কিনতে পারে অনায়াসে। যার ফলে একজন ব্যক্তিকে ব্যাংকে বা দোকানে গিয়ে টাকা পরিশোধ করতে হয় না। এখনকার সকল ওয়েবসাইটেই পেপালের মাধ্যমে কেনাকাটা করতে হয়।

কিন্তু হাঁয়। আমাদের দেশে পেপাল সুবিধা না থাকার কারণে অনেকেই অনেক ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। যেমন ধরেন বর্তমান সময়ের ফ্রীল্যান্সারদের কথাই আগে বলি। কারণ, আমার মনে হয় যে বর্তমান সময়ে ফ্রীল্যান্সাররাই সবচেয়ে বেশী ভোগান্তির শিকারে পরছে। ফ্রীল্যান্সিংয়ে বর্তমান বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গিয়েছে এবং দেশের এই খাতটি সরকারের কোন প্রকারের পৃষ্টপোষকতা ছাড়াই এতদূর সাফাল্য পেয়েছে। কিন্তু এই সাফাল্যের ধারা আমার মনে হয় যে আর বেশীদিন বজায় থাকবে না।

কারণ, ফ্রীল্যান্সারেরা রাতের পর রাত জেগে তারা অনলাইনে ডলার কামাই করতেছে এবং শেষ পর্যন্ত দেখা যায় কি যে এই ডলার কে দেশে বা ফ্রীল্যান্সিংয়ে কামাইকৃত অর্থ দেশে তুলতে তাদের অসংখ্য ভোগান্তির শিকার হয়ে হচ্ছে। আর যদিও বা টাকা পেওনার ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে তোলা যায় কিন্তু তাতে অনেক চার্জ কেটে নেয় পেওনার এবং বাংলাদেশি ব্যাংকগুলো। যেখানে পেপালের চার্জ অনেক কম।

বাংলাদেশে মানিবুকার্স, এ্যালার্টপে এবং লিবার্টি রিজার্ভ এর মতো অন্যান্য টাকা আদান-প্রদানের মতো ওয়েবসাইটগুলোর সুবিধা থাকলেও তাদের সুবিধাগুলো পেপালের মতো নয়। ধরেন যে আপনি আপনার মানিবুকার্স এর এ্যাকাউন্ট থেকে আপনার ব্যাংক এর মাধ্যমে টাকা তোলার অর্ডার করেছেন। হ্যাঁ, সবকিছু ঠিকই আছে কিন্তু দেখবেন যে আপনার টাকা আসছে তো আসছেই। এখন কবে যে আসবে, কতো যে চার্জ কেটে নিবে আর কখনোই যে আপনি টাকা হাতে পাবেন এর কোন গ্যারান্টি নেই। আর এগুলো বেশীরভাগ ওয়েবসাইটেই সাপোর্ট করে না বা এগুলোর সুবিধা নেই।

আবার বর্তমানে বাংলাদেশ কিন্তু লেখাপড়ার দিক থেকেও অনেক উন্নতিসাধন করেছে। বর্তমানে আমাদের দেশে অনেক ধরণের লেখাপড়া হচ্ছে ব্রিটিশ কাউন্সেলের তত্বাবধায়নে। এখানে প্রত্যেক বছরই অনেক ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি হচ্ছে এবং রেজাল্টও কিন্তু অনেক ভালো করতেছে এবং এখানে লেখাপড়া শেষ করে কিন্তু অনেক ভালো চাকরীও করছে সবাই। কিন্তু যেহেতু এটি সম্পূর্ণ ব্রিটিশ কাউন্সেলের তত্বাবধায়নে পরিচালিত হয় তাই ছাত্র-ছাত্রীদেরকে টাকা পাঠাতে লন্ডনে।

