ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

ফার্মওয়্যার, ড্রাইভার, এবং সফটওয়্যারের মধ্যে পার্থক্য কী? – বিস্তারিত

আসসালামু আলাইকুম

ADs by Techtunes ADs

কেমন আছেন সবাই? অনেক দিন ধরেই ’অ্যান্ড্রয়েড HD গেম’ নামের একটা টেইন টিউন করছি তারপর আবার এস.এস.সি পরীক্ষা। অন্য বিষয় নিয়ে টিউন করার সময় পাই না। আজকে একটু সময় হলো তাই চলে এলাম নতুন একটা বিষয়ে নিয়ে টিউন করতে। রবিবার গনিত পরীক্ষা। গনিতের সিলেবাস আগে থেকেই শেষ আর আমি এই বিষয়টা মোটামুটি ভালোই পারি। যাই হোক, আজকে টিউন করব ফার্মওয়্যার, ড্রাইভার, এবং সফটওয়্যারের মধ্যে পার্থক্য নিয়ে। বিষয় অনেকেই জানেন তবুও আমি একটু খোলসা কর বলি। তাহলে চলুন শুরু করা যাক…

ফার্মওয়্যার, ড্রাইভার, এবং সফটওয়্যারের মধ্যে পার্থক্য কী?
ফার্মওয়্যার, ড্রাইভার, এবং সফটওয়্যারের মধ্যে পার্থক্য কী?

সংক্ষিপ্তঃ ফার্মওয়্যার, ড্রাইভার, এবং সফ্টওয়্যারের মধ্যে প্রধান পার্থক্য হল তাদের ডিজাইন পারপোস। ফার্মওয়্যার হল একটি প্রোগ্রাম যেটা ডিভাইসের হার্ডওয়্যারকে জীবন দান করে। ড্রাইভার অপারেটিং সিস্টেম এবং হার্ডওয়্যার কম্পোনেন্ট মধ্যের পরিবাহক (middle man) হিসেবে কাজ করে আর সফটওয়্যার সম্ভাব্য সর্বোত্তম উপায়ে হার্ডওয়্যার ব্যবহারযোগ্য করে তোলে।

এটা কোন ব্যাপার না যে আমরা কি অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করছি, সেটা উইন্ডোজ, লিনাক্স বা অন্যান্য হতে পারে। এতে আমরা অনেক কিছুই ইনস্টল করি যা আমরা সফটওয়্যার, ড্রাইভার, এবং ফার্মওয়্যার মধ্যে শ্রেণীবিভাগ করি। কিন্তু একটি ড্রাইভার, সফ্টওয়্যার, এবং ফার্মওয়্যার মধ্যে পার্থক্য কি?

যদি আমরা তাদের sour সম্পর্কে কথা বলি, তাহলে তারা একই, কম্পিউটারের একটি একক বা প্রোগ্রামের একটি সংগ্রহ, মেশিনের কিছু কাজের সঙ্গে নির্ধারিত। কিন্তু তারা কাজ করে ঐ শ্রেণীগুলিতে যা আমরা তাদের দিয়ে করাই। আসলে তিনটাই প্রোগ্রাম। তাহলে আলোচনা শুরু করি?

ফার্মওয়্যার

MSI BIOS Setup
Credits-Tanvir Rana Rabbi

আপনি আপনার অপারেটিং সিস্টেমের সর্বশেষ সংস্করণ ব্যবহার করতে পারেন। এটা ভিজুয়ালি মর্মস্পর্শী এবং প্রতিক্রিয়াশীল হতে পারে। কিন্তু অপারেটিং সিস্টেম মুলত মৃত, এই ফার্মওয়্যার মেশিনকে জীবিত করে তোলে।

ফার্মওয়্যার একটি কম্পিউটার প্রোগ্রাম যা অপারেটিং সিস্টেমকে যেকোনো কিছু করতে সাহায্য করে। আমরা কম্পিউটার, মোবাইল ডিভাইস, রিমোট কন্ট্রোলার, গেমিং কনসোল, ইউএসবি ড্রাইভ, এবং বিভিন্ন এম্বেডেড সিস্টেম সহ অনেক ডিভাইসে ফার্মওয়্যার দেখতে পাই। এটা একটি non-volatile মেমরি চিপেও উপস্থিত থাকে এবং ফার্মওয়্যারের খুব কমই আপডেটের প্রয়োজন হয়।

