জনপ্রিয় ওয়েবসাইট [পর্ব-০২] :: বিশ্বের বহুল ব্যবহৃত ৫ টি ওয়েবসাইট

Level 6
এইচএসসি ২য় বর্ষ, জুমারবাড়ী আর্দশ ডিগ্রি কলেজ, গাইবান্ধা

বন্ধুরা আশা করি আল্লাহর রহমতে সকলে ভালো আছেন। আমিও আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি। দৈনন্দিন কাজের তাগিদে আমাদের অনেক ওয়েবসাইটে ভিজিট করার প্রয়োজন পড়ে। তবে বিশ্বের বহুল ব্যবহৃত ওয়েবসাইটগুলো কোনটি সেটি জানা নাও হতে পারে। তাই আজকে আমি আপনাদেরকে বিশ্বের বহুল ব্যবহৃত কয়েকটি ওয়েবসাইট সম্পর্কে অবগত করব।

গত পর্বে আমরা আলোচনা করেছিলাম, "পৃথিবীতে জনপ্রিয় প্রথম সারির ৫টি ওয়েবসাইট" সম্পর্কে। সে পর্বে আমরা আলোচনা করেছিলাম Google, YouTube, Facebook, Baidu, Wikipedia সম্পর্কে। এই পাঁচটি ওয়েবসাইটই ছিল বিশ্বের প্রথম সারির ওয়েবসাইট। তাই এ পর্বে তারপরের কয়েকটি ওয়েবসাইট সম্পর্কে আলোচনা করব।

1. Yahoo (ইয়াহু)

yahoo

ইয়াহু ইন্টারনেট ভিত্তিক এক বৃহৎ প্রযুক্তি  প্রতিষ্ঠান। ইয়াহু প্রতিষ্ঠা করেন ডেভিড ফিলো ও জেরি ইয়াং ইয়াহু। ইয়াহু একটি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান। এর রয়েছে Search engine, yahoo dictionary, yahoo mail, yahoo news, advertisement, online map, yahoo video, social media সেবা ইত্যাদি।

2. Google India (গুগল ইন্ডিয়া)

Google.com.in

Google.com.in মূলত গুগলের একটি ডোমেইন। কোন একটি ওয়েবসাইট পরিচালনার জন্য একটি ডোমেইন রেজিষ্ট্রেশন করতে হয়। যেমনঃ http://www.google.com একটি ডোমেইন। এই ডোমেইনটি দিয়ে গুগল পুরো পৃথিবীতেই তাদের ওয়েবসাইট পরিচালনা করতে পারে। তবে সেই কোম্পানিটি যদি অনেক বড় হয়ে যায় তবে তাকে প্রত্যেকটা দেশে ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য সেই দেশের কান্ট্রি ডোমেইন রেজিস্ট্রি করতে হয়। ঠিক তেমনি ভাবে গুগল ইন্ডিয়া থেকে ব্যবসা পরিচালনা করার জন্য.in ডোমেইন কিনে রেখেছে।

আমরা যখন বাংলাদেশ থেকে গুগল এ কিছু সার্চ করি, তখন সেটি google.com.bd ডোমেইন থেকে অনুসন্ধান হয়। ঠিক একই ভাবে এই ভারত থেকে যারা সার্চ করে তাদের ক্ষেত্রে.in থেকে অনুসন্ধান হয়। সে কারণেই মূলত google.com.in বিশ্বের সপ্তম বৃহত্তম ওয়েবসাইট। কেননা ভারতের জনসংখ্যা এবং গুগল এ সার্চ এর পরিমাণ অনেক বেশি।

এখন আপনার মনে হতে পারে তাহলে চীনে তো জনসংখ্যা বেশি, তাহলে সেখান থেকে বেশি ট্রাফিক আসার কথা। এক্ষেত্রে আপনাকে বলে রাখি গুগলের কোন পরিষেবা চীনে ব্যবহার হয় না। চীন তাদের নিজেদের তৈরি সার্চ ইঞ্জিন দ্বারা সকল বিষয়ে অনুসন্ধান করে থাকে। যে কারণে চীনের তৈরি সার্চ ইঞ্জিন Baidu বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম ওয়েবসাইট।

3. Reddit (রেডিট)

raddit

রেডিট একটি সামাজিক নেটওয়ার্ক সংহতি, ওয়েব বিষয়বস্তু এর রেটিং ওয়েবসাইট। এ প্লাটফর্মে নিবন্ধিত সদস্যগণ বিভিন্ন কন্টেন্ট যেমনঃ ছবি, লিংক, এবং লেখা জমা দিতে পারে। সেসব কন্টেন্ট অন্য রেডিট ব্যবহারকারীদের ভোটে উপরে এবং নিচে ওঠানামা করে। সবচাইতে বেশী ভোট পাওয়া পোস্টগুলো ওপরের দিকে জায়গা করে যায় এবং যদি যথেষ্ট পরিমাণ ভোট পায় তবে শেষ পর্যন্ত সাইটের প্রথম পাতায় জায়গা করে নেয়।