আবার বর্তমান বাংলাদেশ ইন্টারনেটেও কিন্তু অনেক এগিয়ে গেছে। অনেকেই আজকাল অনেক বড়বড় ওয়েব হোষ্টিং এবং ডোমেইন ওয়েবসাইট থেকে রিসেলার কিনে ব্যবসা করতেছে। কিন্তু তাদের ক্ষেত্রেও দেখেন যে একি সমস্যা। তাদের ওয়েবসাইট কোম্পানিগুলোকে মাসে মাসে টাকা পরিশোধ করতে কত ভোগান্তিই না পোঁহাতে হচ্ছে।

আর আমাদের দেশে কোন ভাবেই বা কোন ব্যাংকের সিষ্টেমেও দেশের বাইরে টাকা পাঠানো যায় না। যায়, শুধুমাত্র যাদের ক্রেডিট কার্ড আছে। আর আমাদের দেশের অনেকেই এখন পর্যন্ত বোঁঝে না যে কোনটা ডেবিট কার্ড আর কোনটা ক্রেডিট কার্ড। এতে করে দেখা যায় যে, যে সকল প্রতিষ্ঠান থেকে ছাত্র-ছাত্রী টাকা পাঠায় সেসকল প্রতিষ্ঠান তাদের কাছ থেকে অনেক বেশী চার্জ কেটে নেয়। আবার ছাত্র-ছাত্রীরা তেমন ভরসাও কিন্তু পায় না।

ADs by Techtunes ADs

আবার দেখা যাচ্ছে যে, একজন ব্যবসায়ীর বা একজন সাধারন কোন ব্যক্তির হঠাৎ করে কোন সরকারী ছুটির দিনে অন্যকাউকে বা ব্যবসায়ীক লেনদেন করার অনেক প্রয়োজন পরে গেল। কিন্তু সেদিন সরকারী ছুটির দিন। সকল অফিস- আদালত বন্ধ। অথচ তার এই লেনদেন করাটা কিন্তু অনেক জরুরী। তা না হলে তার কিন্তু অনেক বড় ক্ষতিসাধন হয়ে যাবে। এইধরণের সমস্যায় কেউ পড়বেনা যদি পেপাল বাংলাদেশে থাকতো। কারণ, পেপালে শুধুমাত্র আপনার মাউসের একটি ক্লিকেই টাকা পাঠাতে পারবেন কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই।

আসলে কি আর বলবো বলেন? আমাদের বাংলাদেশে বর্তমানে ই-কমার্স ব্যবস্থারই এখন পর্যন্ত খুব একটা উন্নতি হয়নি। তাহলে সেখানে পেপাল আসবে কেমন করে। যেখানে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ থেকে বাংলাদেশের কোন ব্যাংকে অনলাইনে এক এক্যাউন্ট থেকে অন্য এক এক্যাউন্টে টাকা পাঠানো যায় না সেখানে তো পেপাল শুধু স্বপ্নই। তাই না? বাংলাদেশে এখন ব্যক্তিগত এবং বিদেশী ব্যাংকের সংখ্যা অনেক। আর ঢাকা শহরেতো ব্যাংকগুলোর বুথ এখন গোলির মোড়ের চায়ের দোকানের মতোই ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।

বুথ গুলোর সকল যায়গাতেই লেখা দেখবেন যে অনলাইন ২৪ ঘন্টা অনলাইন ব্যাংকিং সেবা। অথচ সন্ধ্যার সময় যদি কোন সমস্যায় পড়েন তাহলেই আর কারো খোঁজ পাওয়া যাবে না। এই তো আমাদের দেশের অবস্থা। এককথায় আসলে এখানে পেপালের গুরুত্ব আমি আর বর্ণনা করে শেষ করতে পারবো না। পেপালের সুবিধা দিনদিন বেড়েই চলেছে।

আমাদের বর্তমান সময়ে বাংলাদেশে পেপাল না থাকার কারণে অনেক নতুন নতুন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও কিন্তু গড়ে উঠেছে। ধরুন পেপালবিডির কথাই বলি। তারা এই প্রতিষ্ঠানটি করে বেশ ভালোই করেছে। কিন্তু তারা অষ্ট্রেলিয়ান ডলারে লেনদেন করে। এজন্য চার্জ বেশি দিতে হয়। আবার তাদের সেখানে এ্যাকাউন্ট খোলার জন্য একটা বাৎসরিক চার্জ দিতে হয়। আবার তারা লেনদেনের টাকার অংকের পরিমাণের উপরে চার্জ কাটে। এতে করে দেখা যায় যে খাঁজ নার থেকে বাঁজনাই বেশি পড়ে গেছে।

আবার দেখা যায় অনেক ফ্রীল্যান্সারেরা বিদেশী কাউকে দিয়ে এ্যাকাউন্ট করিয়ে নেয় পেপালের বা অনলাইনে ভার্চুয়াল ক্রেডিট কার্ডের সাহায্যে পেপালের এ্যাকাউন্ট করে। কিন্তু দেখা যায় যে পেপাল কিছুদিন পরে তাদের এ্যাকাউন্টগুলো লিমিটেড করে দেয়। যার ফলে তাদের পেপাল এ্যাকাউন্টে থাকা টাকা আর অন্য কোথাও পাঠানো যায় না। এর ফলে অনেকেই তাদের কষ্টার্জিত টাকা গোচ্ছায় দিয়েছে।

আমি নিজেও এরকম অনেক ধরা খেয়েছি। আমার একটা এ্যাকাউন্টে $1400 ডলার ছিল এবং আমার সেই এ্যাকাউন্টটি লিমিটেড এখন পর্যন্ত হয়ে আছে। আমার আর একটা এ্যাকাউন্টে $120 ছিল এবং সেটাও এখন পর্যন্তও লিমিটেড হয়ে আছে। আবার এইমাত্র কিছুদিন আগে একটা এ্যাকাউন্টে $20 ধরা খাইলাম। এভাবে দেখেন যে আমি নিজেই কত টাকা ধরা খেয়ে বসে আছি।

তাই এইজন্যই এখন আমরা আমাদের বাংলাদেশ সরকারের কাছে দীর্ঘ আবদেন জানাচ্ছি যে অতিসত্বর যেন আমাদের দেশে পেপাল এর ব্যবস্থা চালু করা হয়। তাহলে আমাদের দেশের মানুষ অনেক সুবিধা পাবে এবং আমাদের দেশের বর্তমান ফ্রীল্যান্সার সহ আরো অনেকে অনলাইন ব্যবসার সংগে জড়িত সকলেই খুব সহজে লেনদেন করতে পারবে। তাহলে একভাবে যেমন আমাদের দেশের বেকার সমস্যা দূড় হয়ে যাবে অনলাইনের মাধ্যমে টাকা আয় করে তেমনি অন্যদিকে কিন্তু আমাদের দেশ প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রাও আয় করতে পারবে।

আবার বর্তমান বাংলাদেশ সত্যিই সত্যিই ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপ নেবে। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমাদের সকলের একান্ত আবেদন এই যে, খুব শীঘ্রই আমাদের দেশের জন্য পেপালের ব্যবস্থা করবেন।

লেখাটি এখানে প্রথম প্রকাশিত

ADs by Techtunes ADs

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি সুমন খান। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 30 টি টিউন ও 245 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

My Name Is "SuMoN". I'm Study in "Computer Science & Engineering". I Live in Dhanmondi, Dhaka, Bangladesh.