ফার্মওয়্যার একটি ডিভাইস হার্ডওয়্যারকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য ডিজাইন করা হয়। একটি কম্পিউটার এর ক্ষেত্রে, আমরা এটাকে BIOS (Basic Input/Output System) অথবা UEFI (Unified Extensible Firmware Interface) বলি। কম্পিউটার চালু হওয়ার পর সর্বপ্রথম যেটা আসে সেটাকে BIOS বলে। এটা হার্ডওয়্যারের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করে এবং কোন প্রকার ত্রুটির থাকলে সেটা পরীক্ষা করে। BIOS-র বুট-লোডার নামক অন্য একটি প্রোগ্রাম আছে যেটা একটি হার্ড-ড্রাইভের ভিতরের অপারেটিং সিস্টেমকে জাগিয়ে তোলে এবং এটাকে random access memory (RAM) তে স্থাপন করে।

ড্রাইভার

ড্রাইভার
গাড়ি ড্রাইভার

একজন ড্রাইভার বা চালক কী কাজ করে? সে গাড়ী, বাইক, অথবা ট্রাক চালায় ! ঠিক একই ভাবে একটি ডিভাইস ড্রাইভার, কম্পিউটার এবং অন্যান্য ডিভাইসের কাজ করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে।

তার কাজই হল হার্ডওয়্যারকে চালানো। এটা হার্ডওয়্যারে চালানোর জন্য ডিজাইন করা হয়েছে, অর্থাৎ ড্রাইভার হার্ডওয়্যার এবং অপারেটিং সিস্টেমের মধ্যে মধ্যস্থতাকারী হিসেবে কাজ করে।

ADs by Techtunes ADs

একটা অপারেটিং সিস্টেমে, একটা মেশিনের সব হার্ডওয়্যারের সমর্থন দিয়ে আসে না। উদাহরণস্বরূপ আপনি আপনার কম্পিউটারে গ্রাফিক্স বাড়ানোর জন্য গ্রাফিক্স কার্ড ইনস্টল করতে পারেন।

বিভিন্ন কোম্পানি এটা তৈরি করে এবং অপারেটিং সিস্টেম কাস্টমাইজড equipment দরকার - কম্পানিরা হার্ডওয়্যার নিজেদের প্রস্তুতকারকদের দ্বারা ডিজাইন করে এবং এর ড্রাইভার তৈরি করে - এই হার্ডওয়্যার উপাদান অ্যাক্সেস করতে এই ড্রাইভার দরকার হয়।

প্রতিটি ড্রাইভার একটি ডিভাইসের বিশেষ বা এক গুচ্ছ কাজ করার উদ্দেশ্যে থাকে। আপনার কম্পিউটারে, ড্রাইভার ডিভাইস সাথে যোগাযোগ করার জন্য এগুলো বিভিন্ন বাস ইন্টারফেস ব্যবহার করে।

উদাহরণস্বরূপ, PCI Express. এটা জিপিইউ, ওয়্যারলেস অ্যাডাপ্টারের, এবং অডিও কার্ডের মত হার্ডওয়্যার উপাদান সংযোগ করতে ব্যবহৃত হয়। এছাড়াও, প্রতিটি ড্রাইভার, ব্যবহারকারীর সাথে যোগাযোগ করার জন্য ডিজাইন করা হয় নাই।

অনেক ড্রাইভার নামহীনভাবে নিম্ন স্তরে তাদের কাজ চালিয়ে যেতে, ব্যবহারকারীরা সেটা জানেই না।

ড্রাইভার ডেভেলপমেন্ট অনেক যত্ন সহকারে করতে হয় কারণ এটা সরাসরি হার্ডওয়্যার সঙ্গে সংযুক্ত। যদি কোনো সময় ডিভাইস ড্রাইভার ডেবেলপমেন্টে গড়বড় হয়, তাহলে সিস্টেম ক্র্যাশ করতে পারে।

এজন্যই একজন যোগ্যতাসম্পন্ন ব্যক্তি দিয়েই একটি ডিভাইসের জন্য ড্রাইভার সফ্টওয়্যার লেখা হয়।

উইন্ডোজ ৮ সংস্করণের পরে থেকে, মাইক্রোসফট; ড্রাইভারের নির্ভরতা কমানোর চেষ্টা করছে। তারা কিছু ইউনিভার্সাল ডিভাইস ড্রাইভার প্রি-ইনস্টল করে দিচ্ছে যা একই ধরনের বিভিন্ন কাজ করতে পারে।

সফটওয়্যার

সফটওয়্যার
সফটওয়্যার

সফটওয়্যার হিসেবে যেগুলো বাঁধা সেগুলো শারীরিকভাবে উপস্থিত থাকে না, হার্ডওয়্যারের ক্ষেত্রে অসদৃশ। ব্রিটিশ কম্পিউটার বিজ্ঞান পথিকৃৎ এলান টুরিং (Alan Turing) হলেন প্রথম ব্যক্তি যিনি এই “সফটওয়্যার” শব্দটা উদ্ভাবন করেন।

এই মুহূর্তে আপনি যে অপারেটিং সিস্টেম চালাচ্ছেন সেটাও একটা সফটওয়্যার এবং এটা অপারেটিং সিস্টেমে অন্যান্য সফ্টওয়্যার ইনস্টল করার মত পরিবেশ তৈরি করে।

ADs by Techtunes ADs

আমি আগেই বলেছি যে, ডিভাইস ড্রাইভারও এক প্রকার সফ্টওয়্যার। এই ধরনের সফ্টওয়্যারগুলো এক বৃহৎ পুলে পরে যেটা সিস্টেম সফটওয়্যার নামে পরিচিত। ওগুলো সিস্টেম অপারেশনের জন্য বেশি অবশ্যক। এছাড়াও, ম্যালওয়্যার এক ধরনের সফ্টওয়্যার যেটাতে ভাইরাস, ট্রোজান, ওয়ার্ম, ইত্যাদির মত সাব-সেট অন্তর্ভূক্ত করা থাকে।

একটা উল্লেখযোগ্য পয়েন্ট হচ্ছে যে, এসব সফ্টওয়্যার হল একটা বিস্তৃত টার্ম। আর আমরা দৈনন্দিন ব্যবহারের সফ্টওয়্যার হিসাবে যেগুলেকে ব্যবহার করি সেগুলোকে আসলে অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার বলা হয়।

এই বিষয়শ্রেণীর অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে এন্টি ভাইরাস, ওয়ার্ড প্রসেসর, ওয়েব ব্রাউজার থেকে মাল্টিমিডিয়া এবং ভিডিও এডিটিং সফ্টওয়্যার পর্যন্ত। সংক্ষেপে বললে বলতে হয় যে, এগুলোকে কম্পিউটারের কিছু অ্যাপ্লিকেশন সঞ্চালনের কাজ করার জন্য ডিজাইন করা হয়।

শেষ কথা

এই টিউনটি পরে আপনাদের কেমন লাগল? আশা করি ভাল। নিচের টিউমেন্ট বাক্সে টিউমেন্ট করে জানাবেন। আপনাদের ভালো লাগা আর শেখাই তো আমার সার্থকতা। আর একটা কথা, আমার এস.এস.সি পরীক্ষা চলছে। সবাই আমার জন্য দো’আ করবেন। প্রযুক্তির টানে আর থাকতে পারি না তাই পরীক্ষার মাঝেও টিউন করতে ছুঁটে আসি। তাহলে সবাই ভালো থাকুন। আর হ্যা টিউনটি যথার্থ হলে নির্বাচিত টিউনে মনোনয়ন করুন। ধন্যবাদ…খোদা হাফেজ।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি তানভীর রানা রাব্বি। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 4 বছর 9 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 117 টি টিউন ও 248 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 2 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

প্রযুক্তির প্রতি একটু বেশি টান । শিখতে ভালোলাগে । গেম ডিজাইন করতে পছন্দ করি । কিন্তু অাড্ডা দিতে একটু বেশি পছন্দ করি ।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Thanks Onek kisu jante parlam

    আপনাদের জানানোই তো আমার সার্থকতা । অনেক বেশি অনুপ্ররণা পেলাম । এতে আমি আরো টিউন করতে উৎসাহিত হব । আপনাকে অনেক ধন্যবাদ ।