ADs by Techtunes ADs
ADs by Techtunes ADs

অবশেষে রিলিজ হল উইন্ডোজ ১০ মোবাইল ভারশন।দেখে নিন নতুন কি কি থাকছে এতে।

অবশেষে ১৭ মার্চ,২০১৬ অর্থাৎ গতকাল মাইক্রোসফট প্রায় সব লুমিয়া ডিভাইস এর জন্য উইন্ডোজ ১০ মোবাইল অফিশিয়ালি রিলিজ করে।যদিও এই অফিশিয়াল আপডেট এর সাথে উইন্ডোজ ১০ মোবাইল এর লেটেস্ট প্রিভিউ বিল্ড ১০৫৮৬.১৬৪ এর কোন পার্থক্য নেই।কিন্তু প্রায় দীর্ঘ  ১ বছর এর টেস্টিং এর পরে পাবলিকলি রিলিজ হল উইন্ডোজ ১০ মোবাইল।মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ১০ মোবাইল রিলিজ করেছে অনেক নতুন ফিচারস এবং ইম্প্রুভমেন্ট এর সাথে।উইন্ডোজ ১০ মোবাইল এখন অনেকটাই প্রোডাক্টিভ।এবার দেখা যাক নতুন কি কি থাকছে এই উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে। 🙂

ADs by Techtunes ADs

 

নতুন স্টার্ট স্ক্রিন

উইন্ডোজ ১০ মোবাইল এর স্টার্ট স্ক্রিনে কিছু চেঞ্জ আনা হয়েছে।উইন্ডোজ ফোন ৮.১ এ আগে স্টার্ট স্ক্রিনের পেছনে নিজের ইচ্ছামত ব্যাকগ্রাউন্ড দেয়া যেত না।কিন্তু উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে এটা সম্ভব এবং একই সাথে আছে টাইলস ট্রান্সপিরেসি যার ফলে স্টার্ট স্ক্রিন এখন আগের থেকে অনেক স্মার্ট।

নতুন একশন সেন্টার

একশন সেন্টার অর্থাৎ যেটাকে আমরা নোটিফিকেশন বার বলি সেটাতেও কিছু চেঞ্জ আনা হয়েছে।আগে উইন্ডোজ ফোনে একশন সেন্টারে ৪ টির বেশি কুইক একশন বাটন রাখা যেত না,কিন্তু  এখন একশন সেন্টারের বাটনগুলা সুবিধামত এক্সপান্ড করা যাবে, অর্থাৎ ১৫ টিরও বেশি কুইক একশন বাটন রাখা যাবে (উইন্ডোজ ১০ পিসির মত)।

ইন্টারএকটিভ নোটিফিকেশনস

উইন্ডোজ ১০ এ আপনার মোবাইলে আশা প্রত্যেকটি নোটিফিকেশনে আপনি আলাদা আলাদাভাবে একশন নিতে পারবেন (যদি যে অ্যাপ থেকে নোটিফিকেশন এসেছে ওই অ্যাপটি টা এলাউ করে)।সাধারনভাবে আপনি যেকোনো মেসেজ এবং ইমেইল এর রিপ্লাই এবং ফেসবুকে টিউমেন্ট এর রিপ্লাই আপনার নোটিফিকেশন বার অর্থাৎ অ্যাকশান সেন্টার থেকেই দিতে পারবেন।নতুন করে অ্যাপ লঞ্চ করতে হবে না।

 

 

ADs by Techtunes ADs

নতুন কিবোর্ড

উইন্ডোজ ফোন এর ডিফল্ট কিবোর্ড আগে থেকেই অন্যান্য ওএস এর থেকে অনেক বেশি কমফোর্টেবল ছিল।উইন্ডোজ ১০ এ এই কিবোর্ডকে আরও একটু উন্নত করা হয়েছে এবং নতুন কয়েকটি ফিচার যোগ করা হয়েছে।ওয়ার্ড ফ্লো ফিচারের সাথে আরো থাকছে ভয়েস এর সাহায্যে টাইপ করা।উল্লেখ্য, উইন্ডোজ ফোন এর ভয়েস রিকগনাইজেশন অন্যান্য ফোন এর থেকে অনেক উন্নত।এছাড়া কিবোর্ডে নতুন একটা বাটন যোগ করা হয়েছে যার সাহায্যে আপনি টাইপিং কারসরকে ইচ্ছামত নেভিগেট করতে পারবেন। এছাড়া বাংলা ফোনেটিক কিবোর্ড তো থাকছেই।

