ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

মাইক্রোসফট লুমিয়া ৯৫০ XL ফোনের রিভিউ, উইন্ডোজ ফোনের ধারাবাহিক টিউন পর্বের আজ প্রথম পর্ব

টেকটিউনস পরিবারের সবাইকে আমার আন্তরিক সালাম এবং শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি আমার আজকের টিউন মাইক্রোসফট লুমিয়া ৯৫০ XL ফোনের রিভিউ

ADs by Techtunes ADs

মাইক্রোসফট লুমিয়াটা কেনার কথা ভাবছিলাম অনেক দিন ধরে কিন্তু কিনব কিনব করেও কেনা হছিল না, অফিসের এক সহকর্মী কিনল দেখে চেয়েনিলাম ফোনটা, আগে দেখেনি কি আছে তারপর না হয় কেনা যাবে। কি দেখলাম সেটাই নিয়া বিস্তারিতভাবে রিভিউ লিখতে শুরু করলাম। অবশ্য ইউস না করে রিভিউ টিউন লেখা ঠিক হয়না তাই আগে অনেক টিউনার অনুরোধ করলেও রিভিউ টিউন লিখতে পারিনি, তাই সুযোগ পেলাম যখন লিখে ফেলাম; শুরু করলাম উইন্ডোজ ফোন নিয়া ধারাবাহিক টিউন পর্ব আজকের বিষয় মাইক্রোসফট লুমিয়া ৯৫০ XL ফোনের রিভিউ। যাহোক লুমিয়া কেনার প্লান ছিল কিন্তু অ্যান্ড্রয়েডটা হঠাৎ ছেড়ে উইন্ডোজ ফোন ব্যবহার করতে পারব কিনা সেটা আমি দেখতে চাইছিলাম। অ্যান্ড্রয়েডে মজা পাইনি বা ভাল লাগছিল না এরকম কোন কারণে নয় আবার মাইক্রোসফটে কর্মরত বলে উইন্ডোজ ফোন সেটাও নয়; নতুন কে ভালো লাগে আর আপডেটেড থাকতে খুব ভালো লাগে তাই।😛

আজকাল আমরা ফোন কিনলে যে সকল বৈশিষ্ট্যকে সর্ব প্রথম প্রাধান্য দিয়া থাকি সেই সব বৈশিষ্ট্যকেই চেক করে দেখলাম,

১। দেখতে কেমন আর কি অপারেটিং সিস্টেম আছে
২। ক্যামেরা কোয়ালিটি
৩। কানেকটিভিটি কেমন বা কি কি অপশন আছে
৪। আর ফোনের র‍্যাম ও ইনবিন্ড মেমোরি ম্যাক্সিমাম সাপোর্ট
৫। ফোনের প্রসেসর কেমন
৬। ইনবিন্ড অ্যাপ্লিকেশান
৭। ব্যাটারি ব্যাকআপ টাইম
৮। আর সব কিছু একসাথে কেমন আগের ফোনের থেকে

১। দেখতে কেমন আর কি অপারেটিং সিস্টেম আছে ?

দেখতে মোটামুটি ভালোই, নিচে ছবি দিলাম যেমন দেখতে, দুটি কালারে উপলব্ধ সাদা আর কালো, আর ফোনটিতে রয়েছে লেটেস্ট উইন্ডোস অপারেটিং সিস্টেম ১০

২। ক্যামেরা কোয়ালিটি?

ক্যামেরা কোয়ালিটি বেশ ভালো; মেন ক্যামেরা ২০ মেগা পিক্সেল সাথে ট্রিপল এলইডি ফ্ল্যাশ, সামনের ক্যামেরা ৫ মেগা পিক্সেল ফুল এইচডি সাপোর্ট। ক্যামেরার সকল বৈশিষ্ট্যগুলা নিচে দিলাম বিস্তারিত ভাবে -

প্রধান ক্যামেরা

প্রধান ক্যামেরা: ২০.০ এমপি
প্রধান ক্যামেরা ফোকাস টাইপ: অটোফোকাস
ক্যামেরা ডিজিটাল জুম: হ্যাঁ
ক্যামেরা অপটিক্স: ৬-লেন্স অপটিক্স
ক্যামেরা স্টেবিলিজেসন : অপটিক্যাল ইমেজ স্টেবিলিজেসন
ওভারসাম্পেললিং : হ্যাঁ
সেন্সর আকার: ১ /২.৪ ইঞ্চি
প্রধান ক্যামেরা f- সংখ্যা / অ্যাপারচার: অ্যাপারচার f / ১.৯
ক্যামেরা ফোকাস দৈর্ঘ্য: .২৬  মিমি
ফ্ল্যাশ টাইপ: ন্যাচারাল ফ্ল্যাশ
ক্যামেরা বৈশিষ্ট্য: ফাস্ট ইমেজ সেন্সর, ট্রু পিওরভিউ ১৬:৯ সেন্সর, ফাস্ট ফোকাস, উচ্চ রিসোলিউশনের জুম
ক্যামেরা সর্বনিম্ন ফোকাস পরিসীমা: ১০ সেমি

ফ্রন্ট ক্যামেরা

ফ্রন্ট ক্যামেরা: ফুল এইচডি ৫ মেগাপিক্সেল ওয়াইড এঙ্গেল
ফ্রন্ট ক্যামেরা f -নম্বর / অ্যাপারচার: অ্যাপারচার f / ২.৪
ফ্রন্ট ক্যামেরা ভিডিও রেজল্যুশন: ১০৮০p (ফুল এইচডি, ১৯২০x১০৮০)

ভিডিও রেকর্ডিং

প্রধান ক্যামেরা ভিডিও রেজল্যুশন: ৪K (আল্ট্রা এইচডি, ৩৮৪০x২১৬০)
ক্যামেরা ভিডিও ফ্রেম রেট: ৩০ FPS
ভিডিও রেকর্ডিং বৈশিষ্ট্য: চার মাইক্রোফোনের সাথে ভিডিও জুম, অপটিক্যাল ইমেজ স্স্টেবিলাইড, একটানা অটোফোকাস, ভিডিও আলো, লুমিয়া রিচ রেকর্ডিং
ভিডিও রেকর্ডিং ফরম্যাটের: আছে এমপি৪ / H.২৬৪

৩। কানেকটিভিটি কেমন বা কি কি অপশন আছে?

মাইক্রোসফট লুমিয়া ৯৫০ XL ফোনটি ৪জি সাপোর্টড ফোন, ডুয়াল ন্যানো সিম সাপোর্ট করে, চারজিং টাইপ অত্যাধুনিক ইউএসবি সি টাইপ, আর এভি কনেকটর ৩.৫ মিমি. অডিও পোর্ট ; বাকি সকল বৈশিষ্ট্যগুলা নিচে দিলাম বিস্তারিত ভাবেঃ-

ADs by Techtunes ADs

বেসিক কানেক্টিভিটি

সিম কার্ড টাইপ: ন্যানো সিম
ডুয়েল সিম: ডুয়েল স্ট্যান্ডবাই সিম
এভি কানেকটরগুলি হল : ৩.৫ মিমি স্টেরিও হেডসেট, ইউএসবি-সি এর ডিসপ্লেপোর্ট
চারজিং কানেকটর : ইউএসবি-সি টাইপ
সিস্টেম কানেকটর: ইউএসবি-সি টাইপ
ইউএসবি ক্লাস : ইউএসবি ৩.১ টাইপ, ইউএসবি ডুয়াল পোর্ট (Gen1)
ব্লুটুথ: ব্লুটুথ ৪.১
ওয়াই-ফাই: WLAN IEEE 802.11 a/b/g/n/ac, MIMO, Wi-Fi কল
ওয়াই-ফাই হটস্পট: ৮ ওয়াই ফাই ডিভাইসের পর্যন্ত কানেক্টিভিটি সাপোর্ট

সেলুলার কানেক্টিভিটি

জিএসএম নেটওয়ার্ক: ৮৫০ মেগাহার্জ, ৯০০ মেগাহার্টজ, ১৮০০ মেগাহার্টজ, ১৯০০ মেগাহার্টজ
জিএসএম সর্বোচ্চ ডেটা স্পীড ডাউনলোড: EGPRS ২৯৬,০ কেবিপিএস
জিএসএম সর্বোচ্চ ডেটা স্পীড আপলোড : EGPRS ২৩৮,৮ কেবিপিএস
WCDMA নেটওয়ার্ক: ব্যান্ড (২১০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড ২ (১৯০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড (১৭০০/২১০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড(৮৫০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড(৯০০ মেগাহার্টজ)
WCDMA সর্বোচ্চ ডেটা স্পীড ডাউনলোড: ৪২,২ এম বি পি এস (ক্যাটাগরি ২৪)
WCDMA সর্বোচ্চ ডেটা স্পীড আপলোড৫.৭৬ এম বি পি এস (ক্যাটাগরি ৬)
এলটিই এফডিডি নেটওয়ার্ক: ব্যান্ড (২১০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড ২ (১৯০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড (১৮০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড (১৭০০/২১০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড (৮৫০MHz), ব্যান্ড ৭ (২৬০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড( ৯০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড ১২ (৭০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড ১৭ (৭০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড ২০ (৮০০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড ২৮ (৭০০ মেগাহার্জ)
টিডি-এলটিই নেটওয়ার্ক: ব্যান্ড ৩৮ (২৫৭০-২৬২০ মেগাহার্টজ), ব্যান্ড ৪০ (২৩০০-২৪০০ মেগাহার্টজ)
এলটিই সর্বোচ্চ ডেটা স্পীড ডাউনলোড: ১৫০ এম বি পি এস (ক্যাটাগরি ৪)
এলটিই সর্বোচ্চ ডেটা স্পীড আপলোড: ৫০ এম বি পি এস (ক্যাটাগরি)

 

৪। আর ফোনের র‍্যাম ও ইনবিন্ড মেমোরি ম্যাক্সিমাম সাপোর্ট ?

৩ জিবি র‍্যাম, ইনবিন্ড মেমোরি ৩২ জিবি ম্যাক্সিমাম সাপোর্ট ২০০ জিবি ফোনটিকে একটি অন্য মাত্রা দেয়।

৫। ফোনের প্রসেসর কেমন ?

চিপসেট কোয়ালকম MSM8994 স্ন্যাপড্রাগন ৮১০ ও অকটা কোর সম্বলিত এই ফোনে কোয়াড কোর ১.৫ গিগাহার্টজ কর্টেক্স-A53 ও কোয়াড কোর ২.০ গিগাহার্টজ কর্টেক্স-A57 প্রসেসর আছে, যার ক্লক স্পীড ২০০০ মেগাহার্টজ এবং জিপিইউ অ্যাড্রিনো ৪৩০ টাইপ ; এইচডি মুভি বা গেম খেলার জন্য আদর্শ এই কনফিগারেশন।

৬। ইনবিন্ড অ্যাপ্লিকেশান গুলি কি কি?

ফোনটিতে উইন্ডোজ ১০ প্রিইন্সটল আর উইন্ডোজের অ্যাপ্লিকেশান গুলা এতে আগে থেকেই আছে যেমনঃ- নেভিগেসনের জন্য ম্যাপস, ফটোগ্রাফির জন্য ক্রিয়েটিভ স্টুডিয়ো,মিউজিক প্লেয়ার গ্রুভ মিউজিক আর মিক্স রেডিও, ফাইল ম্যানেজার, ইন্টারনেট ব্রাউজার: মাইক্রোসফট এজ,সোসাল অ্যাপ ফেসবুক, লিঙ্কডইন, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ, ওয়ানড্রাইভ আর উইন্ডোজ স্টোর থেকে প্রয়োজনীও অ্যাপ্লিকেশান ডাউনলোড কারার সুবিধা।

 

৭। ব্যাটারি ব্যাকআপ টাইম আর ব্যাটারি ডিটেলস ?

৩৩৪০ এমএএইচ ক্ষমতাসম্মন পরিবর্তনযোগ্য ব্যাটারি যার ভোল্টেজ ৩.৮৫ ভি,বিল্ট ইন ওয়্যারলেস চার্জিং, আধুনিক ইউএসবি সি টাইপ চারজিং পোর্ট, ফাস্ট চারজিং এর জন্য। বাকি সকল বৈশিষ্ট্যগুলা নিচে দিলাম বিস্তারিত ভাবে

পরিবর্তনযোগ্য ব্যাটারি: হ্যাঁ
ব্যাটারী ক্ষমতা: ৩৩৪০ mAh
ব্যাটারি ভোল্টেজ: ৩.৮৫ V
চার্জ: বিল্ট ইন ওয়্যারলেস চার্জিং,ফাস্ট চার্জিং ওয়্যারলেস চার্জিং মান: Q1
১২ দিনের সর্বোচ্চ স্ট্যান্ডবাই সময় (২G/৩G Network)
সর্বোচ্চ টকটাইম (২G Network):২৫ ঘণ্টা
সর্বোচ্চ টকটাইম (৩G Network): ১৯ ঘণ্টা
সর্বোচ্চ মিউজিক প্লেব্যাক সময়: ৭৫ ঘণ্টা
সর্বোচ্চ ভিডিও প্লেব্যাক সময়: ১১ ঘণ্টা
সর্বোচ্চ WI-Fi নেটওয়ার্ক ব্রাউজিং সময়: ১১ ঘণ্টা

ADs by Techtunes ADs

 

৮। আর সব কিছু একসাথে কেমন আগের ফোনের থেকে ?

আমার আগের ফোন ছিল নেক্সাস ৫ তার থেকে সাইজ তার থেকে একটু বড় আর পাতলা, LTE ডাউনলোড স্পীড বেশি ক্যাটাগরি ৬ এর অন্তর্গত বলে, ক্যামেরা কোয়ালিটি অনেক ভালো, মেমোরি স্লট ছিলনা, আইরিশ সেন্সর ছিল না। আগের ফোনে মাত্র কোয়াড কোর ছিল যেখানে ৯৫০ এক্সলে দুটি আলাদা কোয়াড কোর প্রসেসর আছে, আগের ফোনের চেয়ে তো অনেক ভালো,যদিও দামে একটা বিরাট পার্থক্য আছে। তবে প্লাসটিকের পরিবর্তনশীল ব্যাক কভার আমার মোটেও ভালো লাগেনি, এত দামি ফোনের সাথে অডিও হেডফোন নেই, দেখি, কি করা যায় এখন ভাবছি কিনব কি কিনব না, নয়া হয় আরো কয়েকটা দেখি, তারপর নয়া হয় কেনা যাবে। আর যত দেখবো তত রিভিউ লেখা যাবে, তাহলে না হয় আরো কয়েকটা উইন্ডোজ ফোন দেখি এক সাথে দুটোই হবে।

 

 

আমার ব্যক্তিগত মতামত

লুমিয়া ৯৫০ XL একটি বিগ বাজেটের ফোন। এর বর্তমান দাম ধরা হয়েছে ৮৭,২৮০ টাকা বাংলাদেশি মুদ্রাতে, সকল কর এবং ডিসপ্লে ডক, ওয়্যারলেস চার্জার, ৩.৫ মিমি. অডিও সেটের সাথে। অর্থাৎ এটি বেশ দামি ফোনও বলা যেতে পারে। ফোনটিতে মূলত আগের মাইক্রোসফট লুমিয়া উইন্ডোজ ফোনের আধুনিক ভার্সন বলতে পারেন। আগের ফোনের নরমাল ফিচারগুলিতো আছেই সাথে আরো নতুন বৈশিষ্ট্য আর সবচেয়ে আকর্ষণীয় ফিচারটি হল  পিওর ভিউ ক্যামেরা আর এটি উইন্ডোজ ১০ প্রিইন্সটলড ফোন, তাই একদম লেটেস্ট অপারেটিং সিস্টেম। লুমিয়া ৯৫০ এক্সেল রয়েছে ৫.৭ ইঞ্চি আমলেদ ডিসপ্লে। তাই যাদের বড় ডিসপ্লে ব্যবহার করে অভ্যাস তারা বেশ কমফোর্ট ফিল করবেন। আরো একটি ভালো দিকটি হল ডিসপ্লে সাইজ মাঝারি হলেও এটির রেজুলেশন ২৫৬০ x ১৪৪০ পিক্সেল। যা একটি ফোনের ডিসপ্লের জন্য অনেক বেশি। তাছাড়া এর Pixel Density ৫১৮ ppi যা মোটামুটি মানান সই। বড় ডিসপ্লে হওয়ায় ফোনটিতে এইচডি ভিডিও ও গেমিং এবং ইন্টারনেট ব্রাউজিং করে অনেক মজা পাবেন। ফোনটি ১৫১.৯ মিমি লম্বা ও ৭৮.৪ মিমি চওড়া, আর মাত্র ৮.১ মিমি. পাতলা। আর ওজন ১৬৫ গ্রাম। ৩৩৪০ mAh দীর্ঘ ব্যাটারি আর ৪ জি সাপোর্ট; স্লিম গঠন এবং হাল্কা রাউন্ডেড কর্ণার এর জন্য প্যান্টের পকেটে রাখতে পারবেন, যদি পকেট পারমিট করে মূল্য বিচারে।

শেষ করার আগে

অনুসরন করুন কিন্তু অনুকরণ করবেন না। যারা টিউমেন্টে তাদের অসুবিধার কথা বলেন তারা যেন পরে আর একবার টিউমেন্ট করেন, সাহায্য পেলে বা উপকৃত হলে। কারণ তাহলে জানা সম্ভব হয় যে সাহায্য করতে পারলাম কিনা। আপনাদের মতামত বা কোনো অনুরোধ থাকলে নির্দ্বিধায় টিউমেন্টে বলতে পারেন। তবে টিউমেন্টে বিজ্ঞাপন দিয়া নিজের পরিচয় প্রকাশ নিষ্প্রয়োজন। আমার এই টিউন যদি কারোর খারাপ লেগে থাকে তবে আমি একান্তই দুঃখিত।  গত কয়েকটি টিউনে টিউমেন্ট না করতে পারার জন্য আমি আন্তরিক ভাবে দুঃখিত। আমার কাউকে দুঃখিত করার কোনো প্রকার উদ্দেশা নেই। নির্বাচিত টিউন হওয়ার উপযুক্ত মনে হলে নির্বাচিত টিউন মনোনয়ন করতে পারেন। আর দয়া করে টেকটিউনকে সাপোর্ট, প্রমোট করুন, আর অবশ্যই নির্ভেজাল টিউন করে টেকটিউন পরিবারকে সমৃদ্ধ করুন।  খুব তাড়াতাড়ি ফিরছি আবার পরের টিউন নিয়া। ভালো থাকবেন, ভালো রাখবেন, আর প্রবেলম হলে আমিতো টেকটিউনে আছি।

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি অভিষেক হাজরা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 বছর 4 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 40 টি টিউন ও 445 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 13 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

আমি অভিষেক , মাইক্রোসফট টেক প্রসেস এ কর্মরত ; ভালো লাগে টেকটিউন কে ভালোবাসি বললে ভালো হয় , আর তাই বার বার ফিরে আসি। নতুন কে জানার টানে। নতুন কে জানানোর টানে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

”ভাবছিলাম অনেক দিন ধরে কিনবো কিন্তু কিনবো কিনবো করেও কেনা হছিল না“-

ভাইজান, গেটস্ দাদা বেতন ছাড়া আর কি কি ফ্রি’তে দেয় … লিস্টটা একটু নোটিশ বোর্ডে ঝোলাইতেন … 🙂

    সাইবার ঘোস্ট ভাই প্রথম টিউমেন্টের জন্য ধন্যবাদ,
    লিস্টটা আমি নোটিশ বোর্ডে ঝোলাইছিলাম কিন্তু,
    না-জানি কোন ভূত ভাইয়া সেটা নিয়া গিয়া নিজের বাসার দরজা করে নিয়াছে ( নিউজে দেখসি নাহলে জানতাম না )
    তাই আর নতুন করে দিলাম না, যদি এবার সাইবার ভূত 🙂 নিয়া যায়,

    ভালো থাকবেন, আর টেকটিউনের সাথে মেতে থাকুন প্রযুক্তির সুরে

মাইক্রোসফট লুমিয়া ৯৫০ XL ফোনটিতে কি OTG সাপোর্ট করে কিনা অনুগ্রহ করে জানাবেন, আর অনেক অনেক ভালো থাকবেন 🙂

রিভিও’র জন্য ধন্যবাদ দেব কিনা বুঝতে পারছিনা, এ ব্যাপারেও যদি কিছু জানাতেন 🙂

    সাইবার ঘোস্ট ভাই মাইক্রোসফট ৯৫০ এক্সল USB OTG সাপোর্ট করে যদি আপনি Type-C adapter ব্যবহার করেন,
    আর রিভিউ এর জন্য ধন্যবাদ দিতে হবে না সেটা আপনাদের প্রাপ্য।

    আবারো ধন্যবাদ টেকটিউনের সাথে থাকার জন্য। ভালো থাকবেন।

ধন্যবাদ ভাই।এই বিষয়টি টেকটিউনে উপেক্ষিত ছিল এতদিন।আমি Lumia 730, 535,435,540এবং 640xl ব্যবহার করেছি এবং এখন 540DS ব্যবহার করছি। সত্যিই লুমিয়া ফোনের ইউজার এক্সপেরিয়েন্স অসাধারন। আর এবারের MWC এ 6% টেক নির্মাতা তাদের প্রডাক্ট এনেছে windows OS এ তাদের মধ্যে Xiomi,HP,Alcatel এবং Mouse Computer অন্যতম।আর Europe এর মার্কেটে এবছরের শুরু থেকেই Windows mobile দারুন প্রভাব ফেলা শুরু করেছে। সর্বপরি দেখা যাক Windows Mobile এর ভাগ্যে কি অপেক্ষা করছে এবছর। আপনাকে আবারো ধন্যবাদ দিচ্ছি আর এ বিষয়ে টিউন চালিয়ে যাবেন।

    আবু সাঈদ ভাই টিউমেন্টের জন্য ধন্যবাদ,
    আপনার টিউমেন্ট এই টিউনটিকে অনেকটা সম্পূর্ণ করে, আর আগামিদিনে উইন্ডোজ ফোনের মেগা ধারাবাহিক টিউনে আপনার উপস্থিতি একান্তকাম্য;
    ভালো থাকবেন, আর টেকটিউনের সাথে মেতে থাকুন প্রযুক্তির সুরে।

      ধন্যবাদ ভাই আমি আছি, আপনি টিউন চালিয়ে যান।

সমস্যা হল , মাইক্রোসফট এর Store অতটা প্রসিদ্ধ না ।Android এর মত চাইলেই যা কিছু পাওয়া যায় না । সীমাবদ্ধতা গুলা তুলে ধরলে ভাল হত

    ভাই দরকারী সব অ্যাপিই এখন আছে শুধু মশা তাড়ানো,আংগুলের ছাপ দিয়ে বয়স বের করা,ব্লাড প্রেসার মাপা,ফু দিয়ে মোবাইল খোলা ইত্যাদি তেলেসমাতি অ্যাপ গুলা হয়তো মাইক্রোসফট্ স্টোরে পাবেন না।

    সুপ্রিয় সুদীপ ভাই আপনি সঠিক কথাই বলেছেন, যে উইন্ডোজ স্টোরে সব কিছু পাওয়া যায় না অ্যান্ডরয়েডের মতো;
    তবে উইন্ডোজ স্টোরে এখন আগের থেকে অনেক বেশি অ্যাপ্লিকেশান পাওয়া যায়।

    আর সীমাবদ্ধতা প্রসঙ্গে বলি এটা প্রথম পর্ব এর পরের পর্বের শুরু সীমাবদ্ধতা নিয়া আর তার জন্যই আবার আমার নতুন ফোনের খোঁজ আর দ্বিতীয় রিভিউের সুযোগ। আশা করি বিষয়টা বোঝাতে পারলাম।

    আর আগের মতো পাশে থাকার জন্য ধন্যবাদ।
    ভালো থাকবেন, আর টেকটিউনের সাথে মেতে থাকুন প্রযুক্তির সুরে।

নকিয়ার ফোন গুলো কেন এতো জনপ্রিয় হয়েছিলো জানেন নিশ্চয়ই! সহজ ইন্টারফেস যাতে সবাই সহজে ব্যবহার করতে পারে। কিন্তু মাইক্রো সফট অধিগ্রহন করার পরে, নকিয়া কে উইন্ডোজ বানিয়ে দিলো, এন্ড্রয়েড (UI) ইন্টারফেস যতটা সহজ উইন্ডোজ ফোন গুলোর ইন্টারফেস ততটা সহজ নয়। উইন্ডোজ ১০ যতটা সহজ করেছে পিসির ক্ষেত্রে মোবাইলের ক্ষেত্রে ততটা হয় নি আমার মনে হচ্ছে। অনেকেই আছে যারা আর কিছু ভালো বুঝুক বা না বুঝুক মোবাইল টা ভালো বুঝতে পারে। উইন্ডোজ ফোনের ফাংশন গুলো আর UI এই দিক থেকে উন্নয়ন আর সহজ করা জরুরী আমি মনে করি।