4. Amazon (অ্যামাজন)

Amazon

অ্যামাজন একটি অনলাইন ই কমার্স ওয়েবসাইট। অ্যামাজন 5 ই জুলাই 1994 সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। যেটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইন্টারনেট ভিত্তিক খুচরা বিক্রেতা বইয়ের দোকান হিসেবে কার্যক্রম শুরু করে। কিন্তু খুব শিগগিরই জনপ্রিয়তা পায় এবং এটি বৈচিত্রপূর্ণ ডিভিডি, ভিএইচএস, সিডি, সফটওয়্যার, ভিডিও গেম, ইলেকট্রনিক্স, পোশাক, আসবাবপত্র, খাবার, খেলনা, এবং গহণা সামগ্রী বিক্রয় করতে থাকে।

বর্তমানে আমাজন বিশ্বের এক নম্বর ই-কমার্স ওয়েবসাইট এবং এর প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস বিশ্বের প্রথম ধনী ব্যক্তি।

5. Twitter (টুইটার)

Twitter

টুইটার বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। টুইটার ২০০৬ সালের মার্চ মাসে যাত্রা শুরু করে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করেন ২০০৬ এর জুলাই মাসে। বর্তমানে টুইটার সারা বিশ্বজুড়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

টুইটার আন্তঃযোগাযোগ ব্যবস্থার জন্য একটি ওয়েবসাইট, যেখানে ব্যবহারকারীরা সর্বোচ্চ ২৮০ অক্ষরের বার্তা আদান-প্রদান এবং প্রকাশ করতে পারে। টুইটারে এ বার্তা প্রকাশকে টুইট বলা হয়। টুইটারে লেখার জন্য ব্যবহারকারীরা সরাসরি টুইটার ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারেন অথবা মোবাইল ব্যবহার করেও টুইট লেখার সুযোগ রয়েছে।

বন্ধুরা এই ছিল আজকের টিউন। আশা করি টিউনটি আপনাদের কাছে অনেক ভালো লেগেছে। সম্পূর্ণ টিউনটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ। দেখা হবে পরবর্তী টিউনে ইনশাআল্লাহ।

Level 6

আমি আতিকুর ইসলাম। এইচএসসি ২য় বর্ষ, জুমারবাড়ী আর্দশ ডিগ্রি কলেজ, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 5 মাস 1 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 100 টি টিউন ও 49 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 12 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।

মানুষ পৃথিবীতে জন্মগ্রহণ করে। তারপর কিছুদিন সুখ-দুঃখ ভোগ করে। তারপর মৃত্যুবরণ করে। এটাই মানুষের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস। আমিও সেরকম একজন


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

প্রিয় ট্রাসটেড টিউনার,

আপনার টিউনটি ‘টেকটিউনস ক্যাশ’ এর জন্য প্রসেস হতে পারছে না।

কারণ:

আপনি ভুল ভাবে আপনার চেইন টিউনের শিরোনাম গুলো দিচ্ছেন।

করনীয়:

আপনি পর্ব হিসেবে টিউনের শিরোনাম গুলো –

চেইন টিউনের নাম [পর্ব-০১] :: চেইন টিউনের ভিতরের বিষয়বস্তু …

চেইন টিউনের নাম [পর্ব-০২] :: চেইন টিউনের ভিতরের বিষয়বস্তু ….

চেইন টিউনের নাম [পর্ব-০৩] :: চেইন টিউনের ভিতরের বিষয়বস্তু

এর অর্থ প্রথমে চেইন টিউনের নাম, এরপর (স্পেস দিয়ে) স্কয়ার ব্রাকেটের ( [ ] ) মধ্যে পর্ব হাইফেন (-) দিয়ে দুই সংখ্যায় পর্বের নম্বর। স্কয়ার ব্রাকেটের ( [ ] ) ভিতরে কোন স্পেস দিবেন না। এরপর (স্পেস দিয়ে) ডাবল কোলন (::) এর পরে (স্পেস দিয়ে) চেইন টিউনের ভিতরের বিষয়বস্তু। এই ফরমেটে চেইন টিউনের শিরোনাম গুলো লিখুন।

এই চেইনের পূর্বের পর্ব গুলোর শিরোনাম গুলোও যদি ‘টেকটিউনস চেইন টিউনের’ শিরোনাম মোতাবেক করা না থাকে তবে সব গুলো এখনই সংশোধন করুন ও পরবর্তী সকল চেইন টিউনে সঠিক ভাবে চেইন টিউনের শিরোনাম দিন।

টিউনের শিরোনাম গুলো ‘টেকটিউনস চেইন টিউনের’ শিরোনাম মোতাবেক সঠিক ভাবে সংশোধন করে আপডেট করে এই টিউমেন্টটির প্রতুত্তর (রিপ্লাই) দিন। আপনি টেকটিউনস টিউন গাইলাইন এর নিয়ম মেনে চেইন টিউনের ৫টি পর্ব প্রকাশ করলে টেকটিউনস থেকে আপনার টিউন গুলো চেইন করে দেওয়া হবে।

চেইন টিউন কীভাবে প্রক্রিয়া হয় তা জানতে ‘টেকটিউনস সজিপ্র’ https://www.techtunes.co/faq এর ‘চেইন টিউন’ অংশ দেখুন। ধন্যবাদ।

উপরের নির্দেশিত সংশোধন করে এই টিউমেন্টের রিপ্লাই দিন।