মোবাইল কেন গরম হয় এবং গরম হলে কি করবেন?

টিউন বিভাগ টিউটোরিয়াল
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 6
এইচএসসি ২য় বর্ষ, জুমারবাড়ী আর্দশ ডিগ্রি কলেজ, গাইবান্ধা

বন্ধুরা আশা করি সকলেই ভালো আছেন। অনেকেরই মোবাইল ব্যবহারে একটি সমস্যা হলো ফোন গরম হয়ে যাওয়া। আজকে আমি আপনাদের বলবো, আপনার ফোনটি ঠিক কী কী কারণে গরম হয়ে যাচ্ছে এবং কিভাবে আপনার ফোনটি গরম হওয়ার হাত থেকে বাঁচাবেন।

আপনার মোবাইল ঠিক কি কারণে গরম হচ্ছে সেটি নিদিষ্ট করে বলা যায় না। তবে কেউ বলে থাকে তার ফোনে গেম খেললে সেটি অতিরিক্ত গরম হয়, আবার কেউ বলে যে ইন্টারনেট চালালে ফোনটি গরম হয়। পৃথিবীর সকল ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস গুলোই কিন্তু গরম হয়। সেটি হতে পারে কম কিংবা বেশি। সেক্ষেত্রে আপনার ফোনটিও কিন্তু গরম হওয়া স্বাভাবিক।

কি কি কারণে আপনার ফোনটি গরম হতে পারে?

আপনার মোবাইল ফোনটি অনেক কারণে গরম হতে পারে। যেসব কারণে আপনার ফোনটি গরম হতে পারে তার কয়েকটি কারণ নিচে দেওয়া হলো।

১. আপনার ফোনের দুর্বল প্রসেসরের কারণে

আপনার ফোনটি গরম হওয়ার পেছনে কিন্তু আপনার ফোনটির প্রসেসর দ্বায়ী হতে পারে। আপনি যে কাজই করুন না কেন সেটি কিন্তু প্রসেসর এর মাধ্যমেই সম্পাদন হয়। আপনি আপনার ফোনে যে কাজই করুন না কেন, সেটি কিন্তু প্রসেসর এর মাধ্যমে আপনার সামনে প্রদর্শিত হয়। এক্ষেত্রে ফোনটি চালু অবস্থায় সর্বদাই প্রসেসর কাজ করতে থাকে।

কিন্তু প্রসেসরের ওপরেই যদি অতিরিক্ত চাপ পড়ে তাহলে কিন্তু প্রসেসর গরম হয়ে যাবে। আর প্রসেসর গরম হলে ফোনে অন্যান্য যন্ত্রাংশগুলো গুলো আস্তে আস্তে গরম হয়ে উঠবে এবং আপনার ডিভাইসটি গরম হয়ে যাবে। কাজের ভিত্তিতে ফোনের প্রসেসর টি গরম কিংবা ঠান্ডা থাকে। উদাহরণস্বরূপ আপনি যদি একটি অডিও চালু করে ফোনটি রেখে দেন তাহলে কিন্তু প্রসেসর এর ওপর তেমন কোনো চাপ পড়ে না। এক্ষেত্রে আপনার ফোনটিও গরম হয়না।

আপনার ফোনটি যদি অতিরিক্ত গরম হয়ে যায়, তাহলে আপনি সবসময় চেষ্টা করবেন একসঙ্গে অনেকগুলো অ্যাপ রান না করানোর। ব্যাকগ্রাউন্ডে যেসব অ্যাপ সমূহ চলছে সেগুলো মুছে দেওয়ার। এতে করে আপনারা ফোনের প্রসেসর এর ওপর চাপ কমবে এবং আপনার ফোনটি গরম হবে না। আপনি সবসময় মনে রাখবেন, আপনার ফোনের প্রসেসর যত বেশি কাজ সম্পাদন করবে তত বেশি হিট জেনারেট করবে এবং যত কম কাজ করবে তত কম হিট জেনারেট কম করবে।

