ফটোশপ জোনঃ( পর্বঃ ১৫- পেন্সিল তৈরি )

ফটোশপ জোন

বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই ? আবারো হাজির হলাম আপনাদের সামনে ফটোশপের নতুন টিপস নিয়ে। আজ দেখাবো, কিভাবে সহজেই একটি পেন্সিল তৈরি করা যায়। আজ ফটোশপ নিয়ে একটু ঘাটাঘাটি করতে গিয়েই ভাবলাম, একটি পেন্সিল তৈরি করে ফেলি। সাথে সাথে শেয়ার করে ফেললাম আপনাদের সাথে।

যেকোনো সাইজের(আমারটা ৮০০x৬০০ পিক্সেল) ডকুমেন্ট খুলুন।

নতুন লেয়ার তৈরি করে তাতে  Marquee tool দিয়ে নিচের মত সিলেকশান করুন এবং যেকোনো কালার দিয়ে ফিল করুন (অর্থাত আপনি যে কালারের পেন্সিল তৈরি করতে চান)

সিলেকশান ডিসিলেক্ট করুন ctrl+D প্রেস করে।

আরেকটি লেয়ার তৈরি করে তাতে     Polygonal  lasso tool  দিয়ে নিচের মত সিলেকশান তৈরি করুন এবং কাঠের রঙ বা কাঠের রঙের কাছাকাছি কোনো রঙ দিয়ে ফিল করুন।

এখন ctrl+T প্রেস করুন ফলে এটি ট্রান্সফর্ম মোড ধারণ করবে। ট্রান্সফর্ম মোডের ফ্রেমের উপর মাউস রেখে রাইট বাটন ক্লিক করে প্রাপ্ত মেনু থেকে perspective সিলেক্ট করুন নিচের মত।

এরপর ডানপাশের এঙ্কর পয়েন্টগুলো চেপে দিন নিচের মত (ডানপাশের নিচের এঙ্কর পয়েন্ট উপরের দিকে এবং ডানপাশের উপরের এঙ্কর পয়েন্ট নিচের দিকে চেপে দিন)

এবং enter প্রেস করুন।

। filter->noise->add noise কমান্ড দিন। একটি বক্স আসবে, তাতে নিচের মত মান নির্ধারণ করে ok  করুন।

আবার filter->blur->motion blur কমান্ড দিন। যে বক্স আসবে তাতে নিচের মান বসান এবং ok করুন।

এখন এই লেয়ারের blending option সিলেক্ট করুন। এর জন্য লেয়ার প্যালেটে এই লেয়ারে উপর মাউস রেখে ডান বাটনে ক্লিক করে যে মেনু পাবেন তা থেকে blending option সিলেক্ট করুন। নিচের মত বক্স পাবেন। তাতে gradient overlay অপশনে নিচের মত মান বসিয়ে ok করুন।

দেখুন,পেন্সিলটির হলুদ অংশটিকে এখন আরেকটু রিয়েলিস্টিক লাগছে।

আরেকটি লেয়ার তৈরি করুন।এই লেয়ারে নিচের মত marquee tool দিয়ে সিলেকশান তৈরি করে সাদা রঙ দিয়ে ফিল করুন।

Ctrl+D চেপে সিলেকশান ডিসিলেক্ট করুন।

Filter->blur->motion blur কমান্ড দিন। যে বক্স আসবে তাতে নিচের মত মান দিয়ে ok করুন।

এরপর এই লেয়ারের opacity কমিয়ে দিন নিচের মত। এক্ষেত্রে সামঞ্জস্যপূর্ণ যেকোনো মান দিতে পারেন।

ফলে পেন্সিলটি ত্রিকোণাকৃতির হবে।

আরেকটি নতুন লেয়ারে নিচের মত সিলেকশান তৈরি করুন(হলুদ অংশের উল্টোদিকে ) ও নিচের মত করে ফিল করুন।

এই লেয়ারেই আরেকটি সিলেকশান তৈরি করে নিচের মত করে হাল্কা গোলাপী টাইপের কালার দিয়ে ফিল করুন। এটি হবে পেন্সিলের রাবার।

সিলেকশান ডিসিলেক্ট করে এই লেয়ারের জন্য blending option সিলেক্ট করে নিচের মত মান নির্ধারণ করুন।

নিচের মত পাবেন

এখন elliptical marquee tool দিয়ে নিচের সিলেকশান তৈরি করুন। এরপর ctrl+shift+I প্রেস করে ইনভার্ট সিলেকশান করুন।

বাইরের অংশকে মুছে দিন নিচের মত

সিলেকশান ডিসিলেক্ট করে নতুন লেয়ার তৈরি করে তাতে পেন্সিলের মাথায় নিচের মত সিলেক্ট করুন এবং গাঢ় ধূসর কালার দিয়ে ফিল করুন

এই লেয়ারের blending option সিলেক্ট করে নিচের মত মান দিন।

এবার দেখুন


কেমন লাগলো জানাবেন। সবাইকে ধন্যবাদ।

Level 0

আমি MITHU। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 5 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 88 টি টিউন ও 1233 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 2 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

ভালো ..Tnx.

Level 0

mithu ভাই আপনার সবগুলো পোষ্ট জটিল….ধণ্যবাদ শেয়ার করার জন্য……..আপনার টিউটোরিয়াল এর সাথে simple file upload করে দিলে আরো ভাল হত মনে করি……আমার প্রস্তাবটা মাথায় রাখবেন বলে আশা রাখি। ধন্যবাদ….