 

 

ওয়ান হ্যান্ডেড মোড

বড় স্ক্রিনের মোবাইলগুলো যাতে সহজে এক হাতে ইউজ করা যায় তাই অনেক মোবাইলেই এই ওয়ান হ্যান্ডেড মোড ফিচারটি দেয়া হয়।এর সাহায্যে মোবাইলটির স্ক্রিন ছোট হয়ে হাতের কাছে চলে আসে যাতে সহজেই টা এক হাতের আঙ্গুল দিয়ে ব্যবহার করা যায়।আগে এই ফিচারটি উইন্ডোজ ফোনে ছিল না,কিন্তু উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে এই ফিচারটি পাওয়া যাবে।

 

 

নতুন সেটিংস মেনু ইন্টারফেস

উইন্ডোজ ফোন ৮.১ এর সেটিংস মেনু ছিল অনেকটা এলোমেলো।সেটিংস্‌ এর কোথায় কি আছে তা খুজে পেতেই অনেকটা সময় চলে যেত।যদিও ৮.১ আপডেট ২ তে সেটিংস্‌ মেনু কিছুটা সাজানো গোছানো দেখা যায়।কিন্তু উইন্ডোজ ১০ এ  সেটিংস্‌ মেনুকে আরও বেশি সহজ করা হয়েছে এবং আরও ইম্প্রুভড ইন্টারফেস দেয়া হয়েছে।

ADs by Techtunes ADs

 

 

নতুন ইন্টারনেট ব্রউজার

মাইক্রোসফট এজ।আপনি যদি কোনদিন পিসিতে উইন্ডোজ ১০ ইউজ করে থাকেন তাহলে আপনি অবশ্যই এটার সাথে পরিচিত।এই ব্রাউজারটি ইউজ করার পরেও ভাল লাগেনি এমন মানুষ পাওয়া কঠিন।এটার সম্পর্কে তেমন বেশি কিছু বলার দরকার নাই।অসাধারন একটা ব্রাউজার।অধিকাংশ ইন্টারনেট ব্রাউজার এর থেকে ফাস্ট,ইন্টারফেসটাও অনেক ইজি,এছাড়া এক্সট্রা অনেক ফিচারসও আছে।উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে আপনি এই ব্রাউজারটির মোবাইল ভারশন পাবেন।

 

 

ইউনিভারসাল অ্যাপ স্টোর

উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে চলবে উইন্ডোজ ইউনিভারসাল অ্যাপস।ইউনিভারসাল অ্যাপস হচ্ছে সেই অ্যাপসগুলো যা উইন্ডোজ ১০ চালিত সব ধরনের ডিভাইসেই চলবে।ডেভেলপাররা অ্যাপস ডেভেলপ করবেন সমগ্র উইন্ডোজ প্লাটফর্ম এর জন্য যা কোন এক ধরনের ডিভাইস এর মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে না।অনেকেরই ধারনা উইন্ডোজ স্টোরে অ্যাপস এর সংখ্যা খুবই কম।ধারনাটা ৮০% ভুল।উইন্ডোজ স্টোরে আপনার প্রয়োজনীয় প্রায় সব অ্যাপসই পাবেন।বিশ্বাস না হলে একবার উইন্ডোজ স্টোর থেকে ঘুরে আসতে পারেন।উইন্ডোজ স্টোর প্রতিদিনই ইম্প্রুভ হচ্ছে।আর বর্তমানে উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে আইওএস অ্যাপস পোর্ট করা হচ্ছে।তাই ইউনিভারসাল অ্যাপস এর কোয়ালিটি নিয়ে চিন্তার কিছুই নাই।

 

 

ADs by Techtunes ADs

নতুন মেইল অ্যাপ

উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে থাকছে এখন পর্যন্ত সবথেকে উন্নত মেইল ক্লায়েন্ট Outlook Mail। এই মেইলটি ইউজ করতে হলে আপনার আউটলুক মেইলেই অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে তা না,যেকোনো মেইল অ্যাকাউন্টেই আপনি এই অ্যাপটি ইউজ করতে পারবেন।ইন্টারফেস,ইন্টারগ্রেশন,ফিচারস সব দিক থেকেই এটা অন্যান্য মেইল অ্যাপ এর থেকে অনেক এগিয়ে।এই অ্যাপে মেইল টাইপ করার সময়ও আপনি এমন কয়েকটি ফিচারস পাবেন যা সাধারনত অন্য কোন মেইল অ্যাপে পাবেন না।