    ভাই আমার কাছে তো অ্যান্ডরয়েড এর থেকে IOS এর ইনটারফেস সহজ মনে হয়।এটি আসলে নির্ভর করছে ব্যবহারকারীর উপর।লুমিয়া 550 কিনে কয়েকদিন ব্যবহার করে দেখুন Windows OS জটিল না সহজ।

ki bolen vai lumia 950xl aar dam to 64000tk

    মেহেদি হাসান ভাই টিউমেন্টের জন্য ধন্যবাদ,
    আপনি ঠিকই বলছেন তবে, আমি দামটা ৩২ জিবি মডেল, আর ডিসপ্লে দক, ওয়্যারলেস চার্জার, এবং অডিও হেড সেট,ও কর নিয়া বলেছি, সেটা হয়ত আপনি ভালো করে দেখেনি।

    টিউমেন্টের জন্য আবারো ধন্যবাদ,
    ভালো থাকবেন,আর টেকটিউনের সাথে মেতে থাকুন প্রযুক্তির সুরে।

কায়েশ ভাই, আপনার মতামত দেওয়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ,
আচ্ছা বাড়ির সিনিয়র যারা আছে মানে ধরুন আব্বা বা আম্মি তারা কি অ্যান্ডরয়েড ফোন ব্যবহার করেতে পারে সহজে,
তাদের কাছে ওই আগের নোকিয়া ভালো মনে হয়, কিন্তু আপনি বা আমাদের কাছে খুব সহজ মনে হয়,
আসলে এটা নির্ভর করছে তার উপর যে সে কিভাবে নেবে বিষয়টাকে যদি কঠিন বলে ভেবে থাকেন তো কঠিন লাগবে, আর সহজ মনে করলে সহজ।
তবে এটা নির্দ্বিধায় বলতে পারি অ্যান্ডরয়েড অপারেটিং সিস্টেম আজ সবাই গ্রহন করেছে সহজ বলে,
দেখবেন আরো নতুন কিছু আসবে তখন দেখবেন মনে হবে অ্যান্ডরয়েডের (UI) ইন্টারফেসটা খুব জটিল ছিল।

তবে উইন্ডোজ (UI) ইন্টারফেসের কাজ চলছে সব সময়, আরো সহজ আরো আকর্ষণী কারার জন্য।

ভালো থাকবেন, আর টেকটিউনের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

আমি একজন উইন্ডোজ ফোন প্রেমি । আমি উইন্ডোজের প্রতি আসক্ত হয়েছি আজ দুই বছর ধরে । এই মডেলটির দাম হিসাবে ফিচারগুলি তেমন হাই না । কারন আই ফোন ৬ এর ৮ মেগাপিক্সেল এর কাছেও নেই এই লুমিয়ার ৯৫০ xl ।
আই ফোনে রয়েছে লেটেস্ট ফিচার হিসাবে ফিঙ্গার প্রিন্ট । কিন্তু ৮৭,২৮০ টাকার এই ফোনে তা নেই ।
আর কিছু সেন্সর এপ্স বানানো তাদের খুব প্রয়োজন । আমাকে কেউ উলটা মনে করবেন না । আমি এখনো উইন্ডোজ কে ভালোবাসি ।

    আপনি তাহলে HP Elite X3 মোবাইল সেটটি কিনতে পারেন। বিস্তারিত এখানে https://www.techtunes.co/mobileo/tune-id/425855

      এটার ফিচারগুলি সুন্দর লাগল । এই রকম ফিচার সাথে ব্যবহার যগ্য এপ্স । তাহলে আমরাই উইন্ডজ কে এগিয়ে নিতে পারব ।

ভাই মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ইমেইলটি দরকার ছিল। প্লিজ আমাকে শেয়ার করেন।

Level 0

dada, amar hand set ti microsoft lumia 950 ,ami kisu problem face korchi, jodi amk ek minute phone diten kritartho hotam, amar number 01761-758498.

jemon ami kono apps locker use korle seta die je app ti lock korchi setar destop icon ta lock hosse ar all program a gele seta unlock dekhacche,
ar amar apps bacup click korle setar progrece dekhacche na ba amar acoount a backup jasse na..
dada, ami ki windows phone theke androed a data transfer korte pari wifi dara?? plz janaben