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

ধন্যবাদ আপনাকে ।

    আপনাকেও ধন্যবাদ।

    Level 0

    টিউনার Boss দের কাছে আবেদন আমার কিছু Liberty Reserve এর ডলার চাই । যদি আপনাদের কারও কাছে Liberty Reserve এর ডলার থাকে তা হলে আমার নিকট বিক্রয় করতে পারেন । প্রতি ডলারের দাম দিব ৮০/- টাকা করে ।
    যোগাযোগ করুনঃ- 01712843837

    বাবু,
    আপনাদ লিবার্ট রিজার্ভে ডলার লাগলে আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। আমার কাছে আছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশ!!!!!!!!!!!!!
বিদ্যুৎ থাকে না বেশির ভাগ সময়, ইন্টার্নেট স্পীড কম,ইন্টার্নেট চার্জ বেশি, লিমিটেড ব্যান্ডউইথ।
তারপর শুনলাম ব্যান্ডউইথ নাকি বেচবো!!!!!!!!

    ঠিকই বলেছেন ভাইয়া। আমাদের তো দুঃখের শেষ নেই। একটা শেষ না হতে হতেই আর একটা এসে হাজির হয়। মাঝে মধ্যে মনে হয় যে আমি যদি সরকার হতে পারতাম তাহলে আগে বাংলাদেশের এই সকল সমস্যা আগে দূর করতাম।

    Level New

    " মাঝে মধ্যে মনে হয় যে আমি যদি সরকার হতে পারতাম তাহলে আগে বাংলাদেশের এই সকল সমস্যা আগে দূর করতাম।"

    * কিছু উল্লেখ যোগ সমস্যার নাম লিখুন।
    * খেয়াল রাখবেন আর একটি টিউন জেন হয়ে না জায়।
    * এক কথায় বলতে পারেন – ( উল্লেখ যোগ সমস্যাই আমাদের দেশের কিছু রাজনিতিবিদারা )।
    * এবার কিছু সমাধান ব্যাক্ত করুন।

Level 0

ধন্যবাদ, ভাই আমরা পেপালের গুরুত্ব ঠিকই বুঝছি। কিন্তু যাদের জন্য এই লিখা তারা কিন্তু বুজেই বুঝে না। এ দু:খ রাখবো কোথায়??????? সরকার কানে তুলা দিয়ে বসে আছে।

    ঠিক তাই লাগতো।
    আপনিতো অনলাইনে ইনকাম করেন আমাকে যদি একটু সাহায্য করতেন!
    [email protected]

      আমি আপনাকে আমার গুগোল টকে যুক্ত করেছি।

    ঠিকই বলেছেন ভাইয়া। শুধু কানে তুলা না এখন তো মনে হচ্ছে চোখেও কালো চশমা দিয়ে বসে আছে হাত-পাঁ গুটিয়ে।

    ঠিক তাই।

    হুম!

    Level 0

    যদি পারতাম পেপালের ব্যাপার খানা সরকারকে গুলিয়ে খাওয়াতে কিংবা তাবিজ করে বোঝাতে তাহলে আমি অবশ্যই করতাম।

Level 2

পে-প্যাল এর পক্ষে একটা আবেদনমূলক প্রচারনা শুরু করা যায়না। আমাদের সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠান BASIS, যারা টিভি-মিডিয়াতে ফ্রীল্যান্সিংকে ভূয়সী প্রশংসা করে থাকে – এই প্রস্তাবটা তো সরকারকে দিতে পারে।

    ভাইয়া,
    আপনার মন্তব্যটি দেখতে পেয়ে অনেক খুশী লাগছে। হ্যাঁ, আমরা অবশ্যই পারি একটা আবেদনমূলক প্রচারণা চালাতে কিন্তু আমার মাথায় তো তেমন আইডিয়া আসছে না। আপনার মাথায় কি কোন আইডিয়া আছে? থাকলে আমাদের সবার সাথে শেয়ার করুন এবং আর কেউ না থাকুক আপনার পাশে আমি আছি। যে কোন ধরণের সাহায্য করতে আমি প্রস্তুত আছি। BASIS এর মাধ্যমে যদি একটা টিভিতে আবেদনমূলক বিজ্ঞাপন প্রচার করা যায় বাংলাদেশ সরকারের কাছে তাহলে মনে হয় অনেক ভালো হয়। এক্ষেত্রে যদি আমাদেরকে BASIS সাহায্য করে তাহলে সারাজীবন BASIS এর কাছে চিরকৃতজ্ঞ থাকবে সবাই।

    দেখেন যদি আমাদের জন্য কিছু করা যায় ভাইয়া। অপেক্ষায় রইলাম।

    Level 2

    BASIS এ আমি একটা আবেদন করেছি। দেখা যাক কি হয়।

    আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ভাইয়া। আমরাও তাহলে অপেক্ষায় আছি যে দেখাযাক তাহলে কি হয়। কি হয় সেটা কিন্তু অবশ্যই আমাদেরকে জানাবেন। আবার ভুলে যাবেন না যেন।

এবার অনেক আবেদন হচ্ছে দেখা যাক কি হয়……………….

    হ্যাঁ পন্ডিত মশাই। দেখা যাক কি হয় …

আমার মনে হয় না সরকারি মন্ত্রী-আমলারা কম্পিউটার, সফটওয়ার, অনলাইন, ফ্রিলান্সার, ই-কর্মাস, ওয়েবসাইট, ভার্টুয়াল ইত্যাদি বিষয়গুলো বুঝে। আমরা মনে করতে পারি ১৯৯৬ সালের কথা যখন আমাদের বঙ্গোপসাগর-এর পাশ দিয়ে সর্ববৃহৎ ফাইবার অপটিক লাইনটি গেল এবং তারা তৎকালিন সরকারকে বিনামূল্যে একটি লাইন দিতে চেয়েছিল শুধু ইনস্টলেশন চার্জ দিতে হত। তখনকার বিশেষ+অজ্ঞ সরকারি মন্ত্রী-আমলারা অত্যন্ত বিজ্ঞের (হবে অজ্ঞের) মত বলল যে আমরা এই লাইনের সাথে যুক্ত হলে আমাদের দেশের সকল গোপন তথ্য পাচার হয়ে যাবে, আমাদের জাতীয় নিরাপত্তা (?) বিঘ্নিত হবে। যে দেশে টাকা দিয়ে যে কোন কাজ, যে কোন তথ্য পাওয়া যায়, তাদের আবার গোপনীয়তা, তার আবার নিরাপত্তা। ঠিক সেই রকম অবস্থা বর্তমান সরকার-আমলাদের। আমাদের পাশের দেশে শুধুমাত্র এই আউটসোর্সিং, ই-কর্মাস ইত্যাদি থেকে যে আয় হয়ে থাকে তা আমাদের দেশের বাৎসরিক বাজেটের চেয়ে বেশি। কারণ ওরা জানে কখন কি করা লাগবে এবং সাথে সাথে তা করে ফেলে।

    অনেক গুরুত্বপূর্ণ কথা বলেছেন ভাইয়া। আমাদের সেই দুঃখ এখনও অনেকেই ভুলে যায় নি। এ কেমন দেশে বাঁস করছি এই যুগে? সত্যিই অনেক লজ্জাজনক ব্যাপার।

    Level 0

    1992

ধন্যবাদ সুমন ভাই।

Level New

ভাই,কোন দেশে পেপাল আসতে মিনিমাম ১ বছর লাগে……তা ও যদি আসার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। কিন্তু বাংলাদেশ র নেট স্পীড র যে অবস্থা ওরা ভুলে ও আসবে না। ওরা তো ৩জি ছাড়া আসবেই না।কারন, টাকা লেনদেন করার সময় নেট যাইব বিগড়াইয়া ,তখন কি হবে? আমার মেইল এ ওরা যে উত্তর দিসে তাতে আসার কোন সম্ভাবনাই দেখতাসি না। আর আমাদের পাশের ইন্ডিয়া তে তো ওরা লিমিটেড করে দিসে।

    ভাইয়া,
    লিমিটেড ও যদি থাকতো তাহলেও তো কিছুটা হতো। অন্তত বলতে তো পারতাম যে আমাদের বাংলাদেশে পেপাল আছে। আপনি কি আমাদের সবার সংগে শেয়ার করতে পারেন যে ওরা কি উত্তর দিয়েছে আপনাকে?

Level New

একটা বিষয় অনেকেই যানেনা। ধরুন আপনার ঘর এর দরজা বন্ধ করে যদি আপনি সারাদিন আপনার অতিথিদের দাওয়াতদেন কোন লাভ হবে কি? নেটলাইন এর ইস্পিড ৩জি , ৪জি এই সব অনেক পর এর বিষয়। বাংলাদেশে ১৯৪৭ সাল এর একটি বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় আইন আছে। সবার প্রথমে এই আইন পরিবর্তন করতে হবে। বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময় আইন পরিবর্তন না করে যতই চিল্লাপাল্লা করি কোন লাভ নেই।

    এই বিষয়টাতো জানা ছিল না আমার। আপনাকে অনেক ধন্যবাদ এই বিষয়টি জানানোর জন্য। আপনি ঠিকই বলেছেন যে আমাদের দেশ থেকে অন্য কোন দেশে টাকা পাঠানো যায় না। শুধু টাকা আসে।

ভাই কি বলব আর, যে দেশের সরকার eight আর intermediate পাস সেই দেশের সরকারের কাছে কিছু চাওয়া আর উলু বনে মুক্ত ছিটানে একই কথা। আর মন্ত্রিদের কথা বললাম না, সব খানকির পুত। খুব কস্টে আছি ভাই। paypal অনেক ধরা খাইছি। এই দেশে আর থাকার ইছা নাই। যে দেশে একজন engineer হিসেবে কোন দাম নাই সারকারের কাছে। ধন্যবাদ আপনাকে।

    আপনি ঠিকই বলেছেন ভাইয়া। আমিও তো অনেক ধরা খেয়ে বসে আছি পেপালে। আর কতো খাবো? সরকারকে যদি একবার কাছে পাইতাম রে …

limited korle kharap ki?

    লিমিটেড করলে আপনি আপনার পেপালের জমাকৃত টাকা অন্যকোন পেপালে পাঠাতে পারবেন না। এবং কোনকিছু কেনাকাটাও করতে পারবেন না। শুধুমাত্র আপনাকে আপনার একাউন্টের টাকা আপনার পেপালে যুক্তকৃত ক্রেডিট কার্ড বা ডেবিট কার্ড এবং ব্যাংকের মাধ্যমে উঠাতে পারবেন।

    nehiiiiiiiiiiiiiiiiiiiiii

sumon vai,
Nepal a amar ekta friend ase.amake se paypal account korar jonno help korte chaise.ami ekhon kivabe tar help nite pari.I mean kon system a ?

    আপনাকে একটা ব্যাংক এ্যাকাউন্ট এর সাথে আপনার পেপাল এ্যাকাউন্টটি যুক্ত করতে হবে এবং একটা ক্রেডিট কার্ডও যুক্ত করতে হবে পেপাল এ্যাকাউন্টটি ভেরিফাই করতে হবে। আর আপনি যখন ওই পেপাল এ্যাকাউন্টটিতে লগ-ইন করবেন তখন কিন্তু অবশ্যই ওই দেশের আইপি দিয়ে লগ-ইন করবেন। তা না হলে কিন্তু আপনার এ্যাকাউন্ট লিমিটেড করে দেবে পেপাল।

Level 0

ভাই, কি আর বলবো ! বাংলাদেশ এ নাকি চাকরির অভাব ! অথচ যদি freelancing এ আরও scope বাড়ত তাহলে চাকরির বাজারে এত দৌড়া দৌড়ী করতে হত না ! skill and commitment থাকলেও কিছু limitation এর কারনে আগাতে পারছি না ! GoDaddy থেকে ডোমেইন আর host কিনতে হবে ! কিন্তু উপায় নাই !
২ টা প্রশ্ন আপনার কাছে…
১। paypalbd.com কে কি trust করা যায়?
২। paypalbd থেকে payment করলে তো ওদের নাম আর অ্যাড্রেস চলে যাবে, কিন্তু অ্যাকাউন্ট (ex:godaddy) এ হয়তবা আমার নাম আর অ্যাড্রেস থাকবে, এতে কি কোন problem করবে ওরা? নাকি দুই জায়গাতেই একই নাম আর অ্যাড্রেস থাকতে হবে?
ধন্যবাদ ।

    আপনি ঠিকই বলেছেন। বাংলাদেশ সরকারের মাথায় যে কি আছে আর কি বুদ্ধি নিয়ে যে দেশ চালায় সেটা বোঝা বড়ই দায়।

    ১. পেপাল বিডি হচ্ছে দিনে দুপুরে ডাকাতি করার মতো একটা যায়গা। আমার সেখানে বিজনেস এ্যাকাউন্ট আছে। আমি মাসে ১০০০ ডলারের মতো ট্রাঞ্জেকশন করতে হয়। এই জন্য আমি ওদের ওখানে এ্যাকাউন্ট খুলেছি। কিন্তু ওদের ব্যবহার একদমই ভালো নয়। আমাদেরকে মনে হয় মানুষই মনে করে না। তাই আর একদিন গিয়ে জ্ঞানজাম লাগিয়ে এসেছি ওদের সাথে।

    আপনার প্রত্যেক ট্রাঞ্জেকশনের ৫% টাকা পেপালবিডিকে দিতে হবে। তারপর ওরা ডলারের দাম রাখে এখন ৭৮.৫০ টাকা করে যেটা কিনা বর্তমান বাজারের থেকে অনেক বেশী। আর ওদের সার্ভিস অনেক খারাপ। তাই আমি আপনাকে ওদের কাছে না যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছি।

    ২. পেপালবিডি থেকে গোড্যাডিতে পেমেন্ট করলে আমার জানা মতে কোন সমস্যা হওয়ার কথা হয় না এবং সমস্যা হবেও না আশাকরি। দুটো যায়গাতেই নাম এবং অন্যান্য কিছুর মিল না থাকলে কোন সমস্যা হবে না।

    আশাকরি আপনি আপনার সমস্যার উত্তর পেয়ে গেছেন। আর আপনার যদি আরো কিছু জানার থাকে তাহলে আমার ব্লগে গিয়ে লিখে আসুন। আমি টেকটিউনসে সব সময় থাকি না।

    http://www.technology.net.bd

    Level 0

    ধন্যবাদ আপনাকে !

    paypalbd ছাড়া আপনার জানা মতে আরও কি company আছে যারা এই ধরনের সার্ভিস দিচ্ছে?

    পেপাল বিডি ছাড়া বাংলাদেশে এধরণের আর অন্যকোন প্রতিষ্ঠান এধরণের সুবিধা দিয়ে থাকে না। তবে ইদানিং অনেকেই পেপালের ডলার বিক্রয় করে থাকে। আমি নিজেই করে থাকি। তবে আমার কাছে এই মূহুর্তে নেই। আর আপনি ডোমেইন বা হোষ্টিং কেনার জন্য মানিবুকার্স ব্যবহার করতে পারবেন। গোড্যাডি বাদ দিয়ে অন্য কোন কোম্পানি থেকে ডোমেইন এবং হোষ্টিং কিনুন। গোড্যাডি থেকে কিনলে পরবর্তিতে ধরা খাবেন।

    Level 0

    আসলে godaddy থেকে কিছু expired হওয়া page ranked ডোমেইন auction এ কিনতে চাচ্ছি । খুব দরকার ।

    Level 0

    @shanon: paypalbd.com আমার মামার সাইট। অনেক বছর ধরে কাজ করছেন। আমি গ্যারান্টি দিতে পারি যে এটা ভালো সাইট