অধিকাংশ মোবাইল গরম হয় মূলত হার্ডওয়্যার জনিত সমস্যার কারণে। এছাড়া সফটওয়্যার জনিত সমস্যা অনেক কম হয়ে থাকে। যেগুলো প্রতিবার আপডেটের পর আগের চাইতে উন্নতি করে দেওয়া হয়।

২. দুর্বল নেটওয়ার্কে ফোনে ইন্টারনেট চালালে

ফোন গরম হওয়ার আরেকটি কারণ হলো মোবাইলে দুর্বল নেটওয়ার্ক। অনেক সময় দেখা যায় যে মোবাইলে নেটওয়ার্ক কম থাকে। তখন কিন্তু আপনার নেটওয়ার্ক আইসি এবং প্রসেসর অতিরিক্ত চার্জ খরচ করে। আইসি সে ক্ষেত্রে নেটওয়ার্ক ধরে রাখার জন্য অনেক চার্জ খরচ করে এবং এর ফলে আপনার ফোনটি গরম হয়ে যায়।

তাই আপনি চেষ্টা করবেন সবসময় ভাল নেটওয়ার্কে থেকে ইন্টারনেট ব্রাউজ করার। সেক্ষেত্রে আপনার নেটওয়ার্ক আইসির উপর চাপ কমবে এবং আপনার ফোনটি গরম হওয়া থেকে বাঁচবে। এছাড়া দীর্ঘক্ষণ মোবাইলে ইন্টারনেট এবং ওয়াইফাই ব্যবহার করলে আপনার ফোনটি গরম হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৩. মোবাইলে ব্যাকগ্রাউন্ডে কোন অ্যাপ রান করালে

অনেককেই দেখা যায় মোবাইলের ব্যাকগ্রাউন্ডে অনেকগুলো অ্যাপ রান করায়। এক্ষেত্রেও ব্যাকগ্রাউন্ডে প্রসেসর ব্যবহার হওয়ার কারণে আপনার মোবাইলটি গরম হয়ে যায়। তাই আপনি যে অ্যাপটি বর্তমানে ব্যবহার করছেন সেটি রেখে বাকিগুলো ক্লোজ করে দিন। ফলে ব্যাকগ্রাউন্ডে সেই অ্যাপগুলো রান হবে না এবং আপনার ফোনটি ও গরম হবে না।

এছাড়াও আপনার ফোনের পারফরম্যান্স এর চেয়ে যদি কোনো বড় অ্যাপ মোবাইলে ইন্সটল করেন এবং ব্যবহার করেন, সেক্ষেত্রেও আপনার মোবাইল গরম হবে। আপনার ফোন যদি বেশি গরম হয়ে যায় আর আপনার ফোন যদি কম বাজেটের হয়ে থাকে তাহলে আপনি মোবাইলে লাইট অ্যাপ গুলো ব্যবহার করতে পারেন। যেমনঃ Facebook lite, Instagram lite, messenger lite ইত্যাদি।

অনেক অ্যাপ রয়েছে যেগুলো কোনো কাজ ছাড়াই ব্যাকগ্রাউন্ডে ব্যাটারি এবং প্রসেসর ব্যবহার করে থাকে। আপনি চাইলে সেসব অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ ডিলিট করে দিতে পারেন অথবা ডিসেবল করে দিতে পারেন।

৪. চার্জে দিয়ে মোবাইল ব্যবহার করলে

অনেকেই আছে যারা মোবাইল চার্জে দিয়ে ব্যবহার করে। মোবাইল চার্জে দিয়ে সেটি ব্যবহার না করাই ভালো। এর ফলে যেমন আপনার ফোনটি গরম হওয়ার হাত থেকে বাঁচবে, ঠিক তেমনি আপনার ব্যাটারির কোনো ক্ষতিও হবে না। মোবাইল চার্জে দিয়ে ব্যবহার করলে এর ফলে একসঙ্গে চার্জিং এবং ডিসচার্জ এর ফলে আপনার মোবাইল গরম হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই আপনি কখনোই মোবাইল চার্জে দিয়ে ব্যবহার করবেন না।