    Level 0

    ভাই,মাথায় রাখলাম। কিন্তু ভাই,আমি p6 ইউজ করি, এ দিয়ে আর কত করব বলেন। আপনি বোধ হয় মাঝের পর্ব থেকে আমার টিউটোরিয়াল দেখা শুরু করছেন,তাই বুঝতে পারছেন না। প্রথম পর্ব থেকে দেখা শুরু করেন, তাহলে আর বুঝতে অসুবিধা হবে না। কারণ প্রথম পর্ব থেকে আমি সব কিছুই আস্তে আস্তে সংক্ষেপে বর্ণনা করে আসছি। কারণ এত বিস্তারিত তো লেখা সম্ভব না।

Level New

ভাইয়া, আমি আপনার টিউটোরিয়াল এর পিডিএফ কপি আমার সাইটে রাখতে চাচ্ছি, আশাকরি আপনি অনুমতি দিবেন।

    Level 0

    ধন্যবাদ,ভাইয়া। তবে একটা ব্যাপার কি জানেন ? বাংলা টিউটোরিয়ালের বইয়ের কথা শুনলে অনেকে নাক সিটকায়। কেন জানেন? কারণ বেশির ভাগ বাংলা টিউটোরিয়াল বই ই অসম্পূর্ণ জ্ঞান নিয়ে পাব্লিশ হয়। আমার টিউটোরিয়ালের বইও তাই অসম্পূর্ণ আকারে প্রকাশ করতে চাচ্ছি না। তাই দয়া করে টিউটোরিয়াল গুলো শেষ করতে দিন। তারপরে অবশ্যই আর পাব্লিশ করার ব্যাপারে না করব না, ধন্যবাদ।

    Level New

    তবে ভাইয়া, আপনি প্রথম ১৫ টি পর্বের কপি রাখতে পারেন। এরপর আরো হলে সেটা আবার করা হবে…

    Level 0

    হুম,ভালো বলেছেন। তবে তার আগে আপনার ভেবে দেখুন, ফটো এডিটিং এর উপর আর কিছু লেখার মত বাকি আছে কিনা। আমার তো মনে হয় বাকি নেই, সেক্ষেত্রে আপনি একটি ছোট হ্যান্ডবুক আকারে শুধুমাত্র ফটো এডিটিং এর উপর লেখা ফটোশপের বই হিসেবে এটি বের করতে পারেন, তবে দয়া করে আমার নাম-ধাম সব অপরিবর্তিতভাবে উল্লেখ কইরেন। আর এক কপি আমাকেও দিয়েন। বইটির নাম দিবেন, "ফটো এডিটিং এ ফটোশপ"।

    Level 0

    মাঝখানের দু একটি পর্ব(ওয়ালপেপার তৈরি ও পানির ফোটা তৈরি) ফটো এডিটিং এর উপর করা হয় নাই,সে গুলো বাদ দিয়েন

    Level New

    mithu ভাই, কোন চিন্তা করবেন না, আগে বলেন আপনার নামের বাংলা স্পেলিং কী …

    Level 0

    এম এ কাইয়ূম মিঠু অথবা মিঠু এ কাইয়ূম। দেখুন,আমি আবারো বলছি , বইয়ের নামেই সবাই যেনো বুঝে যে, বইটা শুধু ফটো এডিটিং এর উপর লেখা, কেউ যেনো এটাকে ফটোশপে সবকিছু শেখার বই মনে না করে,কারণ এটা মনে করে বই ডাউনলোড করার পরে তারা যখন দেখবে এটা শুধু ফটো এডিটিং এর উপরে লেখা তখন তারা এটাকে অসম্পূর্ণ বই ভাববে। আর বইয়ের কভারটা আমি ডিজাইন করে দেব আপনাকে। আপনার মেইল এড্রেসটা দিন, আমি মেইল করে দেবো। আর আমাকেও বইয়ের এক কপি দিতে ভুলবেন না। 🙂

    Level New

    নাহ ভাইয়া, কোনো অসুবিধা নেই। আপনি কভার পেজ ডিজাইন করে দিন। আমার মেইল [email protected]

জটিল অনেক সুন্দর । ধন্যবাদ

    Level 0

    আপনাকেও ধন্যবাদ।

ভাই প্রথমে thanks.ভাই সপ্তাহে কম করে হলেও একটা টিউন করবেন photoshop নিয়ে।

    Level 0

    🙂 ইনশা আল্লাহ, চেষ্টা করব।

Joss!!!! Photoshop master! আপনার ধারাবাহিক টিউনগুলো পড়লে কোন বই কেনার প্রয়োজন পড়ে না। Really excellent!

    Level 0

    হা হা হা,শুনে ভালো লাগলো,ধন্যবাদ।

MITHU ভাই ফটশপ নিয়ে ধারবাহিক টিউন গুলু চালিয়ে যাওয়ার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ,
আর আপনার টিউন গুলু আমার কাজে লাগবে তাই অনুমতি দিলে আমি আমার ব্লগে প্রকাশ করতে পারি আপনার ঠিকানায়।

    Level 0

    আপনাকেও ধন্যবাদ। আপনার ব্লগ সাইটের নামটা জানতে পারি ?