 

 

স্কাইপ ইন্টারগ্রেশন

উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে আপনাকে স্কাইপ ইউজ করতে স্কাইপ এর অ্যাপ ইন্সটল করে রাখতে হবে না।স্কাইপ আপনার মেসেজিং অ্যাপ এর সাথে ইন্টারগ্রেটেড থাকবে।এই ফিচারটা দেয়া হয়েছে যাতে আপনি কখনও একটা স্কাইপ কলও মিস না করেন।উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে আপনি যেকোনো স্কাইপ মেসেজ এর রিপ্লাইও আপনার ডিফল্ট মেসেজিং অ্যাপ থেকে দিতে পারবেন।

 

 

ইউনিভারসাল অফিস অ্যাপস

 

উইন্ডোজ ফোন ৮.১ এ যদিও মাইক্রোসফট অফিস অ্যাপস ইউজ করা যেত, তবুও কিছু সীমাবদ্ধতা ছিল।ওয়ার্ড,এক্সেল,প্রেজেন্টেশন ইত্যাদি সবকিছু দেখতে পারা গেলেও ক্রিয়েট করার সময় সব ধরনের ফিচার পাওয়া যেত না।কিন্তু উইন্ডোজ ১০ এর ইউনিভারসাল ওয়ার্ড,এক্সেল,প্রেজেন্টেশন ইত্যাদি ক্রিয়েট করা এখন অনেক সহজ এবং ক্রিয়েট করার সময় প্রায় অধকাংসশ রিসোর্স ই পাওয়া যায়।মোটকথা, উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে অফিস প্রগ্রামে কাজ করার সময় আপনি অনেকটা পিসির অফিস অ্যাপস এর মত এক্সপেরিএন্স পাবেন।এছাড়া অফিস অ্যাপগুলার ইন্টারফেসও যথেষ্ট ইম্প্রুভড এবং সহজ।

ADs by Techtunes ADs

 

 

কন্টিনাম (Continuum)

এটা উইন্ডোজ ১০ চালিত হাই এন্ড ডিভাইস অর্থাৎ লুমিয়া ৯৫০ এবং লুমিয়া ৯৫০ এক্সএল এর ফিচার।উইন্ডোজ ১০ চালিত এই দুটি ডিভাইস মাইক্রোসফট ডিসপ্লে ডক এর সাহায্যে বা মিরাকাস্ট এর মাধ্যমে যেকোনো ডিসপ্লেতে কানেক্ট করলেই ডিসপ্লেটি উইন্ডোজ ১০ পিসিতে পরিনত হবে।মাউস এবং কিবোর্ড কানেক্ট করে এটাকে সহজেই পিসির মত  ব্যবহার করা যাবে।যদিও কিছু সীমাবদ্ধতা আছে,যেমন win32 অ্যাপস অর্থাৎ ডেস্কটপ অ্যাপস কন্টিনামে চলবে না।কিন্তু মেইল লেখা,টাইপ করা,ছবি বা ভিডিও দেখা ইত্তাতি কাজ খুব সহজেই করা যাবে এবং সিলেক্টেড কিছু ইউনিভারসাল অ্যাপসও চলবে।

 

কিভাবে আপডেট দিবেন

এছাড়াও আরও অনেক ফিচারস আছে উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে যা এখানে বলা হয় নি।সব ফিচারস মিলিয়ে উইন্ডোজ ১০ মোবাইলকে One of the most productive phones বলা যায়।এবার বলি কিভাবে আপনার লুমিয়াটি উইন্ডোজ ১০ এ আপগ্রেড করবেন।আপনি এই আপডেটটি সরাসরি উইন্ডোজ আপডেট অপশনে গেলে পাবেন না। আপডেটটা পেতে হলে এই অ্যাপটি আগে ডাউনলোড করবেন। এরপর অ্যাপটা ওপেন করে অ্যাপ এর থেকেই আপডেট চেক করবেন।যদি আপনার মোবাইল এর জন্য উইন্ডোজ ১০ আপগ্রেড এভেইলেবল হয় তাহলে ওই অ্যাপ থেকেই আপনি জানতে পারবেন এবং এরপরে সেটিংস থেকে সাধারনভাবে আপডেট দিতে পারবেন। আপডেট এর সাইজ সরবোচ্চ ৯০০ এমবি।

 

 

ADs by Techtunes ADs

 

ধন্যবাদ আমার টিউনটা ধৈর্য সহকারে পড়ার জন্য।কোনরকম প্রশ্ন থাকলে টিউনমেন্টে জানাতে পারেন এবং ফেসবুকেও মেসেজ দিতে পারেন। 🙂

 

 

 

 

 

 

 

ADs by Techtunes ADs

ADs by Techtunes ADs
Level 0

আমি সিয়াম একান্ত। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 10 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 40 টি টিউন ও 82 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 8 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমার নাম সিয়াম রউফ একান্ত। অনেকে সিয়াম নামে চেনে আবার অনেক একান্ত নামে। যাইহোক, পড়াশুনা একেবারেই ভাল লাগেনা আমার। ভাল লাগার মধ্যে দুইটা জিনিস , ফটোগ্রাফি আর প্রযুক্তি। এই প্রযুক্তির প্রতি ভাললাগা থেকেই টেকটিউন্স চেনা এবং টেকটিউন্সে আইডি খোলা। দেখা যাক কতদূর কি করা যায়......


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

কিনলে পস্তাবেন এই টুকুই শুধু বলতে পারি । Windows Smart Phone ব্যবহার করার অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, বাংলাদেশ এর প্রেক্ষাপটে এই টা ব্যবহার করে শান্তি পাবেন না , যেমনটা পান Android অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে । আর সাথে তো ডাকাত Windows Market আছেই । খুব বেশিদিন নেই, Windows অপারেটিং এর দিন শেষ 🙂

    আপনার পারসোনাল মতামত আপনি নিশ্চই অন্যদের উপর চাপাতে পারেন না, তাই না?আপনার ভাল লাগে নি,তাই বলে অন্য কারো ভাল লাগবে না আপনি সিওর হলেন কিভাবে? আর উইন্ডোজ স্টোরকে আপনার কোনদিক থেকে ডাকাত মনে হয়?আর মিয়া, Windows অপারেটিং সিস্টেম মানে বুঝেন?তো আপনি নিশ্চই পিসিতে এন্ড্রইড ওএস ইউজ করেন না।সো, উইন্ডোজ এর দিন শেষ হলে আপনি তাহলে পিসিতে উইন্ডোজ ইউজ করা বন্ধ করে দেবেন?

      দেখেন ভাইয়া ,

      শুধুমাত্র টিউন করেই তো আর এক টা কিছুকে ভাল প্রমাণিত করা যায় না !!! বরং , আপনি একটা কিনে ব্যবহার করে দেখেন । আর হ্যাঁ, এই খানে আমি আমার পারসোনাল মতামত অন্যদের উপর চাপালাম কি ভাবে ?? উল্টা পাল্টা কথা বলা বাদ দেন 🙂 । আর মতামত যদি না নেয়ার মানসিকতা আপনার নাই থাকে তবে Comment বক্স টা Close এ রাখলেই পারতেন । কেননা , Techtunes এর তো আপনি Admin হয়ে যান নাই ?? কি বলেন ?? আর, অপারেটিং সিস্টেম এর মানে নিশ্চয়ই আপনার মত কারও কাছ থেকে আমাকে বুঝতে হবে না । ধন্যবাদ

        হাহা, হাঁসাইলেন ভাই। উইন্ডোজ স্টোর ডাকাত হলে উইন্ডোজ ইউস করবেন না বাট আপনার বাসায় গেলেও ত একটা উইন্ডোজ পিসি দেখা যাবে যেটা একই সিইও এর হাত ধরে এসেছে এবং একই ইউনিভারসাল স্টোর ইউস করে যা আপনি উইন্ডোজ মোবাইল এ পান। তাইলে পিসি টা ইউস বন্ধ করে দেন।
        হাহা, আপনার কি মনে হয় আপনি একাই উইন্ডোজ মোবাইল ইউস করেছেন আর আপনার একারই এক্সপেরিএন্স আছে? সিয়াম ভাই এত বর টিউন কি জীবনেও উইন্ডোজ মোবাইল ইউস না করেই লিখছে? তাইলে শুনে রাখে উনি বাংলাদেশ এর সবচেয়ে বড় উইন্ডোজ মোবাইল সম্পর্কিত গ্রুপ এর এডমিন।
        বাকিটা এর টিউমেন্ট এর রিপ্লাই পাওয়ার পর বলব।

          @নাফিউল ইসলাম

          উইন্ডোজ স্টোর আর উইন্ডোজ পিসি এর ভিতর কি সম্পর্ক দেখলেন ?? আপনার মতামত নিয়ে কি আমাকে পিসি ব্যবহার করা বন্ধ করতে হবে নাকি ?? গ্রুপ এর এডমিন ধুয়ে আপনি পানি খান । ধন্যবাদ 🙂

        জি, আমি উইন্ডোজ ফোন ইউজ করি বলেই টিউনটা লিখছি।আর আমি এতটা বোকা না যে, একটা জিনিস ইউজ না করে সেইটা নিয়ে টিউন লিখব।আর হ্যাঁ, আপনি নিজের পারসোনাল মতামত সবার উপর চাপাইছেন, আপনি বলছেন যে , ” এইটা চালায়ে মজা পাবেন না। ” আরে মিয়া, আপনি মজা পান নাই সেইটা বলেন।অন্য কেউ মজা পাবে কিনা সেটা তাদেরকে বুঝতে দিলেই ভাল হয় না? 🙂 কমেন্ট ক্লোজ করার বিষয় না, আমার কথা ১ টাই, আপনি কমেন্ট করেন যে টিউন ভাল লাগে নাই বা আপনি চালায়ে মজা পান নাই Thats ok. 🙂 কিন্তু কেউ চালায়ে মজা পাবে কি না সেইটা তো আর আপনি জেনে যান নাই তাই না?

    Windows অপারেটিং এর দিন শেষ কি না তা বলতে পারবো না। বাট আসল মজা উইন্ডোজ ফোনে পাওয়া যায় না। তারপরও এটা অনেকটাই ব্যবহারকারীর উপর নির্ভর করে।

      আমিও কিন্তু উনাকে এটাই বলতে চেয়েছি।আপনার পারসোনালি উইন্ডোজ ফোন ভাল নাই লাগতে পারে, কিন্তু তাই বলে আপনি সব মোবাইল ব্যাবহারকারির হয়ে মতামত দিতে পারেন না।কারন এটা ৯০% ই ইউজার এর উপর নির্ভর করে।যে যেভাবে ইউজ করে আর কি। 🙂

@সিয়াম একান্ত

আর আমি কি কমেন্ট করব তা কি আপনাকে বলে দিতে হবে নাকি ?? কথা এমনভাবে পেঁচানো আপনার একটা বদ অভ্যাস মনে হচ্ছে

    কি মিয়াঁ, পয়েন্ট থেকে সরে আসলেন কেন?আপনি কি কমেন্ট করবেন সেটা অবশ্যই আপনার ব্যাপার, কিন্তু আপনি ফাও ফাও উল্টা পাল্টা কমেন্ট করবেন এটা তো সবাই মেনে নিতে নাও পারে তাই না? আপনার কথা শুনে মনে হইল যে আপনি আসলেই একজন মনোবিজ্ঞানী।পৃথিবীর সব মানুষের পছন্দ অপছন্দ একাই জেনে বসে আছেন।যদিও টিউনমেন্ট করার নিয়ম কানুন দেয়া থাকে না,তবুও আমি মনে করি আপনার টিউনমেন্ট করার আগে একটা মিনিমাম শিক্ষার প্রয়োজন।অন্তত একই প্রসঙ্গে তো কথা বলতেই পারেন।আমি টিউন করলাম উইন্ডোজ ফোন নিয়ে,আর আপনি টেনে আনলেন এন্ড্রইড।কেন ভাই? আমি কি বলছি আপনার এন্ড্রইড খারাপ? নেক্সট টাইম জেনে বুঝে টিউনমেন্ট কইরেন। Make some sense. :/

      @সিয়াম একান্ত

      তোমার চুলকানি প্রচুর

        তো ভাইয়া, আপনার কি করলাম আমি?আমার যতদূর মনে পড়ে, আমি আপনাকে জীবনে প্রথম দেখলাম। 🙂 তো, আমার চুলকানি আছে কি না সেটা আমাকেই বুঝতে দেন।

@সাজিদ হাসান

আমি কারও কমেন্ট রিমুভ করি নি।

@নাফিউল ইসলাম

আপনাদের মত চাটুকার এর টেক টিউন্স এ অভাব নেই। সুদিপ ভাই তো কোন খারাপ কথা বলে নি ।সুদিপ ভাই বাদ দেন। এই সব টিউন এ শুধু শুধু আপনার অপমান করা হচ্ছে ।

    তো, টেকটিউনসে কে চাটুকার আর কে চাটুকার না সেইটা আমাদের জানতে হবে এমন একজন টিউনার এর কাছ থেকে যে টেকটিউনসে একটা টিউনও কোনদিন করে নাই। 🙂

    সুদীপ ভাই খারাপ কথা বলে নাই বাট অনেক ভুল কথা বলেছে। উইন্ডোজ মোবাইল আমাদের কাছে অনেক কিছু, আপানার প্রিয় জিনিস নিয়ে কিছু বললে আপনার যেমন লাগবে আমাদেরও উইন্ডোজ মোবাইল নিয়ে কিছু বললে তেমন লাগে। এটা হয়তো একটা অপারেটিং সিস্টেম বাদে কিছুই না, কিন্তু এইতা ছাড়া কেও ২ দিন থাকতে পারবে না।

@সিয়াম একান্ত, সাজিদ & নাফিউল ইসলাম

বিষয় টা অতি দীর্ঘ হয়ে যাচ্ছে । সিয়াম একান্ত হয়ত আমার কমেন্ট এ এমন কিছু পেয়েছে যেটা ভাল লাগেনি তার । আমি আর বিষয় টা কে ঘোলা করতে চাই না । এমন একটা তুচ্ছ বিষয় নিয়ে অনেক খানি সময় নষ্ট হয়ে গেল সবার । সাজিদ, আশা করি তুমিও বাদ দিবে বিষয় টা ।

    @সুদীপ সরকার
    ধন্যবাদ। সম্ভবত আমিও এরপরে আর রিপ্লাই দিতাম না। আসলেই একটা তুচ্ছ বিষয় নিয়ে এত তর্কাতর্কি নিরর্থক। ভাল থাকবেন। 🙂

ভাই আমার দেয়া সময়ের মধ্যেই কিন্ত Windows 10 রিলিজ হলো।আমাকে জানানোর কথা কিন্ত ভুলে গেছেন। আর অশেষ ধন্যবাদ Windows Phone সম্পর্কে টিউন করার জন্য।

    দুঃখিত :p । আশা করি আপনি উইন্ডোজ ১০ মোবাইল এর আপডেট ইন্সটল করতে পেরেছেন। 🙂

      জি ভাই গ্লোবালি রিলিজ হওয়ার পর আমি মনে হয় প্রথম বাংলাদেশী যে মোবাইলে Windows 10 update করেছে।Lumia 435 Update কমপ্লিট, এখন বাকি Lumia 640xl,730,540এবং535 আপডেট করা। কিন্ত ভাই Bangla Keyboard এ মনে হয় এখনো Bug আছে।Update চায় কিন্ত দিলে Error and try again দেখাচ্ছে । এর কি কোন সমাধান জানা আছে আপনার?

        ফোনেটিক কিবোর্ড ডাউনলোড করতে সমস্যা হলে আপনি আরেকবার উইন্ডোজ ইনসাইডার অ্যাপ এর সাহায্যে বিল্ড সিলেক্ট করবেন,রিস্টার্ট দরকার হলে রিস্টার্ট দিবেন।এরপরে আবার কিবোর্ড ডাউনলোড করবেন।ডাউনলোড হওয়ার সময় আপনি ফোন আপডেটে ২ এমবি এর একটা আপডেট পাবেন।আপডেটটা ইন্সটল করবেন।

      জি ভাই গ্লোবালি রিলিজ হওয়ার পর আমি মনে হয় প্রথম বাংলাদেশী যে মোবাইলে Windows 10 update করেছে।Lumia 435 Update কমপ্লিট, এখন বাকি Lumia 640xl,730,540এবং535 আপডেট করা। কিন্ত ভাই Bangla Keyboard এ মনে হয় এখনো Bug আছে।Update চায় কিন্ত দিলে Error and try again দেখাচ্ছে । এর কি কোন সমাধান জানা আছে আপনার?থাকলে জানাবেন।

২০১৩ সাল থেকে উইন্ডোজ ফোন ব্যবহার করেছি ২০১৫ পর্যন্ত। এই সময়ের ভেতর উইন্ডোজ ফোন এ অনেক কিছু পরিবর্তন হতে দেখেছি। এখানকার উইন্ডোজ ফোন আগের তুলনায় হাজার গুন ভালো। উইন্ডোজ মোবাইল ৭ বা ৮ দেখলে তো মাথা চুলকাতে শুরু করে। যাই হোক আমার মতে আপনি যদি একটু ভিন্ন স্বাদ নিতে পছন্দ করে থাকেন তবে উইন্ডোজ ফোন আপনার জন্য খুব ভালো হবে। কিন্তু আপনি যদি অগ্রসর ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তবে Android এর চেয়ে উত্তম কিছু নাই। আমি মানছি যে আমরা প্রায় সবাই পিসিতে উইন্ডোজ ব্যবহার করি। বাট পিসি এর উইন্ডোজ আর মোবাইল এর উইন্ডোজ রাত দিন তফাৎ আছে ভাই। ফোন এর দিক থেকে উইন্ডোজ এক স্থানে এবং Android আরেক স্থানে। Android অনেক এগিয়ে গেছে ভাই। তবে বাসিক ইউজার দের জন্য উইন্ডোজ ফোন ভালো।

    আমি ফোন ব্যাবহারের বাস্তব সুখ Android এ পেয়েছি। আমার আগের লুমিয়া ৯২০, ৫৩৫, ৬৪০ XL থেকে বর্তমান Nexus 6P বহুত ভালো।

      অনেকে বাস্তব সুখ iOS এ পাচ্ছে সামনে Windows Phone এ পাবে।এটা ডিপেন্ড করছে ইউজারের উপর।

      আমরা তো কখনই বলি না যে উইন্ডোজ আন্ড্রইড এর চেয়ে ভাল, বাট উইন্ডোজ আস্তে আস্তে এগোচ্ছে। ২০০৯ সালে আন্ড্রইড এর যেই অবস্থা ছিল সেইটা এখন উইন্ডোজ মোবাইলে। একদিন হবেই। তখন উবুন্টু আর উইন্ডোজ হবে বেস্ট মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম।

    টিউনমেন্ট এর জন্য ধন্যবাদ।আপনার মতামতটি ঠিক।কিন্তু উইন্ডোজ স্টোরকে কি ডাকাত মনে হয়? এই বিষয়ে আপনার মতামত কি? 🙂

      ভাই আমার টিউমেন্টস awaiting moderation এ রেখেছেন কেন? কোন ভুল লিখেছি নাকি বুজতে পারছি না!!!

      ডাকাত বলতে উনি কি বুঝিয়েছেন জানি না। তবে এটুকু বলবো যে Android এর মতো উইন্ডোজ স্টোর এতো বড় না হলেও প্রয়োজনীয় সব অ্যাপসই কিন্তু উইন্ডোজ স্টোর এ পাওয়া যায়। এবং এদের বেশির ভাগ অ্যাপসই কিন্তু ফ্রী। সুতরাং সমস্যার তো কিছু দেখি না। কিন্তু হাঁ আপনার ব্যাংক অ্যাপ কিংবা পছন্দের টিভি অ্যাপ হয়তো উইন্ডোজ স্টোর এ নেই তবে জনপ্রিয় প্রায় সব অ্যাপই কিন্তু রয়েছে।

        হ্যাঁ, আর এন্ড্রয়েড নিয়ে যেটা বললেন, আপনি জানেন কি না জানি না, উইন্ডোজ মোবাইল এর কয়েকটা ১ জিবি রেম এর ডিভাইস আছে যেগুলো পারফরমেন্স এর দিক থেকে অনেক ২ জিবি বা ৩ জিবি রেম এর এন্ড্রয়েডকে হার মানাতে সক্ষম। 🙂

          একমত! এবং সাথে সাথে উইন্ডোজ ফোন এ কোনো ভাইরাস বা মালওয়্যার ভয় নাই। এবং সব জাঙ্ক নিজেই পরিষ্কার করে, কোন তৃতীয় পক্ষ অ্যাপ এর বিন্দু মাত্র দরকার নাই।

আমি এন্ড্র‍য়েড ব্যবহার করি। তবে উইন্ডোজ মোবাইল চালানোর অভিজ্ঞতা থেকে এটা বলতে পারি, উইন্ডোজ ফোন ৭, ৮ এর চেয়ে উইন্ডোজ মোবাইল ১০ হাজারগুণে ভাল। মাইক্রোসফট উইন্ডোজ মোবাইলের যথাসম্ভব উন্নতি করার জন্য অনেক চেষ্টা করছে, কিছুটা তো ঘুরে দাঁড়াবেই। বেসিক ইউসের জন্য উইন্ডোজ ফোন চমৎকার। তবে এডভান্সড লেভেলের জন্য এন্ড্রয়েডের উপরে কিছু নাই। টিউনের জন্য ধন্যবাদ ভাই। 🙂

    একমত! আমিও ঠিক একই কথা বলতে চেয়েচি।

    টিউনমেন্ট এর জন্য ধন্যবাদ।হ্যাঁ, আপনার পারসোনাল মতামত থাকতেই পারে। 🙂 কিন্তু শুধুমাত্র বেসিক ইউজ না, নেট ব্রাউজিং এবং গেমিং পারফরমেন্স এর দিক থেকেও কিন্তু উইন্ডোজ ফোন অনেক উন্নত। 🙂

নেট ব্রাউজ করা বাসিক ইউজ এর ভেতরই পরে। নেট ব্রাউজিং এ সমস্যা না থাকলেও উইন্ডোজ ৮.১ এ কিন্তু ব্যাকগ্রাউন্ড ডাউনলোড করতে পারিনি আমি। ডাউনলোড লাগিয়ে অ্যাপ চুইচ করলেই ডাউনলোড আটকে যায়। আর গেমিং পারফরমেন্স লুমিয়া ৬৪০ এক্সেল এ ভালই পেয়েছি বাট আমার মনে হয় এন্ড্র‍য়েড বেশি ভালো। বড় বড় গেম গুলো উইন্ডোজ ফোনে একটু বেধে যায় লক্ষ্য করেছি। ৫৩৫, ৫৪০, ৬৪০ এক্সেল এর অভিজ্ঞতা থেকে বললাম। একই গেম ওয়ালটনে বেশি ভালো চলেছে। 🙂

    ব্যাকগ্রাউন্ড ডাউনলোড উইন্ডোজ ১০ মোবাইলে এখন সাপোর্টেড। Loadkit Download Manager এর সাহায্যে এখন সহজেই ব্যাকগ্রাউন্ড ডাউনলোড করা যায়। 🙂

    উইন্ডোজ মোবাইল তো প্রোডাক্টিভিটির জন্য। তবে গ্রাফিক্স অপ্টিমাইজেশন অনেক ভাল, একই স্পেক্স এর একটা আন্ড্রইড ফোনের চেয়ে এতে অনেক বেশি কিছু করা যায়।

অনেক ধন্যবাদ ভাই, এত বড় টিউনটি করার জন্য। অনেক কিছুই জানলাম।

উইন্ডোজ ১০ আমার দেখা সবচেয়ে সহজসাধ্যে ও অসাধারন একটা OS. কিন্তু ফোনের দিক থেকে উইন্ডোজ অতটা ভালো না।

টিউন পড়ে মনে হলো আস্তে আস্তে উইন্ডোজ আরো উন্নত হচ্ছে। এবং এক সময় এন্ড্রয়েড এর সাথে পাল্লা দিবেই ঠিক লিনাক্স vs উইন্ডোজের মত। 🙂 টিউনের জন্য ধন্যবাদ।

    টিউনমেন্ট এর জন্য ধন্যবাদ। 🙂 আপনার সাথে কিছুটা একমত।উইন্ডোজ খুব দ্রুত উন্নত হচ্ছে।যারা উইন্ডোজ মোবাইল কখনও ব্যাবহার না করেই এটার বদনাম করে তাদের আসলে মাইক্রোসফট সম্পর্কে কোন ধারনাই নেই।মাইক্রোসফট এর মত একটা কোম্পানি অবশ্যই জানে যে একটা ওএস কে সম্পূর্ণ করতে হলে কি করা প্রয়জন। এবং হ্যাঁ, আশা করা যায় কয়েক বছরের মধ্যেই এটা এন্ড্রইড এর সাথে পাল্লা দেয়ার উপযোগী হবে।

আমি তো বাংলা ফনেটিক চালু করতে পারলাম না। 🙁

ভাই আপডেট দিয়ে প্রবলেমে আছি, সেট হেং করে,গরম হয়ে যাচ্ছ, বাংলা কী বোর্ড নামতে পারছিনা!!!!

অবশেষে আমি এখন লুমিয়া ইউজার