এছাড়া আপনি যদি রোদে মোবাইল রেখে দেন বা ব্যবহার করেন, সেক্ষেত্রে আপনার মোবাইলের ব্যাটারি অনেক বেশি খরচ হয় এবং আপনার ফোনটি গরম হয়। এছাড়া আপনার খারাপ ব্যাটারি, চার্জার এবং মোবাইলের কোনো হার্ডওয়্যারের সমস্যা হলে মোবাইল গরম হতে পারে। আপনার ফোনে ওভার চার্জিং এর ফলেও কিন্তু ফোনটি গরম হয়।

৫. চার্জের সময় ব্যাক কভার ব্যবহার করলে

চার্জের সময় যদি আপনি ব্যাক কভার ব্যবহার করেন, তবে আপনার ফোনটি গরম হয়ে যেতে পারে। এছাড়া ব্যাক কভার থাকা অবস্থায় ফোনটি ব্যবহার করলে ফোনটি গরম হতে পারে। তাই আপনি চেষ্টা করবেন চার্জের সময় এবং মোবাইল বেশিক্ষণ ব্যবহারে ব্যাক কভার ব্যবহার না করার।

৬. ভাইরাস বা ম্যালওয়ার এর কারনে

আপনারা আপনাদের দৈনন্দিন কাজে অনেক অ্যাপ ইন্সটল করে থাকেন। সেসব অ্যাপের মধ্যে যদি ভাইরাস কিংবা ম্যালওয়্যার থাকে তাহলে আপনার ফোনে অনেক সমস্যা হতে পারে। যদি আপনার ফোনে কোনো ম্যালওয়্যার থাকে তাহলে ফোনটি গরম হয়ে যাওয়ার জন্য এটিই দ্বায়ী।

তাই আপনি আপনার ফোনকে ম্যালওয়্যার থেকে বাঁচাতে সবসময় গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করবেন এবং সর্বদা অ্যাপগুলো আপডেট করে নিবেন। আপনি কখনোই প্লে স্টোর ব্যতিত অন্য কোনো সোর্স থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করবেন না। গুগল প্লে স্টোর অ্যাপ ডাউনলোড এর পরেও ফোনে ম্যালওয়্যার প্রবেশ করে। আর আপনি যদি অন্য উৎস থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করেন তাহলে তো কোনো কথাই নেই যে, আপনার ফোনে কি রকম ম্যালওয়্যার প্রবেশ করতে পারে।

মোবাইল বেশি গরম হলে করণীয়

আপনার মোবাইলটি যদি অত্যাধিক পরিমাণে গরম হয়, তবে আপনি মোবাইল রিপেয়ারিং এর দোকানে গিয়ে দেখাতে পারেন। মোবাইল অত্যাধিক গরম হয় মূলত আপনার মোবাইলের হার্ডওয়্যার এর কারণেই। আপনার মোবাইলটি যদি কম বাজেটের হয়ে থাকে তাহলে একটু গরম হওয়াই স্বাভাবিক।

আপনি সর্বশেষ চেষ্টা হিসেবে, আপনার ফোনটি রিসেট দিতে পারেন৷ এতে করে আপনার মোবাইলের সিস্টেম সেটিং গুলো আবার আগের মতো হয়ে যাবে। এরপর আপনি আপনার প্রয়োজনীয় কিছু অ্যাপ শুধু ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে ফোনটির প্রসেসর এবং হার্ডওয়্যারের উপর বেশি চাপ পড়বে না এবং আপনার ফোনটি গরম হবে না।

বন্ধুরা আজকের টিউনটি এখানেই শেষ করছি। দেখা হবে পরবর্তী টিউনে ইনশাআল্লাহ।

Level 6

আমি আতিকুর ইসলাম। এইচএসসি ২য় বর্ষ, জুমারবাড়ী আর্দশ ডিগ্রি কলেজ, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 5 মাস 1 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 99 টি টিউন ও 49 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 11 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।

মানুষ পৃথিবীতে জন্মগ্রহণ করে। তারপর কিছুদিন সুখ-দুঃখ ভোগ করে। তারপর মৃত্যুবরণ করে। এটাই মানুষের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস। আমিও সেরকম একজন


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস